এসো হাদিস পড়ি ?
এসো হাদিস পড়ি ?
হাদিস অনলাইন ?

আমাক ও কুসতুনতুনিয়া বিজয়

একটি আরবি শব্দ ডাবল ক্লিক করে তার অভিধান এন্ট্রি দেখায়
হাদিস - ১২৫০
বিশিষ্ট সাহাবী হযরত আব্দুল্লাহ ইবনে আমর ইবনুল আ’স রাযিঃ থেকে বর্ণিত, তিনি এরশাদ করেন, জনৈক শাসক রোমানদের শাসন ক্ষমতা গ্রহণ করবে। তাৎক্ষণিৎভাবে কেউ তার বিরোধিতা করবেনা এবং ভবিষ্যতেও এমন কোনো আশঙ্কা নেই। তিনি তার সৈন্যদেরকে নিয়ে সামনে অগ্রসর হতে হতে একটি এলাকায় কিছু দিনের জন্য ছাউনি ফেলবে। বর্ণনাকারী বলেন, গেইটের মধ্যে লেখা থাকবে, নিশ্চয় মুমিনদেরকে আদন এলাকা থেকে সাহায্য করা হবে যা তাদের উটের উপর প্রকাশ পাবে। এভাবে তারা চলতে থাকবে এবং দশজনকে হত্যা করবে। এভাবে চলতে গিয়ে তারা নিজেদের রসদপত্র থেকে ভক্ষণ করেছে এবং রাত্র ব্যতীত কোনো বস্তুই তাদের জন্য বাঁধা হয়নি। তাদের তীর, তলোয়ার কামান ইত্যাদি সর্বদা প্রস্তুত অবস্থায় থাকবে। এক পর্যায়ে আল্লাহ তাআলা তাদের উপর পরাজয় চাপিয়ে দিবেন। তখন এমন এক যুদ্ধ সংগঠিত হবে যা সাধারণতঃ দেখা যায়না, ভবিষ্যতেও দেখা যাবে কিনা সন্দেহ। অবস্থা এমন হবে যে, কোনো একটি পাখি তার ডানার সাহায্যে উড়তে থাকলে মৃত মানুষের দুর্গন্ধের কারণে মারা যাবে। সে দিনের শহীদদের জন্য দুটি অবস্থা হবে, একটি হচ্ছে, পূর্বে শাহাদাত বরণ করা শহীদদের মত হবে। অথবা সেদিন মুমিনদের জন্য এমন অবস্থা হবে যা পূর্বে অতিবাহিত হওয়া মুমিনদের ন্যায় হবে। তাদের আর কখনো আগমন হবেনা। আর অবশিষ্ট লোকজন দাজ্জালের সাথে মোকাবেলা করবে। উক্ত হাদীসের বর্ণনাকারী মুহাম্মদ ইবনে সীরিন রহঃ বলেন হযরত আব্দুল্লাহ ইবনে হাদীসটি বর্ণনা করতে গিয়ে বলতেন। যদি আমি উক্ত যুগ পর্যন্ত জীবিত থাকি, আর সে যুদ্ধে যোগ দেয়ার মত কোনো শক্তি আমার মাঝে মজুদ না থাকে তাহলে আমি একটি খাটিয়ার উপর রেখে সেটা বহন করে যুদ্ধে দু দলের ঠিক মাঝখানে রেখে দিবো।
মুহাম্মদ ইব্নে সীরিন রহঃ বলেন, হযরত কা’বে আহবার রহঃ বলতেন, আল্লাহর কসম! খ্রীস্টানদের মাঝে দুটি গণহত্যা হবে, তার একটি চলে গিয়েছে, অন্যটি এখনো বাকি আছে।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১২৫০ ]
___________________________________
নঈম বিন হাম্মাদ
আমাদের বলুন আব্দুল ওয়াহাব আবদুল হামিদ Althagafi 
আমাদের বলেছেন আইয়ুব Alschtiyanj মুহাম্মাদ ইবনে সীরীন বাধা বিন মার্কিন Althagafi 
আব্দুল্লাহ বিন 
আমর রা রোমান রাজা Aasouna বা সবে Aasouna কিছু Visser তাদের এমনকি নামেনা করার আছে তাদের 
জমি এর অমুক অমুক দিন বিস্মৃত , 
তিনি বলেন, এটি করা হয় লেখা দরজা বিশ্বাসীদের এডেন থেকে তাদের প্রদান 
Qlsathm Veceron Afiktthelon দশমাংশ উপর চিকিৎসা Abyan না তারা Adautkm একমাত্র খেয়ে তোমাদের মধ্যে মজুদ , 
কিন্তু রাত অক্লান্ত তলোয়ার Nchabhm না 
Naazkhm 
এবং আপনার মত যে 
সে নিজেকে ঈশ্বরের তোলে 
raws তাদের এবং বধ একটি মৃত্যু কমই তার মত দেখা যায় এবং তার মত দেখতে না যাতে পাখি পাস 
Bjunbathm তিনি শহীদদের জন্য তাদের বাতাসের দুর্গ থেকে মরে যাবেন, এন তাদের শহীদদের বা পূর্ববর্তীরা এমনই 
বিশ্বাসীদের যে তাদের পূর্ববর্তীরা গিয়েছিলাম দিন Akaflan , বিশ্বস্ত এবং বাকি ঝাঁকান না পুনরুত্থান এর তাদের 
সংগ্রাম খ্রীষ্টশত্রু
মোহাম্মদ বলেন Nbit আব্দুল্লাহ ইবনে সালাম বলেন, যে ধরা এবং বহাল 
আমার বিছানার উপর Vahmlona Tdaoh পর্যন্ত বাংলাদেশের মধ্যে 
মুহাম্মদ Nbit বলেছেন যে তিনি হবে বলে হিল এর 
ঈশ্বর 
মধ্যে Zbhan খ্রিস্টান 
গত Ohdehma এবং রয়ে অন্যান্য
হাদিস - ১২৫১
হযরত মাসলামা ইবনে আব্দুল মালিক রহঃ থেকে বর্ণিত, তিনি কুস্তুনতুনিয়া বা ইস্তাম্বুল নগরীতে পৌঁছলে একজন যুবক তার কাছে এগিয়ে আসে, যুবকটি পরনে উত্তম পোশাক এবং উন্নত মানের ঘোড়ার উপর সওয়ার। সে এসে বলল “আমি তাবারিস”।
তার কথা শুনে মাসলামা তাকে খুব সম্মান করলেন, তাকে কাছে টেনে নিলেন এরপর তাবারিস নামক লোকটি মুসলিম আররুমির কাছে পাঠিয়ে দিলেন। তিনি ছিলেন বনু সরওয়ানের একজন গোলাম, যাকে রোমনদের থেকে গ্রেফতার করে নিয়ে আসা হয়েছে। মুসলিম আর রুমিকে বলা হলো, এ লোকটি দাবি করছে সে নাকি ‘তাবারিছ’।
এ কথা শুনে সে বলে উঠল, লোকটি মারাত্মক মিথ্যাবাদি। আমি তাবারিসকে খুব ভালোভাবেই চিনি। সে যদি দশ হাজার লোকের মাঝেও হয় অবশ্যই আমি তাকে বের করে আনব। তাবারিস হচ্ছে, একজন মোটা প্রকৃতির লোক, প্রশস্ত কপাল বিশিষ্ট, তার দাঁতগুলো হবে খুবই বিশ্রিভাবে বের হওয়া। তার বয়স ষাট বৎসর হবে। পানি পান করার সময় দাঁতগুলো দৃশ্যায়ন হবে। আমরা আমাদের এলাকায় উট খাওয়া ছেড়ে দিলে সে বলবে আমাদের এলাকায় এসে যাও ইচ্ছামত উটের গোশ্ত খেতে পারবে। তার কথা শুনে বিশাল একদল সেদিকে এগিয়ে যাবে, ইতিপূর্বে সেই রকম হয়নি। তারা এসে আ’মাক নামক এলাকায় পৌঁছবে এবং মুসলমানরাও সেখানে পৌঁছে যাবে। তারা সাহায্য কামনা করলে ইয়ামানের পক্ষ থেকে সাহায্য এসে পৌঁছবে। যারা ইসলামের সাহায্য করবে এবং জাজিরা ও শামের খ্রীস্টানদেরকে সাহায্য করবে। মুসলমানরা খ্রীস্টানদের দিকে এগিয়ে তাদের কাছ থেকে সাহায্য সহযোগিতা উঠিয়ে নেয়া হবে আল্লাহ তাআলার পক্ষ থেকে তাদের উপর ধৈর্য্য নেমে আসবে। এ দিকে তারা একে অন্যের বিরুদ্ধে যুদ্ধাস্ত্র স্থাপন করে রাখবে। কারো সাথে তলোয়ার থাকলে তার কোনো ক্ষতি হবেনা তার নাক-কান কাটা যাবেনা, তার অবস্থান গোপন রাখতে হবেনা, বরং যেখানে ইচ্ছা সেখানে প্রকাশ্যভাবে চলাফেরা করতে পারবে। মুসলমানদের আরেকদল লাঞ্ছিত-অপদস্থ হয়ে ফেরৎ আসবে, যার কারণে তারা নি¤œস্তরে উপনীত হবে। জান্নাত তো কখনো দেখবেনা, জান্নাতে বাসিন্দাদেরকেও দেখবেনা। অন্য আরেকদল জান-প্রাণ দিয়ে যুদ্ধ করবে, তাদের উপর আল্লাহ তাআলার পক্ষ থেকে সাহায্য নেমে আসবে। সে সময় তারাই হবে জমিনের বুকে সর্বশেষ শহীদ। ইতিপূর্বে যারা অতিবাহিত হয়েছে কিংবা পরবর্তীতে আসবে তাদের থেকে এরা সত্তরগুণ সওয়াব বেশি প্রাপ্ত হবে। বাকি লোকদের জন্য সামান্যমাত্র প্রতিদান থাকবে। উভয় দল একত্রিত হলে ব্যক্তি ঝান্ডা উচিয়ে ধরবেন তাকে হত্যা করা হবে, অতঃপর আরেকজন, অতঃপর আরেকজন, এভাবে কিছুক্ষণ চলার পর কোঁকড়ানো চুলবিশিষ্ট জনৈক লোক ঝান্ডা ধারন করবে, যার কপালটি সামান্য বাঁকা প্রকৃতির হবে। তাকে আল্লাহ পাক বিজয়ী করবেন। এবং কাফেরদের হত্যা ও পরাজিত করবেন। তাদেরকে একজন লোক মুসলমানদের ঝান্ডা ধারনকারীর অনুসরন করবে, মূলতঃ সে ছিল কাফেরদের ঝান্ডাবাহক। যে ঝান্ডা সে ছাড়া আর কেউ বহন করেনি। এক পর্যায়ে তারা সমুদ্রের কাছে এসে পৌঁছবে, সেখানে পৌছে ওজু করতে গেলে তাদের কাছ থেকে পানি অনেক দূরে সরে যাবে। আবারো পানির কাছে গেলে পানি দূরে চলে যাবে। এ অবস্থা দেখে তার সওয়ারীর কাছে ফিরে আসবে এবং সমুদ্র পাড়ি দিয়ে দিবে। সমুদ্রের পানি তখন দুইভাগে বিভক্ত হয়ে যাবে, এক ভাগ তার ডান পার্শ্বে থাকবে, আরেকভাগ থাকবে বাম পার্শ্বে। এক পর্যায়ে সে তার সাথীদেরকে সমুদ্র পাড়ি দিতে নির্দেশ দিয়ে বলবে, আল্লাহ তাআলা তোমাদের জন্য সমুদ্রের বুকে পানিকে দুইভাগ করে রাস্তা করে দিয়েছেন, যেমন বনী ইসরাঈলের জন্য করা হয়েছিল। তারা সকলে একসাথে সমুদ্র পাড়ি দিবে। এরপর সমুদ্রের পার্শ্বে পরিস্কার এক স্থানে একটি ঝর্ণার আত্মপ্রকাশ হবে।
হাদীস বর্ণনাকারী আবু যুরআ বলেন, উক্ত ঝর্ণাটি আমি স্বচক্ষে দেখেছি এবং সে ঝর্ণা থেকে ওজুও করেছি। সেই পানি থেকে কেউ ওজু করলে সাথে সাথে দুই রাকাত নামাযও আদায় করে। ঐ ঝান্ডা বাহক তার সাথীদেরকে বলবে, এটা আল্লাহ তাআলার পক্ষ থেকে ইঙ্গিত দেয়া একটি বিষয়। একথা শুনার সাথে সাথে সকলে তাকবীর দিয়ে উঠবে এবং সে তাদেরকে আল্লাহ তা’রীফ ও তাহলীল করতে বললে সকলে সেটা বাস্তবায়ন করবে। এরপর বারটি বুরুজ তাদের দিকে হেলে মাটিতে পতিত হবে। সকলে সেখানে প্রবেশ করে তাদের যুবকদেরকে হত্যা করবে এবং গনীমতের মাল বন্টন করবে। সে এলাকাকে এমনভাবে পরিত্যক্ত অবস্থায় রেখে দিবে কখনো সেটা আর আবাদ হবেনা।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১২৫১ ]
___________________________________
নাঈম বিন হাম্মাদ - 1২51
আমাদের Damra ইয়াহিয়া ইবনে আবী বলুন 
আমর Alsabana 
থেকে মুসলিম ইবনে আবদুল মালেক যে, তিনি যখন হয় কনস্টান্টিনোপল এ স্থিত যেমন 
ব্যক্তি এসে একটি থেকে তরুণ ভাল পরিহিত মাউস পশু 
বলেন কাছে তাকে , আমি Tabars 
Vokrema এবং তার কাউন্সিলের কম 
এবং তার নৈকট্য এবং তারপর পাঠানো মুসলিম রুমি এবং হুজুর ছেলে এর মারওয়ান SPIE রোমান এই দাবিটি তিনি 
Tabars 
বলেন , থাকা যোগ্যতমের ঈশ্বর রাজকুমার আমি মানুষের Btabars মধ্যে Lucan জানেন দশ হাজার মধ্যে 
থেকে আছে Tabars মানুষ আদম কণা দায়িত্ব কুশ্রী দাঁত বের বের করে আনা এবং সূচিত ষাট বছর বয়সী রক্ত মদ্যপান 
পানি 
বলে কতদিন আমরা আমাদের দেশে ইটার উট ছেড়ে এবং আমাদের জমি খেতে উট আমাদের Sirois 
_ham 
তাকে Veceron বলেন 
যতক্ষণ পর্যন্ত তারা গভীর হত্তয়া এবং 
পৌঁছা পর্যন্ত তারা সব এ তার মত হাঁটা না 
মুসলমানরা হেঁটে এবং তার বাড়ী ভিস্টন পর্যন্ত তারা ইয়েমেনের শেষ পর্যন্ত ইসলাম সমর্থন করে এবং তাদের প্রসারিত করে
খ্রিস্টান , খ্রিস্টান এর দ্বীপ এবং লেভান্ট মুসলমানদের Visser তাদের উত্তোলিত বিজয় জন্য তাদের এবং ধৈর্য অবতরণ উপর 
তাদের ও লোহা আংশিকভাবে কিছু লোক একটি তলোয়ার না Ajda নাক হতে আঘাত না sheds হয় না 
তার জায়গায় থেকে Alsmassamh না করা হতে এটা কিছুই কিন্তু Abana এবং ফেরৎ একটি Almslemen Akhzlounam পরিসীমা 
মধ্যে Ivhabon এর যোনি পৃথিবী দেখতে না জান্নাতে এবং কখনও তাদের বাবা-মা এবং সম্প্রদায়ের বধ এবং ঈশ্বরের অবতরণ 
উপর বিজয় সম্প্রদায়ের হয় শেষ অবলম্বন মানুষ এর পৃথিবী যে দিনে শহীদ যাদের পুরস্কার এর যারা ছিল সত্তর শহীদদের 
তার অগ্রে ও বাকি এর Akaflan মজুরি , যদি তারা গ্রহণ মেট পতাকা মানুষ হবে বধ এবং তারপর অন্য করবে 
বধ এবং তারপর অন্য করবে এমনকি হত্যা নিতে একটি মানুষ এর আদম frizzy চুল কারণে Ogueny প্রর্দশিত ঈশ্বর তাকে 
হত্যা করেন এবং তাদের পরাজিত করেন অনুসরণ Vllahm একটি বন্দী আমি দেখেছি তাকে বহন দ্বারা পর্যন্ত অন্যদের থেকে শেষ উপসাগরীয় । 
তার বেশি বয়সের জন্য যদি উপসাগরীয় অযু উপলব্ধ করা হয় পানি অপসারী তাহলে Adnoa পানি অপসারী
থেকে তাকে , যদি তিনি deems এটা তার মাউন্ট Vokzha তারপর জাজ উপসাগরীয় ও পানি Frkabban অর্ধেক ফিরে এর তার ডান হাত 
এবং একটি থেকে অর্ধেক উত্তর ও তাঁর সাথীদেরকে উল্লেখ করেছিলেন যে, Ogizoa সর্বশক্তিমান ঈশ্বরের হয়েছে একটি পার্থক্য করতে আপনি সমুদ্র যেমন 
দল শিশু এর ইস্রায়েল গেলেন এটা আসে মধ্যে ধরনের যখন যে দিকে চার্চ উপসাগরীয় , 
বলেন আবু সেরহ ছিল আমি যে চক্ষু দেখেছি এবং তাদের চক্ষু তাজা তাদের wudoo এবং দুই প্রার্থনা করে wudoo করেনি 
ও তাঁর সাথীদেরকে বলছেন , এই ঈশ্বর অনুমোদিত পরাক্রমশালী Vkbroh এবং Hlloh এবং Ahmadoh করব tends 
মধ্যে বারো টাওয়ার এর যা পড়ে পৃথিবী Videchlunha দিন তাদের অজুহাত তাদের যুদ্ধ হত্যা ভাগ করে নেব 
লুণ্ঠন এবং নির্জনতা ছেড়ে কখনো বাঁচিয়া থাকা
হাদিস - ১২৫২
হযরত আব্দুল্লাহ ইব্্নে মাসউদ রাযিঃ থেকে বর্ণিত, তিনি রাসূলুল্লাহ সাঃ থেকে বর্ণনা করেন, রাসূলুল্লাহ সাঃ এরশাদ করেন, রোম এবং মুসলমানদের মাঝে একটি চুক্তি এবং সন্ধি স্বাক্ষরীত হবে। এরপরও তাদের কিছু দুশমনের সাথে যুদ্ধ সংগঠিত হবে এবং তারা তাদের গনীমতের মাল তাকসীম করবে। অতঃপর রোমানরা মুসলমানদের বিরুদ্ধে মারাত্মক যুদ্ধ করবে, যার কারণে তাদের মধ্যে যারা যুদ্ধ করার সামর্থ্য রাখে তাদেরকে হত্যা করা হবে এবং নারী-শিশুদেরকে বন্দি করা হবে। এক পর্যায়ে রোমানরা বলবে, তোমরা আমাদের জন্য গনীমতের সম্পদ বন্টন করো, যেমন তোমাদের জন্য আমরা যাবতীয় সম্পদ ও নারী শিশুকে বন্টন করেছ। এরপর রোমানরা বলবে, তোমাদের শিশুদের থেকে যা তোমরা প্রাপ্ত হয়েছ সেগুলো তোমাদের মাঝে বন্টন করে দাও। জবাবে মুসলমানরা বলবে, আমরা কখনো মুসলমানদের সন্তানদেরকে তোমাদের মাঝে বন্টন করতে পারিনা।
একথা শুনে তারা বলবে, তাহলে তোমরা আমাদের সাথে গাদ্দারী করেছ। অতঃপর তারা কুস্তুনতুনিয়া নগরীতে তাদের মূল স¤্রাটের কাছে ফিরে যাবে। গিয়ে বলবে, আরবরা আমাদের সাথে গাদ্দারী করেছে, অথচ আমরা সংখ্যায় তাদের থেকে অনেক বেশি এবং তাদের চেয়ে অস্ত্রশস্ত্রের দিক দিয়ে আমরা বেশি শক্তিশালি। আমি আমাদেরকে তাদের বিরুদ্ধে যুদ্ধ করার জন্য সাহায্য করুন। জবাবে সে বলবে, আমি তাদের সাথে গাদ্দারী করতে পারবোনা, দীর্ঘদিন থেকে বিভিন্ন যুদ্ধে তারাই আমাদের উপর জয়লাভ করেছে। অতঃপর তারা রোমানদের স¤্রাটের কাছে এসে বিস্তারিত আলোচনা করলে তিনি আশি প্লাটুন সৈন্য সমাগমের প্রতি মানোযোগ দেন,প্রত্যেক ঝান্ডা বা প্লাটুনে প্রায় বারো হাজার করে সামুদ্রিক সৈন্য থাকবে। এরপর সে তার সৈন্যদেরকে বলবে, যখন তোমরা শাম দেশের বন্দরে নোঙ্গর করবে তখন তোমাদের প্রতিটি বাহনকে জ্বালিয়ে দিবে, যাতে করে তোমরা আবার নিজেদের মধ্যে যুদ্ধে জড়িয়ে না যাও। তারা তাদের স¤্রাটের কথামত সবকাজ করবে ফলে শামের জল-স্থল উভয়ভাগ দখল করে নিবে। তবে দিমাশ্ক এবং আল-মু’তার শহরদ্বয় তাদের দখলমুক্ত থাকবে। ঐসময় বায়তুল মোকাদ্দাসকে বিরান ভূমিতে পরিণত করবে।
হযরত আব্দুল্লাহ ইবনে মাসউদ রাযিঃ বলেন, সে সময় দিমাশ্্ক নগরীতে মুসলমানদের স্থান সংকুলান হবে কিনা?
জবাবে রাসূলুল্লাহ সাঃ বলেন, কসম সেই সত্ত্বার যার হাতে আমার প্রাণ, দিমাশ্ক নগরীতে যেসব মুসলমানের আগমন হবে প্রত্যেকের সংকুলান হয়ে যাবে, যেমন বাচ্চাদানিতে শিশুর সংকুলান হয়ে যায়।
আব্দুল্লাহ ইব্্নে মাসউদ রাযিঃ বলেন, আমি রাসূলুল্লাহ সাঃ কে মু’তাক সম্বন্ধে জিজ্ঞাসা করলে রাসূলুল্লাাহ সাঃ জবাব দেন যে, আল-মু’তাক হচ্ছে, হিম্্সের নিকটবর্তী শামের সমুদ্রের পার্শ্বে একটি পাহাড়ের নাম । যাকে মূলতঃ আরনাত বলা হয়। মুসলমানদের সন্তানরা আল-মু’তাকের উচু স্থানে অবস্থান করবে। আর মুসলমানরা থাকবে আরনাতের সমুদ্রের নিকটে। আর মুশরিকরা থাকবে আরনাতের নদীর পিছনে। তারা একে অন্যের বিরুদ্ধে সকাল-সন্ধ্যা যুদ্ধ করতে থাকবে। কুস্তুনতুনিয়ার স¤্রাট এটা দেখতে পেলে তিনি ছয় লক্ষ সৈন্য নিয়ে কুনসারীনের স্থলভাগের দিকে মনোযোগী হয়ে উঠবে। এক পর্যায়ে সত্তর হাজারের বিশাল এক বাহিনী নিয়ে ইয়ামান থেকে এগিয়ে আসে। আল্লাহ তাআলা তাদের অন্তরকে ঈমানের আলোতে যেন আলোকিত করেন। তাদের সাথে হিমইয়ার নগরীর আরো চল্লিশ হাজার লোক যোগ দিবে। এক পর্যায়ে তারা বায়তুল মোকাদ্দাসে এসে পৌছুবে এবং রোমানদের সাথে যুদ্ধ সংগঠিত হলে তারা মারাত্মকভাবে পরাজিত হবে। তাদেরকে দলে দলে বের করে দেয়া হবে। তারা ঐ সময় কুনসারীন এসে পৌছবে এবং তাদের কাছে মাদ্দাতুল মাওয়ালী আসবে। আমি জিজ্ঞাসা করলাম মাদ্দাতুল মাওয়ালী কি জিনিস।
জবাবে রাসূলুল্লাহ সাঃ বলেন, তার হচ্ছেন, তোমাদের আযাদকৃত লোকজন,এবং তারা তোমাদের থেকে হবে। আরেক গোত্র পারস্যের দিক থেকে এগিয়ে আসবে এবং বলবে, হে আরবদল! তোমরা আমাদের বিপক্ষে স্বজনপ্রীতি দেখিয়েছ। আমরা কাউকে সহযোগিতা করতঃ দুই দলে বিভক্ত হবোনা। অথবা তোমাদের কালিমার সাথে ঐক্যমত পোষণ করব। অতঃপর তোমরা নাযার গোত্রের সাথে একদিন যুদ্ধ করবে, আবার একদিন যুদ্ধ করবে ইয়মানীদের সাথে। ইতিমধ্যে রোমানরা আ’মাক এলাকার দিকে যেতে থাকবে।
মুসলমানরা প্রসিদ্ধ একটি নদীর পার্শ্বে ছাউনি ফেলবে। অন্যদিকে মুশরিকগন রকবা নামক একটি নদীর কিনারায় অবস্থান করবে। যে নদীকে মূলতঃ কালো নদী বলা হয়। এক পর্যায়ে উভয়পক্ষ ভয়াবহ এক যুদ্ধে জড়িত হয়ে পড়বে। এদিকে আল্লাহ তা’আলা উভয়দল থেকে সাহায্য তুলে নিয়ে ধৈর্য্য ধারন করার সুযোগ দিবেন। যার কারণে মুসলমানদের এক তৃতীয়াংশ মৃত্যুবরণ করবে, অন্য এক তৃতীয়াংশ পলায়ন করিলেও আরেক তৃতীয়াংশ দৃঢ়তার সাথে যুদ্ধ করে যাবে। যে তৃতীয়াংশ মৃত্যুবরণ করেছে তারা একেকজন বদর যুদ্ধে শাহাদাত বরণকারী দশজনের মর্যাদার সমতুল্য হবে। বদর যুদ্ধের প্রত্যেক শহীদ কমপক্ষে সত্তর জনের জন্য সুপারিশ করবেন আর উক্ত যুদ্ধের শহীদগন সাত শত জনের জন্য সুপারিশ করবেন।
যে এক তৃতীয়াংশ পলায়ন করেছিল তারা আবার তিনভাগে বিভক্ত হয়ে যাবে। এক তৃতীয়াংশ রোমানদের সাথে মিশে গিয়ে বলবে, যদি আল্লাহ তাআলার কাছে এ দ্বীনের কোন প্রয়োজন হতো তাহলে অবশ্যই এদেরকে সাহায্য-সহযোগিতা করতেন। অথচ, তারা আরবদের সম্ভ্রান্ত মুসলমানদের অর্ন্তভুক্ত। অন্য এক তৃতীয়াংশ বলবে, আমাদের বাপ-দাদার অবস্থান রোমানদের থেকে অনেক উর্দ্ধে। যার কারণে রোমানরা আমাদের কাছেও পৌঁছতে পারবেনা। তারা বলবে, আমাদেরকে গ্রামে পৌঁছে দাও। তারা হবে সত্যিকারের আরবের বাসিন্দাদের অন্তর্ভুক্ত।
অন্য এক তৃতীয়াংশ বলবে, প্রত্যেক কিছু আল্লাহ তাআলার নাম এবং সিদ্ধান্তে হয়ে থাকে এবং শাম নগরীতে এক প্রকারের অকল্যাণ জড়িত। সুতরা আমরা সকলে ইরাক, ইয়ামান ও হেজাজ অভিমুখে চলে যাক, যেখানে রোমানদের পক্ষ থেকে আর কোনো আশঙ্কা থাকবেনা।
যে এক তৃতীয়াংশ দৃঢ়চিত্ত্বে ছিল, তারা পরস্পরের সাথে জড়ো হয়ে বলবে, হে আল্লাহ! তাদের থেকে স্বজনপ্রীতি দূর করে দিন, যেন সকলে আপনার কালিমার উপর অটল থাকতে পারে এবং আপনার শত্রুর বিরুদ্ধে যুদ্ধ করতে পারে। কেননা স্বজনপ্রীতি থাকা অবস্থায় আপনার পক্ষ থেকে সাহায্য পাওয়া যাবেনা। অতঃপর তারা সকলে জমায়েত হয়ে একথার উপর বাইয়াত গ্রহণ করবে যে, তাদের শহীদ হওয়া ভাইদের সাথে মিলিত হওয়ার পূর্ব পর্যন্ত যুদ্ধ করতে থাকবে। যখন রোমানরা মুসলমানদের আগমন দেখবে এবং তাদের কতক লোক মৃত্যুবরণ করাও উপলব্ধি করতে পারবে। একপর্যায়ে মুসলমানদের সংখ্যা স্বল্পতা দেখে জনৈক রোমান সৈন্য উভয় দলের মাঝখানে একটি লম্বা পতাকা হাতে দাড়িয়ে যাবে। পতাকাটির সাথে একটি ত্রুুশও সংযুক্ত থাকবে। উক্ত ত্রুুশকে উচু করে ধরে এমর্মে আওয়াজ দিয়ে উঠবে “ত্রুুশের জয় হয়েছে ত্রুুশের জয় হয়েছে”। এ অবস্থা দেখে মুসলমানদের এক মুজাহিদও একটি পতাকা হাতে উভয় দলের মাঝখানে এসে উচ্চস্বরে বলবে, “বরং আল্লাহর সৈনিকদের জয় হয়েছে, বরং আল্লাহ্ সৈনিকদের জয় হয়েছে”। কাফেরদের “ক্রুশের জয় হয়েছে” কথাটি শুনে আল্লাহ তাআলা কাফেরদের উপর খুবই রাগান্বীত হবেন, এবং ফেরেশতাদের সরদার হযরত জিবরাঈল আঃ কে বলবেন, হে জিবরাঈল আমার বান্দাদেরকে সাহায্য কর। একথা শুনে জিব্রাঈল আঃ এক লক্ষ ফেরেশতার বিশাল বাহিনী নিয়ে যুদ্ধের ময়দানে নেমে আসবেন, অতঃপর আল্লাহ তাআলা হযরত মিকাঈল আঃ কে বলবেন হে মিকাঈল! আমার বান্দাদেরকে সাহায্য কর। একথা শুনে হযরত মিকাইল আঃ দুই লক্ষ ফেরেশতার বিশাল সৈন্যবাহিনী নিয়ে দ্রুত গতিতে নেমে আসবেন অতঃপর আল্লাহ তাআলা বলবেন, হে ইসরাফিল! আমার বান্দাদেরকে সাহায্য কর। একথা শুনার সাথে সাথে হযরত ইসরাফিল আঃ তিন লক্ষ ফেরেশতার বিশাল বাহিনী নিয়ে নিচে নেমে আসবেন। আল্লাহ তাআলা মুসলমানদের আরো বিভিন্নভাবে সাহায্য-সহযোগিতা করলেও কাফেরদের উপর ক্রোধ প্রদর্শন করবেন। যার কারণ তারা অনেক সংখ্যক মারা পড়বে এবং পরাজিত হবে। বিজয়ী বেশে মুসলমানরা রোমানদের এলাকায় প্রবেশ করতে করতে অমৃরিয়্যাহ এলাকায় পৌঁছে সেখানের সীমানায় অনেক লোকের সমাগম দেখবে। যারা বলবে, এত অধিক সংখ্যক রোমান বাহিনী মারা পড়তে আমরা আর কখনো দেখিনি। এত নির্মমভাবে পরাজিত হওয়াও আর দেখা যায়নি। আর এ শহরে এবং এ শহরের সীমানায় এত বেশি লোকও কখনো দেখা যায়নি।
মুসলমানরা রোমানদেরকে ঈমান গ্রহণ করতে বলবে। না হয় জিযিয়া প্রদান করতে নির্দেশ দিবে। তারা জিযিয়া দিতে রাজি হলে রোমান এবং তার আশপাশের লোকজনের জন্য নিরাপত্ত্বা নিশ্চিত করা হয়। হঠাৎ করে সংবাদ পৌঁছবে, হে আরবদল! তোমাদের দেশে দাজ্জালের আবির্ভাব হয়েছে। অথচ সংবাদটি ডাহা মিথ্যা ছিল। এ খবর শুনে হাতের কাছে যার যা ছিল সবকিছু নিয়ে দাজ্জালের মোকাবেলা করতে এগিয়ে যায়। সেখানে পৌঁছে খবরটি মিথ্যা হিসেবে সাব্যস্থ হয়। এদিকে রোমানদের এলাকায় থাকা অবশিষ্ট মুসলমানদেরকে রোমানরা এমনভাবে হত্যা করবে, এক পর্যায়ে কোনো আরব নারী-পুরুষ কিছু ছেলে সন্তানকে রোম দেশে রাখেনি, বরং সবাইকে সমূলে হত্যা করেছে। এসংবাদ মুসলমানরা পাওয়ার সাথে আবারো তারা ফিরে আসবে। এদিকে আল্লাহ তা’আলা তার ক্রোধকে আবারো প্রকাশ করবেন,যার কারনে রোমানদের যুবকদেরকে হত্যা করা হবে এবং নারীÑশিশুদেরকে বন্দি করা হবে। এ যুদ্ধে অনেক গনীমতের মাল মুসলমানদের হস্তগত হবে। যে কোনো শহর কিংবা কেল্লায় মুসলমানগন হামলা করলে তিন দিনের ভিতরেই সেটা জয় করা সম্ভব হতো। প্রতিটা শহর-কেল্লা জয় করার পর মুসলমান সাগরের কিনারায় গিয়ে ছাউনি ফেলবে এবং সমুদ্রের প্রবাল জোয়ারের কারনে গোটা এলাকা প্লাবিত হয়ে যাবে। ইস্তাম্বুলের অধিবাসিরা এ অবস্থা অবলোকন করে বলবে, সমুদ্র আমাদেরকে যথেষ্ট জোয়ার দিয়েছে এবং মাসীহও আমাদের সাহায্যকারী। কিন্তু তাদের সকল আশাÑভরশা নিরাশায় পরিণত করে সকাল হওয়ার পূর্বেই সমুদ্র শুকিয়ে যায় এবং তার মধ্যে মুসলমানরা তাবু স্থাপন করে এবং ইস্তাম্বুলের নদীর উপর একটি ব্রীজ তৈরী করে। এদিকে জুমার রাত্রিতে মুসলমানরা কাফেরদের শহরকে তাহমীদ,তাকবীর ও তাহলীল দ্বারা সকাল পর্যন্ত অবরুদ্ধ করে রাখে। তাদের কেউ ঘুমানোর কিংবা বসার সুযোগ পায়নি। সকাল হওয়ার সাথে সাথে মুসলমানরা উচ্চস্বরে তাকবীর দিয়ে উঠলে দুই বুরুজের মাঝামাঝি এলাকা ধ্বসে পড়ে যায়। নিজেদের এ অবস্থা দেখে রোমানরা বলবে, এতদিন পর্যন্ত আমরা আরবদের বিরুদ্ধে যুদ্ধ করে আসছিলাম, বর্তমানে আমাদের প্রভুর বিরুদ্ধে যুদ্ধ করতে হবে। যেহেতু তিনি আমাদের শহরকে ধ্বসে দিয়েছেন এবং আমাদের এলাকাকে বিরান ভুমিতে পরিণত করেছেন। রোমানদের এলাকায় মুসলমানরা অবস্থান করতে থাকবে, ঢালের মাধ্যমে স্বর্ণকে ওজন দেয়া হবে এবং তাদের নারী ও শিশুদেরকে বন্টন করা হবে। তারা সংখ্যায় এত বেশি হবে, যার কারনে একজন পুরুষ তিনশত কুমারী নারীর মালিক হবে। তাদের হাতে থাকা প্রত্যেকটি বস্তু দ্বারা তারা উপকৃত হতে থাকবে। এরপর বাস্তবিকই দাজ্জালের আবির্ভাব হবে। ঐসময় কতক আল্লাহর ওলীর হাতে কুস্তুনতুনিয়া তথা ইস্তাম্বুল নগরীর জয় হবে। তারা এমন আল্লাহর ওলী যারা দীর্ঘদিন পর্যন্ত হায়াত পাবেন এবং আল্লাহ তাআলা তাদেরকে সুস্থ রাখবেন। এক পর্যায়ে সায়্যিদুনা হযরত ঈসা আঃ আগমন করলে তারা ঈসা আঃ এর সাথে দাজ্জালের বিরুদ্ধে যুদ্ধ করবেন।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১২৫২ ]
___________________________________
নঈম বিন হাম্মাদ
আমাদের আবু ওমর বলুন , মালিক এর থেকে আমাদের মানুষ এর বসরা , 
আমাদের বলেছেন আল থেকে তার বাবার কাছ থেকে Hiệp আব্দ ওয়াহাব বিন হুসাইন মুহাম্মদ ইবনে সাবেত পুত্র - হারেস আল - হামদানি 
থেকে 
হযরত আবদুল্লাহ ইবনে মাসউদ 
আল্লাহ পারে হতে সন্তুষ্ট সঙ্গে থেকে তাকে নবী , শান্তি হতে তার উপর তিনি বলেন করার মধ্যে হতে 
মুসলমান ও রোমান সাময়িক যুদ্ধবিরতি এবং পুনর্মিলন এমনকি তাদের সাথে যুদ্ধ তাদের শত্রু Viqasmonhm লুণ্ঠন এবং 
তারপর 
রোমানরা মুসলমানদের সঙ্গে আক্রমণ 
নাইট এবং 
হত্যা করা এবং তাদেরকে বন্দী যুদ্ধ , বলছেন রোমান উত্তরপুরূষ Qasmona 
Kasemnakm Viqasmonhm তহবিল হিসাবে জঞ্জাল এবং ফাঁদ প্রজাতির , 
রোমান Qasmona কি বলে 
Dhirarikm থেকে ন্যায়ত 
বলতে কোন Nkasemkm প্রজাতির Almslemen কখনো 
বলতে Gdrtm 
আমাদের Fterdja রাম করার 
কোম্পানী রাখে সঙ্গে কনস্টান্টিনোপল 
বলে আরবরা আমাদের সাথে বিশ্বাসঘাতকতা এবং আমরা হয় আরো কয়েক 
তাদের এবং করেনি একটি সংখ্যা এর তাদের এবং বিভিন্ন এর তাদের আরো শক্তি তাদের যুদ্ধ Vomdna
তিনি বলেন কি আপনি Agder তাদের 
হয়েছে জন্য তাদের কাছে এ ব্যাপা দৈর্ঘ্য এর অনন্তকাল আমরা 
আসবে 
মালিক এর রোমানদের 
Vijbrunh এইভাবে প্রস্তাব একটি আপস্ট্রিম 
খুব প্রতিটি খুব বারো হাজার অধীনে আশি সমুদ্র 
এবং বলে করতে তাদের কোম্পানী রাখে Rseetm যদি 
উপকূল শাম দগ্ধ নৌকা আছে যুদ্ধ নিজেদের জন্য 
এটা করব এবং নিতে জমি এর লেভান্ট 
সবাই Brha এবং সমুদ্র কি ব্যতীত জন্য শহর এর দামেস্ক ও vinegars এবং অন্তক পবিত্র ঘর , 
বলেন ইবনে বলেন 
মাসুদ এবং কিভাবে নয়টি দামেস্ক মুসলমানদের 
বলেন নবী , শান্তি তাকে এবং আমার উপর হতে 
হাতে Aotha মুসলমানদের Ttsan হিসেবে জরায়ু তে বিস্তৃতি ছেলে 
বলেছেন 
vinegars 
হে নবী এর আল্লাহ 
মাউন্ট বলেন জমি এর হোমস থেকে শাম নদী বলেন কাছে তাকে প্রজাতির Alornt হইবে 
এর সর্বোচ্চ মুসলিম এবং Arnt নদী এবং মুসলিম Arnt নদীর পিছনে মুশরিকদের মুসলমানদের
তাদের ফাইটিং মধ্যে সকাল ও সন্ধ্যায় । তাহলে আমি দেখতে যে 
মালিক এর কনস্টান্টিনোপল , 
মুখ এর মূল ভূখন্ড Guensrin করার 
ছয় লক্ষ 
এমনকি 
Etjem উপাদান ইমেন 
সত্তর হাজার হাজার আল্লাহ তাদের অন্তকরণ দ্বারা বিশ্বাস তাদের সঙ্গে চল্লিশ 
হাজার গাধার যতক্ষণ না তারা পবিত্র Viqatlon রোমান ঘর Versmonhm এবং তাদের জান্দ থেকে বহিস্কার করতে 
জান্দ যতক্ষণ না তারা Guensrin এবং 
Etjem প্রো নিবন্ধ 
বলেন আমি বললাম , ও 
কি উপাদান প্রো - 
হে আল্লাহর এর 
ঈশ্বর 
তারা Ataguetkm তারা হয় আপনি 
মানুষ ফারেস দ্বারা Ajaan 
Taspettm বলে [আমরা 

হে আরবরা Lançon সঙ্গে এক দুই দল অথবা দেখা আপনার শব্দ 
Vtqatl নিজার দিন ইমেন 
দিন ও প্রো - দিন Vijrgeon রাম পিছন মুসলমানদের উপর নেমে নদী হয় বলেন এটা তাই হয়
পাশাপাশি নিপীড়িত এবং এর মুশরিক নদী বলেন করার গলায় , একটি কালো নদী Viqatlonhm উত্তোলন করেন 
পিতল ঈশ্বরের বিজয় ও ধৈর্যের অবতরণ সঙ্গে এমনকি তাদের 
হত্যা মুসলমানদের তৃতীয় উইভার 
এক - তৃতীয় অবশেষ একটি তৃতীয় 
পারেন 
তৃতীয় এর নিহতদের 
Vshahydhm Khhbd দশের শহীদদের এর বদর মধ্যস্থতা জন্য 
এক শহীদদের এর বদর সত্তর 
এবং শহীদ মহাকাব্য সাত সুপারিশ এক শত 
এবং হয় একটি 
এক - তৃতীয় এর যারা করছে 
পালিয়ে , 
তারা হয় তিন তৃতীয়াংশ পৃথক একটি এর 
তৃতীয় এর 
wreaking গ্রীক 
এবং বলে যদি ঈশ্বরের এই ধর্ম ছিল 
এর তাদের বিজয় জন্য প্রয়োজন এবং মুসলমান 
আরবদের 
Bhza এবং Tnokh এবং টে এবং সাউন্ড , 
এবং একটি 
তৃতীয় 
বলে হোমস্ এর আমাদের পিতারা 
এবং পিতামহরা হয় ভাল 
Tnna না রোমানদের আমাদের কখনোই পাস বেদুইনরা কে 
বেদুইনরা 
এবং
এক - তৃতীয় 
বলে যে 
সবকিছু হয় তার নাম এবং জমি এর শাম যেমন তার নাম Banshee ইরাক, ইয়েমেন ও আমাদেরকে হাঁটুন হিজাজ যেখানে তিনি না 
ভীত এর রোমানদের 
এবং 
অবশিষ্ট তৃতীয় , 
কিছু কিছু বলতে আল্লাহ তোমাকে ডেকেছিলাম পদচারনা 
নার্ভ এবং পূরণ আপনার শব্দ এবং আপনার শত্রুদের যুদ্ধ , আপনি Tnasroa কি Taspettm Vigtmon সব করা হবে না 
এবং Itbaaon পর্যন্ত সংগ্রাম ধরা তাদের ভাই বন্ধুরা যখন হয়েছে নিহত 
যদি রোমানদের যারা করতে দেখেছি 
পরিণত হয়েছে থেকে তাদের এবং হত্যা করে এবং ব্যাখ্যা করা একটি দ্বারা সঙ্গে কয়েক মুসলিম রুমি সারি মধ্যে রয়েছে একটি আইটেম উপরে 
ক্রস পরাজিত propounds ক্রস আধিপত্য ক্রস যারা হইবে একটি বাংলাদেশের মধ্যে এবং আইটেম মুসলমানদের মানুষ 
কিন্তু আধিপত্য propounds সমর্থকদের এর ঈশ্বর , কিন্তু পরাজিত সমর্থকদের এর আল্লাহ ও তার উত্তরাধিকারী 
ঈশ্বর Vigill আসো যারা 
য়ে পরাজিত ক্রস থেকে কাফের বলেছেন হে জিব্রিল Ogt এবাদি মধ্যে নেমে জিব্রিল একটি শত হাজার 
ফেরেশতা
দুই লক্ষ ফেরেশতা হে মাইকেল Ogt এবাদি Vinhdr মাইকেল বলেছেন 
বলে হে ইস্রাফিল Ogt এবাদি Vinhdr ইসরাফিল মধ্যে তিনশত হাজার ফেরেশতা 
ঈশ্বর নেমে আসতে এর 
উপর বিজয় বিশ্বাসী এবং নিচে তাঁর পোশাক আসা কাফের এবং বধ পরাজিত 
এবং 
হাঁটা মুসলমানদের জমি এর 
রোমানদের 
যতক্ষণ না তারা 
Amuriyah 
এবং তার দেয়ালে অনেক বলে তৈরি কি আমরা ছাড়া আর কিছুই দেখেছি রোমানদের কিভাবে করতে 
আমাদের হত্যা এবং আমরা পরাজিত এবং সবচেয়ে এর এই শহরে এবং তার দেয়ালে তাদের 
Omnon বলতে আমরা যে 
আপনি রাজস্ব তারা নিরাপত্তা নেওয়া জন্য তাদের এবং সব উপর রোমানদের কর্মক্ষমতা এর রাজস্ব 
এবং তাদের পূরণ 
অবয়ব এবং বলে হে আরবরা যে 
খ্রীষ্টশত্রু 
তোমাদের বাসস্থানে Khalvkm পারে এবং সংবাদ হয় মিথ্যা , এটি ছিল 
সেই এর আপনি এটা তোলে অবশেষ কি কিছুই কম সঙ্গে আপনার জোর পায় খবর Vijrgeon বেশী খুঁজে 
অকার্যকর
আর 
কি থেকে তাদের দেশে রয়ে উপর নল রোমান আরবদের Afikthelonhm 
তাই যেমন না করতে থাকা জমি নিয়ে রোমান 
আরব ও আরব ও আরব সন্তান শুধুমাত্র নিহত 
পরিমাণে মুসলমানদের আবার আসবে মধ্যে রাগ করতে ঈশ্বর এবং 
যুদ্ধ হত্যা তাদের বন্দী বংশ এবং তহবিল 
উপর নেমে না শহর কিংবা একটি ওভার দুর্গ 
তাদের খোলার জন্য তিন দিন 
এবং নিচে যেতে উপসাগর এবং প্রসারিত উপসাগরীয় পর্যন্ত বন্যা হয়ে মানুষ এর 
কনস্টান্টিনোপল বলে ক্রস ডি আমাদের সাগর এবং খ্রীষ্ট Nasserna তাদের এবং ছাড়ার উপসাগরীয় কর্কশ Vtdharb মধ্যে 
যা Alokhbayh এবং 
বিপরীত কনস্টান্টিনোপল থেকে সমুদ্র 
মুসলমানদের বেষ্টিত 
শহর এর অবিশ্বাস 
শুক্রবার রাতে 
Balthamid জুম এবং আনন্দময় সকাল , 
কেউ এর তাঁরা ঘুমাচ্ছেন বা বসা । ভোর বৃদ্ধি করুন তাহলে 
জন্য মুসলমানদের Tkberp এক মধ্যে বৃক্ষের পতন দুই টাওয়ার , 
রোমান বলেছেন কিন্তু আমরা যুদ্ধ হয়েছে আরবরা
আর এখন আমরা যুদ্ধ আমাদের রব তাদের ধ্বংস করেছে করার তাদের নিজের হাতে এবং wielding সোনা আমাদের শহর এবং তাদের ছারখার Vimkthon 
Balotersh এবং ভাগ ভাগ পর্যন্ত সন্তান এর পুরুষদের এর যাদের তিনশত কুমারী এবং সহ ভোগ 
তাদের হাত কি ঈশ্বরের ইচ্ছা , 
তারপর খ্রীষ্টশত্রু সত্যিই আসা আউট 
এবং প্রর্দশিত ঈশ্বর এর এ কনস্টান্টিনোপল হাত এর ভাবেন হয় 
অভিভাবকদের এর ঈশ্বর , ঈশ্বর তাদের মৃত্যু, রোগ এবং অসুস্থতা এমনকি উত্থাপন তাদের উপর ঈসা ইবনে মরিয়ম 
শান্তি তার উপর নির্ভর করে এবং তার সাথে Dajjal যুদ্ধ
হাদিস - ১২৫৩
হযরত কা’বে আহবার রহঃ থেকে বর্ণিত, তিনি বলেন, রোম বিজয় হওয়ার পর সমুদ্রে আর কখনো জাহাজ চলবেনা। এর পর হযরত কা’ব রহঃ বলেন, আ’মাক এলাকার যুদ্ধ যাবতীয় ফিৎনার অন্তর্ভুক্ত। কেননা, তিনটি গোত্র পুরোপুরিভাবে তাদের প্রজাসহ কাফেরদের অন্তর্ভুক্ত হয়ে যাবে। হাম্রা গোত্রের মাঝে মারাত্মকভাবে বিশৃঙ্খলা দেখা দিবে এবং তারাও কাফেরদের দলভুক্ত হয়ে যাবে।
হযরত কা’ব রহঃ আরো বলেন,যদি তিনটি বিষয় না হতো তাহলে আমি এক মুহুর্তও জীবিত থাকা পছন্দ করতামনা। প্রথম হচ্ছে, আরবদের থেকে লুণ্ঠন করা। কেননা এর দ্বারা তাদের অনেকে নিজ এলাকা ছাড়তে বাধ্য হবে। তিনি বিভিন্ন যুদ্ধ পরিস্থিতি নিয়েও আলোচনা করেছেন। অতঃপর তারা বলবে, যেমন ইসলামের প্রাথমিক যুগে বলেছিল, যখন সাহায্য চাওয়া হয়েছিল তখন তারা বলেছিল,তুমি আমাদের ধন-সম্পদ, পরিবার-পরিজন নিয়ে ব্যস্ত করে রেখেছ। এ আহবানে কেউ কেউ সাড়া দিয়েছিল, আবার কেউ প্রত্যাখান করেছিল।তাদের থেকে ভয়াবহ যুদ্ধকালীন দ্বিতীয়বার সাহায্য চাওয়া হলে তারা সরাসরি অস্বীকার করে দেয়। এক পর্যায়ে তাদেরকে সম্বোধনপূর্বক যে আয়াতটি নাযেল করা হয়েছিল সেটা তাদের উপর প্রয়োগ করা হয়। যেমন আল্লাহ তাআলা এরশাদ করেন “তাদের থেকে যারা বিরোধীতাকারী রয়েছেন তাদেরকে বলেদিন, অতিসত্ত্বর তোমাদেরকে ভয়াবহ এক যুদ্ধের প্রতি আহবান করা হবে, তোমরা তাদের মোকাবেলা করবে, না হয় তারা আত্মসমর্পণ করবে।” মূলতঃ এটিই হচ্ছে, আরবদের য্দ্ধু। বনু কলবের যুদ্ধের দিন যারা পৃষ্ঠপ্রদর্শন করবে তারাই হচ্ছে লাঞ্চিত ও অপদস্ত জাতি। দ্বিতীয়টি হচ্ছে যদি আমি বড় এবং ভয়াবহ যুদ্ধে শরীক না হতে পারতাম। যেহেতু সেদিন নিঃসন্দেহে আল্লাহ তাআলা প্রত্যেক অস্ত্রধারীর উপর কাপুরুষতা অবলম্বন করাকে হারাম করে দিবেন। সেদিন কোনো মুজাহিদ কাফেরকে তলোয়ারের উল্টো সাইড দ্বারা আঘাত করলেও কেটে টুকরো হয়ে যাবে।
তৃতীয় হচ্ছে, যদি আমি কাফেরদের শহর জয়ের মিশনে শরীক না হতাম। কেননা, সে যুদ্ধ ছাড়া বাকি সব যুদ্ধ খুবই ছোট ও নগন্য সাব্যস্ত হবে।
হযরত কা’বের কাছে কেউ জানতে চাইল, যেসব গোত্র কাফেরদের দলভুক্ত হয়ে যাবে, তারা কারা। জবাবে তিনি বললেন, তানুখ, বাহযা, কলব গোত্র। বনু কাজাযার একলোক এদেরকে কাফেরদের সাথে সংযুক্ত করার নানান ধরনের কৌশল অবলম্বন করবে। এভাবে তারা শামবাসীদের থেকে বিভিন্ন সময়, বিভিন্ন ধরনের উপকার গ্রহণ করবে। এক পর্যায়ে সময়-সুযোগমত তাদের দলভুক্তও হয়ে যাবে।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১২৫৩ ]
___________________________________
নঈম বিন হাম্মাদ
আমাদের জন্য হযরত আবদুল্লাহ ইবনে মারওয়ান বলুন 
Oirtah বিন মুনযির 
আমাকে বলেছিল করার বিক্রি 
থেকে গোড়ালি বলেন 
না স্থান গ্রহণ সমুদ্র বদনা 
খোলার পর রোমানরা 
কখনো 
গোড়ালি বললেন 
যুদ্ধ অতল 
দিয়ে তৈরি 
রাষ্ট্রদ্রোহ 
কারণ 
তিন উপজাতিদের এর সমগ্র কারণ এর ব্লাসফেমি 
Bryatem 
এবং কর্কশ একটি 
সীমার 
লাল , 
তাদের যোগদান 
এছাড়াও 
বলেন গোড়ালি 
না তিন 
আমি না পছন্দ করার বাস একটি ঘন্টা 
প্রথম 
পতনের শিকার বেদুইনরা , 
কিছু তারা Istnvron এর কি মহাকাব্য ঘটছে বলে , তারা বলেন 
শুরুর এর ইসলাম , যখন Astnasroa আমাদের টাকা সংশ্লিষ্ট প্রথমবার এবং Ohllona বললেন , যারা এর উত্তরে থেকে বাম 
যদি Astnasroa ছাড়ার দ্বিতীয় সময় মহাকাব্য Vobwa সময় ঈশ্বর করেছে তাদের শ্লোক অনুমতি
ঈশ্বরে প্রতিশ্রুত 
বই 
বলে 
এর যাব করার বেদুইনরা Stdon মানুষ একটি খুব ভাল প্রাথমিক Tqatlunm বা তার হাত শ্লোক তারা 
শিকার বেদুইনরা থেকে Aljaib পড়া হতাশ দিন পতনের শিকার কুকুর 
এবং 
দ্বিতীয় 
লুলা সাক্ষী 
মহাকাব্য 
গ্রেট 
গড অলমাইটি সব Hudaydah যে caesation যদি বারণ যে প্রতিদিন হিটম্যান কাটা Bsfod 
এবং 
তৃতীয় 
সাক্ষ্য না করতে 
খুলতে শহর এর বিশ্বাসঘাতকতা 
না খুলেই এবং যে একটি বৃহৎ তরুণ 
গোড়ালি থেকে বলা হয়েছিল 
এটা হয় এই উপজাতিদের কারণ অবিশ্বাস যে 
তিনি বলেন Tnokh এবং Bhza কুকুর ভোঁদড় মানুষ চায় 
সেই অনুগত 
Mwale এই উপজাতিদের 
যে সংযুক্ত হয় থেকে অবিশ্বাস Nfanah শাম মানে 
Msalmthm
হাদিস - ১২৫৪
বিশিষ্ট সাহাবী হযরত হুজাইফা ইবনুল ইয়ামান রাযিঃ থেকে বর্ণিত, তিনি এরশাদ করেন, রাসূলুল্লাহ সাঃ এর জন্য এমন এক বিজয়ার্জন হয়েছে, যা ইতিপূর্বে কখনো হয়নি। এরপর আমি তাকে বললাম, ইয়া রাসূলুল্লাহ সাঃ আপনাকে বিজয় এসে মোবারকবাদ জানায়। আপনি এ যুদ্ধে খুব ভালোভাবে নেতৃত্ব দিয়েছেন। অতঃপর রাসূলুল্লাহ সাঃ বললেন, নিঃসন্দেহে, কসম সেই সত্ত্বার যার হাতে আমার প্রাণ, হে হুজায়ফা! ছয় নিদর্শন রয়েছে, যার প্রথমটি হচ্ছে, আমার মৃত্যুবরণ করা। একথা শুনে আমি বললাম, ইন্নালিল্লাহী ..... । এরপর হচ্ছে, বায়তুল মোকাদ্দাসের বিজয়, এরপর, এমন এক ফেৎনা, যার মধ্যে বড় দুই দলের মধ্যে মারাত্মক যুদ্ধ সংগঠিত হবে। প্রায় গনহত্যার রূপ নিবে। উভয় দলের দাবি হবে এক। এরপর তোমাদের প্রতি গনহারে মৃত্যুবরণ করা ধেয়ে আসবে, যেমন মহামারীতে আক্রান্ত হয়ে ছাগল গনহারে মারা যায়। অতঃপর মানুষের মধ্যে ব্যাপকহারে সম্পদ বৃদ্ধি পাবে, কেউ কাউকে একশত দীনার দান করলেও কম মনে করে গ্রহণকরতে অস্বীকৃতি জানাবে। এরপর বনু আসফারের বাদশাহদের সন্তানদের মধ্যে এক শিশু জন্মলাভ করবে। আমি বললাম, ইয়া রাসূলুল্লাহ! বলুন আসফার কারা, জবাবে রাসূলুল্লাহ সাঃ বললেন, বনুল আসফার হচ্ছে রোমানরা। শিশুটি দ্রুত গতিতে বেড়ে উঠতে থাকবে । একটি শিশু একমাসে যতটুকু বেড়ে উঠে এ শিশুটি একদিনে অতটুকু পরিমান বাড়বে।  অন্য শিশু এক বৎসরে যে পরিমান বৃদ্ধি পায় এ শিশুটি এক মাসে ততটুকু পরিমান বৃদ্ধি পাবে। শিশুটি বালেগ হলে সকলে তাকে এতবেশি মহব্বত এবং অনুসরণ করবে যা ইতিপূর্বে কোনো রাজা-বাদশাহকে করা হয়নি। একদিন সে তার গোত্রের লোকজনের মাঝখানে দাড়িয়ে বলবে, এখনো কি আরবদের এই দলকে ত্যাগ করার সময় আসেনি। যারা সর্বদা তোমাদের পক্ষ থেকে এক প্রকার সহানুভুতি পেয়ে আসছে অথচ আমরা সংখ্যায় তাদের চেয়ে অনেক বেশি এবং জলভাগ ও স্থলভাগে আমাদের রসদপত্র অনেক। সুতরাং আমাদেরকে সিদ্ধান্ত নিতে হবে, কবে তাদের সঙ্গ আমরা ত্যাগ করব। আমি তোমাদেরকে এমন কত বিষয়ের দিকে ইঙ্গিত করছি, যা তোমরা স্বচক্ষে দেখতে পাচ্ছ। একথাগুলো বলার এক পর্যায়ে তাদের মুরব্বীদের কয়েকজন দাড়িয়ে বলতে লাগলেন, হ্যাঁ, তোমার কথা ঠিক এবং সিদ্ধান্ত তোমার উপর ন্যস্ত করলাম।
নেতাদের সমর্থন পেয়ে সে বলে উঠল, আমরা সকলে একথার শপথ গ্রহণ করতে হবে যে, আরবদেরকে নিঃশেষ করে দেয়া ছাড়া আমরা তাদের সঙ্গ ত্যাগ করবোনা। অতঃপর তারা রোম দেশের বিভিন্ন এলাকা থেকে সৈন্য প্রেরনের জন্য আবেদন জানাবে। তারা আশি প্লাটুন সৈন্য দিয়ে সহযোগিতা করবেন প্রত্যেক প্লাটুনের পতাকার অধীনে বার হাজার যোদ্ধা থাকবে। দ্রুত সময়ের মধ্যে তার কাছে সাত লক্ষ ছয় শত যোদ্ধা এসে উপস্থিত হবে। প্রত্যেক জাযিরাতে আবারো লিখে পাঠাবে, যেন জাহাজের ব্যবস্থা করা হয়। এভাবে তিনশত জাহাজ প্রস্তুত হয়ে যাবে। একদিন সেই এবং তার সৈন্য রসদপত্র সহ জাহাজে আরোহন করবে। যার ফলে এন্তাকিয়া এবং আরীশের মাঝামাঝি জায়গায় শুধু তাদেরকেই দেখা যাবে।
তবে সেদিন খলীফা অনেক ঘোড়া এবং অসংখ্য রসদপত্র প্রেরণ করবেন, এক পর্যায়ে তাদের সামনে একজন দাড়িয়ে বলবেন, “তোমরা কি উপলব্ধি করছ, আমি তোমাদেরকে নিজেদের সিদ্ধান্তের উপর ছেড়ে দিচ্ছি। আমি কিন্তু কঠিন এক মুহূর্ত দেখতে পাচ্ছি, আমি জানি, নিঃসন্দেহে আল্লাহ তাআলা তার ওয়াদা পূর্ণ করবেন, এবং সকল দ্বীনের উপর আমাদের দ্বীনকে প্রাধান্যতা দিবেন। তবে এখন আমাদের সম্মুখে বিরাট এক মসিবত উপস্থিত। আমি একথা ভালো মনে করছি যে, আমি এবং আমার সাথে যারা রয়েছে সকলে রাসূলুল্øাহ সাঃ এর মদীনায় ফিরে যাব, এরপর ইয়ামানসহ অন্যান্য আরব দেশে লিখে পাঠাব। নিঃসন্দেহে একথা সত্য যে, যারা আল্লাহকে সাহায্য করে আল্লাহ তাআলা তাদের সাহায্যে এগিয়ে আসেন, কাফেরদের এ ভুখন্ড ছেড়ে গেলেও তারা আমাদের কোনো ক্ষতি করতে পারবেনা, হয়তো দেখা যাবে সেটা পুনরায় তোমাদের জন্য প্রস্তুত করে রাখা হয়েছে। এমর্মে রাসূলুল্লাহ সাঃ এরশাদ করেছেন, তারা বের হয়ে যাবে এবং আমার শহরে এসে পৌঁছবে, যার নাম হবে তাইবা। সেখানে মুসলমানরা অবস্থান করবে। বিভিন্ন দেশ থেকে তারা মদীনায় এসে অন্যান্য আরব দেশে সাহায্য চেয়ে সংবাদ পাঠাবে। এভাবে মদীনায় বিভিন্ন এলাকা থেকে আসা বিশাল সৈন্য বাহিনীর জমায়েত হবে। যা মদীনাতে সংকুলান হবেনা। এরপর তারা খালি হাতে ঐক্যবদ্ধভাবে বের হয়ে ইমামের হাতে মৃত্যুর উপর বাইয়াত গ্রহণ করবে। অর্থাৎ বিজয় কিংবা মৃত্যু হওয়া পর্যন্ত যুদ্ধের ময়দানে দৃঢ়তার সহিত অবস্থান করার বাইয়াত গ্রহন করবে। এভাবে বাইয়াত করার পর প্রত্যেকে তলোয়ারের খাপ ভেঙ্গেঁ ফেলবে এবং কোনো প্রকারের লৌহবর্ম পরিধান করা ছাড়া সামনের দিকে এগিয়ে যাবে।
মুসলমানদের এ অবস্থা দেখে রোমানদের স¤্রাট বলে উঠবে, মুসলমানরা এ ভূখন্ড দখল করার জন্য মৃত্যুকে আলিঙ্গন করার জন্য প্রস্তুত হয়ে আসছে। তারা জীবনবাজি রেখে তোমাদের দিকে এগিয়ে আসছে। এখন আমি তাদের কাছে লিখে পাঠাব যে, তাদের হাতে বন্দি যেসব অনারব রোমান রয়েছে তাদেরকে যেন আমার হাতে তুলে দেয়া হয়, তারা একথার উপর রাজী হলে, আমরা তাদের এ ভূখন্ডকে তাদের জন্য ছেড়ে দিব, এই এলাকা আমাদের কোনো প্রয়োজন নেই। তারা একথার উপর একমত হলে, আমি সেটা সানন্দে গ্রহন করব, অন্যথায় তাদের সাথে যুদ্ধ করব। যতক্ষণ পর্যন্ত আল্লাহ আমাদের এবং তাদের মাঝে একটা ফায়সালা করেন। তাদের এ সিদ্ধান্ত মুসলমানদের সুলতানের কাছে পৌঁছলে তিনি রোমান স¤্রাটকে বলে পাঠাবেন, আমাদের কাছে অনারব যেসব রোমান রয়েছে, যদি তারা রোমানদের কাছে ফিরে যেতে চায় তাহলে আমাদের পক্ষ থেকে কোনো বাধা নেই, তারা সেচ্ছায় চলে যেতে পারে।
একথা শুনে ঐসব অনারব রোমানদের একজন দাড়িয়ে ঘোষণা করল, ইসলাম ব্যতীত অন্য কোনো ধর্মকে গ্রহণ করা থেকে আমরা আল্লাহর কাছে মাফ চাচ্ছি”। অতঃপর তারাও আগের মুসলমানদের ন্যায় মৃত্যুর উপর বাইয়াদ গ্রহণ করবেন। এবং মুসলমানদের কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে সামনে অগ্রসর হতে থাকবে। মুসলমানদের অগ্রযাত্রা আল্লাহর দুশমনগন দেখতে পেয়ে অত্যন্ত আগ্রহী ও ক্রুদ্ধ হয়ে উঠবে এবং যুদ্ধের জন্য প্রস্তুতি গ্রহণ করবে। অতঃপর মুসলমানরা তাদের তলোয়ার উন্মোক্ত করে তালোয়ারের খাপ সম্পূর্ণরূপে ভেঙ্গেঁ ফেলবে। এদিকে আল্লাহ তাআলা তার দুশমনের উপর যথেষ্ট রাগান্বীত হবে। এক পর্যায়ে মুসলমানরা কাফেরদেরকে এত ব্যাপকভাবে হত্যা করবে, যার কারনে ঘোড়ার অর্ধেক অংশ পর্যন্ত রক্তে ডুবে যাবে। এরপর তাদের যারা বাকি থাকবে তারা রাত্র-দিন সফর করে তাইবার দিকে যেতে থাকবে। ফলে তারা মনে করবে যে, সত্যিই তারা দূর্বল হয়ে গিয়েছে। এক পর্যায়ে আল্লাহ তাআলা তাদের প্রতি এক ধরনের তীব্র বাতাস প্রবাহিত করলে তাদের পূর্বের স্থানে ফেরৎ যাবে। এরপর মুহাজিরদের হাতে তাদেরকে এমনভাবে হত্যা করা হবে, তাদের মৃত্যু সংবাদ পৌঁছানোর জন্যও কেউ বাকি থাকবেনা। হে হোজায়ফা! মূলতঃ এটিই হচ্ছে, তীব্র যুদ্ধ। তারা দীর্ঘদিন জীবিত থাকবে, এরপর তাদের কাছে সংবাদ আসবে যে, দাজ্জালের আবির্ভাব হয়েছে।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১২৫৪ ]
___________________________________
নাঈম বিন হাম্মাদ - 1254
আমাদের মুহাম্মদ বিন শাপুর নু'মান বিন মুনযির ও সুইডেন বিন বলুন 
আব্দুল আজিজ ইসহাক ইবনে আবী মাথার খুলি থেকে সব সম্পর্কে Makhoul হুযাইফা ইবনুল - ইয়ামন বলেন 
মুহাম্মদ বিন শাপুর Makhoul আমাকে এক বলেন 
হুযাইফা 
একাধিক এর তাদের মধ্যে মালিক আধুনিক 
বলেন 
হুযাইফা 
খোলা রসূল এর আল্লাহ , সা ফাতাহ যেহেতু তার মত তাকে খুললেন না মিশন এর 
ঈশ্বর এবং 
আমি তাকে বিজয়ের অভিনন্দন জানান , হে আল্লাহর এর ঈশ্বর , যুদ্ধ শেষ করেছিলেন , 
তিনি বলেন , 
চিৎকার করে কাঁদতে করার ক্রন্দিত চাঁদ থেকে চাঁদ ও আমার হাত ছাড়া হে হুযাইফা যে 
গুণাবলী Sta 
Oohin 
আমার মৃত্যুর 
আমি বললাম : 
আল্লাহ ও করতে আমরা ফিরে তাকে এবং 
তারপর 
প্রর্দশিত পবিত্র ঘর এবং 
তারপর তারপর হতে 
রাষ্ট্রদ্রোহ Tguettl হয়েছে দুই 
মহান জাতির 
ঘন ঘন হত্যা এবং কোন্দল সবচেয়ে ঘন ঘন একজন আমন্ত্রিত এবং 
তারপর মৃত্যু আপনার উপর
Afiktlkm 
Qasa ভেড়া মারা এবং 
তারপর গুন টাকা Fifid 
একশত দিনার করার Adaa মানুষ পর্যন্ত Vistnkv করতে 
নেওয়া এটি এবং 
তারপর জন্য হলুদ দেখা দেয় দুটো কারণে ছেলেদের এর গোলাম 
এর শিশু এর রাজাদের 
আমি বললাম , ও শিশু এর হলুদ , হে আল্লাহর এর 
ঈশ্বর , 
বলেন 
রোমান 
মধ্যে Jasper বালক হিসেবে দৈনিক Vicb মাস এবং Jasper লেখা মাস 
Jasper ছেলে মধ্যে বছরই তিনি তাকে ভালোবাসি এবং তাকে অনুসরণ যদি না পৌঁছাবে আপনি ভালবাসেন তার পূর্বে রাজা এবং তারপর মধ্যে 
Zaranhm 
বলছেন 
যখন আমরা আরবরা এই গ্যাং ছেড়ে চলে যেতে 
হয় এখনও তোমাকে আক্রমন একটি পার্টি 
এবং আমরা হয় আরো কয়েক তাদের মধ্যে সংখ্যা এবং জমি ও সমুদ্র কতকাল এই Voherva আপনি দেখতে পারেন কি হতে যাচ্ছে 
যারা mushrikeen মধ্যে তাদের তত্ত্বাবধানে Vijtabon হইবে 
এবং হ্যাঁ বলার আমি কি দেখেছি এবং আপনি আদেশ 
, এবং তিনি বলছেন, যা দ্বারা শপথ আমরা তাদের এমনকি তাদের ধ্বংস এবং
রোম দ্বীপপুঞ্জ লিখুন না যাক
Vermouna 
আশি শেকল Gaaah প্রতিটি Gaaah বার হাজার মুক্তিযোদ্ধা ও Agheiaah পতাকা Vigtmon অধীনে সাত হয়েছে 
শত হাজার ছ'শো যোদ্ধাদের এবং প্রতিটি Phipposon দ্বীপ Butlosmaih জাহাজ ক্রিয়া লিখেছেন হয় একটি 
জাহাজ এর যা জঙ্গী রুঢ়ভাবে এবং Hudaydah এবং এমনকি মধ্যে খুঁজে রাখা ছিল 
থেকে আন্তিয়খিয়ায় 
এল - আরিশ 
এছাড়াও কারণ 
খলিফা যে 
দিন ঘোড়া সংখ্যা কিট এবং অসংখ্য সহ পারবে কে প্রচারক 
বলে , কিভাবে আপনি আপনার মতামত Oherva দেখতে পাচ্ছ , আমি কিছু মহান দেখতে , এবং আমি জানি যে ঈশ্বর 
তার প্রতিশ্রুতি এবং সম্পন্ন চেহারা এর প্রত্যেক ধর্ম আমাদের ধর্ম, কিন্তু এই একটি হল মহান চাবুক , আমি মতামত করেই দেখেছি 
আউট এবং যেতে সঙ্গে আমাকে রসূল এর আল্লাহ , শহর এর 
ঈশ্বর , সা আমি ইয়েমেন এবং 
আরবদের কাছে পাঠিয়েছিলাম 
যেখানে 
এটি ছিল ওয়া করার 
Aloarab 
বিজয় ঈশ্বর নাসের হয় খারাপ না জন্য আমাদের পর্যন্ত তাদের এই জমি খালি করার
Troyes , যারা হয় প্রস্তুতি আপনি 
বলেন রসূল এর আল্লাহ , সা 
Vijrgeon এমনকি বন্ধ বাদ 
শহর এর 
এই নাম থিবেস , মুসলিম ঘর Vinzlon এবং তারপর যারা তাদের কাছ থেকে ছিল লিখতে 
আরবদের যেখানে তিনি পৌঁছেছেন 
তাদের বই 
Vigibonhm 
এমনকি তাদের শহর সংকীর্ণ এবং তারপর একসঙ্গে বঞ্চিত বাইরে যেতে 
হতে পারে Bayaoa ইমামের মৃত্যুর প্রর্দশিত 
তাদেরকে আল্লাহর 
Vixron sheaths এবং তারপর পাস তাদের তলোয়ার বঞ্চিত , 
বলছেন 
মালিক এর রোমানরা 
যে মানুষ হতে পারে 
Astmatwa এই জমি পরিণত হয়েছে থেকে আপনি এবং তারা আশা করবেন না জীবন এর তাদের , আমি লেখকের 
পাঠাতে 
ঐ পারস্যদেশনিবাসীগণ আছে যারা 
তাদের জমি অস্বীকার করার ধন তারা আমরা তা করেনি এ ব্যাপারে আমাদের, 
। 
আর যদি আমরা তাদের বিরুদ্ধে লড়াই করি, তবে ঈশ্বর আমাদের ও তাদের মধ্যে বিচার করবেন, 
যদি তাদের ব্যাপার মুসলমানদের 
কাছে পৌঁছে যায়

সেই দিন 
তিনি তাদের বললেন, "আমাদের এমন একজন লোক ছিল, যিনি রোমানদের কাছে যেতে চেয়েছিলেন 
। 
কে করিবে 
এর প্রচারক প্রো 
বলেছেন 
ঈশ্বর যে নিষেধ , মিথ্যা ইসলাম হিসেবে বরং ধর্ম 
Phippaaon 
কসম খেয়ে আনুগত্য যেমন মৃত্যু থেকে থেকে তাদের মুসলমান এবং তারপর একসঙ্গে marching । যদি তিনি দেখলেন শত্রু এর ঈশ্বর 
Tumaoua এবং Ahardoa এবং পরিশ্রম , তাদের তলোয়ার ও মুসলমানদের Lisle এবং Ogmadha বিরতি 
এবং রাগ জব্বার 
মুসলমানদের তাঁর শত্রুদের এর তাদের হবে এমনকি হত্যা ঘোড়ার রক্ত Tnn তারপর যায় যারা রয়ে তলিয়ে একটি ভাল 
দিন রাত, যাতে মনে হতে পারে যে তারা আছে হয়েছে অক্ষম করতে 
তারা দুরন্ত তলিয়ে ঈশ্বরের সৃষ্টি 
করতে Fterdhm জায়গা 
যেখান থেকে তারা জেদ ধরে 
Afiktlhm মধ্যে হাত এর অভিবাসীদের 
দূরে না সঙ্গে কোন সংবাদদাতা 
যখন হে 
হুযাইফা করা যে ঈশ্বর যুদ্ধ Afeeeshun শেষ হয়েছে উইলস এবং 
তারপর তাদের কাছে আগমন ওরিয়েন্ট
সংবাদ এর 
খ্রীষ্টশত্রু 
যে এসে গেছে এর আমাদের মধ্যে 
সামনের এর জেরুজালেমে মুসলমানদের , 
এবং 
তার বিজয় প্লেইন এর একর 
এবং 
হোমস খোলা 
শেখ বলেন 
আবু বকর মুহাম্মদ বিন আব্দুল্লাহ বিন আহমেদ বিন Rivh বলেন , আমাদের আবু আল জানান - কাসিম সুলায়মান বিন আহমেদ বিন 
আইয়ুব Tabaraani আমাদের আবু যায়েদ আব্দুর রহমান বিন হাতেম Moradi বছর জানান আয়েশ ও দুই শত 
নঈম বিন হাম্মাদ আমাদের বলেছেন
হাদিস - ১২৫৫
হযরত কা’ব রহঃ থেকে বর্ণিত, মুসলমানদের ইমাম বায়তুল মোকাদ্দাসে অবস্থান করাকালীন মিশর ও ইরাকের বাসিন্দাদের নিকট সাহায্য চেয়ে অনেক লোক পাঠাবেন। কিন্তু তারা কেউ সাহায্য করবেনা। বুরাইদা হিম্্সের একটি শহরে পৌঁছলে সেখানে দেখতে পায় যে, অনারব ও রোমানরা সে শহরের নারী-শিশুকে অবরুদ্ধ করে রেখেছে। তার কাছে এটা খুবই মারাত্মক একটা ঘটনা মনে হল। যার ফলে সে উপস্থিত মুসলমানদের সাথে নিয়ে আ’কা নগরীতে কাফেরদের গতিরোধ করে এবং উভয় দলের মাঝে তীব্র যুদ্ধ সংগঠিত হয়। আল্লাহ তাআলা কাফেরদের পরাজিত করবেন। তাদেরকে ধাওয়া করতে করতে তাদের শহর পর্যন্ত নিয়ে যাবে এবং হিম্স পৌঁছে সেটাও কাফেরদের হাত থেকে মুক্ত করবে।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১২৫৫ ]
___________________________________
নঈম বিন হাম্মাদ
Ouzai সম্পর্কে আমাদের ওয়ালিদ বলুন 
থেকে গোড়ালি বলেন করার হতে 
ইমামের এর 
মুসলিম ঘর এর বাইবেল 
মিশরের কারণ এবং মানুষ এর ইরাক Astmayorm বক্র করবেন না 
এবং পাসের তার 
শহর এর হোমস 
খুঁজে বের করে Agamha বন্ধ করে দিয়েছে 
প্রজাতির থেকে এর মুসলমানদের Afeezation যে 
Visser , 
যারা ছিল উপস্থিত ছিলেন দ্বারা মুসলমানদের এমনকি 
তাদের Bsalh একর FIND 
Viqatlhm Verzmanm ঈশ্বর ও তাদের দাবী মুসলমানদের 
এমনকি Alhakounam এবং তাদের দেশের হয় যাচ্ছে 
Homs 
তার হাতে ঈশ্বর Vivthaa
হাদিস - ১২৫৬
হযরত হাস্সান ইব্্নে আতিয়্যাহ রহঃ থেকে বর্ণিত, তিনি বলেন, আ’কার সমতলভূমিতে রোমানরা ছাউনি ফেললে ফিলিস্তিন, জর্দান এবং বায়তুল মোকাদ্দাসের উপর জয়লাভ করলেও দীর্ঘ চল্লিশ দিন অতিবাহিত হওয়ার পরও আফীক গিরিপথ অতিক্রম করতে পারবেনা। এদিকে মুসলমানদের ইমাম তাদেরকে আ’কা নগরীর টীলাতে অবরুদ্ধ করে রাখবে এবং কাফেরদেরকে গনহারে হত্যা করবে, যার কারনে ঘোড়ার অর্ধেক অংশ পর্যন্ত রক্তে ভিজে যাবে। আল্লাহ তাআলা কাফেরদেরকে পরাজিত করবেন এবং তাদের সকলকে হত্যা করা হবে। তবে তাদের একটি দল প্রথমে লেবনানের পাহাড়ে চলে যাবে, পরবতীর্তে রোমান আধ্যূষিত একটি পাহাড়ে আশ্রয় নিয়ে প্রাণে বেঁচে যাবে।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১২৫৬ ]
___________________________________
নঈম বিন হাম্মাদ
Awzaa'i বলেন 
সে আমাকে বলেছিল হাসান বেন আত্তিয়া বলেন 
নিচে রোমান Beqa একর 
ফিলিস্তিন ও কাটিয়ে উঠতে উদর এর জর্ডান এবং ঘর এর 
বাইবেল বিবেচনা করে না এটি হিসাবে জায়েয বাধা অফেকে 
চল্লিশ দিন এবং 
তারপর যান থেকে তাদের ইমাম এর মুসলমানদের 
Faihozonhm 
Afiktthelon রক্ত Tnn ঘোড়া Verzmanm ঈশ্বর পর্যন্ত মারজে একর এবং শুধুমাত্র বধ একটি 
মাউন্ট লেবানন করা কঠিন হাঁটার এবং তারপর রোমের একটি পর্বতের কাছে
হাদিস - ১২৫৭
হযরত মাকহুল // থেকে বর্ণিত, তিনি বলেন, রোমান সৈন্যবাহিনী দীর্ঘ চল্লিশ দিন পর্যন্ত শাম নগরীর উপর আক্রমণ করে তেমন কোনো ফলাফল অর্জন করতে পারবেনা, বরং দিমাশ্ক ও বলক শহরের উঁচু এলাকার কিছু অংশ দখল করতে সক্ষম হবে।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১২৫৭ ]
___________________________________
নঈম বিন হাম্মাদ
আল-ওয়ালেদ আমাকে 
বলেছিলেন আবদুল আযীয বিন আব্দুল আযীয মওলুদের 
বলেন 
, সকাল বেলা রোমান শামাতুলম্রন চৈতালিকে ডামসকস ও উচ্চ বালকাব্যতীত আটকে রাখা 
যায় না।

হাদিস - ১২৫৮
আবুল আইয়াছ আব্দুর রহমান ইবনে সুলাইমান রহঃ থেকে বর্ণিত, তিনি বলেন, জনৈক রোমান সম্রাট শাম দেশের উপর আক্রমণ করে দিমাশ্ক ও আম্মান এলাকা ছাড়া প্রায় পুরোটি দখল করে নিবে। এর কিছুদিন পর তারা পরাজয় বরণ করবে এবং রোম ভূখন্ডে কাযসারিয়্যাহ শহর প্রতিষ্ঠা করবে। এরপর শাম এলাকার পক্ষ থেকে বিরাট এক সৈন্য বাহিনী গঠন করা হবে। অতঃপর আদন শহরে আবইয়ান নামক এলাকা থেকে একটি আগুন প্রকাশ পাবে।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১২৫৮ ]
___________________________________
নাঈম বিন হাম্মাদ - 1২58
ওয়ালিদ আব্দুল্লাহ বিন আলা সম্পর্কে আমাদের বলুন 
বিন শোনা জ্যাপার আবু Aloaas আব্দুর রহমান বিন সুলায়মান বললেন 
এর প্রধানত রোমান রাজা রাজাদের এর 
লেভান্ট 
সব দামেস্ক, আম্মান ব্যতীত এবং তারপর হারিয়ে 
কৈসরিয়া নির্মিত জমি এর রোমানদের এবং 
হয়ে হোস্ট এর হোস্ট এর মানুষ এর সিরিয়া এবং 
তারপর থেকে আগুন প্রদর্শনী এডেন - চিকিৎসা Abyan
হাদিস - ১২৫৯
হযরত তাবী রহঃ থেকে বর্ণিত, তিনি বলেন, এরপর রোমানরা সন্ধীর প্রস্তাব পাঠালে মুসলমান বা তাদের সাথে চুক্তি করবে। এরকম চুক্তির মাধ্যমে সকলের মাঝে নিরাপত্তা এমনভাবে কাজ করবে একাকী কোন মহিলা দারব্্ থেকে শাম নগরীর দিকে নিশ্চিন্তে যাতায়াত করতে পারবে। তখন রোমানদের এলাকায় কায়সারিয়া নামক একটি শহর আবাদ করা হবে। উক্ত সন্ধিকালীন সময়ে কুফাবাসিরা পরস্পর মারাত্মকভাবে সংঘাতে লিপ্ত হবে। এটা হয়তো মুসলমানদেরকে সাহায্য-সহযোগিতা থেকে বিরত থাকার কুফল হতে পারে। নাকি তাদের জন্য আরেকটি লাঞ্ছনা অপেক্ষা করছে। অন্যদিকে চুক্তির মেয়াদ শেষ হয়ে আসলে তাদের বিরুদ্ধে যুদ্ধ করার অনুমোদন হয়ে যাবে। এবং রোমানরাও মুসলমানদের বিরুদ্ধে যুদ্ধ করার জন্য বিভিন্ন এলাকার সাহায্য চেয়ে পাঠাবে। তোমাদেরকেও সাহায্য করা হবে। এক পর্যায়ে তোমরা টীলা বিশিষ্ট এক এলাকায় ছাউনি ফেলবে। কিছুক্ষণ খ্রীষ্টানদের থেকে একজন বলে উঠবে, তোমরা আমাদের ক্রুশের বদৌলতে জয়লাভ করেছ, সুতরাং আমাদের গনীমতের অংশ এবং নারীÑশিশুদের অংশ আমাদের দেয়া হোক। এদিকে মুসলমানরা সেগুলো দিতে অস্বীকার করলে আবারো তীব্র যুদ্ধ আরম্ভ হয়ে যাবে। অতঃপর মুসলমানরা ফিরে এসে ভয়াবহ যুদ্ধের প্রস্তুতি গ্রহণ করবে।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১২৫৯ ]
___________________________________
নঈম বিন হাম্মাদ
আমাদের Oirtah বিন জন্য সিদ বেন ইয়াহিয়া সম্পর্কে ওয়ালিদ বলুন 
হাকীম ইবন আমির থেকে মুনযির 
বিক্রি তিনি বলেন থেকে 
তারপর পাঠায় রোমান Asoloncm ম্যাজিস্ট্রেট 
Vtsalihunhm 
দিন তাদের অজুহাত নারী কেটে দেব 'র পাথ লেভান্ট নিরাপদ এবং 
Caesaria শহর নির্মান যে জমি এর রোমানদের এবং 
মধ্যে 
যে ম্যাজিস্ট্রেট Tark 
কুফা 
এন্ডোডার্ম জড়ান তাই যেমন তাদের মুসলমান রাখা বেরোতে হবে সেটির , ঈশ্বর আমি জানি ' ই.এম. 
অন্য ইভেন্টের সাথে অসম্ভব , তাদের আক্রমণ নামিয়ে দিল মধ্যে যা 
রোমান Tstamdoon তাদের 
Viamdoonkm Vtncefron এমনকি 
Tnzloa Bmarj একজন মানুষ যিনি বলেন Tlul খ্রিস্টান Bsalibna Voatona পরাস্ত এর ভাগ্য লুট 
, নারী এবং পারমাণবিক Viobon তাদের নারী ও সন্তানসন্ততি Afiktthelon দিতে তারপর দূরে Vigtmon চালু 
মহাকাব্য
হাদিস - ১২৬০
বিশিষ্ট সাহাবী হযরত যু মিখবার ইব্নে আখী নাজ্জাশী রাযিঃ থেকে বর্ণিত, তিনি এরশাদ করেন, আমি রাসূলুল্লাহ সাঃ কে বলতে শুনেছি, তোমাদের এবং রোমানদের মাঝে বিশেষ এক চুক্তি সম্পাদিত হবে। তোমাদের সকলের দুশমনের বিরুদ্ধে যুদ্ধ করে তোমরা উভয় দল গনীমত প্রাপ্ত হবে।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১২৬০ ]
___________________________________
নাঈম বিন হাম্মাদ - 1২60
থেকে হাসান বেন আত্তিয়া খালেদ বিন Ma'dan সম্পর্কে ওয়ালিদ Awzaa'i সম্পর্কে আমাদের বলুন 
জাবির ইবনে Nufayr 
একটি গোয়েন্দা বেন ভ্রাতার কাছ থেকে , নাজ্জাশী বলেন , আমি শুনেছি মেসেঞ্জার এর আল্লাহ , সা 
বলেছেন 
Tsalihun রোমান 
Salha 
নিরাপদ আপনি যতক্ষণ না তারা আক্রমণ একটি আড়াল থেকে শত্রু
হাদিস - ১২৬১
হযরত আব্দুল্লাহ ইবনে আমর ইবনুল আ’স রাযিঃ থেকে বর্ণিত, তিনি বলেন, কুস্তুনতুনিয়া অর্থাৎ, ইস্তামবুল এলাকায় তোমরা তিন প্রকারের যুদ্ধ করবে, প্রথম যুদ্ধে তোমরা অনেক বালা-মসীবতের সম্মুখীন হবে, দ্বিতীয়তঃ তোমাদের এবং তাদের মাঝে বিশেষ এক চুক্তি সম্পাদিত হবে, যার ফলে তাদের শহরে তোমরা মসজিদ প্রতিষ্ঠা করতে পারবে এবং তারা এবং তোমরা মিলে তৃতীয় আরেক দল শত্রুর বিরুদ্ধে যুদ্ধ করবে, অতঃপর তোমরা ফিরে এসে তাদের বিরুদ্ধে যুদ্ধে লিপ্ত হবে। তৃতীয়তঃ রোমানদের বিরুদ্ধে যুদ্ধে আল্লাহ তাআলা মুসলমানদেরকে বিজয় দান করবেন।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১২৬১ ]
___________________________________
নাঈম বিন হাম্মাদ - 1২61
আমাদের বলুন 
ওয়ালিদ ইবনে Hiệp আবু যেমন আবু Firas 
হযরত আবদুল্লাহ ইবনে আমর বলেন 
Ngzon 
কনস্টান্টিনোপল তিন আক্রমণ এর 
প্রথম মধ্যে যা Isepkm চাবুক এবং দ্বিতীয় হবে তোমাদের ও তাদের মধ্যে হতে Salha 
এমনকি 
মধ্যে গৃহীত শহর মসজিদ এবং Ngzon আপনি তারা একটি হয় কনস্টান্টিনোপল আড়াল থেকে শত্রু এবং তারপর 
ফিরিয়ে আনা এবং তারপর Ngzunha তৃতীয় ঈশ্বর Vivthaa আপনি
হাদিস - ১২৬২
হযরত যু মিখবার রাযিঃ থেকে বর্ণিত, তিনি বলেন, আমি রাসূলুল্লহ সাঃ কে বলতে শুনেছি, তোমরা সাহায্যপ্রাপ্ত ও গনীমতের মাল নিয়ে ফেরৎ আসবে এবং টীলা বিশিষ্ট একটি পর্বতে ছাউনি ফেলবে। যেখানে জনৈক লোক বলে উঠবে, ক্রুশের জয় হয়েছে, একথা শুনে অন্য এক মুসলমান বলবে, না, বরং আল্লাহ তাআলারই জয় হয়েছে। এভাবে কিছুক্ষণ তর্কবিতর্ক চলতে থাকলে হঠাৎ একজন মুসলমান তার কাছে থাকা ক্রুশের দিকে ছুটে গিয়ে ক্রুশটি ভেঙ্গে চুরমার করে ফেলবে। সে একাজটি করার সাথে সাথে সকল খ্রীষ্টান তার উপর হুমড়ি খেয়ে পড়বে এবং তাকে নির্মমভাবে হত্যা করবে। এ অবস্থা দেখে মুসলমানরা তাদের অস্ত্রের প্রতি ধাবিত হবে এবং আল্লাহ তাআলা মুসলমানদের এই দলকে শাহাদত নসীব করার মাধ্যমে সম্মানিত করবেন। অন্যদিকে কাফেররা তাদের স¤্রাটের কাছে এসে বলবে, আমরা আপনার পক্ষ থেকে আরবদেরকে উত্তম শায়েস্তা করে এসেছি। এরপর তার চুক্তি ভঙ্গঁ করতঃ গাদ্দারী করে ভয়াবহ যুদ্ধের জন্য সৈন্য সমাগম করবে।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১২৬২ ]
___________________________________
নঈম বিন হাম্মাদ
আমাদের সম্পর্কে ওয়ালিদ বলুন 
জাবির ইবনে Nufayr থেকে হাসান বেন আত্তিয়া খালেদ বিন Ma'dan সম্পর্কে Awzaa'i 
থেকে একটি গোয়েন্দা শুনে 
নবী , শান্তি হতে উপরে তাঁকে বলতে শুনেছি Vtnasrvon Nasrtm এবং আছে সঙ্গে Tlul Vinzlon Bmarj অর্জন 
বলছেন Qailhm আধিপত্য ক্রস এবং বলেছেন একটি মুসলিম , কিন্তু ঈশ্বরের কাছে Vidolunha ঘন্টা Vithb মুসলিম prevailed 
তাদের ক্রুশ এটা অনেক Vidgah এবং বিদ্রোহ বিরুদ্ধে মুসলমানদের নিরস্ত্র করার Vithor তাঁকে হত্যা করবে 
বিক্রম ঈশ্বর মুসলমানদের যে গ্যাং থেকে তাদের রাজা সাক্ষ্য আসবে এবং বলবে Cfhinak সীমা 
আরবদের Vigdron মহাকাব্য থেকে জড়ো করা
হাদিস - ১২৬৩
হযরত কা’ব রহঃ থেকে বর্ণিত, তিনি বলেন, রোমানরা তাদের সাথে থাকা লোকজনের সাথে গাদ্দারী করবে, অতঃপর তোমরা সৈন্যের জমায়েত করবে। ইতোমধ্যে একজন রোমীর নেতৃত্বে সমুদ্র পথে রোমানদের বিশাল এক বাহিনী এসে উপস্থিত হবে। যার নেতৃত্বে এই বাহিনী রয়েছে তাকে আল-জামাল বলা হয়। তার পিতামাতার একজন শয়তান কিংবা জ্বিন ছিল। জাহাজের সাহায্যে চলতে চলতে আকা নগরীর আ’মাক এলাকার এক গীর্জার পার্শ্বে ছাউনি ফেলবে।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১২৬৩ ]
___________________________________
নাঈম বিন হাম্মাদ -
আমাদের বলুন এছাড়া আল ওয়ালিদ বিন সাঈদ আল - ANSI বেশি 
Mudlij বিন Miqdaam যৌনসংসর্গ ব্যতীত সন্তানজন্ম 
থেকে গোড়ালি , যার ফলে ব্যর্থ করার জন্য রোমান বলেন কে ছিলেন যেখানে Vtjtma এবং 
সেনা আসে 
মধ্যে থেকে সমুদ্র রোমানদের উপর 
তাদের মালিক এর তাদের তাকে বলেন উট 
এক এর তার বাবা পরী বা একটি দৈত্য , বলেন 
Visser 
Bsvenh এমনকি একটি আশ্রম নেমে বললেন করার একর গভীর তাকে
হাদিস - ১২৬৪
হযরত আরতাত ইবনুল মুনযির রহঃ থেকে বর্ণিত, তিনি বলেন, দিমাশ্ক থেকে প্রায় ছয় মাইল দূরে কখনো মসজিদ প্রতিষ্ঠা করা হলে তোমরা ভয়াবহ যুদ্ধের জন্য প্রস্তুতি গ্রহণ কর।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১২৬৪ ]
___________________________________
নাঈম বিন হাম্মাদ - 1২64
আব্দুল্লাহ ইবনে আল-মুনদীর 
থেকে মুহাম্মাদ বিন হুমায়ার বর্ণনা 
করেছেনঃ "যদি 
শহরটি দম্মেশকের ছয় মাইল পর্যন্ত নির্মিত হয়, তবে তারা 
অত্যাচারীদের জন্য উপবাস করবে ।"
হাদিস - ১২৬৫
হযরত কা’ব রহঃ থেকে বর্ণিত, তিনি বলেন, ছয় হাজার জাহাজের উপর আরোহন পূর্বক বিশাল এক বাহিনীর আত্মপ্রকাশ হবে, অতঃপর তারা সেই জাহাজ জ্বালিয়েÑপুড়িয়ে দিবে।
===
হযরত আব্দুল্লাহ ইবনে মাসউদ রাযিঃ থেকে বর্নিত, তিনি বলেন, তখনই যুদ্ধ-বিগ্রহ , ব্যাপক আকার ধারন করবে।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১২৬৫ ]
___________________________________
নঈম বিন হাম্মাদ
আমাদের বলুন সম্পর্কে ওয়ালিদ উসমান ইবনে আবু Alatkh 
কা'ব বলেন , তিনি ছয় হাজার আসে আউট 
জাহাজ এবং তারপর ক্রম জাহাজ Vthrq
হাদিস - ১২৬৬
বিশিষ্ট সাহাবী হযরত আবু হুরায়রা রাযিঃ থেকে বর্ণিত, তিনি বলেন, সে জাহাজগুলো এমনভাবে জ্বলতে থাকবে, যদ্বারা জুদাম এলাকায় অবস্থিত উটের উপরিভাগ আলোকিত হয়ে যাবে।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১২৬৬ ]
___________________________________
নাঈম বিন হাম্মাদ - 1২66
জন্য তীর্থযাত্রীদের বিন বিন ওয়ালিদ Lahee'ah সম্পর্কে আমাদের বলুন 
আবু সালেহ আল শাদ্দাদ - Ghafari 
আবু Hurayrah থেকে , আল্লাহ হতে পারে হতে সন্তুষ্ট সঙ্গে তাকে তিনি বললেন করার এমনকি পুড়িয়ে জ্বালান ঘাড়ে এর 
তাদের আগুনের রাত Jaddam শরীরের দিকে উট
হাদিস - ১২৬৭
হযরত আবু মুসা আশআরী রাযিঃ থেকে বর্ণিত, তিনি একদা শাম দেশে অবস্থানরত তার গোত্রের লোকজনকে বলেন, হে আশআরী সম্প্রদায়! তোমরা কৃষি ক্ষেত, ঘর-বাড়ি বানানো থেকে দূরে থাক, কেননা সেগুলো তোমাদের কোনো উপকারে আসবেনা, বরং তোমরা উন্নতমানের তলোয়ার বানাও, ঘোড়া লালন-পালন কর এবং লম্বা লম্বা তীর প্রস্তুত করতে থাক।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১২৬৭ ]
___________________________________
নাঈম বিন হাম্মাদ -
আমাদের বলুন হাম্মাদ আব্দুল্লাহ বিন আলা শোনা একটি 
বাঘ বিন আউস উল্লেখ 
আবু মুসা আল থেকে - আশ'আরী আল্লাহ পারে হতে সন্তুষ্ট সঙ্গে তাকে , সে স্বীয় সম্প্রদায়কে Baham হে বললেন 
হে Ashaari আপনি এবং কৃষক ও ভূমিকা এটা হয় না Tlaimkm এবং আপনার Palmaz blonds 
, ঘোড়া এবং দৈর্ঘ্য এর বল্লম
হাদিস - ১২৬৮
ইব্নে শিহাব যুহরী রহঃ থেকে বর্ণিত, তিনি এরশাদ করেন, হয়তো রোমানরা তাদের এলাকা থেকে মুহাম্মদ সাঃ এর উম্মতকে বের করে দেয়ার পর একমাত্র গমই তাদের রিযিক হবে।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১২৬৮ ]
___________________________________
নাঈম বিন হাম্মাদ -
আল-ওয়ালেদ শায়খ 
ইবনে শিহাব সম্পর্কে আমাদের বলেছিলেন যে তিনি 
রোম 
থেকে বেরিয়ে আসার কথা বলেছেন যে , মুহাম্মদ 
(সা।) ও তাঁর অনুসারীরা গম থেকে বেরিয়ে আসবেন।
হাদিস - ১২৬৯
হযরত তরীক ইব্নে ইয়াযিদ আল-কালবী তার চাচা থেকে বর্ণনা করেন, তিনি বলেন আমাকে ওরওয়াহ ইব্্নুযযুবায়ের রাযিঃ বলেছেন, ঐ সময় তার চুল-দাড়ি একেবারে সাদা রূপ ধারন করেছে। তিনি বলেন, হে আহলুশশামের ভ্রাতা ! নিঃসন্দেহে তোমাদেরকে রোমানবাহিনী তোমাদের শাম দেশ থেকে বের করে দিবে এবং অবশ্যই রোমানদের অশ্বারোহীরা এই পাহাড়ের উপর অবস্থান করবে। যে দিন সেই পাহাড়টি সিলা নামক পাহাড়ের উপর থাকবে, অতঃপর তারা শহরবাসিকে বন্দি করে নিবে। এরপর আল্লাহ তাআলা রোমানদের বিরুদ্ধে সাহায্য অবতরন করবেন।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১২৬৯ ]
___________________________________
নাঈম বিন হাম্মাদ - 1২69
আমাদের এছাড়া আল ওয়ালিদ বলুন 
তার চাচা উপর সম্পর্কে ঘটনাক্রমে বিন কালবী , তিনি 
আমাকে উরওয়া ইবনুল বলেন - জুবায়ের ও তার মাথা ও দাড়ি যে প্রতিদিন 
Kaltgamh 
হে ভাই , মানুষ এর সিরিয়া Chamkm থেকে রাম Akhrcengm করতে 
এবং এই উপর রাম Fuwaris দাঁড়িয়ে 
পর্বত , যা যে দিনের পর্বত পণ্য 
Vlaspin মানুষ এর শহর এবং 
তারপর ঈশ্বর বিজয় অবতরণ জন্য তাদের
হাদিস - ১২৭০
হযরত কা’ব রহঃ থেকে বর্ণিত, তিনি বলেন, বড় ও ভয়াবহ যুদ্ধে কাফের সম্প্রদায়ের স¤্রাটদের থেকে বারজন শরীক হবে। তাদের সবচেয়ে ছোট রাজ্য এবং কম সৈন্যের অধিকারী হচ্ছেন রোমানদের স¤্রাট। আল্লাহর কসম! ইয়ামেনে দ্ইু প্রকার গচ্ছিত সম্পদ ছিল। ইয়ারযুক যুদ্ধে তার একটি নিয়ে আসা হয়েছিল। সে সময় বনু আস্্দের লোক সংখ্যা পৃথিবীর লোক সংখ্যার এক তৃতীয়াংশ ছিল। দ্বিতীয় খাজিনাকে নিয়ে আসা হবে ভয়াবহ যুদ্ধের দিন। তার সৈন্যবাহিনী হবে, সত্তর হাজার, তাদের তলোয়ার হবে ‘আল-মাসাদ’।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১২৭০ ]
___________________________________
নঈম বিন হাম্মাদ
সম্পর্কে হাসান বেন আত্তিয়া Awzaa'i সম্পর্কে আমাদের ওয়ালিদ বলুন 
কা'ব দোসর বলেন গ্র্যান্ড মহাকাব্য 
বারো রাজা 
এর 
রাজাদের এর 
পারস্যদেশনিবাসীগণ 
কনিষ্ঠ রাজা এবং অন্তত সৈন্য , 
মালিক এর রোমান 
গড অলমাইটি 
মধ্যে 
ইমেন 
Kinsan 
একজন এসে এর তাদের ইয়ারমুক Alozd ছিল যে দিন , এক - তৃতীয় এর মানুষ এবং আসা অন্যান্য 
দিন মহান মহাকাব্য সত্তর হাজার Hamayel তলোয়ার Masad ডাউনলোড
হাদিস - ১২৭১
বিশিষ্ট সাহাবী হযরত আব্দুল্লাহ ইব্নে আমর ইবনুল আস রাযিঃ থেকে বর্ণিত, তিনি বলেন, যখন বিশেষ এক প্রকার ভূতের পূঁজা করা হবে এবং রোমানবাহিনী শামের উপর জয়লাভ করবে, সেদিন তারা কুরাজবাসির কাছে সাহায্য চেয়ে পাঠাবে এবং তাদের উটের উপর সওয়ার হয়ে উপস্থিত হবে। তাহলে কুরাজ বলতে, কেউ, আহলে হেজাজ বলেছেন, আবার কেউ বলেছেন আহলে ইয়ামান।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১২৭১ ]
___________________________________
নাঈম বিন হাম্মাদ - 1২71
সম্পর্কে আমাদের ওয়ালিদ বলুন 
আব্দুর রহমান বিন সালমান থেকে হারেস ইবন Obeida থেকে ইবনে Lahee'ah 
হযরত আবদুল্লাহ ইবনে আমর , পারে 
আল্লাহ সন্তুষ্ট হতে সঙ্গে যদি আবদুল প্রতিমা নিজের রোমান হাজির তাকে শাম দিন তাদের অজুহাত মানুষ লিখুন আপ পাঠানোর হবে 
Astamdoonhm Qlsathm কাছে আসবে লিখুন আপ মানে মানুষ এর হিজাজ বা এছাড়া আল ওয়ালিদ বলেন ইমেন 
বলেন 
নাঈম আমি এটা সন্দেহ করি
হাদিস - ১২৭২
হযরত আব্দুল্লাহ ইবনে আমর ইবনুল আস রাযিঃ থেকে বর্ণিত, তিনি বলেন, অবশ্যই সামরিক সাহায্য আসবে এবং তাদের ও তোমাদের মাঝে একটা ফায়শালা হবে।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১২৭২ ]
___________________________________
নঈম বিন হাম্মাদ
আমাদের হারেস ইবন ইয়াযীদ আবু মোহাম্মদ থেকে নবজাত পুত্র Hiệp সম্পর্কে আমাদের বলুন 
প্লিউরাল 
হযরত আবদুল্লাহ ইবনে আমর থেকে আসা বললেন তিনি বাড়ানো এবং তাদের মধ্যে অতিবাহিত সৈন্য
হাদিস - ১২৭৩
আল্লাহ তাআলার বক্তব্য “নিঃসন্দেহে তোমাদেরকে বিপুল সামরিক শক্তির অধিকারী শক্তিশালী এক দুশমনের সাথে মোকাবেলা করার জন্য আহ্বান করা হবে।” এই আয়াতের মর্ম বয়ান করতে গিয়ে রোমানরা বলে, সেটা হচ্ছে, ভয়াবহ যুদ্দের দিন। তবে কা’বে আহবার রহঃ বলেন, আরবদের সামনে ইসলাম পেশ করা হলে তারা বলে উঠল, আমাদের ধ্বন-সম্পদ এবং পরিবার পরিজন আমাদেরকে ব্যস্ত করে রেখেছে। অতঃপর আল্লাহ তাআলা কুরআনের আয়াত নাযেল করার মাধ্যমে বলেন, অতিসত্ত্বর তোমাদেরকে কঠিন ও প্রচন্ড রণশক্তির অধিকারী এক গোত্রের প্রতি আহবান করা হবে। সেটা ভয়াবহ যুদ্ধের দিন। ঐসময় তারা একথা বলবে যা ইসলামের শুরু অবস্থায় বলেছিল যে, আমাদেরকে ধন-সম্পদ, টাকা-পয়সা ও পরিবার-পরিজন ব্যস্ত করে রেখেছে। আর তখনই আয়াতের বিধান তাদের উপর চাপিয়ে দেয়া হবে। অর্থাৎ, তাদের উপর কঠিন শাস্তি এসে পড়বে। আমি উক্ত হাদীস আব্দুর রহমান ইবনে ইযীদের সামনে পেশ করলে তিনি সেটাকে সত্যায়ন করেছেন। হাদীস বর্ণনাকারী বাকিয়্যাহ বলেন, যদি কাফেরদের শহর জয় করাকে স্বচক্ষে দেখার আগ্রহ আমার মধ্যে না থাকত তাহলে আমি জীবিত থাকা পছন্দ করতামনা। কেননা সেদিন আল্লাহ তাআলা প্রত্যেক যুবকের জন্য কাপুরুষতা অবলম্বন করাকে হারাম করে দিয়েছেন। বর্ণনাকারী সাফওয়ান রহঃ বলেন, আমাদের শেখ হাদীস বর্ণনা করেছেন, আরবদের মাঝে সেদিন অনেকে মুরতাদ হয়ে কাফের হয়ে যাবে, আবার অনেকে ইসলামের সাহায্যের ক্ষেত্রে সন্দেহপোষণকারী হয়ে যাবে এবং তাদের সৈন্যরাও যথেষ্ট সন্দেহকারী হবে। আর যখন সেদিন মুসলমানরা জয় লাভ করব্ েতখনই মুসলমানদের থেকে মুরতাদ হয়ে যাওয়া এবং সন্দেহপোষণকারীদের উপর আক্রমণ করার জন্য লোক পাঠানো হবে। অতঃপর যারা গণীমতের ক্ষেত্রে আত্মসাৎ করার আশ্রয় নিয়েছে তারা সেদিন মারাত্মকভাবে লাঞ্ছনা ও অপদস্থতার স্বীকার হয়েছে।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১২৭৩ ]
___________________________________
নাঈম বিন হাম্মাদ -
আমাদের ওয়ালিদ এবং বলুন বাকি এর সাফওয়ান ইবনে আমর ফারাজ ইবনে মোহাম্মদ 
থেকে এ গোড়ালি শ্লোক 
থেকে Stdon মানুষ একটি খুব ভাল প্রাথমিক রোমান বলেন মহাকাব্য , বলেন গোড়ালি এর ঈশ্বর উস্কে দিয়েছে 
বেদুইনরা 
মধ্যে শুরু এর ইসলাম , তিনি আমাদেরকে আমাদের টাকা সংশ্লিষ্ট সাইদ ও Ohllona করার Stdon বলেন মানুষ একটি খুব ভাল প্রাথমিক 
প্রতিদিন মহাকাব্য 
যেমন বলে তারা বলেন শুরুর এর ইসলাম আমাদের টাকা সংশ্লিষ্ট এবং Ohllona 
তাদের যাইবে 
শ্লোক 
Aazbkm শাস্তি এবং 
আব্দুর রহমান ইবনে ইয়াযীদ দ্বারা আছে যে দিন , তিনি বলেন , আন্তরিকতা , 
বলেন 
তার বক্তব্যে বিশ্রাম 
এবং সাক্ষী খোলার শহর এর বিশ্বাসঘাতকতা, সর্বশক্তিমান ঈশ্বর যেকোন কি আমি বেঁচে থাকার প্রিয়জনের 
মহরম যে প্রতিদিন সব Hudaydah উপর caesation 
বলেন সাফওয়ান আমাদের বলেছেন বললেন Msheechtna 
যে বেদুইনরা 
এর 
বুমের্যাং যে 
প্রতিদিন অবিশ্বাসী
তাদের মধ্যে কেউ কেউ জুলাই উপর বিজয় এর ইসলাম ও Askarhm Sciacca তাহলে মুসলমানদের জন্য খোলা যে 
প্রতিদিন 
ছাড়ার উপর Bosoha অভিযান 
অবিশ্বাসী বিভাগ মুরতাদ 
এবং 
Alshakh বিভাগ 
Alkhazlh Valkhaib 
থেকে যে দিন হতাশ লুঠ
হাদিস - ১২৭৪
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১২৭৪ ]
___________________________________
নঈম বিন হাম্মাদ
আমাদের আব্দুল ওয়াহাব আইয়ুব মুহাম্মদ বিন সীরীন বলুন 
আব্দুল্লাহ বিন মাসউদ তিনি বলেন যখন যুদ্ধ 
গোলাপ 
তীব্র
হাদিস - ১২৭৫
বিশিষ্ট সাহাবী হযরত আব্দুল্লাহ ইবনে আমর রাযিঃ থেকে বর্নিত, তিনি বলেন, যে সব দলকে আল্লাহ তাআলা বিজয়ী করতে ইচ্ছা করেন তাদেরকে অবশ্যই বিজয়ী করবেন। যার কারনে তাদের দুশমনরা ধীরে ধীরে দুরে সরে যাবে। অতঃপর কিছু লোক না বুঝে শুনে কুফরীকে গ্রহন করে নিবে। হাদীস বর্ননা কারী মুহাম্মদ বলেন, আমরা কাফের হয়ে যাওয়া এবং মুরতাদ হওয়াকে এক জিনিসই মনে করি।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১২৭৫ ]
___________________________________
নঈম বিন হাম্মাদ
মোহাম্মদ 
আমাদের বলেছেন মার্কিন বাধা বিন 
আব্দুল্লাহ বিন আমর রা 
ধোয়া সম্প্রদায় এর ঈশ্বর প্রদর্শিত 
তাদের Vergb , তাদের শত্রু কাফের Viqahm পুরুষদের অনধিকারমূলক দ্বারা অনুসরণ , 
বলেন মুহাম্মদ জানি না 
কাফের ইসলাম থেকে ধর্মত্যাগ এবং intrusiveness এর মাত্র এক
হাদিস - ১২৭৬
হযরত আব্দুল্লাহ ইবনে আমর রাযিঃ থেকে বর্নিত, তিনি এরশাদ করেন, নিঃসন্দেহে আরবের এক গোত্র পুরোপুুরি ভাবে রোম বাসীদের অন্তর্ভুক্ত হয়ে যাবে। আমি জিজ্ঞাসা করলাম, পুরোপুরি ভাবে বলতে কি বুঝায় উত্তরে তিনি বললেন, তাদেও সব জনগন আমার কথা শুনে তিনি বললেন ইনশা আল্লাহ, হে আবু মুহাম্মদ! অতঃপর তিনি খুবই রাগান্বীত হয়ে দাড়িয়ে গিয়ে বলে উঠলেন, আল্লাহ পাক চাইছেন এবং সেটা লিপিবদ্ধ করে রেখেছেন।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১২৭৬ ]
___________________________________
নঈম বিন হাম্মাদ
আমাদের ওয়ালিদ ইবনে Hiệp বলুন 
আবু মোহাম্মদ প্লিউরাল থেকে হারেস ইবন ইয়াযীদ হাদরামী থেকে 
তিনি শুনেছেন আব্দুল্লাহ ইবনে আমর বলেছেন 
পুনরায় যুক্ত আরব গ্রীক উপজাতিদের হিসেবে পুরো 
আমি বললাম এবং কি তাদের পরিবারের 
বলেন পালক এবং কুকুর , 
তিনি বলেন, ঈশ্বর ইচ্ছুক , হে আবু মুহাম্মদ , তাই তিনি উন্মাদ , 
দাবি করেছেন, আল্লাহ ইচ্ছুক , এবং তার বই
হাদিস - ১২৭৭
হযরত আব্দুল্লাহ রহমান ইবনে সানাহ রাযিঃ থেকে বর্নিত, তিনি রাসূলুল্লাহ সাঃ কে বলতে শুনেছেন, এক তৃতীয়াংশ কাফের হয়ে যাবে এবং এক তৃতীয়াংশ সন্দেহ জনক ভাবে ফেরৎ আসবে, অতঃপর তার ধ্বসে পড়বে।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১২৭৭ ]
___________________________________
নঈম বিন হাম্মাদ
আমাদের ইউসুফ বিন সুলায়মান জন্য ইসহাক ইবনে আবী মাথার খুলি থেকে ওয়ালিদ ইবনে আইয়াশ বলুন 
আব্দ আল - রহমান ইবনে বয়স শুনে নবী , শান্তি হতে তার উপর বলছেন একটি তৃতীয় এর প্রায়শ্চিত্ত হয় কারণ এক - তৃতীয় এর 
Shaka 
Vijsv তাদের
হাদিস - ১২৭৮
আবু আব্দুর রহমান কাসেম থেকে বর্ণিত, তিনি বলেন, মুসলমানদের নি¤œস্তরের একদল আককা এবং এনতাকিয়ার গভীরে অবস্থান করবে। তাদের জন্য জামিন মারাতœকভাবে ফেটে যাবে, যদ্দরা তারা তার ভিতরে ঢুকে পড়বে। সেখানে থেকে তারা জান্নাত তো দেখবেইনা এমন কি কখনো নিজের পরিবারের কাছেও ফেরৎ আসতে পারবেনা।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১২৭৮ ]
___________________________________
নঈম বিন হাম্মাদ
আমাদের এছাড়া আল ওয়ালিদ বিন সুলায়মান ইবনে আবু Saa'ib থেকে ওয়ালিদ বিন মুসলিম বলুন 
তিনি শুনেছেন আবু আব্দ আল - রহমান আল - কাসিম বলেছেন শ্রেণী Alkhazlh মুসলমানদের গভীরভাবে একর ও আন্তিয়খিয়ায় 
তাদের জমি প্রবেশে Atakrq মধ্যে লঙ্ঘন জান্নাতে দেখতে বা তাদের পরিবারের কখনো ফিরে আসে না
হাদিস - ১২৭৯
হযরত আব্দুল্লাহ ইবনে আমর রাযিঃ থেকে বর্নিত, তিনি এরশাদ করেন, সৈন্যদের এক তৃতীয়াংশ লোক পরাজিত হবে এবং তারাই হবে আল্লাহ তাআলার কাছে নিকৃষ্টতম মাখলুকের অন্তর্ভুক্ত।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১২৭৯ ]
___________________________________
নঈম বিন হাম্মাদ
আমাদেরকে বলুন আলওয়ালিদ হিরের পুত্রকে হরিৎ বিন ওবায়দাহ থেকে আবু আল আসের আবদুল 
রহমান ইবনে সালমানের 
আব্দুল্লাহ বিন আমর থেকে বলুন যে, এক তৃতীয়াংশ পরাজিত হয়েছে, মরুভূমির মন্দ যখন আল্লাহ 
সর্বশক্তিমান
হাদিস - ১২৮০
হযরত আবান ইবনুল ওলীদ রহঃ থেকে বর্নিত, তিনি বলেন, হযরত আব্দুল্লাহ ইবনে আব্বাছ রাযিঃ একদিন হযরত মোয়াবিয়া রাযিঃ এর সাথে কথা বলতে গিয়ে তার কাছে যুগের বিভিন্ন বিষয় সম্বন্ধে জানতে চাইলে তিনি বলেন, আখেরী যামানায় জনৈক লোক প্রায় চল্লিশ বৎসর পর্যন্ত ক্ষমতায় থাকবে, তার রাজত্ব সাত বৎসর বাকি থাকতে বিভিন্ন ধরনের যুদ্ধ-বিগ্রহ হতে থাকবে। অসম্ভব পেরেশানীর সম্মুখীন হয়ে আমাক স্থানে মারা যাবে। অতঃপর লম্বা নাকের অধিকারী এক লোকের হাতে ক্ষমতা যাবে, তার হাতে বিজয় আসবে।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১২৮০ ]
___________________________________
নাঈম বিন হাম্মাদ - 1২80
আমাদের বলুন ওয়ালিদ আবু আব্দুল্লাহ , মুক্ত গোলাম এর ওয়ালিদ ইবনে হিশাম থেকে উমাইয়া 
আবান ইবনুল থেকে Almaaiti - ওয়ালিদ Almaaiti 
তিনি শুনেছেন ইবনে আব্বাস হয় সিড ঘটছে এবং তাকে জিজ্ঞেস করলাম সম্পর্কে সময় 
তাকে বলেন যে তিনি অনুসরণ করে একটি মানুষ এর তাদের গত এক দশকে 
চল্লিশ বছর 
হয় 
সাত বছর ধরে মহাকাব্য যে এর রয়ে 
তার উত্তরাধিকার 
Vemut খনি তারপর অতল 
অনুসৃত একটি দ্বারা মানুষ 
তার হাত দুটি হাত দিয়ে , বিজয় সেই দিন হতে হবে
হাদিস - ১২৮১
হযরত সাফওয়ান রহঃ থেকে বর্নিত, কা’ব রহঃ এরশাদ করেছেন ১০০৪ হিজরী সনের মধ্যে সব ধরনের খলীফাকে হত্যা কররা হবে। কেবল মাত্র আমীর এবং ঝান্ডা বাহকরাই বাকি থাকবে, রাসূলুল্লাহ সাঃ এর ঘোষনা মতে এর থেকে মারাতœক আর কোনো মসিবত হবেনা।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১২৮১ ]
___________________________________
নাঈম বিন হাম্মাদ -
আমাদের ওয়ালিদ সাফওয়ান সম্পর্কে আমাদের বলুন 
যে বলেন কাবা 
খলিফা মুসলমানদের হত্যা করে 
দিন 
মধ্যে এক 
হাজার চারশো , সব 
আমীর 
এবং 
তার ব্রিগেড , 
মুসলিম ভোগে যে পর দিন অগ্নিপরীক্ষা এর 
নবী , শান্তি হতে তার উপর এ ধরনের
হাদিস - ১২৮২
হযরত আব্দুল্লাহ ইবনে আব্বাছ রাযিঃ থেকে বর্নিত, একদা তার নিকট বারোজন খলীফা এবং আমীরের আলোচনা করা হলে তিনি এরশাদ করেন, আল্লাহর কসম! উক্ত রক্তপাতের পর খলীফা মনসুর, মাহদী সিংহাসনে বসবে। এক পর্যায়ে তারা হযরত ঈসা ইবনে মারইয়াম আঃ এর সাথে মিলিত হবে।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১২৮২ ]
___________________________________
নাঈম বিন হাম্মাদ -
ওয়ালিদ আব্দুল মালিক বিন সম্পর্কে আমাদের বলুন 
হুমাইদ ইবনে আবু সমৃদ্ধ Almnhal আমর বিন সাঈদ ইবনে জাবির 
ইবনে আব্বাস বলেন যে 
বারো তারপর প্রিন্স খলিফা বলেন, ঈশ্বর এর যে অজাচার পর আমাদের এবং মনসুর আল - মাহদী ও 
পুত্র যীশু প্রদান করা এর মেরি শান্তি হতে তার উপর
হাদিস - ১২৮৩
হযরত কা’ব রহঃ থেকে কর্নিত, তিনি কলেন, আমাক নামক স্থানে তীব্র যুদ্ধ সংঘঠিত হবে, তখন সাহায্যÑসহযোগিতা তুলে নেয়া হবে, মানুষ ধৈর্য হারা হয়ে যাবে এবং উভয় পক্ষ পরস্পরের প্রতি ভারী অস্ত্র প্রদর্শন করবে। সর্বত্রে এত বেশি রক্ত পাত হবে লাগাতার তিনদিন পর্যন্ত ঘোড়ার অর্ধেক পর্যন্ত রক্তের মধ্যে ডুবে থাকবে। এক মাত্র রাত্র ব্যতীত যুদ্ধ থেকে কোনো জিনিসই তাদেরকে বিরত রাখতে পারবেনা। এমন মুহূর্তে একদল লোক ঘোষনা করবে, ইসলাম একটা নির্দিষ্ট মেয়াদ পর্যন্ত স্থায়ী ছিল, এখন সে মেয়াদ শেষ পর্যায়ে এসে পৌছেছে, সুতরাং তোমরা সকলে তোমাদের বাপদাদার দ্বীন এবং জন্মস্থানে ফিরে যাও। অতঃপর একথা শুনে অনেকে কাফের ও মুরতাদ হয়ে যাবে। তবে তখনও মুহাজিরদে বংশধর গন তাদে দ্বীনের উপর অটল থাকবে, এবং তাদের একজন ঘোষনা করবে হে লোক সকল! তোমরা কি দেখছনা, এরা কি বলছে!! চলো আমরা আল্লাহ তাআলার দ্বীনের সাথে একাত¦তা পোষন করব। কিন্তু একজনও তার অনুসরন করবেনা। এক পর্যায়ে সে একাই তাদের দিকে এগিয়ে যাবে। তারা তাকে পাকড়াও করারপর হত্যা করে উপরে তাদের বর্শার সাথে ঝুলিয়ে রাখবে। যার কারনে তার রক্ত দ্বারা তাদের গোটা শরীর রন্জিত হয়ে যাবে। অতঃপর তাদেরকে আল্লাহ তাআলা পরাজিত করবেন।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১২৮৩ ]
___________________________________
নাঈম বিন হাম্মাদ
থেকে কুলসুম বিন যিয়াদ জন্য আমাদের সাথে ওয়ালিদ বলুন 
সুলায়মান ইবনে হাবিব Maharpi 
থেকে গোড়ালি তিনি বলেন 
একে অপরের অতল যুদ্ধ 
প্রচন্ডভাবে উত্তোলিত বিজয় যুদ্ধ 
ও ধৈর্যের খালি খানিকটা কিছু এমনকি চালানোর ঘোড়া উপর লোহা sheds Tnnha রক্ত 
তিনটি 
পরপর দিন 
তাদের বুক না শুধুমাত্র রাত পর্যন্ত তিনি বলেছেন Amaer মানুষ অংশগুলো মানে কি 
শুধুমাত্র জন্য চরম তাকে এবং তার চূড়ান্ত পৌঁছেছে ইসলাম ছিল নিয়তি এবং হস্তান্তর জন্ম এর Vilhakon আমাদের পিতারা 
অবিশ্বাস 
এবং থাকা শিশুদের এর অভিবাসীদের , 
বলছেন একটি মানুষ যাকে আপনি , তারা কি কি উপার্জন এই দেখ না 
আমাদের ধরতে ওঠো আপ ঈশ্বর , কি হয় অনুসৃত দ্বারা তাদের এমনকি পদচারনা তাদের দেয় 
Feinslonh Beniazkhm 
এমনকি 
যদি তাদের রক্ত টেবিল সঙ্গে তাদের অস্ত্র Verzmanm ঈশ্বর
হাদিস - ১২৮৪
উল্লিখিত হাদীসের পর হযরত তাব রহঃ আরো বলেন, হযরত হামজা ইবনে আব্দুল মুত্তালিবের পর ইসলামের মধ্যে সেই হবে সবচেয়ে সম্মানিত শহীদ। এ পরিস্থিতিতে ফেরেশতা গন আল্লহ তাআলার কাছে এ বলে ফরিয়াদ করবে, হে আল্লাহ! আমাদের আপনার বান্দাদেরকে সহযোগিতা করার অনুমতি দিন, জবাবে আল্লাহ তাআলা বলবেন, আমার বান্দাদের সহযোগিতার জন্য আমিই যথেষ্ট। তখনই আল্লাহ তাআলা তার তীর ও তলোয়ার অর্থাৎ নির্দেশ দ্বার আঘাত করবেন। ফলে তারা পরাজয় বরন করবে এবং আল্লাহ তাআলা তাদেরকে এতই লাঞ্চিত করবেন, যার কারনে তাদেরকে পরিত্যক্ত বস্তুর ন্যায় পাড়ানো হবে। এরপর রোম বাসীদের জন্য কোনো দলও থাকবেনা আবার তারা কখনো রাজত্ব ও করতে পারবেনা।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১২৮৪ ]
___________________________________
নঈম বিন হাম্মাদ
ওয়ালিদ Vhdtna উসমান ইবনে আবু বলেন 
থেকে Alatkh মত গোড়ালি 
গোড়ালি বলেন, এটি হল আকরাম শহীদ হামজা ইবনে আবদুল ছাড়া ইসলামে ছিল 
মুত্তালিব ফেরেশতা এর আমাদের পালনকর্তাকে বলছেন করতে আমাদের বিজয়ের অনুমোদন এর তোমার বান্দাদের এবং আমি প্রথম বলে Bnasrthm যে প্রতিদিন 
বর্শা ছুরিকাঘাত ও তাঁর তরবারি হিট এবং তার তলোয়ার আজ্ঞা Verzmanm ঈশ্বর 
সর্বশক্তিমান ও তাদের Fedossounam দেয় 
পদদলিত কল 
তারপর রোমানরা আর একটি গ্রুপ বা একটি রাজা হবে 
হাদিস - ১২৮৫
হযরত আরতাত রহঃ থেকে বর্নিত, তিনি বলেন, যখন কৃষ্ণাংগরা ইসকান্দারিয়া এবং মিসরের ভুখন্ডের উপর জয়লাভ করবে তখন অনারবরা ইয়াছরাব ও হিজাযে চলে যাবে, আর তাদেরকে শাম দেশ থেকে বিতাড়িত করা হবে। যার কারনে প্রত্যেক দল তার সদস্যদের সাথে মিশে যাবে। অবশেষে আল্লাহ তাআলা তাদের প্রতি একটি বাহিনী প্রেরন করবেন, তারা দুই জাযিরার মাঝামাঝি জায়গায় পৌছলে হঠাৎ শুনতে যে, প্রত্যেক দূর্বলÑসবল লোকজন আমাদের কাছে ফিরে এসো, যারা ইতোপূর্বে মুসলমান ছিলে। একথা শুনার সাথেসাথে সকল দায়িত্ব শীলগন রাগান্বীত হয়ে যাবে। ঐ সময় সালেহ ইবনে আব্দুল্লাহ ইবনে আব্দুল্লাহ ইবনে কাইস ইবনে ইছার নামক এক লোকের হাতে বাইয়াত গ্রহন করবে। তিনি তাদেরকে নিয়ে বের হয়ে যাবে, অতঃপর রোম বাহিনীর সাথে তাদের সাক্ষাৎ হবে। এক পর্যায়ে রোমদের মাঝে ব্যাপক মৃত্যু প্রকাশ পাবে। তখন তারা বায়তুল মোকাদ্দাসে থাকবে, তারা সেখানের উপর আধিপত্য বিস্তার করবে এবং ফড়িংয়ের ন্যায় মৃত্যু বন করতে থাকবে। তাদের সাথে কৃষ্ণাংগের সর্দার ও মারা যাবে। তখন সালেহ ইবনে আব্দল্লাহ তার সাথীদেরকে নিয়ে সিরিয়ার একটি স্থানে অবতরন করবে এবং আবাদী স্থলে প্রবেশ করবে। তারপর কুমুলিয়াহ নামক স্থানে অবতরন করবে এবং যানতিয়্যাহ নামক এলাকা জয় করবে। তখন তার সৈন্যরা উচ্চস্বরে তৌহীদের ঘোষনা দিবে আনিয়্যাহ নামক স্থানে তারা গনীমতের সম্পদ বন্টন করবে এবং রোম বাহিনীর উপর বিজয় লাভ করবে। সাইহুন গেইট দিয়ে তারা বের হতে চেষ্টা করবে এবং তাদের সাথে হাওয়া আঃ এর কানের দুল সম্বলিত একটি সিন্দক ছিল এং হযরত আদম আঃ এর চাদর ও হযরত হারুন আঃ জামা জোড়া ও ছিল। তার এভাবে দিনাতিপাত করবে, হঠাৎ তাদের কাছে একটি দুঃসংবাদ আসবে এবং সকলে ফিরে যাবে।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১২৮৫ ]
___________________________________
নঈম বিন হাম্মাদ
আমাদের হাকাম ইবনে Nafie বলুন , জন্য ক্ষত 
Oirtah থেকে যদি বলেন এটা মনে হচ্ছে, 
মালিক এর আল আধাম মধ্যে 
আলেকজান্দ্রিয়া 
এবং জমি এর মিশর 
ভুক্তভোগী দ্বারা আরবদের ইয়াসরিবে 
এবং হিজাজ এবং 
থেকে সরিয়ে নেয়া লেভান্ট 
এবং হিসাবে সব ধরনের কারণ 
তার দেশের মানুষের এবং কারণ এর ঈশ্বর থেকে তাদের একটি সেনা । যদি তারা মধ্যে সমাপ্ত 
দুই দ্বীপ 
Mnadem ক্লাব বাইরে আসতে করতে আমাদের 
সব প্রকাশ বা একটি বহিরাগত ছিল এর আমাদের মুসলিম 
Vngill প্রো Phippaaon মানুষ সালেহ নামক 
বিন আব্দুল্লাহ 
আব্দুল্লাহ বিন কায়েস বিন আসা আউট করে ছেড়ে দেওয়া এর তাদের এবং নিক্ষিপ্ত মৃত্যু রোমান সেনা Afiktlhm হয় রোমান ও 
তারা যে 
দিন , ঘর এর বাইবেল Vemuton মৃত্যুর বাজেয়াপ্ত করা হয়েছিল এর পঙ্গপালের 
মালিকের মরা এর আল আধাম নেমে এস এ 
পক্ষে Balmwali জমি এর সিরিয়া আর প্রবেশ Amuriyah সম্মানজনক ছিল এবং Qmolih নামা এবং 
Bzntah প্রর্দশিত 
এবং 
হতে 
কণ্ঠ এর তার সেনা মধ্যে যা উচ্চ প্রমিতকরণ
বিভক্ত তাদের মধ্যে টাকা Balanah এবং 
রোমানদের দেখায় 
এবং হয় থেকে নিষ্কাশিত 
দরজা এর সিয়োনে , 
এবং রিকেট সিন্দুকটি 
মাকড়ি হবা ও অ্যাডাম Kvute 
মানে Xah এবং 
অনুসারে 
হারুন 
শান্তি হতে তাদের ওপর যেমন পাশাপাশি সংবাদ এর Fbenahm Attah , একটি অকার্যকর হয় বিশেষণীয়
হাদিস - ১২৮৬
হযরত জাররাহ রহঃ আরতাত রহঃ থেকে বর্ননা করে বলেন, হযরত দানিয়াল আঃ এর ভাষ্য মতে প্রথম যুদ্ধ সংঘঠিত হবে ইস্কান্দারিয় নামক স্থানে, তারা নৌকা ও জাহাজে করে সেখানে থেকে বের হয়ে আসবে। অতঃপর মিশরবাসিরা শামের বাসিন্দাদের কাছে সাহায্য চাইবে, তারা পরস্পর সাক্ষাত হলে তাদের মাঝে তীব্র যুদ্ব হবে এবং অনেক মেহনত ও কষ্ট স্বীকার করার পর মুসলমানরা রোমবাসিদের পরাজিত করতে সক্ষম হবে। অতঃপর তারা সেখানেই অবস্থান করতে থাকবে এবং বিরাট একটি বাহিনী গড়ে তুলবে। এরপর সকলে সামনের দিয়ে অগ্রসর হয়ে ফিলিস্তিনের ইয়াফা নগরীতে ছাউনি ফেলবে। এদিকে সেখানের বাসিন্দারা তাদের পরিবার পরিজন নিয়ে পাহাড়ে আশ্রয় নিয়ে। তাদের সাথে মুসলমানদের মোকাবেলা হলে মুসলমানরা তাদের উপর বিজয়ী হবে এবং তাদের বাদশাহকে হত্যা করবে। দ্বিতীয় যুদ্বু হচ্ছে, তারা পরাজিত পর বিরাট এক বাহিনী গড়ে তুলবে, সেটা পূর্বের চেয়েও বড় হবে। অতঃপর তারা অগ্রসর হয়ে আককা নামক স্থানে যাত্রাবিরতী করবে ইতিপূর্বে তাদের বাদশাহ ইবনুল মাকতূল মারা যায়। আককা নামক স্থানে তাদের সাথে মুসলমানদের সংর্ঘষ বাধলে দীর্ঘ চল্লিশ দিন পযর্ন্ত মুসলমানদেরকে অররুদ্ব করে রাখা হবে। অন্যদিকে শামবাসিরা মিশরের বাসিন্দাদের কাছে সাহায্য চাইলে তাদেরকে সাহায্য করতে বিলম্ব করবে। সেদিন নাসরাদের প্রত্যেক আযাদ-গোলাম মুশরিক রোমবাসিদেরকে বেষ্টন করে নিবে। তখন শামবাসিদের একতৃতাংশ যুদ্ব ক্ষেত্র থেকে পলায়ন করবে এবংএকতৃতাংশ মারা যাবে। বাকিদের উপর আল্লাহ তাআলার সাহায্য নেমে আসবে আর এমন মারাতœক ভাবে পরাজিত হবে যা কেউ কখনো শুনেনি এবং তাদের সম্্রাটও মারা পড়বে। তৃতীয় যুদ্ব হচ্ছে, তাদের থেকে যারা সমুদ্রে চলে গিয়েছিল তারা ফিরে আসবে, তখন যারা স্থালভুমিতে পলায়ন করেছিল তারাও ফিরে এসে এদের সাথে মিলিতে হবে। অন্যদিকে একেবারে অল্প বয়স্ক খুন হওয়া বাদশাহর ছেলে রাষ্ট্র পরিচালনার দালিত্ব গ্রহণ করবে। তাদের সকলের অন্তর উক্ত বালকের ভালোবাসা বাসা বাঁধবে। যার কারণে তার সিদ্ধান্তগুলো এমন ভাবে গ্রহণ করবে যা ইতিপূর্বে অতিবাহিত হওয়া রাজা-বাদশাহদের গ্রহণ করা হয়নি। তারা এন্তাকিয়ার ভিতরে গিয়ে ছাউনে ফেলবে। তখন মুসলমানরাও একত্রিও হয়ে তাদের পাশাপাশি ফেলবে। ফলে দীর্ঘ দ্ইু মাস পযর্ন্ত উভয়ের মাঝে যুদ্ধ চলতে থাকবে। অতঃপর আল্লাহ তাআলা মুসলমানদের সাহায্য প্রেরণ করলে রোমবাসিন্দা পরাজিত হবে। সেখানেই তাদেরকে পরায়নরত অবস্থায় পর্বতের উপর আরোহনকালীন হত্যা করা হবে। ঐসময় তাদের কাছে সাহায্য আসলে তারা কিছুটা শক্তি সঞ্চয় করবে এবং মুসলমানদের উপর মারাতœক মসিবত নেমে আসবে। তারা তাদেরকে হত্যা করবে এবং তাদের এলাকা দখল করে নিবে। অবশিষ্টরা পরাজিত হবে। অতঃপর মুহাজিরগন তাদেরকে খোঁজে নিয়ে মারাতœকভাবে হত্যা করবে। এখনই ক্রুশ ধ্বংস করা হবে এবং রোমবাসিরা তাদের পিছনে আন্দুলুসের কিছু লোকের কাছে পৌছলে দারব নামক স্থানে ছাউনি ফেলবে। ঐ সময় মুহাজির গন দুই দলে বিভক্ত হয়ে এক দল দারব নামক স্থানের স্থলভাগের দিকে যেতে থাকবে এবং আরেক দল সমুদ্রের দিকে নিজেদের অশ্ব দৌড়াবে। এভাবে চলতে চলতে মুহাজিরদের স্থলভাগ এবং দারব নামক স্থানের বাসিন্দাদের সাথে তাদের দুশমনের সাথে যুদ্ধ বেধে যাবে এবং মুহাজিরনের উপর আল্লাহ তাআলার সাহায্য নেমে আসবে। আর তাদের দুশমন মারাতœক ভাবে পরাজিত হবে, যা পূর্বের পরাজয়ের তুলনায় জঘন্য হবে। অন্যদিকে সমুদ্রে অবস্থান কারীদের জন্য সুসংবাদ আসবে যে, নিঃসন্দহে তোমাদের জন্য অঙ্গীকারের স্থান হচ্ছে মদীনা, অতঃপর আল্লাহ তাআলা তাদেরকে উত্তম চরিত্রের অধিকারী করবেন। এক পর্যায়ে তারা মদীনাতে এসে পৌছবে এবং সেটা জয় করবে। এরপর উক্ত শহরকে বিরান ভূমিতে পরিনত করে ছাড়বে। অতঃপর আন্দুলুসিয়ার দিকে অগ্রসর হবে, সেখানে বিশাল জমায়েত হবে এবং তারা শাম দেশে পৌছলে সেখানে অবস্থানরত মুসলমানদের সাথে তাদের সংঘর্ষ হবে এবং আল্লাহ তাআলা তাদেরকে পরাজিত করবেন।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১২৮৬ ]
___________________________________
নঈম বিন হাম্মাদ
জাররাহ বললেন 
Oirtah সম্পর্কে 
প্রথম Valmhamh 
মধ্যে 
শব্দ এর ড্যানিয়েল করার 
হতে মধ্যে 
আলেকজান্দ্রিয়া 
Vistgat তাদের জাহাজ আউট 
মানুষ এর মিসর , মানুষ এর পর শাম Viltqon Afiktthelon ভারী যুদ্ধ Verzm মুসলমানদের রোমান একটি প্রচেষ্টা 
তীব্র এবং তারপর তাদের বাস এবং জড়ো করা একটি মহান ভিড় এবং 
তারপর Vinzlon জাফা গ্রহণ , প্যালেস্টাইন 
দশ মাইল 
এবং তার পরিবার Bdhirarm marching পর্বত Vizvron Vilqahm মুসলমানরা তাদের এবং তাদের রাজা হত্যা 
এবং 
দ্বিতীয় মহাকাব্য 
জমায়েত , পরাজিত একটি ভিড় প্রথমে তাদের নির্বাণ তার চেয়ে অনেক বেশী এবং তারপর 
গ্রহণ Vinzlon 
একর 
তাহাদেরই ছেলে বরবাদ হয়ে এর নিহত মুসলমানদের হবে একর পূরণ এবং 
লক আপ মুসলমানদের জন্য বিজয় 
চল্লিশ দিন 
এবং কামনা সাহায্যের এর মানুষ এর জন্য সিরিয়া মানুষ এর অঞ্চলে Phipptan বিজয় এ থাকার নয় এটাই মূর্তিমান মূর্তি
মুক্ত ও স্লেভ খ্রীষ্টধর্ম শুধুমাত্র দীর্ঘ রোমান ফিফার এক - তৃতীয় এর মানুষ এর সিরিয়া আর নিহত একটি তৃতীয় এবং তারপর দান বিজয় থেকে 
ঈশ্বরের বিশ্রাম Versmon রোমান পরাজয়ের ছিল শোনা যায় না এর এবং তাদের নিজস্ব হত্যা 
তৃতীয় মহাকাব্য 
কারণ তাদের ফিরে এর সাগর এবং তাদের যোগদান থেকে তিনি তাদের পালিয়ে জমি ও ছেলে ভোগদখল এর তাদের রাজা 
লোকদের হত্যা ছোট করেনি তিনি বৃদ্ধি এবং নিক্ষিপ্ত তাদের মনের Viqubl তার স্নেহ সহ Mlkahm দ্বারা গৃহীত হয়নি 
প্রথম দুই সংখ্যা 
Vinzlon গভীরতা এর আন্তিয়খিয়ায় 
এবং Vinzlon Bazaihm মুসলমানদের পূরণ 
Afiktthelon 
দুই মাস , 
তারপর ঈশ্বর নিচে বিজয় Versmon মুসলমানদের উপর আসা রোমানস্ এবং তাদের হত্যা যেমন তারা হারপুন 
মধ্যে ট্যালোন পথ এবং তারপর তাদের বাড়ানো দেয় করার তাদের Viagafon এবং থেকে শুরু মুসলমানদের Vtaker তাদের ফুটবল 
Afikthelonhm ও তার বাকি ছিল পরাজিত 
Vitalbhm 
অভিবাসীদের 
Afikthelonhm শোচনীয়ভাবে নিহত , তারপর 
বাতিল ক্রস
রোমান এবং ডালপালা তাদের পেছনে জাতির 
আন্দালুসিয়া থেকে তারা গ্রহণ তাদের এমনকি বন্ধ বাদ 
লেজ হয় চরিত্রায়িত দ্বারা অভিবাসীদের মধ্যে অর্ধেক Visser , অর্ধেক এর কাছাকাছি জমি লেজ এবং অন্যান্য অর্ধেক যাত্রায় 
সমুদ্র হবে অভিবাসীদের যারা পূরণ হয় যে মূল ভূখন্ড এবং পথ শত্রু এর ঈশ্বর Vizfarhm তাদের শত্রু 
Verzmanm পরাজয়ের চেয়ে বড় প্রথম Ahazzaam এবং বিধায়ক আল - বশির তাদের ভাইদেরকে সমুদ্রের 
আপনার সময় সঙ্গে শহর এর ঈশ্বর Vecearham সেরা জীবনী এর 
এমনকি শহর Vivthunha বন্ধ বাদ 
এবং Akhrbunha 
তারপর করা তারপর আন্দালুসিয়া ও দেশে 
Vigtmon 
আসবে শাম Vilqahm Almsmlon 
Verzmanm ঈশ্বর 
সর্বশক্তিমান
হাদিস - ১২৮৭
হযরত কা’ব রহ থেকে বর্নিত তিনি বলেন রোম বাসিরা সত্তর দলে বিভক্ত হয়ে বায়তুল মোকাদ্দাস প্রবেশ করবে এবং সেটাকে ধ্বংস করে ছাড়বে। বায়তুল মোকাদ্দাস এবং শাম দেশে খেলাফত প্রতিষ্ঠত থাকা অবস্থায় সেখানে সম্পূর্ন রুপে আনুগত্য বাকি থাকবে। নদীর কূলের এলাকার উপর আল্লাহ তাআলার গজব নিপতিত হবে, এবং কায়সাবিয়্যাহ, বৈরুত সারিফিয়্যাহ নামক এলাকাটি মাটিতে ধ্বসে যাবে। নদীর সে এলাকা থেকে শুরু করে জর্দান ও বায়সান পর্যন্ত বিলাল এলাকার উপর রোমÑশাম বাসিরা আধিপত্য বিস্তার করবে। পরবর্তীতে মুসলমানরা জয়লাভ করলে তাদের সাথে চুক্তি হবে এবং তাদের উপর রাজত্ব প্রতিষ্ঠিত হবে। যার কারনে সাত থেকে নয় বৎসর পর্যন্ত গোটা এলাকায় শান্তি বিরাজ করবে। হযরত কা’ব রহঃ বলেন, প্রথমে ইরাক বাসিরা আনুুগত্যের হাত তুলে নিয়ে এবং শাম বাসিদের পক্ষ থেকে নিয়োগকৃত আমীরকে হত্যা করবে। যার কারনে তাদের সাথে শাম বাসিদের যুদ্ধ সংঘঠিত হবে এবং তাদের প্রতি রোমীরাও হাত বাড়িয়ে দিবে। ইতিপূর্বে রোমবাসিদের সাথে তাদের চুক্তি হয়েছিল, এবং দশ হাজার দিয়ে তাদেরকে সাহায্যও করেছিল। এভাবে তারা সকলে ফুরাত নদীর তীরে পৌছবে এবং উভয়ের মাঝে তীব্র লড়াই হবে। যে লড়াইয়ে শাম বাসিরা জয়লাভ করবে। এরপর তারা কূফা নগরীতে ঢুকে সেখানকার বাসিন্দা দেরকে বন্দি করতে থাকলে রোমবাসিরা শাম দেশের বাসিন্দাকে বলবে ‘তোমরা যারা বন্দি হয়েছ তারা আমাদের সাথে শরীক হয়ে যাও। তারা আরো বলবে মুসলমানদের জন্য মুক্তির কোনো উপায় নেই। আমরাই গনীমতের মান বন্টন করব। রোমবাসিরা আরো বলবে তোমরা তাদের উপর মূলতঃ ক্রুশের কারনে বিজয়ী হতে পেরছ। জবাবে মুসলমানরা বলবে, কক্ষনো নয়, আমরা আল্লাহ তাআলা এবং রাসুলুল্লাহ সাঃ এর কৌশলের কারনে বিজয়ী হয়েছি। তারা এভাবে কথা কাটাকাটি রোম বাসিরা ক্রোধান্বিত হয়ে উঠবে। এহেন পরিস্থিতে জনৈক মুসলমান দ্রুত গতিতে গিয়ে তাদের সালীব (ক্রুশ) ভেঙ্গে ফলবে। ফলে তারা বিভিন্ন দলে বিভক্ত হয়ে পড়বে। রোমের বাসিন্দারা তাদের মাঝে প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি কারী একটি নদী অতিক্রম করবে এবং রোম বাসিরা তাদের মধ্যকার চুক্তি ভঙ্গ করবে, আর কুস্তুনতিনিয়া নামক জনপদে অবস্থানকারী মুসলমানদের সাথে যুদ্ধে লিপ্ত হয়ে যাবে। রোমের সৈন্যরা হিমসের পার্শ্বদিয়ে বের হয়ে যাবে এবং হিমসের বাসিন্দরা তাদের মোবেলায় এগিয়ে আসলে আজমীগণ হিম্স শহরের গেইট বন্ধ করে দিবে। তখন রোমের সম্রাট ফাহমা নামক স্থানে এসে পৌঁছবে, কিন্তু বাহরা গীর্জার পিছনে অবস্থিত ব্রীজটি অতিক্রম করতে সক্ষম হবে না। রোমবাসিরা মুসলমানদেরকে হিম্স নগরী খালি করে দিতে আহবান জানিয়ে বলবে, হিম্স নগরীটি আমাদের বাপ-দাদার এলাকা ফলে তাদের মাঝেএত তীব্র যুদ্ধ হবে, যদ্বারা ঘাসহীন চারন ভুমির সাত স্থানে অবস্থিত পাথর পর্যন্ত রক্তে রনজিত হয়ে যাবে। এক পর্যায়ে রোম বাসিরা পরাজিত হবে এবং মুসলমানরা হিমসের দিকে ফিরে যাবে। সেখানে পৌছে তাদের বাহনকে যয়তুন গাছের সাথে বাধার পর তার উপর মিনজানিক স্থাপন করবে। এবং মাসহাল নামক এলাকায় অবস্থিত গীর্জাকে ধ্বংস করে ছাড়বে। একজন ইহুদীর বিনিময়ে মুসলমানদের জন্য পূর্বদিকের ফটক খুলে দেয়া হবে, অথবা দিমাশকের দিকের বন্ধ ফটক খুলে দেয়া হবে। যার কারনে মুহাজির গন দলে দলে সে শহরে প্রবেশ করতে থাকবে এবং বনু আসাদের গীর্জা থেকে আনসারদের একদল পলায়ন করবে, যাদেরকে পরবর্তীতে মুসলমানরা এবং তাদের সাথে থাকা আজমিরা হত্যা করবে। তাদের এক তৃতীয়াংশ বিরান হয়ে যাবে, এক তৃতীয়াংশ আগুনে পুড়ে যাবে এবং অন্য এক তৃতীয়াংশ ডুবে মরবে। যতদিন পর্যন্ত হিমস নগরী আবাদ থাকবে ততদিন পর্যন্ত শাম দেশও আবাদ থাকবে।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১২৮৭ ]
___________________________________
নাঈম বিন হাম্মাদ -
আমাদের হাকাম ইবনে Nafie বলুন , যারা তাকে বলেন 
সম্পর্কে গোড়ালি , তিনি বলেন 
রোমান হাউস প্রবেশ 
Ahedmoh পর্যন্ত পবিত্র সত্তর ক্রস 
এবং এখনও আনুগত্য মধ্যে জায়গা কি ছিল খেলাফতের জমি এর 
জেরুজালেম, লেভান্ট এবং প্রথম উপকূল এর ঈশ্বর এর উপর রাগ 
Vijsv 
Alsarvih কৈসরিয়া দ্বারা 
বৈরুত 
এবং যার মালিক 
থেকে রোমান লেভান্ট চল্লিশ দিন জর্ডন সমুদ্রতীরবর্তী অঁচল নিসান এবং তারপর ব্যাপা 
জন্য মুসলমানদের তারা 
Asalihunha 
এমনকি তাদের ক্ষমতা হচ্ছে উপর তাদের এবং আশ্বাস পুরো পৃথিবী সাত 
বা 
নয় 
বললেন গোড়ালি 
বন্ধ লাগে মানুষ এর ইরাক , আনুগত্য এবং তাদের নেতা হত্যা 
এর মানুষ এর সিরিয়া 
Vigsohm মানুষ এর সিরিয়া 
এবং তাদের আঁকা রোমান 
শান্তি চুক্তি করেছে সঙ্গে Estmteke Fimteke আগে রোমানরা সঙ্গে দশ হাজার এমনকি 
সাধিত ইউফ্রেটিস Viltqon হইবে জেড তাদের উপর সিরিয়া মানুষের fled
তারপর কুফা Vespon তার পরিবার লিখুন এবং 
তারপর রোমানরা বন্দিদশা থেকে যখন ন্যায়ত Hamyin Ohrcna বলছি , আর 
তারা বলে , কিন্তু কি ছিল 
মুসলমানদের কোন ব্যাপার না করার তাকে এবং Nkasemkm টাকা বলে রোমানরা কিন্তু পরাস্ত তাদের ক্রুশ 
এবং বলেছেন মুসলমানদের কিন্তু আল্লাহ ও তাঁর রসূলের , শান্তি হতে তার উপর Gbannahm Vidolunh তাদের 
Vigill রোমান যারা মুসলমানদের থেকে তাদের ক্রুশ ম্যান হইবে Vixrh Vivtrkon এবং আছে রোমান নদী 
তাদের বাধা দেয় থেকে তাদের এবং সমালোচনা রোমান Salehha এবং 
কনস্টান্টিনোপল মুসলমানদের হত্যা এবং 
বাইরে আসতে তারপর 
হোমসের রোমানরা , মানুষ এর হোমস উপকূল থেকে বাইরে য়েতে হবে থেকে তাদের দরজা বন্ধ হয়ে শহর এর হোমস পারস্যদেশনিবাসীগণ , এবং তারা অবতরণ 
রাজা এর না রোমান খিলান Vhamaia আরো তুলনায় দেইর Bahra ছাড়া 
রোমান বলে Mslemen 
আমাদের Hmassa বর্জিত 
বাড়িতে তাই যে রক্ত এর Afiktthelon আমাদের পিতারা Alooasit সাত পাথর 
তাদের Alobars তারপর পরাজিত রোমান
মুসলমানদের দ্বারা হোমস কারণে 
এবং তাদের ঘোড়া শরীক সঙ্গে জলপাই গাছ 
এবং স্থাপনের তাদের catapults এবং Mshal চার্চ ধ্বংসের এর আশ্রম 
এবং খোলা হোমস মুসলমানদের একটি লোক ইহুদীদের 
থেকে পশ্চিম দরজা ডান বা থেকে মধ্যবর্তী বদ্ধ দরজা দামেস্ক গেট এবং দরজা এর ইহুদীদের 
Videchlha 
অভিবাসীদের 
এবং টালা একটি সমর্থকদের পরিসীমা আশ্রম এর বানি আসাদ Afiktlhm মুসলমান ও দ্বারা 
পারস্যদেশনিবাসীগণ এবং নাশকতার তৃতীয় ও পুড়িয়ে এবং তৃতীয় ও তৃতীয় মজান - শাম হল এখনও পূর্ণ এর লোকেরা এর 
হোমস
হাদিস - ১২৮৮
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১২৮৮ ]
___________________________________
নাঈম বিন হাম্মাদ -
আমাদের আবু বকর ইবনে আবী মারইয়াম আবু marauding বলুন 
Aloheach বলতে শুনেছি 
গাট্টা হবে আপ টেলিফোন নিযুক্ত 
একটি মেইন ঘন ঘন কারামুক্ত 
Vngrq হোমস 
বা বেশিরভাগ পূর্ব এর হোমস দশ মাইল
হাদিস - ১২৮৯
হযরত আবু আমের আলহানী রহঃ থেকে বর্নিত, তিনি বলেন:
আমি একটি গ্রামে থাকা কালীন দুপুরের দিকে হারিছ ইবনে আবু আনআম আমার কাছে আনে। তখন কিন্তু তীব্র গরম চলছিল। তাকে দেখে বললাম, হে চাচা! এমন মুহূর্তে কেন আসলেন। জবাবে তিনি বললেন ইহুদীদের গেইট সংলগ্ন গ্রামটি খুজতে এসেছি। সেটা তার আভিজাত্যের সাথে গোপন হতে চলছে। ফলে উক্ত ভ’মিটি অন্য এলাকার সাথে মিশ্রিত হয়ে যায়। এখন কি তোমার এ এলাকায় বয়স্ক কোনো আছেন, যিনি আমাকে উক্ত এলাকাটি শনাক্ত করে দিতে পারবেন।
জবাবে আমি বললাম, হ্যা উক্ত এলাকায় খুবই বয়স্ক একজন লোক রয়েছে। আমরা তার কাছে পৌছলে হারিছ তাকে উল্লিখিত এলাকা ও নদী সম্বন্ধে জিজ্ঞাসা করলে তিনি উত্তর দিলেন আমি আমার পিতাকে বলতে শুনেছি, উক্ত নদীর পানি এত বেশি মারাত্মক ছিল, যা কোনো গর্ভবতী মহিলা পান করলে তার গর্ভপাত হয়ে যেত। এরপানি কোনো গাছের গোড়ায় দিলে তার পাতা ঝড়ে পড়ত। যা উপলব্ধি করে সকলে পেরেশান হয়ে পড়ে এবং তার একটা আশু সমাধান খুজতে থাকে।

এক পর্যায়ে একজন লোকের দেখা পাওয়া গেলে তার সামনে অনেক নজরানা রাখা হয়। তিনি শিশা, চর্বী, আলকাতরা এবং পশম দ্বারা তৈরীকৃত একটি ইট দিতে বললে আমরা যখন সে ইট তার সম্মুখে রাখি তখন তিনি উক্ত ইট নিয়ে পাহাড়ে বন্য প্রানীর একটি গুহাতে গিয়ে কিছু আমল করলে উক্ত নদীটি লোক চক্ষুর অন্তরালে চলে যায়।
হাদীস বর্ননা কারী আবু আমের রহঃ বলেন, আমরা যখন উল্লিখিত শেখের স্বাক্ষাত শেষে বের হচ্ছিলাম তখন তিনি বললেন আমি কতক সাহাবায়ে কেরামকে বলতে শুনেছি, নিঃসন্দেহে সেটা ছিল জাহান্নামের একটি এলাকা, হিমস নগরীর অর্ধেক অংশ সেখানে নিমজ্জিত হবে এবং বাকি অর্ধেক অংশ আগুনে জ্বলে যাবে।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১২৮৯ ]
___________________________________
নঈম বিন হাম্মাদ
আমাদের Oirtah জন্য আবু marauding বলুন 
আবু আমের Alolhana থেকে বলল আমি ছিলাম মধ্যে গ্রাম এর 
Fjana হারেস ইবনে আবু আশীর্বাদ যখন অর্ধেক মাধ্যমে দিন এবং বিকালে তীব্র , 
আমি বললাম , হে চাচা কি এসে 
এই জন্য আপনি , তারপর 
এই উপত্যকা extrapolated বলেন , যা ইহুদীদের দরজা পাসের এবং তারপর এটি গোপন থেকে 
এমনকি মিশুক ঐ ক্ষেত্র তার মতবাদ মধ্যে গ্রাম , এই লোকটা চালু করেছে লসন 
বলেন হ্যাঁ এখানে হয় শেখ 
মহান কি দাম্ভিকতা থেকে বের Vantalegna আসে কাছে তাকে এবং তাকে এটি সম্পর্কে হারেস জিজ্ঞেস উপসাগরীয় 
শেখ বলেন , 
আমি শুনেছি আমার বাবার বলে যে তার পানি তা পান না দৃশ্যমান ছিল গর্ভবতী শুধুমাত্র তার পেট পাবেন না কি ফেলে দেওয়া একটি 
গাছ , কিন্তু বিক্ষিপ্ত এবং ছেড়ে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ মানুষ যে তাকে Valtmsoa এসে একটি মানুষ Fjalo তাকে Vdaahm তৈরি 
Bbannh পেন্সিল এবং চর্বিযুক্ত এবং আলকাতরা এবং তারপর একটি উল Taleghua স্কোয়াড্রন উপার্জন যা সে Fajvi তৈরি জল , 
বলেন আবু আমের বলেন , যখন আমরা বাইরে গিয়ে আমি কিছু শুনতে পেলাম এর সাহাবী এর নবী , শান্তি হতে পরে তার বলেছে যে সে
থেকে ওয়েড উপত্যকার এর জাহান্নাম এবং যে 
হোমস অর্ধেক মজান এর 
এটি এবং 
অন্যান্য অর্ধেক করার অসুস্থ আগুন পড়া