এসো হাদিস পড়ি ?
এসো হাদিস পড়ি ?
হাদিস অনলাইন ?

বাগদাদ এবং “যাওয়া” শহরে সুফইয়ানীর ধ্বংশের বর্ননা

একটি আরবি শব্দ ডাবল ক্লিক করে তার অভিধান এন্ট্রি দেখায়
হাদিস - ৮৮৪
হযরত আবু জা’ফর রাযিয়াল্লাহু আনহু হতে বর্ণিত যে, তিনি বলেন যখন সুফইয়ানী আবকাত, মানসূর, কিনদি, তূর্ক, ও রোমে প্রকাশ পাবে তখন সে বের হবে এবং কূফার দিকে যাবে। অতপর চিকিৎসা বা আরোগ্য ওয়ালা উথিত হবে। আর সেখানেই হালাকু আব্দুল্লাহ থাকবে। আর সে অপসারিতকে অপসারিত করবে। আর সে মদীনয়ে যাহরার অধিবাসীদের অজ্ঞাতে তাদের মাঝে সম্পৃক্ত হয়ে যাবে। অতপর শহরে চাপ সৃষ্টির কারণে আখওয়াছ তথা ছোট চোখ বিশিষ্ট হওয়া প্রকাশ পাবে। ফলে সেখানে অনেক বড় একটা যুদ্ধ হবে। আর সে যুদ্ধে আব্বাসের বংশধরের ছয় জন নেতাকে হত্যা করা হবে। আর সেখানে বড় হত্যাযজ্ঞ হবে। অতপর সে কূফার দিকে যাবে।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ৮৮৪ ]
___________________________________
নঈম বিন হাম্মাদ
আমাদের বলুন আবু উসমান জাবের আবু জাফর বলেন , 
যদি এটা মনে হচ্ছে, 
maculata উপর Sufiani এবং আল - মনসুর এবং কানাডিয়ান তুর্কী ও রোমান বেরিয়ে আসেন এবং ইরাকে আসেন , এবং তারপর 
সঙ্গে নামা একটি নিরাময় শতাব্দীর , যা ধ্বংস এর আবদুল্লাহ ও পদচ্যুত স্থানচ্যুত এবং ভাবেন [আপনি] জন্যে 
মধ্যে শহর Zora অজ্ঞতা Alokhos মনে হচ্ছে, জোর করে শহর তারা হবে তাকে হত্যা এবং মহান নিহত 
আল ছয় Okph - আব্বাস জবাই তাদের সাবরা জবাই এবং তারপর কুফা যেতে আউট
হাদিস - ৮৮৫
হযরত ইবনে মাসউদ রাযিয়াল্লাহু আনহু রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম হতে বর্ণনা করেন যে, রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বলেন যখন সুফইয়ানী ফুরাত পার হবে এবং এমন এক জায়গায় পৌছবে যার নাম হবে আকের কূফা। আল্লাহ তা’আলা তার অন্তর থেকে ঈমানকে মুছে দিবেন। আর সেখানে একটি নদীর দিকে যে নদীর নাম হবে দাজীল। উক্ত নদীর নির্জন প্রান্তরে সত্তর হাজার তরবারীধারী লোককে সে হত্যা করবে। আর তাদের ব্যতীত তাদের থেকে বেশী লোক থাকবে না। অতপর তারা বাইতুয যাহাব তথা স্বর্ণের ঘরের উপর প্রকাশ পাবে। অতপর তারা যুদ্ধ করবে এবং ধ্বংসযজ্ঞ চালাবে। অতপর তারা মহিলাদের পেট চিড়বে বা ফাড়বে। তারা বলবে হয়তো সে কোন গোলাম কর্তৃক গর্ভবতী হয়েছে। আর দাজলার পাড়ে র্মারা এর দিকে মহিলাগণ কুরাইশদের নিকট সাহায্য কামনা করবে। সুফুনের অধিবাসীদেরকে তারা ডাকবে যাতে তাদেরকে উঠিয়ে নেয় এবং যাতে তারা তাদেরকে মানুষের সাথে সাক্ষাত করাতে পারে। আর তারা বনু হাশেমের উপর শত্রুতার কারণে তাদেরকে উঠাবে না। আর তোমরা বনু হাশেমের সাথে শত্রুতা পোষণ করিও না। কেননা তাদের থেকেই রহমতের নবী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম। আর তাদের থেকে জান্নাতে পাখি হবে। আর মহিলাদের অবস্থা হল যখন রাত গভীর বা অন্ধকার হবে তখন তারা উহার গর্ত সমূহে আশ্রয় গ্রহণ করবে যে গর্তগুলো থাকবে ফাসেকদের থেকে লুকায়িত থাকবে। অতপর তাদের নিকট সাহায্য আসবে। এমনকি তারা (সাহায্য) সুফইয়ানীর সাথে যে সমস্ত মহিলা ও সন্তান সন্ততী থাকবে তাদেরকে বাগদাদ ও কুফা থেকে উদ্ধার করবে।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ৮৮৫ ]
___________________________________
নঈম বিন হাম্মাদ
আমাদের বলুন 
আল থেকে তার বাবার কাছ থেকে আবু ওমর ইবনে Hiệp আব্দ ওয়াহাব বিন হুসাইন মুহাম্মদ ইবনে সাবেত - হারেস 
আল্লাহ পারে ইবনে মাসউদ হতে সন্তুষ্ট সঙ্গে থেকে তাকে নবী , শান্তি হতে তার উপর দিয়ে যদি বলেন ক্রমবর্ধমান এর 
ইউফ্রেটিস ও পৌঁছে বিষয় বলেন কাছে তাকে একর স্থায়ী ঈশ্বর তাদের বিশ্বাসের মুছে ফেলা থেকে তার হৃদয় হবে তাদের হত্যা থেকে 
নদী হয় Dujail নামক সত্তর হাজার Mottaglden তলোয়ার demineralised এবং অন্যদের সবচেয়ে এর তাদের হবে তাদের দেখানোর 
স্বর্ণ ঘর এবং জঙ্গী হিরো এবং Abaqron পেটে হত্যা এর নারী সম্ভবত গর্ভবতী বলে একটা সঙ্গে 
পুত্র ও তারা কুরাইশদের লোকজনের স্ত্রীদের কান্নাকাটি Shatt আল - পথচারী টাইগ্রিস -by থেকে মানুষ এর জাহাজ করার কথা বলুন 
লোকদের Ihamlohn এমনকি Alqohn Ihamlohn না জন্য ঘৃণা ছেলেদের এর হাশিম না Tbgadwa বনী হাশেম ফার্সী 
এর যাদের নবী এর রহমত সহ জান্নাতে হিসাবে পাইলট জন্য 
নারী , যদি জাহান্নাম রাতে ওয়েন 
Ogoreha করার জন্য ভয় এর অন্যায়কারীদের জায়গা এবং তারপর তাদের বিজয় সময়কাল দেয় এমনকি Istnqzu সঙ্গে
আল-থারারী থেকে সুফিয়ানী এবং বাগদাদ ও কুফার নারীরা
হাদিস - ৮৮৬
হযরত ইবনে আব্বাস রাযিয়াল্লাহু আনহু হতে বর্ণিত যে, হযরত হুযাইফা রাযিয়াল্লাহু আনহু বলেন তার বংশধরের থেকে এক লোক পূর্বাঞ্চলের নদী সমূহের মধ্য থেকে একটি নদীর উপর অবস্থান নিবে। যার নাম হবে আব্দুল ইলাহ বা আব্দুল্লাহ। উক্ত নদীর উপর দুইটি শহর গড়ে উঠবে। আর উক্ত দুটি শহরের মাঝখান দিয়ে নদী বইবে। আর যখন আল্লাহা তা’আলা তার রাজত্বের অবসানের অনুমতি দিবেন এবং তার মেয়াদ কাল শেষ করে দিবেন, তখন আল্লাহ তা’আলা উহার দুটির একটিতে কোন এক রাত্রে আগুণ পাঠাবে। ফলে গাড় কালো ও অন্ধকার হয়ে যাবে। সব কিছু জ্বালিয়ে পুড়িয়ে দিবে। কেমন যেন ঐ স্থানে কোন কিছুই ছিল না। আর সকাল হবে আর সবাই আশ্চার্যান্তিত হবে। কিভাবে সবকিছু চলে গেল । সেদিন শুধু দিনের শুভ্রতাই থাকবে। এমনকি আল্লাহ তা’আলা সেদিন সেখানে প্রত্যেক অহংকারী দাম্ভিককে একত্র করবেন। অতপর আল্লাহ তা’আলা তাদের সকলকে সহ উক্ত শহর দাবিয়ে দিবেন। আল্লাহ তা’আলার কথন হা-মীম, আইন সীন ক্বাফ। আল্লাহ তা’আলার পক্ষ থেকে দৃঢ় ভাবে প্রত্যয়িত এবং ফায়সালা। আর আইন (অক্ষর দ্বারা উদ্দেশ্য হল) আযাব। আর সীন ( এর ক্ষেত্রে) বলা হয় অচিরেই নিক্ষিপ্ত হবে, উক্ত দুটির উপর পতিত হবে। অর্থাৎ উক্ত দুটি শহরের উপর ।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ৮৮৬ ]
___________________________________
নঈম বিন হাম্মাদ
আমাদের বলুন আবদুল কুদ্দুস আমাদের বলেছেন 
Oirtah বিন মুনযির যারা তাকে ইবনে আব্বাস সম্পর্কে বলা 
যে হুযাইফা আল্লাহ সন্তুষ্ট হতে পারে সঙ্গে তার Anzln করার একটি মানুষ 
তার পরিবারের , বলেন কাছে তাকে , আবদুল্লাহ বা আব্দুল্লাহ উপর থেকে নদী নদী এর ওরিয়েন্ট দ্বারা গৃহীত 
দুটি শহর ঠেলা তাদের মধ্যে নদী । যদি আল্লাহ মৃতু্য অনুমোদিত এর রাজা ও বিঘ্ন এর তাদের সে ওয়াদা তিনি প্রেরিত 
ঈশ্বর Ohdehma রাত আগুন , আনয়ন থেকে অন্ধকার কালো যেন পুড়িয়ে ফেলার এটা ছিল না [মধ্যে 

স্থান ও পরিণত অনুষঙ্গী দ্বারা সকাল , সারা কিভাবে অপ্রবৃত্ত কি শুধুমাত্র [হয়] সাদা এর দিন পর্যন্ত ঈশ্বরের এনেছে 
তাদের সবাইকে মহৎ একগুঁয়ে তারপর ঈশ্বর Akhosv তাদের এবং সব এর তাদের এটা হয় বলে হ্যাম Asag সংকল্প 
ঈশ্বর এবং বিচারক এবং যন্ত্রণা এবং পাপের চোখ এটি একটি বাস্তবতা হবে extraterrestrials দুটি শহর মানে
হাদিস - ৮৮৭
হযরত আব্দুর রহমান ইবনে গানাম হতে বর্ণিত যে, তিনি বলেন দুই জন বাঁদী মহিলা তাড়াতাড়ি আটা পিষতে যাতার নিকট বসবে। তাদের এক জন যমিনে ধসে যাবে আর অন্য জন দেখতে থাকবে। আর অচিরেই তারা উভয়ে পাশাপাশি জীবিত থাকবে। আর তাদের দই জনের মাঝে একটি নদী চিরবে বা সৃষ্টি হবে। আর তারা উভয়ে সেখান থেকে পান করবে। তারা একে অপরকে পাবে। সময়ের মধ্য হতে তাদের দুই জন এমন একটি দিনে উপস্থিহ হবে যে দিনে তাদের একজনকে নিয়ে যমিন ধসে যাবে। আরেকজন তা দেথতে থাকবে।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ৮৮৭ ]
___________________________________
নঈম বিন হাম্মাদ
বলুন আমাদের জন্য আবদুল হামিদ বিন বাহরাম সম্পর্কে এক মাস এর বিন Hawshab 
আব্দুর রহমান বিন ভেড়া সম্পর্কে 
বলেন Tval Reha Atahnan Akhosv উপর Tqaadan সম্পর্কে দুই দেশের পারেন একেলা এবং অন্যান্য বিবেচনা হতে হবে 
Hayan Mottagoran একটি নদী ঠেলা এটি একে অপরের Visubhan দিন থেকে সব কোট জলসেচন 
দিন পারেন একেলা গ্রস্ত আছে এবং অন্যান্য বিবেচনা
হাদিস - ৮৮৮
হযরত হুযাইফা রাযিয়াল্লাহু আনহু হতে বর্ণিত যে, তিনি, হযরত ওমর, হযরত আলী, হযরত ইবনে মাসউদ, হযরত আবু কা’ব, হযরত ইবনে আব্বাস ও রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম এর কতিপয় সাহাবী রাযিয়াল্লাহু আনহুম হা-মীম. আইন, সীন, ক্বাফ সম্পর্কে রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম কে প্রশ্ন করলেন। অতপর হযরত হুযাইফা রাযিয়াল্লাহু আনহু বললেন (আরবী অক্ষর) আইন দ্বারা আযাব বা শাস্তি উদ্দেশ্য। এমনি ভাবে সীন দ্বারা সুন্নাত ও জামা’আত উদ্দেশ্য। আর ক্বাফ দ্বারা এমন একটি দল উদ্দেশ্য যারা শেষ যমানায় অপবাদ ছড়াবে। অতপর হযরত ওমর রাযিয়াল্লাহু আনহু তাকে বললেন হা-মীম দ্বারা কারা উদ্দেশ্য? তিনি বললেন মদীনায় একটি স্থানের নাম যাওরা সেখানে হযরত আব্বাস রাযিয়াল্লাহু আনহু এর বংশধরের থেকে কিছু লোক থাকবে। আর সেখানে একটি ভীষণ যুদ্ধ হবে। আর সেখানেই কিয়ামত সংগঠিত হবে। অতপর ইবনে আব্বাস রাযিয়াল্লাহু আনহু বললেন আমাদের মাঝে এমন কিছু নেই। তবে ক্বাফ দ্বারা উদ্দেশ্য হল নিক্ষেপ ও ধসে যাওয়া হবে। হযরত ওমর রাযিয়াল্লাহু আনহু হযরত হুযাইফা রাযিয়াল্লাহু আনহু কে বললেন তুমি তাফসীর সঠিক করেছ। আর ইবনে আব্বাস রাযিয়াল্লাহু আনহু মা’না (তা’বীর) ঠিক করেছে। সুতরাং ইবনে আব্বাস রাযিয়াল্লাহু আনহু এর সঠিকতাকে সংরক্ষণ করা হয়েছে। এমনকি হযরত ওমর রাযিয়াল্লাহু আনহু সহ রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম এর অনেক সাহাবায়ে কিরাম হযরত হুযাইফা রাযিয়াল্লাহু আনহু  হতে যা শুনেছেন তা থেকে তার দিকে প্রত্যাবর্তন করেছেন।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ৮৮৮ ]
___________________________________
নাঈম বিন হাম্মাদ - 888
আমাদের কাছ থেকে নূহ ইবনে আবী মারইয়াম বলুন জঙ্গী বিন 
সুলায়মান আতা 
Obeid ইবনে আমের 
হুযাইফা তাদের Asag ওমর আলী সম্পর্কে জিজ্ঞাসা করা হয়েছিল 
এবং পুত্র এর মাসুদ এবং আবি গোড়ালি এবং ইবনে আব্বাস এবং বিভিন্ন মালিকদের এর রসূল এর আল্লাহ , শান্তি তাঁর সন্তুষ্টি ওয়া সাল্লাম এর 
ঈশ্বর জন্য তাদের কাছে উপস্থিত , বলেন হুযাইফা 
চোখ আযাব Seine, বছর এবং দুর্ভিক্ষ এবং জড়ো মানুষ নিক্ষেপ 
এ শেষবার 
ওমর আল্লাহ পারে করা খুশী এবং বললেন যাও তারা সম্পর্কে তাকে 
বলেন ছিল মধ্যে আব্বাস জন্মগ্রহণ শহর হয় 
বলেন করার যেখানে Zora আছে একটি মহান মৃত্যুর দৃশ্য তাদের সময় নিহত , 
বলেন ইবনে আব্বাস হয় না 
তাই এ আমাদের, কিন্তু পরাগবহনকারীর এক্সট্রুশন করা গ্রস্ত 
ওমর হুযাইফা বলেন, কিন্তু আপনি আমার বয়স ব্যাখ্যা এবং আহত 
ছেলে আব্বাস ইবনে আব্বাস , আহত জ্বর এমনকি সাধারণত ওমর এবং বিভিন্ন অর্থ মালিকদের এর রসূল এর আল্লাহ R লি 
তার উপর , যা তিনি হুযাইফা থেকে শোনা
হাদিস - ৮৮৯
হযরত আবান ইবনে ওলীদ ইবনে উকবা ইবনে আবু মুঈত হতে বর্ণিত যে, তিনি হযরত ইবনে আব্বাস রাযিয়াল্লাহু আনহু কে বলতে শুনেছেন যে, সুফইয়ানী বের হবে অতপর যুদ্ধ করবে। এমনকি মহিলাদের পেট চিড়বে। এবং ছোট শিশুদেরকে কড়াই এর মধ্যে টগবগে গরমের মধ্যে জ্বাল দিবে।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ৮৮৯ ]
___________________________________
নঈম বিন হাম্মাদ
আমাদের ওয়ালিদ আবু আব্দুল্লাহ ওয়ালিদ বলুন 
আবান ইবনুল থেকে বিন হিশাম Almaaiti - ওয়ালিদ বিন বাধা ইবনে আবী 
শুনে ইবনে আব্বাস , আল্লাহ হতে পারে হতে সন্তুষ্ট সঙ্গে 
বলছেন তাকে Sufiani Viqatl এমনকি Disembowels পেটে এর ফুটন্ত বয়লার নারী ও শিশু
হাদিস - ৮৯০
হযরত কা’ব রাযিয়াল্লাহু আনহু হতে বর্ণিত যে, তিনি বলেন বনু আব্বাসের মহিলাদেরকে আটক করা হবে। এবং তাদেরকে দামেস্কের গ্রামে নেওয়া হবে।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ৮৯০ ]
___________________________________
নাঈম বিন হাম্মাদ
আব্দুল্লাহ বিন মারওয়ান আমাদেরকে আরাত্তানের সম্পর্কে বলতেন যে দামেস্কের গ্রাম পর্যন্ত 
বানি 
আব্বাসের নারীদের গোত্রের গোড়ালি বিক্রয়
হাদিস - ৮৯১
হযরত আরতাত থেকে বর্ণিত যে, তিনি বলেন যখন ফুরাতের উপর শহর স্থাপণ করা হবে। আর সেটা হল নুফুক আর নিক্বাফ (যা দ্রুত শেষ হয় যা। আর পাখির চক্ষু)। আর যখন দামেস্কের ছয় মাইল দূরে শহর স্থাপণ করা হবে তখন তোমরা যুদ্ধের জন্য সংকল্প কর।** সুফইয়ানীর প্রবেশ ও কূফায় তার সাথীগণ
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ৮৯১ ]
___________________________________
নঈম বিন হাম্মাদ - 891
আমাদের বলুন পুত্র এর গাধার 
Oirtah থেকে বললেন 
শহর ছিল নির্মিত ইউফ্রেটিস সুড়ঙ্গ এবং এটি যদি Alnagaf হয় শহর ছিল দামেস্ক থেকে ছয় মাইল নির্মিত 
Vthsmoa মহাকাব্য থেকে 
কুফা ও তার সঙ্গীরা প্রবেশ Sufiani