এসো হাদিস পড়ি ?
এসো হাদিস পড়ি ?
হাদিস অনলাইন ?

মানুষের মধ্যে বালা মসিবত অধিকহারে দেখা গেলে মৃত্যু কামনা করার ব্যাপারে শিথিলতা প্রসঙ্গে

একটি আরবি শব্দ ডাবল ক্লিক করে তার অভিধান এন্ট্রি দেখায়
হাদিস - ১৪১
বিশিষ্ট সাহাবী হযরত আব্দুল্লাহ ইবনে ওমর রাযিঃ হতে বর্ণিত, তিনি বলেন, রাসূলুল্লাহ সাঃ এরশাদ করেছেন, কিয়ামত সংঘটিত হবেনা যতক্ষণ পর্যন্ত কোনো মানুষ অন্যের কবরের পার্শ্ব দিয়ে অতিক্রম করার সময় বালা-মসিবত ও ফিতনার কারণে এ আশা করবেনা যে, হায়! আমি যদি এ কবরের বাসিন্দা হতাম!
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৪১ ]
___________________________________
নঈম বিন হাম্মাদ
আমাদের মুহাম্মদ বিন হারেস আল বলুন - মুহাম্মদ ইবনে আব্দ আল থেকে Bahrani - রহমান Albilmana 
তার বাবার কাছ থেকে 
ইবনে উমর থেকে বলেন : রাসূল এর আল্লাহ , সা না 
সময় পর্যন্ত মানুষের উপর পাসের কবর এবং বলল ভাল , আমি স্থান মালিক এর মানুষ কি করছে থেকে নিক্ষিপ্ত 
শত্রুতা
হাদিস - ১৪২
হযরত আবু হুমায়দ (রহঃ) বলেন, আমি হযরত আবু হুরায়রা (রাঃ) কে বলছে শুনেছি যে, অবশ্যই তোমাদের উপর এমন দিন আসবে, যে তোমাদের মধ্যে কেউ যখনা তার কোন ভাইয়ের কবরের পাশ দিয়ে হাটবে, তখন সে বলতে থাকবে হায়! আমি যদি তার স্থানে হতাম।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৪২ ]
___________________________________
নাঈম বিন হাম্মাদ
আমাদের বলুন পুত্র এর ইউনিস কাছ থেকে অনুদানের আমাকে বলেছে আবু হামিদ মাওলাকে Msava বলেন 
আমি শুনেছি 
আবু Hurayrah , আসতে বলছেন রা হতে পারে জন্য এক আপনি এর আপনাকে হাঁটা কবর এর তার ভাই , তিনি বলেছেন , হে 
তার জায়গায় ইচ্ছুক
হাদিস - ১৪৩
হযরত আব্দুল্লাহ রাযিঃ থেকে বর্ণিত, তিনি বলেন, মানুষের মধ্যে এমন এক যুগ আসবে, মানুষ কারো কবরে এসে সেখানে শুয়ে পড়বে এবং বলতে থাকবে, হায়! আমি যদি এ কবরের একজন সদস্য হতাম! এটা অবশ্যই আল্লাহ তাআলার সাথে অগ্রীম সাক্ষাতের আশায় নয়, বরং সেটা হবে মারাত্মক মারাত্মক বালা-মসিবদ দেখার কারণে।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৪৩ ]
___________________________________
নঈম বিন হাম্মাদ
আমাদের আবু থেকে ইবনে মাহদী ও Wakee সুফিয়ান বিন সালামা Kuhayl বলুন 
Azaara 
আব্দুল্লাহ তিনি বলেন সময় মানুষের উপর আসা সমাধি আসে মানুষের সে যাইবে উপর এটা এবং 
বলেছেন আমি আমি স্থান মালিক কি তার ভালোবাসা ঈশ্বরের সঙ্গে দেখা করতে কিন্তু দেখুন সেখানে কি তীব্রতা এর চাবুক
হাদিস - ১৪৪
হযরত আবু হুরায়রা (রাঃ) বলেন, রাসূল সাঃ বলেছেন, ততদিন পর্যন্ত কিয়ামত সংঘটিত হবে না যতদিন না কোন ব্যক্তি তার কোন ভাইয়ের কবরের পাশ দিয়ে অতিক্রম করবে। অতঃপর বলতে থাকবে হায়! আফসুস যদি আমি তোমার জায়গায় হতাম, (তাহলে কতইনা ভাল হত)।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৪৪ ]
___________________________________
নঈম বিন হাম্মাদ
আমাদের বলুন মুয়াম্মার জন্য আব্দুর রাজ্জাক আল যুহরী বলেন 
আবু Hurayrah , আল্লাহ্ তার উপর সন্তুষ্ট হতে পারে বলেন 
যে রাসূল এর আল্লাহ , সাঃ এমনকি হয় না মানুষ তার ভ্রাতার পাসের এবং বলছেন কবর এর আমার 
আপনার জায়গায় ইচ্ছা
হাদিস - ১৪৫
হযরত আবু হুরায়রা (রাঃ) থেকে বর্ণিত। তিনি বলেন, মানুষের উপর এমন যমানা আসবে যে, তখন তাতে তাদের কারো কাছে উত্তপ্ত গরমের দিনে ঠান্ডা পানি দিয়ে গোসল করার চেয়ে মৃত্যু বরণ করা বেশি পছন্দ করবে, অতঃপর সে মৃত্যুবরণ করবেনা।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৪৫ ]
___________________________________
নঈম বিন হাম্মাদ
আমাদের বলুন ইয়াহিয়া ইবনে আবদুল ওয়াহাব Althagafi বলল তিনি বলেন , আমাকে বলেছিলেন 
Zubrkan 
আবু Hurayrah এ আসা বললেন সময় এর মৃত্যুর মধ্যে যা মানুষের কাছ থেকে কাউকে ভালবাসেন 
ওয়াশিং সঙ্গে প্রতি sweltering দিন ঠাণ্ডা পানি এবং তারপর মারা যায় না
হাদিস - ১৪৬
হযরত আব্দুল্লাহ রাযিঃ থেকে বর্ণিত, তিনি বলেন, মানুষের মধ্যে এমন এক যুগ আসবে, মানুষ অন্যদের কবরে এসে পশুর ন্যায় গড়াগড়ি খেতে থাকবে এবং খুবই আশাবাদি হয়ে বলবে,হায়! আমি যদি একবরের বাসিন্দা হতাম! এটা অবশ্যই আল্লাহ তাআলা সাথে সাক্ষাতের আশায় নয়,বরং এটা হচ্ছে,মারাত্মক বালা-মসিবতের সম্মুখিন হওয়ার কারণে।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৪৬ ]
___________________________________
নঈম বিন হাম্মাদ
আবু মাউইয়া 
ইবরাহিম থেকে অন্ধদের সম্পর্কে অবহিত করেছেন যে 
, আবদুল্লাহর কাছে মানুষ এসে বলেছিল যে যখন মানুষ কবরস্থলে আসে এবং 
তার সাথে মিলিত হয় তখন পশুটি পরিণত হয় যে, মালিকের জায়গাটি ঈশ্বরের সাথে দেখা করতে ভালবাসে না 
মানে হতাশা
হাদিস - ১৪৭
ভিন্ন সুত্রে উপরের হাদিস বর্নিত হয়েছে।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৪৭ ]
___________________________________
নঈম বিন হাম্মাদ
ইবনে মাহদী সুফিয়ান সম্পর্কে বলেন, 'আমির 
আব্দুল্লাহর কর্তৃত্বের উপর ইব্রাহীম কর্তৃক আমিরের উপর
হাদিস - ১৪৮
হযরত আব্দুল্লাহ রাযিঃ থেকে বর্ণিত, তিনি এরশাদ করেন, কিয়ামত হবেনা, যতক্ষণ পর্যন্ত না মানুষ কোনো কবরের কাছে এসে চতুষ্পদ জন্তুর ন্যায গড়াগড়ি দিয়ে বলবেনা যে, হায়! আমি যদি একবরের বাসিন্দা হতাম।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৪৮ ]
___________________________________
নঈম বিন হাম্মাদ
আবু সালেহ থেকে আমাদের আবু সিদ Aloamc বলুন 
আবু Hurayrah থেকে 
তিনি বলেন এমনকি হয় না আসে কবরের মানুষ তাকে Vimarg যেমন একটি পশু wallowing শুভেচ্ছা 
হতে একটি জায়গা মালিক
হাদিস - ১৪৯
হযরত আবতাত ইবনে মুনজির, আবু আশুরা আলহাজরামী থেকে বর্ণন করেন, তিনি বলেন, যদি তোমাদের হায়াত দীর্ঘ হয়, তাহলে তোমাদের হয়তো তার ভাইয়ের কবরে এসে তার থেকে উপকৃত হতে চেষ্টা করবে এবং বলবে, হায়! আমি যদি তোমার স্থলে হতাম তাহলে অবশ্যই মুক্তি পেয়ে যেতাম।
তাকে জিজ্ঞাসা করা হলো, হে আবু আযবাহ! গোত্রে নতুন কোনো সন্তান জন্মলাভ করলে তাকেও কি ঐ ফিতনা গ্রাস করে নিবে। জবাবে তিনি বললেন, এক প্রান্ত হতে তোমাদেরকে দুশমন হাতছানি দিয়ে ডাকতে থাকবে। এহেন পরিস্থিতিতে অন্য প্রান্ত হতে দুশমনের আরেকদল হামলা করে বসবে। তখন তোমাদের হুশ থাকবেনা যে, কোন দুশমন থেকে পলায়ন করবে। তখনই মূলতঃ উল্লিখিত সূরত প্রকাশ পাবে।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৪৯ ]
___________________________________
নঈম বিন হাম্মাদ
আমাদের Jnadp বিন ঈসা বলুন আল থেকে Oirtah ইবনে Azdi ও আবু আইয়ুব 
আল - মুনযির 
আবু তাজা হাদরামী বলেন যে দীর্ঘ Vyushk বয়স মানুষ এর আপনি যে সমাধি আসে 
তার ভাই Veetmek তাকে এবং বলে আমি ছিল করেছ 
বেঁচে টিকে আছে , 
তিনি বলেন, গোলাম 
থেকে ঘটেছে মানুষ এবং চাচা আমার বাবার তাজা যে 
বলেন আপনি দাবি একদিকে একটি শত্রু, যখন আপনি তাই হয়, 
যখন আপনি অন্য শত্রুদের বলা হয়, আপনার শত্রু জানি না যে আপনি মুখ বন্ধ হবে
হাদিস - ১৫০
আবু আযবা হাজরামী থেকে বর্ণিত, তিনি বলেন, যদি তোমাদের সামান্য একটু হায়াত বৃদ্ধি পায় তাহলে হয়তো এমন অবস্থা হবে, তোমাদের কেউ তার বন্ধুর কবরে এসে উক্ত কবরবাসীর প্রতি আকৃষ্ট হয়ে বলবে, হায়! আমি যদি তোমার স্থলে হতাম তাহলে নিঃসন্দেহে মুক্তি পেয়ে যেতাম।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৫০ ]
___________________________________
নঈম বিন হাম্মাদ
আমাদের বলুন সাফওয়ান ইবনে আমর আমর ইবনে সালিম হাদরামী থেকে আবদুল কুদ্দুস বাকি 
আবু তাজা থেকে 
হাদরামী বলেন যে দীর্ঘ বয়স একটি কয়েক Vlyushk মানুষ এর সমাধি যে পরিচিত আসে Veetmek এটা বলে 
আমি আপনার জায়গায় ইচ্ছুক বেঁচে ছিল টিকে আছে , সে সম্পর্কে স্মরণ প্রথম আধুনিক
হাদিস - ১৫১
হযরত কা’ব রহঃ থেকে বর্ণিত,তিনি বলেন, অতিসত্ত্বর সমুদ্র এত বেশি কঠিন হবে, যার কারণে তার উপর কোনো জাহাজ চলতে পারবেনা এবং তেমনিভাবে স্থলভাগও এমন কঠিন হয়ে উঠবে ফলে কেউ তার উপর দিয়ে অতিক্রম করে নিজের ঘর পর্যন্ত পৌঁছতে পারবে না।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৫১ ]
___________________________________
নঈম বিন হাম্মাদ
আমাদের বলুন বাকি এর বিন 
থেকে ওয়ালিদ আবু বকর ইবনে আবী মারইয়াম সরদারি 
এর গোড়ালি তিনি হয় সম্পর্কে এটি এটা কঠিন এমনকি সমুদ্র হয় 
স্থান গ্রহণ না যেখানে বর্তমান এবং এটি এটা যাতে কেউ কঠিন জমি হয় হোম ঘর
হাদিস - ১৫২
বিশিষ্ট সাহাবী হযরত আব্দুল্লাহ ইবনে আমর রাযি রাযি বলেন, নিঃসন্দেহে মানুষের মাঝে এমন এক যুগ আসবে, যখন মানুষ বিভিন্ন ধরনের বালা-মসিবতের সম্মুখিন হওয়ার কারণে আকাঙ্খা করবে যে এবং তার পরিবার যেন বোঝাই করা মালবাহি জাহাজে আরোহন করবে এবং উক্ত জাহাজটি সমুদ্রের উত্তাল তরঙ্গমালা সমুদ্রে দুলতে থাকবে।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৫২ ]
___________________________________
নাঈম বিন হাম্মাদ
আমাদের বলুন 
পুত্র এর আইয়াশ ইবনে আব্বাস আবু আব্দুর রহমান ফার্নিকুলারে জন্য দান এবং সমস্ত সম্পর্কে ইবনে Lahee'ah Rushdin 
আব্দুল্লাহ ইবনে আমর থেকে , আল্লাহ সন্তুষ্ট হতে পারে সঙ্গে তার সময় মানুষের উপর আসা , এক আশা করে 
যে কক্ষপথে একটি এর চার্জ তিনি এবং তার পরিবার তাদের বইতে সমুদ্র তীব্রতা এর থেকে পৃথিবী চাবুক
হাদিস - ১৫৩
হযরত আব্দ্ল্লাহ ইবনে আমর ইবনুল আমরাযি থেকে বর্ণিত, তিনি বলেন, মানুষের মাঝে এমন এক যুগ আসবে, সম্মানী, সম্পদশালী ও পরিবার-পরিজন ওয়ালা লোক পর্যন্ত মৃত্যু কামনা করবে যেহেতু তারা তাদের নেতৃত্বস্থানীয় ব্যক্তিবর্গের পক্ষ থেকে নানান ধরনের বালা-মসিবদের সম্মুখিন হবে।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৫৩ ]
___________________________________
নঈম বিন হাম্মাদ
আমাদের Rushdin ইবনে Hiệp হাফস ইবনুল বলুন - থেকে হেলাল ইবনে আব্দুর রহমান আস ওয়ালিদ - Qurashi 
থেকে 
আব্দুল্লাহ ইবনে আমর তিনি বলেছেন তিনি শুনেছেন মানুষ তবেই সময় চলো সম্মান, টাকা দিয়ে মানুষ 
ও শিশু মৃত্যুর , যা চাবুক দেখে অভিযুক্ত
হাদিস - ১৫৪
বিশিষ্ট সাহাবী হযরত মু’তাজ ইবনে জাবাল রাযি, থেকে বর্ণিত, তিনি বলেন, তোমরা এ পৃথিবীতে শুধুমাত্র ফিতনা ও বালা-মসিবতই দেখতে পাবে। যেকোনো বিষয় ধীরে ধীরে কঠিন হতে থাকবে। নেতৃত্বাস্থানীয় ব্যক্তিদের মধ্যে কঠোরতাই দেখতে পাবে। এমন বিষয় দেখবে যা তোমাদেরকে ভীতিকর করে তুলবে। কিন্তু তার পরবর্তী ধাপ এর থেকে আরো কঠিন ও ভয়াবহ হয়ে উঠবে।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৫৪ ]
___________________________________
নঈম বিন হাম্মাদ
আমাদের আবু marauding বলতে বাকি এর 
সাফওয়ান ইবনে আমর আমর বিন কায়েস স্ট্যাটিক আসিম ইবনে হুমাইদ 
Maaz ইবনে জাবাল হতে সন্তুষ্ট সঙ্গে 
ঈশ্বরের সঙ্গে তাকে তিনি বিশ্বের দেখতে পাবেন না কিন্তু চাবুক এবং রাষ্ট্রদ্রোহ বড় হয়ে করা হবে না , কিন্তু তীব্রতা দেখতে হবে 
থেকে ইমামদের শুধুমাত্র ruggedness পর কিছু Aholkm শুধুমাত্র Hakrh দেখতে হবে আরো গুরুতর
হাদিস - ১৫৫
হযরত আবু হুরায়রা (রাঃ) থেকে বর্ণিত, তিনি বলেন, এমন সময় আসন্ন হবে যে, ওলামাগনের নিকট লাল বর্ণের স্বর্ণের চেয়েও মৃত্যু বেশী পছন্দনীয় হবে।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৫৫ ]
___________________________________
নঈম বিন হাম্মাদ
আমাদের বলুন 
হিশাম মুহাম্মদ থেকে বিন হুসাইন অমর 
আবু Hurayrah রা হতে পারে বলেন , হয় হতে সম্পর্কে 
থেকে বিজ্ঞানীরা প্রিয়জনের মৃত্যুর লাল Alzhbh
হাদিস - ১৫৬
হযরত উমায়র ইবনে ইসহাক বলেন, আমরা আলোচনা করতে ছিলাম যে, মানুষের থেকে সর্ব প্রথম ভালোবাসা (বন্ধুত্য) উঠে যাবে।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৫৬ ]
___________________________________
নঈম বিন হাম্মাদ
হুসাইন ইবনে হাসান আল-বাসরি আমাদের সম্পর্কে 
অাউনের পুত্র 
আমির ইবনে ইসহাক সম্পর্কে বলেছেন
হাদিস - ১৫৭
হযরত ইবনে মাসউদ (রাঃ) থেকে বর্ণিত, তিনি বলেন, আমি রাসূল সাঃ থেকে বর্ণিত, তিনি বলেন, আমি রাসূল সাঃ থেকে ফিতনার আলোচনা শুনেছি। অতঃপর আমি বললাম, ইয়া রাসূলাল্লাহ তা কখন হবে? রাসূল সাঃ বললেন, যখন কোন ব্যক্তি তাব বন্ধু থেকে নিরাপদ পাবেনা।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৫৭ ]
___________________________________
নঈম বিন হাম্মাদ
সম্পর্কে মুয়াম্মার মুবারক আমাদের বলুন 'র পুত্র ইসহাক বিন রশিদ আমর ইবনুল - আসাদি এবং Abesh থেকে 
তার পিতা 
ইবনে মাসউদ থেকে রা হতে পারে বলেন : আমি শুনেছি রাসূলুল্লাহ এর আল্লাহ , সাঃ বলেন 
রাষ্ট্রদ্রোহ এবং 
আমি বললাম , হে আল্লাহর এর ঈশ্বর , যখন এটি 
বললেন মানুষ নিরাপদ নয় অস্ত
হাদিস - ১৫৮
হযরত হামাম ইবনে ওতাইবা রহঃ থেকে বর্ণিত, তিনি বলেন, মানুষের মধ্যে এমন এক যুগ আসবে যদ্বারা কোনো বিজ্ঞলোকে চক্ষু শীতল হবে না।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৫৮ ]
___________________________________
নঈম বিন হাম্মাদ
কিয়া মালিক বিন Monguls সম্পর্কে আমাদের বলুন 
রায় বেন Otaiba বলেন লাভ করবে মানুষের না 
আইন আল চিনতে - হাকিম
হাদিস - ১৫৯
বিশিষ্ট সাহাবী হযরত যোয়ায ইবনে জাবাল রাযি থেকে বর্ণিত, তিনি বলেন, যখন তোমরা দেখবে বিনা অপরাধে মানুষ হত্যা করা হচ্ছে, মিথ্যার কারণে মানুষকে টাকা-পয়সা দেয়া হচ্ছে, আর মানুষের মধ্যে নাস্তিক মুরতাদ হওয়া, সন্দেহ করা ও অভিশাপ দেয়ার প্রবণতা বৃদ্ধি পাবে তখন তোমাদের মধ্যে যারা মারা যেতে চাও তারা যেন মৃত্যুকে আলিঙ্গন করে।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৫৯ ]
___________________________________
নঈম বিন হাম্মাদ
আমাদের বলুন পুত্র ও ছেলে এর সব সম্পর্কে হুসেন সেলিম Fadil Uyaynah 
ইবনে আবু Ja'd 
Maaz ইবনে জাবাল রা হতে পারে বলেন , আপনি তার ডান ছাড়া রক্ত চালা দেখি 
এবং টাকা ফেরত থাকা এবং দেওয়া সন্দেহ ও Allaan ধর্মত্যাগ করা হয়েছিল , এটা ছিল Vlimit মরতে পারবেন
হাদিস - ১৬০
হযরত আবু সালামা (রহঃ) বলেন, আমি হযরত আবু হুরায়রা (রাঃ) কে বলতে শুনেছি যে, মানুষের উপর এমন এক যমানা আসবে যে, তখন আলেমের কাছে লাল স্বর্ণের চেয়েও মৃত্যু বেশী পছন্দনীয় হবে।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৬০ ]
___________________________________
নঈম বিন হাম্মাদ
আবু সালামা থেকে অনেক আমাদের ঈসা ইবনে ইউনুস Awzaa'i ইয়াহিয়া ইবনে আবী সম্পর্কে আমাদের বলুন 
শোনা 
আবু Hurayrah বলতে হয় সম্পর্কে সময়মত আসতে যখন মানুষ হবে ভালবাসতে মৃতু্য করা Alzhbh জগতে 
লাল
হাদিস - ১৬১
হযরত যায়েদ ইবনে ওয়াহাব রাযি থেকে বর্ণিত, তিনি হযরত আব্দুল্লাহ রাযি কে বলতে শুনেছেন, নিঃসন্দেহে ফিতনা ধীরে ধীরে একের পর এক আসতে থাকবে। উক্ত ফিতনার সময় যারা মারা যেতে চায় তারা যেন মৃত্যু গ্রহণ করে নেয়।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৬১ ]
___________________________________
নঈম বিন হাম্মাদ
সুফিয়ান ইবনে মাহদি Aloamc যায়েদ ইবনে ওয়াহাব সম্পর্কে আমাদের বলুন 
আব্দুল শুনেছি 
ঈশ্বর যে রাষ্ট্রদ্রোহ স্টপ এবং মিশন এটা ছিল Agafadtha Vljeval মারা করতে পারবেন
হাদিস - ১৬২
হযরত যায়েদ ইববে ওয়াহাব বিশিষ্ট সাহাবী হযরত হোজাইফা ইবনুল ইয়ামান রাযি থেকে বর্ণনা করেন, তিনি এরশাদ করেন ঃ ফিতনার স্থিতিশীলতা হচ্ছে, যখন তরবারিকে খাপবদ্ধ করা হয় আর ফিতনার তীব্রতা হচ্ছে, যখন তরবারিকে খাপমুক্ত করে নাঁঙ্গা করা হবে।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৬২ ]
___________________________________
নঈম বিন হাম্মাদ
সাঈদ 
সুফিয়ান আমাদের বলেছেন হারেস ইবন মাদুর যায়েদ ইবনে ওয়াহাব হুযাইফা বলেন Agafadtha যদি তলোয়ার খাপ 
এবং মিশন যদি বিক্রয়োত্তর তলোয়ার
হাদিস - ১৬৩
বিশিষ্ট সাহাবী হযরত হোযাইফা রাযি হতে বর্ণিত, তিনি বলেন, ফিতনার জন্য কিছুটা স্থিতিশীলতা ও কিছুটা তীব্রতা রয়েছে। এ ধরনের তীব্র ফিতনার সময় কেউ মৃত্যুবরণ করতে চাইলে যেন মৃত্যুকে গ্রহণ করে।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৬৩ ]
___________________________________
নঈম বিন হাম্মাদ
আমাদের সম্পর্কে মুবারক বলুন 'র পুত্র trailing Aloamc যায়েদ ইবনে ওয়াহাব 
হুযাইফা বলেন রাষ্ট্রদ্রোহ স্টপ এবং মিশন আপনার Agafadtha Vljeval মধ্যে মারা যেতে পারে
হাদিস - ১৬৪
হযরত আবু উসমান রহঃ থেকে বর্ণিত, তিনি বলেন, আমরা হযরত আব্দুল্লাহ ইবনে মাসউদ রাযি এর সাথে বসা ছিলাম হঠাৎ তার উপর চড়–ই পাখির মল এসে পড়লে তিনি যেগুলোকে তার আঙ্গুল উঠিয়ে নিয়ে বললেন, আমার কাছে আমার পরিবার-পরিজন ও সন্তান-সন্তুতি মৃত্যুবরণ করা এর থেকেও অনেক সহজ। এরপর বর্ণনাকারী বললেন,আল্লাহর কসম! তাঁর একথার দ্বারা কি উদ্দেশ্য আমরা বুঝতে পারলামনা।এক পর্যায়ে বিভিন্ন ধরনের ফিতনা আসতে থাকল। অতঃপর আমরা বললাম, এটা সেই ফিতনা তাদের উপর পতিত হতে থাকে।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৬৪ ]
___________________________________
নঈম বিন হাম্মাদ
অসীম লাহুয়েল আবু থেকে আমাদের বলুন আবু খালেদ রেড সুলেইমান ইবনে হাইয়ান স্ক্রিপ্ট 
উসমান বললেন 
আমরা ছিলাম যখন আব্দুল্লাহ বিন মাসউদ Jlosa যেমন স্বাক্ষরিত গোবর Asfour বলেন, তাঁর 
আঙুল , অতঃপর মৃত্যু বললেন , এবং আমি আমার পরিবার ক্ষুদ্রতর এই আলী আছে 
বলেন , নিশ্চিত এর কি Drina উনি চাইছিলেন 
এই এমনকি জায়গা রাষ্ট্রদ্রোহ নেন । আমরা বলা এই তাদের ঘৃণা করে
হাদিস - ১৬৫
হযরত আবুল আহওয়াছ রহঃ বলেন, একদা আমরা বিশিষ্ট সাহাবী হযরত আব্দুল্লাহ ইবনে মাসউদ রাযি এর ঘরে গিয়ে দেখি তার সন্তানদেরকে নিয়ে তিনি বসে আছেন। তার ছেলেগুলো দেখতে উজ্জ্বল দিনারের ন্যায় সুন্দর। তাদের সৌন্দর্য দেখে আমরা খুবই আশ্চর্য হতে থাকলাম। অতঃপর হযরত আব্দুল্লাহ আমাদেরকে বললেন, মনে হয় তোমরা এদের কারণে আমার উপর ইর্ষান্বীত হয়েছ, জবাবে আমরা বললাম, আল্লাহর কসম! নিঃসন্দেহে এমন ছেলেদের ক্ষেত্রে প্রত্যেক মুসলমান পুরুষ ইর্ষা করবে।  আমাদের কথা শুনে তিনি তার ছোট্ট ঘরটির ছাদের দিকে মাথা উঠালেন। এদিকে ঘরের জীর্ণ ছাদে কিছু পাখি বাসা বেঁধেছে এবং উক্ত বাসায় ডিমও দিয়েছে। অতঃ তিনি বললেন, কসম যে সত্ত্বার যার হাতে আমার জীবন! আমার এ সন্তানদের কবরে মাটি দেয়া আমার নিকট অনেক-অনেক পছন্দনীয় এদের উপর ঐ হিংস্র পাখির বাসাগুলো পতিত হয়ে তাদের ডিম ভেঙ্গেঁ যাওয়া থেকে। উক্ত হাদীসের বর্ণনকারী হযরত ইবনুল মোবারক বলেন, এটা মূলতঃ তাদের উপর আসন্ন ফিতনার ভয়ে বলেছেন।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৬৫ ]
___________________________________
নঈম বিন হাম্মাদ
আমাদের বলুন ইবনে মুবারক আল - মুবারক বিন 
Faddaalah হাসান তাঁকে বলতে শুনেছি সে আমাকে বলেছিল আবু Ahwas বলেন 
আমরা ইবনে মাসউদ প্রবেশ করে হয়েছে 
ছেলেদের , তাঁর ভৃত্যদের , যেন তারা দিনার একদম স্তম্ভিত দ্বারা Hassanhm আবদুল্লাহ বলেন Konkm ছিল ওয়েল 
Tgbtonna তাদের 
আমরা আল্লাহকে বলেন যে এই ধরনের gbt তাদের মুসলিম মানুষের মাথা তুলে ছাদ এর 
ঘর তার সংক্ষিপ্ত পাখির ছানা একটি হুক হয়েছে এবং এটি উত্পন্ন হওয়া সাইদ ও আমার হাত, কারণ আমি ধুইয়ে দিই 
থেকে আমার হাত ধুলো এর তাদের কবর নীড় যে এই হুক Vinsr ডিম অধ: পতিত হত্তয়া ভালবাসতে 
মুবারক এর ছেলে বলল জন্য, 
রাষ্ট্রদ্রোহ ভয়ে
হাদিস - ১৬৬
হযরত হোজাইফা ইবনুল ইয়ামান রাযি বলেন, হে আবুততোফাইল! তোমার কি অবস্থা হবে, যখন আমাদের উপর বিভিন্ন ধরণের ফিতনা আসতে থাকবে। তখন সর্বোত্তম মানুষ হবে প্রত্যেক ধনী লোক যারা তাদের ধনাঢ্যতা গোপন রাখবে।
অতঃপর আবুত্ তোফাইল রহঃ বলেন, তখন কি অবস্থা হবে, নিশ্চয় সেটা আমাদের প্রতি এমন দার করা যদ্বারা মানুষ নিম্নস্তরে পতিত হবে এবং নিক্ষিপ্ত হবে অনেক গভীরে।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৬৬ ]
___________________________________
নঈম বিন হাম্মাদ
আমাদের বলুন ইয়াহিয়া ইবনে আবদুল ওয়াহাব বলেন আবু জুবায়ের যে 
তাকে বলেন আবু পরজীবী তাকে বলেন যে যে 
হুযাইফা ইবনুল - ইয়ামন বলেন কিভাবে আপনি কবজ ভাল মানুষ 
যেখানে সব ধনী লুকানো 
বলেন , ছেলে এর পরজীবী কিভাবে এটি এক দিচ্ছেন এর আমাদের যে রেচন উত্থাপন 
প্রত্যেক লক্ষ্য এবং নিক্ষেপ 
তিনি বলেন হুযাইফা তাহলে Kappen হউন লোভ শ্রম একটি হাঁটু বা হাঁটু মধ্যে চালু হয় না
হাদিস - ১৬৭
হযরত নোমান ইবনে মোকাররিনি রহঃ থেকে বর্ণিত। তিনি বলেন,রাসুলুল্লাহ যা, এরশাদ করেছেন, ফিতনা এবং যুদ্ধবিগ্রহকালীন যারা এবাদতের ওপর অটল থাকবে তারা আমার প্রতি হিজরত করার প্রতিদান প্রাপ্ত হবে।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৬৭ ]
___________________________________
নঈম বিন হাম্মাদ
থেকে বর্ণিত আবু বকর বিন আবান সম্পর্কে আইয়াশ আমি শুনেছি আবু Illes সিদ বিন কারা উল্লেখ বলেন 
নু'মান বিন শৃঙ্গাকার রা হতে পারে , বলেন রসূল এর আল্লাহ , সাঃ উপাসনা 
মধ্যে এমন আন্দোলন এবং শত্রুতা যেমন অভিবাসনের
হাদিস - ১৬৮
হযরত আব্দুল্লাহ ইবনে আমর রাযি থেকে বর্ণিত, তিনি বলেন, আল্লাহ তাআলার কাছে অতি পছন্দনীয় বস্তু হচ্ছে ‘আল গুরাবা’। অর্থাৎ গরীব-মিসকীনগণ। তার কাছে গুরাবা কারা জানতে চাইলে জবাবে তিনি বললেন, যারা তাদের দ্বীনসহকারে এদিক সেদিক পলায়ন ও আত্মগোপন করতে থাকবে, এক পর্যায়ে হযরত ঈসা ইবনে মারইয়ম আঃ এর সাথে মিলিত হবে।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৬৮ ]
___________________________________
নঈম বিন হাম্মাদ
আমাদের বলুন মুবারক এর পুত্র মুহাম্মদ ইবনে মুসলিম বলেন আমি শুনেছি 
উসমান ইবনে আওস ঘটে সালেম ইবনে হরমুজ 
হযরত আবদুল্লাহ ইবনে আমর , আল্লাহ সন্তুষ্ট হতে পারে সঙ্গে মত তাকে 
ঈশ্বরের অপরিচিতদের সাথে কিছু 
কিছু বলতে পারে নি 
অপরিচিত 
বলেন 
যারা করছে তাদের ধর্ম থেকে পালিয়ে 
পুত্র যীশুর কাছে জড়ো করা এর মেরি , শান্তি হতে তার উপর 
একটু 
নবী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম- এর সাহাবীগণের হ'ল অপহরণ থেকে এবং অন্যান্যদের উপর শাসনতন্ত্রে এবং বিলুপ্তির পর এবং এগুলো তাদের কাছে কী উপস্থাপন করা হয়?
হাদিস - ১৬৯
হযরত কিনানা রাযি থেকে বর্ণিত, তিনি বলেন, আমরা রবীয়ার অধীন থাকাকালীন একদা হয়রত যুবাইর রাযি ও তার কিছু আসহাব কে সাথে নিয়ে আমাদের কাছে আসলেন। এদিকে আমদের গোত্রপতিগণ আলী রাযি এর সাথে মিলিত হলেন, এবং আমরা সকলে একত্রিত হয়ে পরামর্শ করছিলাম। আমাদের কেউ কেউ বলল, হয়তবা আমরা এর সাথে গিয়ে থাকলে আমাদের সরদারগণ আলীর সাথে থাকবে। তখন আমরা তাদের সাথে কিভাবে মোকাবেলা করব! আমরা আবার বললাম, আমরা মোকাবেলার জন্য বের হলে উভয় দল যখন একে অপরের সামনা সামনি হবে তখন আমরা তাদের সাথে মিলিত হয়ে যাব। আবার আমাদের কেউ কেউ পরামর্শ দিল, এ ব্যাপারে আমরা নিশ্চিত হতে পারছিনা। তাহলে এমন হতে পারে যে, আমরা তাদের কাছে অনুমতি প্রার্থনা করব, অনুমতি মিললে আমরা নিরাপদে পৌঁছে যেতে পারব। না হয় আমরা আমাদের সিদ্ধান্তে অটল থাকব। এক পর্যায়ে আমাদের দলবল সহকারে হযরত যোবাইর রাযি, এর কাছে এসে বললাম, আমাদের মুসলমানগণ কাদের সাথে থাকবে। জবাবে তিনি বললেন, কেন! তাদের মাওলার সাথে থাকব। তার কথা শুনে আমরা বললাম, আমাদের মওলাগণ হযরত আলীর সাথে রয়েছেন। বর্ণনাকারী বলেন, এটা শুনে তার অবস্থা এমন হল যেন আমরা তার মুখে পাথর নিক্ষেপ করলাম। এরপর বেশ কিছুক্ষন চুপ থেকে বললেন, আমরা এটাকেই ভয় করে আসছিলাম।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৬৯ ]
___________________________________
নঈম বিন হাম্মাদ
আমাদের বলুন পুত্র এর সুখী আব্দুল্লাহ বিন Hozb বলেন , আমি শুনেছি আবু থেকে মালিক বিন দিনার 
মোহাম্মদ 
আবু Kenana রাবিয়া আমাদের জুবায়ের ও তার সঙ্গীরা দিয়েছেন আমরা বলেছিলাম Mmlkon , তিনি অনুসৃত 
আমাদের কর্তা আলী Vajtmana এবং আমরা যে হতে পারে আপনি আমাদের নামা এর এই এবং আলী সঙ্গে কর্তা এসে কিভাবে করতে তাদের যুদ্ধ এবং 
তারপর আমরা বাইরে যেতে যদি তারা আমাদের অধিকার জন্য পূরণ করতে তাদের এবং তারপর কিছু এর আমাদের জানান , নিরাপদ নয় থেকে এটা সহ্য করবেন কিন্তু 
Nstoznhm আমাদের অনুমোদিত আমরা নিরাপদ সেট বন্ধ, অন্যথায় আমরা দেখা যায় এবং আসা করতে জুবায়ের বিন Awam 
Bjmaatna 
তাকে যারা ক্রীতদাসদের তাদের মাস্টার বলেন আলীর সঙ্গে Mwalina বলেন সাথে বলেন 
, বলেন যেন Oalghemnah পাথর তাই আমরা বেড়াচ্ছিলেন একটি ঘন্টা এবং 
তারপর তিনি আমাদের এই সতর্ক
হাদিস - ১৭০
হযরত আবু সালেহ থেকে বর্ণিত, যখন হযরত আলী রাযি কিছু বাহাদুর পুরুষের বিরুদ্ধে অস্ত্র ধারণ করলেন, তখন বললেন, এ ধরনের ঘটনা সংঘটিত হওয়ার বিশ বৎসর পূর্বে মৃত্যুবরণ করাটাই আমার নিকট অতি পছন্দনীয় ছিল।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৭০ ]
___________________________________
নঈম বিন হাম্মাদ

আবু মাওয়ায়েয়ী আবু সালেহ্ থেকে অন্ধদের সম্পর্কে আমাদের বলেছিলেন 
যে, 'আলী (তাঁর সাথে আল্লাহ্ রাব্বুল আলামীন) বলেছেনঃ যখন আমি 
পুরুষদের থেকে তলোয়ার নিয়েছিলাম তখন আমাকে বলা হয়েছিল যে আমি ২0 বছর আগে মারা গিয়েছিলাম।
হাদিস - ১৭১
হযরত হাসান থেকে বর্ণিত তিনি বলেন, হযরত আলী রা. ধারণা করেন, তিনি যে আমল করেছেন কোন আমলই করেননি। এবং আম্মার রা. ধারণা করেন তিনি যে আমল করেছেন কেমন যেন কোন আমলই করেননি। অনুরূপ ত্বলহা রা.ও ভয় করেন তিনি যে আমল করেছেন কেমন যেন কোন আমলই করেননি। এবং যুবায়ের রা. ও তদ্রুপ ধারণা করেন তিনি যে আমল করেছেন কেমন যেন কোন আমলই করেননি। তারা সকলে এমন এক জাতির নিকট আবতরণ করলেন যাদের গ্রন্থসমূহ সুসজ্জিত, আখেরাতবাসী। তখন তারা এদের মাঝে যুদ্ধ বাধিয়ে দিলেন।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৭১ ]
___________________________________
নঈম বিন হাম্মাদ
আমাদের বলুন পুত্র এর এর সুখী 
আবু Altaah থেকে ইবনে Hozb 
আল - হাসান লূদ বলেন কি লূদ আম্মার কাজ যে তিনি না 
কি লূদ তালহা কাজ যে, তিনি কি লূদ জুবায়ের কাজ যে, তিনি কি কাজ তারা অবতরণ করেছে করিনি করিনি করিনি 
উপর একটি মানুষ Matuszha Massahvhm মানুষ ইত্যাদি তাদের Vsifua
হাদিস - ১৭২
হযরত ঈসা ইবনে উমর থেকে বর্ণিত তিনি বলেন আমি এক বৃদ্ধ ব্যক্তি কে আমর ইবনে র্মুরার নিকট হাদীস বর্ণনা করতে শুনেছি, তিনি বলেন আব্দুল্লাহ আমর বলেন আমি তাঁকে ব্যতিত আর কারো নিকট এই বিষয়ে বার বার বলতে দেখিনি, আমি এই আয়াত পড়তেছিলাম “ নিশ্চয় আপনি মৃত্যবরণ করবেন এবং তারা ও মৃত্যবরণ করবে অতপর কিয়ামত দিবসে তোমরা তোমাদের প্রতিপালকের নিকট ঝগড়া করবে। (যুমার:৩১) আর আমার ধারণা ছিল, এটা আহলে কিতাবদের সম্পর্কে, এক পর্যায়ে আমাদের কতিপয় লোক কতিপয় লোকদের চেহারায় তরবারী দ্বারা আঘাত আনল তখন আমাদের বুঝতে আর বাকি রইল না যে এটা আমাদের মধ্যে হবে।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৭২ ]
___________________________________
নঈম বিন হাম্মাদ
আমাদের বলুন পুত্র এর এর সুখী 
ISA ইবনে উমরের বলেন , আমি শুনেছি একটি স্বামী আমর ইবনে ঘটতে একবার বলেছিলেন 
আব্দুল্লাহ ইবনে উমরের বলেন , দেখতে পাইনি তাকে 
উল্লেখ করা নীচে আপনি এই শ্লোক পড়া আপনি হয় মৃত এবং তারা হয় মরণশীল এবং তারপর Youre ডে এর কেয়ামতের যখন 
তোমাদের পালনকর্তা Takhtsamun এবং আমি তা দেখতে মানুষ এর বই, যাতে যে একে অপরের বিরত কিছু তলোয়ারের মুখগুলি আমরা জানতাম 
এটা আমাদের মধ্যে ছিল
হাদিস - ১৭৩
হযরত হাসান থেকে বর্ণিত, তিনি আল্লাহ বাণী বলেন “ এবং সেই বিপর্যয়কে ভয় কর, যা বিশেষভাবে তোমাদের মধ্যে যারা জুলুম করে কেবল তাদেরকেই আক্রান্ত করবে না।” বলেন আল্লাহর শপথ, নিশ্চয়ই জাতি জানে যখন এই আয়াত অবতীর্ণ হয়, আর তা হল, এই ফিৎনার সাথে একদল লোক রুক্ষভাষা ব্যবহার করবে।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৭৩ ]
___________________________________
নঈম বিন হাম্মাদ
আমাদেরকে সুসংবাদ দানকারী ইয়াসীদ ইবনে ইব্রাহিমের পুত্রকে সর্বশক্তিমানের 
কথার 
উত্তরে বলুন এবং আপনাদের প্রতি অবিচার করার জন্য যারা বিদ্রোহ করে না তাদের প্রতি বিরক্ত হোন, তিনি বলেন, 
আমি মানুষকে শিখেছি যখন আমি তার রেজিমেন্ট নির্ণয় করতে এসেছি
হাদিস - ১৭৪
হযরত কয়েস বিন উবাদ থেকে বর্ণিত তিনি বলেন, আমি হযরত আলী রা. কে বললাম, এ বিষয়ে রসূলুল্লাহ সাল্লাললাহু আলাইহি ওয়াসল্লাম কি আপনাকে কোন প্রতিশ্রুতি দিয়েছেনে? তখন তিনি বলেন, এ ব্যাপারে রসূলুল্লাহ সা. আমাকে এমন কোন প্রতিশ্রুতি দেননি যা মানুষের সাথে করেননি। তবে মানুষ হযরত উসমান রা. এর উপর আক্রমন করে শহিদ করে ফেলেন। তাই তাদের এ কর্ম খুবই খারাপ এবং আমার কর্মও খারাপ। তখন আমি দেখলাম এ ব্যাপারে আমি বেশী হকদার, তাই আমি তার উপর লাফিয়ে পড়লাম। সুতরাং আল্লাহ তায়ালাই এ ব্যাপারে সর্বজ্ঞ যে আমরা ভুল করেছি না সঠিক করেছি।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৭৪ ]
___________________________________
নঈম বিন হাম্মাদ
আমাদের বলুন পুত্র এর সুখী মুয়াম্মার আলী বিন যায়েদ ইবনে Jad'aan 
হাসান 
কায়েস বিন আব্বাদ আমি বললাম আলী রা আমি গচ্ছিত হতে পারে জন্য আপনি মেসেঞ্জার এর আল্লাহ শান্তি বর্ষিত হোক 
আল্লাহ এ জিনিস মধ্যে মই ওয়া সাল্লাম , 
তিনি বলেছেন যে যুগ আমার যে যুগে ছিল না হয়েছে থেকে 
মানুষ, কিন্তু মানুষ Thboa উপর উসমান , আল্লাহ্ তার উপর সন্তুষ্ট হতে পারে , তাকে হত্যা , এটা খারাপ ছিল খারাপ নিতেন 
সত্যিই আমাকে যে আমি তাদের দেখেছি আরো যোগ্য এর Vothbt আল্লাহ মালুম আমরা যেতে ভুল বা আমরা ছিলাম
হাদিস - ১৭৫
আলী রা. থেকে বর্ণিত, তিনি বলেন রসূলুল্লাহ সাল্লাললাহু আলাইহি ওয়াসল্লাম নেতৃত্বের ব্যাপারে আমাদের কোন সিদ্ধান্ত দেননি যার উপর আমরা আমল করব। এ বিষয়টি আমি নিজে সিদ্ধান্ত নিয়েছি। সুতরাং যদি তা সঠিক হয় তাহলে তা আল্লাহর পক্ষ থেকে। আর যদি তা ভুল প্রমানিত হয় তাহলে এর দায়িত্ব আমাদের উপর বর্তাবে।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৭৫ ]
___________________________________
নঈম বিন হাম্মাদ
সুফিয়ান আব্দুর রাজ্জাক সম্পর্কে আমাদের বলুন আল আসওয়াদ ইবনে কায়েস মানুষ 
আলী রা হতে পারে , বলেন 
যুগ এর আমাদের আমিরাত এর সাম্প্রতিক তা গ্রহণ কিন্তু এটা কিছু যে আমি তাকে Iike দেখেছি করা হয় ডান , এটা আল্লাহ ও যে Iike হয় 
ভুল এটা নিজেদেরকে দ্বারা
হাদিস - ১৭৬
আবু হাশেম আল কাসেম বিন কাসির থেকে বর্ণিত আমাদেরকে কয়েস খারেফি বর্ণনা করেন যে, তিনি হযরত আলী রা. কে বলতে শুনেছে তিনি বলেন, আমাদেরকে হযরত আবু বকর রা. ্ও হযরত উমর রা. এর পরবর্তীতে এক ফিৎনা গ্রাস করেছে। আর তা উহা যা আল্লাহ তাআলা চেয়েছেন।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৭৬ ]
___________________________________
নঈম বিন হাম্মাদ
আমাদের বলুন পুত্র এর সুখী সুফিয়ান আবু হাশিম বিন কাসিম 
অনেক আমাদের বলেছেন কায়েস Aforvi 
রাষ্ট্রদ্রোহ পর উচ্চ শুনেছি সে আমাদের আবু বকর ও উমর নিপীড়িত বলে , আল্লাহ হতে পারে 
সন্তুষ্ট সঙ্গে তিনি কি ঈশ্বর ইচ্ছুক
হাদিস - ১৭৭
মুহাম্মাদ বিন উবাইদুল্লাহ বর্ণনা করেন, আমি আবুদ্দুহাকে হাসান ইবনে আলী রা. থেকে আলোচনা করতে শুনেছি, তিনি সুলাইমান ইবনে সুরাদকে বলেন আমি আলী রা. কে দেখেছি যখন যুদ্ধ তীব্রবেগে লেগে গেল তখন তিনি আমার নিকট আশ্রয় নিয়ে বললেন, হে হাসান! হায় আফসোস যদি এর বিশ বৎসর পূর্বে আমি ইন্তেকাল করতাম।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৭৭ ]
___________________________________
নঈম বিন হাম্মাদ
আমাদের বলুন পুত্র এর ধন্য বিভাগ আমাদের বলেছেন মুহাম্মদ বিন ওবায়েদ 
আল্লাহ Althagafi বলেন আমি শুনেছি আবু Duha উল্লেখ যে আল - হাসান ইবনে আলী বলেন, সুলেইমান বিন Sard 
আমি উচ্চ দেখেছি যখন যুদ্ধ তীব্র এবং আমাকে চলমান এবং ভাল উহু ভাল বলতে হয় , আমি আছে আগে এই গিয়েছেন 
বিশ বছর
হাদিস - ১৭৮
হযরত তামীম ইবনে সালামা রা. বলেন, আমাকে সুলাইমান ইবনে সুরাদ আল খুযায়ী বলেন আমাকে হাসান ইবনে আলী রা. বলেন আমি আলী রা. কে দেখলাম যখন পুরুষের মাঝে তরবারী উঠে পড়ল তখন তিনি আমার নিকট সাহায্য চেয়ে বললেন হে হাসান! হায় আফসোস আমি যদি এই দিনের বিশ বৎসর পূর্বে ইন্তেকাল করতাম।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৭৮ ]
___________________________________
নঈম বিন হাম্মাদ
আমাদের বলুন পুত্র এর সুখী ইসা ইবনে উমর আমাকে বলেছিলেন পরিবেশ বিন ইয়াযীদ বলেন , 
আমাকে বলেছিলেন Namir বিন সালামা আমাকে বলেছিল সুলেইমান বিন Sard Khuzai বলেন , 
আমাকে বলেছিল হাসান বিন আলী Radhi 
আল্লাহ সন্তুষ্ট হতে আমি উচ্চ দেখেছি যখন আমি পুরুষদের Itagot আমার Agotha বলে তাদের পদ্ধতির তলোয়ার নেন , 
হে হাসান হুইটনি কোনরূপে এর পূর্বে মরে এই দিন 20 বছর হয়
হাদিস - ১৭৯
হযরত সুলাইমান ইবনে সুরাদ থেকে বর্ণিত তিনি হযরত হাসান ইবনে আলী রা. থেকে বর্ননা করে বলেন, আমীরুল মুনিীনন এক বিষয়ে ইচ্ছা পোষণ করেছেন। তখন ঐ বিষয়টি পর্যায়ক্রমে আসতে লাগল। তখন তিনি আর কোন উপায় খুজে পেলেন না।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৭৯ ]
___________________________________
নঈম বিন হাম্মাদ
আমাদের বলুন পুত্র এর সুখী জারীর ইবনে Hazim আমাকে বলেছিল মুহাম্মদ বিন আব্দুল্লাহ বিন আবি বলেন 
তার চাচা সুলেইমান বিন Sard থেকে জ্যাকব Dubby 
হাসান বিন আলী জন্য , বলেন কমান্ডার এর আমিরুল আলী চেয়েছিলেন 
জিনিষ Menzaa খুঁজে পাইনি Vttabat কিছু
হাদিস - ১৮০
হযরত সুলাইমান ইবনে সুরাদ থেকে বর্ণিত তিনি হযরত হাসান ইবনে আলী রা. থেকে বর্ননা করেন, হযরত হাসান বলেন, আমি হযরত আলী রা. কে বলতে শুনেছি তিনি বলেন, তখন তিনি তরবারীর প্রতি দৃষ্টি দিলেন যখন মানুষকে পাকড়াও করে ফেলেছে। হে হাসান এগুলো সবই আমাদের মাঝে ঘটছে। হায় আফসোস! যদি আমি বিশ অথবা চল্লিশ বৎসর পূর্বে ইন্তেকাল করতাম।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৮০ ]
___________________________________
নঈম বিন হাম্মাদ
আমাদের বলুন মুহাম্মদ বিন সাধারণ চেয়ে বেশি বিন Hawshab 
মানুষ যারা তাকে সুলেইমান বিন Sard সম্পর্কে বলা সম্পর্কে হাসান বিন আলী 
উচ্চ শুনে আল্লাহ পারে হতে সন্তুষ্ট সঙ্গে তাকে তিনি বলেছেন, যখন 
এ খুঁজছেন তলোয়ার লোক ভাল নিয়েছি উহু এটা খাও মধ্যে আমাদের ইচ্ছুক এই VPL বিশ বা ছিল 
চল্লিশ বছর
 

মানুষের মধ্যে বালা মসিবত অধিকহারে দেখা গেলে মৃত্যু কামনা করার ব্যাপারে শিথিলতা প্রসঙ্গে

একটি আরবি শব্দ ডাবল ক্লিক করে তার অভিধান এন্ট্রি দেখায়
হাদিস - ১৮১
হযরত মাসরুক থেকে বর্ণিত, তিনি বলেন, যখন হযরত উসমান রা. এর ব্যাপারে মানুষ যুদ্ধে লিপ্ত হল। তখন আমি হযরত আয়েশা রা. এর নিকট এসে তাকে বললাম, আপনি আপনার সিদ্ধান্ত পরিবর্তন করা থেকে বেচেঁ থাকুন। তখন তিনি বললেন, হে বৎস তুমি খারাপ কথা বলছ। আমার নিকট আসমান থেকে আল্লাহর আযাব ব্যতীত অন্য কোন জিনিস যমীনে পতিত হওয়া কোন মুসলমানের রক্তপাতের সাহায্য করার থেকে উত্তম। আর এটা এ কারণে যে, আমি এক স্বপ্ন দেখি, আমি কেমন যেন একটি ছোট টিলার উপর আছি এবং আমার পাশে ছাগল আর বড় বড় গরুর পাল রয়েছে। তখন লোকেরা সেগুলি কুরবানী করতে ব্যস্ত হয়ে পড়ল এমনকি আমি গরুর আওয়াজ শুনতে পেলাম। হযরত আয়েশা বলেন, তখন আমি সেই ছোট টিলা থেকে অবতরন করতে লাগলাম। তখন আমার এই মর্মে খারাপ লাগল যে, রক্তের উপর দিয়ে অতিক্রম করব ফলে তা থেকে আমার কিছু লেগে যাবে এবং এটাও আমি অপছন্দ করলাম যে আমি আমার কাপড় উত্তোলন করলে শরীরের যে অংশ প্রকাশ পেলে আমি অপছন্দ করি তা খুলে যাবে। ইতিমধ্যে আমার নিকট দুইজন লোক অথবা দুটি বলদ এসে আমাকে নিয়ে ঐ রক্ত অতিক্রম করল। হুসাইন বলেন, আমাদেরকে আবু জামীলা বর্ণনা করেন, জামাল যুদ্ধের দিনে আমি যখন তাকে (আয়েশা) তার উট আক্রমন করতে দেখলাম তখন তার নিকট আম্মার ও মুহাম্মাদ ইবনে আবু বকর এসে তার জিন কেটে দিলেন। অতপর তাকে তার হাওযাযে উঠিয়ে আবু খলাফের ঘরে প্রবেশ করলেন। তখন আমি সেদিন এক বিপদগ্রস্থ ব্যক্তির উপর ঘরবাসীর ক্রন্দনের আওয়াজ শুনলাম। আয়েশা বললেন, এরা কারা? লোকেরা বলল এরা তাদের সাথীদের উপর ক্রন্দন করছে। তিনি বলেন আমাকে বের কর আমাকে বের কর।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৮১ ]
___________________________________
নঈম বিন হাম্মাদ
হুসেন আবু ওয়ায়েল সম্পর্কে আমাদের Hushaym বলুন 
চুরি পণ্যের জন্য , বলেন কি কপর্দকশূন্য 
ওসমান মানুষের আল্লাহ পারে করা তাকে আয়েশা আসা আদেশ খুশী , আল্লাহ খুশি আমি তার হুঁশিয়ার বলেন হতে পারে 
আপনার মতামতের জন্য Istnzlok , 
তিনি বলেন অনুতপ্ত আমি যা বলেছিলাম , আমার ছেলে , কারণ আমি পৃথিবীতে স্বর্গ থেকে পড়া একটি অ - 
শাস্তি এর ঈশ্বর প্রেম যে চোখ রক্ত এর একটি মুসলিম ব্যক্তি , এবং আমি দেখেছি একটি দৃষ্টি আমাকে দেখেছ যেমন যদি আমি 
Zerb এবং আমার চারপাশের ঝাঁকে ঝাঁকে বা গরুর পালের নত খোলস যেখানে পুরুষদের Anhrunha এমনকি আমি কিছু শুনতে এর গরুর তাদের 
সে Alzerb থেকে নীচে নেমে এসে আমি ঘৃণা যে তাদের কিছু Faisebena রক্ত আদেশ এবং আমি উত্তোলন ঘৃণা আপ 
আমার কাপড় আমাকে Phippdoa কি আমি Fbana ভালবাসেন যেমন পাশাপাশি দুই পুরুষ এসে থেকে আমাকে বা অগ্ন্যুত্পাত Ahtmlana এমনকি 
যে Gazza আমার রক্ত 
আবু হুসেন Vhdtna বলেন আমি দেখেছি মিলা তাদের নিজস্ব বাক্য বলেন যেখানে 
Baerha Otaha আম্মার এবং মুহাম্মদ ইবনে আবী বকর Vqtaa যাযাবর তারপর Ahtmllagha 
Hodgha এমনকি
আবু বকর গৃহে ঢুকে পড়লেন এবং আমি সেই লোকটির কণ্ঠস্বর শুনেছিলাম যে সেদিন আহত হয়েছিল। সে 
বলল, 'এই লোকেরা 
কি করে তাদের 
স্বামীকে কাঁদতে বলেছিল ?'
হাদিস - ১৮২
হযরত শা’বী আয়েশা রা. থেকে বর্ণনা করেন। হযরত আয়েশা রা. স্বপ্নে দেখলেন কেমন জানি আমি একটি ছোট টিলার উপর আছি এবং তার পাশে ছাগল ও বড় বড় গরুর পাল রয়েছে। তখন এক লোক তার ব্যাপারে ব্যস্ত হয়ে পড়ল। অতপর হযরত আয়েশা রা. হযরত আবু বকর রা. এর নিকট এ ঘটনা বর্ণনা করলেন। তখন হযরত আবু বকর রা. বলেন, যদি তোমার সপ্ন সত্য হয়ে থাকে তাহলে তোমাকে কেন্দ্র করে এক দল মানুষ হত্যা করা হবে।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৮২ ]
___________________________________
নঈম বিন হাম্মাদ
Hushaym সম্পর্কে আমাদের বলুন 
জন্য জনপ্রিয় গ্ল্যাডিয়েটর 
আয়েশা , আল্লাহ সন্তুষ্ট হতে পারে যে সে ছিল একটি Zerb যেমন এবং মেষপাল প্রায় দেখা 
ও গবাদি পশু , যেখানে একটি মানুষ নত খোলস , তিনি আবু বকর বলেন , আল্লাহ হতে পারে হতে সন্তুষ্ট সঙ্গে তাকে 
বললেন , যখন অনুমোদন আপনার 
দৃষ্টি প্রায় খুন একটি মানুষের বর্গ
হাদিস - ১৮৩
আওয়াম ইবনে হাওশাব থেকে বর্ণিত তিনি বলেন আমার গোত্রের জামী নামক এক ব্যক্তি আমার নিকট বর্ণনা করেন, আমি আমার মায়ের সাথে আয়েশা রা.এর নিকট প্রবেশ করলাম। তখন তাঁকে আমার মা বললেন, জামাল যুদ্ধের দিন আপনার সফর কেমন ছিল? তিনি উত্তর দেন, এটা তকদীরের ফয়সালা ছিল।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৮৩ ]
___________________________________
নঈম বিন হাম্মাদ
আমাদের Hushaym সাধারণ সম্পর্কে আমাদের বলুন বিন Hawshab আমাকে বলেছিলেন একটি 
জাতীয় লোক তাকে বলেন সব তিনি 
আয়েশা আমার মায়ের সাথে প্রবেশ , আল্লাহ সন্তুষ্ট হতে পারে , তিনি বলেন, তাঁর 
মা কাকে নেতৃত্বে ছিল আপনি উপর উট 
বলেন চুক্তি
হাদিস - ১৮৪
হযরত আবু সাঈদ খুদরী রা. থেকে বর্ণিত, তাঁকে হযরত আলী রা., ত্বলহা রা. এবং যুবায়ের রা. সম্পর্কে জিজ্ঞাসা করা হল। তখন তিনি উত্তর দিলেন তারা এমন এক জাতি যাদের জন্য এক অতীত ইতিহাস রচিত হয়েছে এবং তাদেরকে এক ফিৎনায় আগ্রাসন করেছে। সুতরাং তাদের বিষয় আল্লাহ তায়ালার নিকট অর্পণ কর।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৮৪ ]
___________________________________
নঈম বিন হাম্মাদ
আমাদের ঘাসান বিন Mudar সাঈদ বলুন 
বিন ইয়াযীদ আবু ভেরনার লোক 
যে, তিনি আবু সাঈদ থেকে ছিল আলী ও তালহা এবং যুবাইর সম্পর্কে জিজ্ঞাসা আবু বলেন 
বলল ভাবেন তাদের প্রিসিডেন্ট পূর্বে এবং নিপীড়িত সঙ্গে রাষ্ট্রদ্রোহ Opining তাদের ঈশ্বরের কাছে আদেশ
হাদিস - ১৮৫
হযরত ইয়াযিদ ইবনে আবু হাবীব থেকে বর্ণিত তিনি বলেন, রসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম এরশাদ করেন, আমার সাহাবীদের থেকে সংঘটিত হবে। অর্থাৎ তাদের মধ্যেই ফিৎনা সংঘটিত হবে। আল্লাহ তায়ালা তাদের অগ্রগামীদেকে ক্ষমা করে দিবেন। যদি কোন জাতি পরবর্তীতে তাদের অনুসরন করে, তাহলে আল্লাহ তায়ালা তাদেরক জাহান্নামে ধরাশয়ী করবেন।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৮৫ ]
___________________________________
নঈম বিন হাম্মাদ
আমাদের বলুন ইবনে 
আল মুবারক ইবনে Hiệp 
ইয়াযীদ ইবনে আবী হাবীব বলেন রসূল এর আল্লাহ , শান্তি বর্ষিত হোক 
তাকে আমার সঙ্গী হতে রাষ্ট্রদ্রোহ মানে , যা তাদের মধ্যে ছিল ঈশ্বর তাদের ক্ষমা Sabakthm যে 
অনুসৃত তাদের পরে মানুষ জাহান্নামে তাদের ঈশ্বর Okphm
হাদিস - ১৮৬
কয়েস ইবনে সাআদ খারেফী থেকে বর্ণিত তিনি বলেন, আমি হযরত আলী রা. কে এই মিম্বারের উপর বলতে শুনেছি, রসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম অগ্রগামী হয়েছেন আর হযরত আবু বকর রা. নামায পড়েছেন আর হযরত উমর রা. তৃতীয় পর্যায়ে এসেছেন। অতপর আমাদেরকে এমন এক ফিৎনায় পদদলিত করেছে যা আল্লাহর ইচ্ছায় ছিল।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৮৬ ]
___________________________________
নঈম বিন হাম্মাদ
আমাদের বলুন ইবনে ইদ্রিস 
লাইস কাসিম আবু হাশিম সাঈদ বিন কায়েস Aforvi বলেন 
আমি উচ্চ শুনে আল্লাহ পারে হতে সন্তুষ্ট সঙ্গে তাকে 
এই প্ল্যাটফর্মের ইতিমধ্যে বলার রসূল এর আল্লাহ , সা প্রার্থনা আবু বকর ও ওমর , তারপর একটি তৃতীয় এর 
Bttna রাষ্ট্রদ্রোহ , কি ঈশ্বরের ইচ্ছা
হাদিস - ১৮৭
হযরত মুহাম্মাদ ইবনে হাতিব থেকে বর্ণিত তিনি বলেন, হযরত আলী রা. কে বলা হল, নিশ্চয়ই তারা আমাদের নিকট হযরত উসমান রা. সম্পর্কে জিজ্ঞাসা করবে তখন আমরা কী উত্তর দিব? তখন তিনি বলেন, তোমরা বল, তিনি তো ঐ সমস্ত লোকদের অন্তর্ভুক্ত যাদের ব্যাপারে আল্লাহ তায়ালা বলেন, “ যারা ঈমান রাখে ও সৎকর্মে রত থাকে এবং (আগামীতে যেসব জিনিস নিষেধ করা হয় তা থেকে) বেঁচে থাকে ও ঈমানে প্রতিষ্ঠিত থাকে আর তারপরও তাকওয়া ও ইহসান অবলম্বন করে। আল্লাহ ইহসান অবলম্বনকারীদেরকে ভালবাসেন।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৮৭ ]
___________________________________
নঈম বিন হাম্মাদ
Hdtnaa মুহাম্মদ বিন সাধারণ বিন Hawshab মুহাম্মদ চেয়ে বেশি 
ইবনে হাতিব বলেন , এটা 
বলা হয়েছিল আলী আল্লাহ পারে হতে সন্তুষ্ট সঙ্গে তাকে যে তারা Sasollona ওসমান বলতে কি 
তিনি 
বলতে যারা বিশ্বাস স্থাপন করে এবং সৎকর্ম সম্পাদন করে , এবং তারপর ভয় এবং বিশ্বাস করি , তারপর ভয় এবং সৎকাজ সম্পাদন কর , আর আল্লাহ 
ভালোবাসেন সৎকর্মীদের এর ভাল
হাদিস - ১৮৮
হযরত আয়েশা রা. রসূলুল্লাহ থেকে বর্ণনা করেন এবং আওয়াম ইব্রাহীম তাইমী থেকে বর্ণনা করেন, তিনি রসূলুল্লাহ সা. থেকে বর্ণনা করেন। রসূলুল্লাহ সা. এরশাদ করেন, তিনি তার স্ত্রীদেরকে বলেন, তোমাদের মধ্যে থেকে কাউকে দেখে হাওআবের কুকুর (অধিক পানি বিশিষ্ট প্রশস্তময় জায়গার কুকুর) ঘেউ ঘেউ করবে। যখন আয়েশা অতিক্রম করল তখন কুকুর ঘেউ ঘেউ করল। তখন আয়েশা এ সম্পর্কে জিজ্ঞাসা করলেন, তখন তাকে বলা হল, এটা হাওআবের পানি। তখন আয়েশা রা. বলেন, আমার প্রবল ধারণা, আমি প্রত্যাবর্তন করব। তখন তাকে বলা হল হে উম্মুল মুমিনীন, নিশ্চয় আপনি মানুষের মাঝে সংশোধন করবেন।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৮৮ ]
___________________________________
নঈম বিন হাম্মাদ
আমাদের বলুন পুত্র এর আবু খালেদ বিন কায়েস আবু Hazim উপর হারুন 
থেকে 
আয়েশা , আল্লাহ সন্তুষ্ট হতে পারে যে নবী সা 
থেকে Taymi সম্পর্কে সাধারণ 
নবী , শান্তি হতে তার উপর , তিনি তার দুই স্ত্রীকে বলল Aitken যে Tenbhaa Alihuob কুকুর যখন তিনি গৃহীত 
আয়েশা barked কুকুর জিজ্ঞেস করলেন 
বলা হয় এই জল Alihuob 
বলল আমি কি মনে হয় আমি 
শুধুমাত্র প্রতিক্রিয়া 
বলা হয়েছিল করার তার, মা এর বিশ্বাসীদের কিন্তু Tsalehyn মানুষের মধ্যে
হাদিস - ১৮৯
হযরত মা’মর ইবনে তাউস থেকে বর্ণিত, তাউস তার পিতা থেকে বর্ণনা করেন আর তার পিতা নবী করীম সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম. থেকে বর্ণনা করেন, হুযুর সা. তার স্ত্রীদের কে বলেন, তোমাদের মধ্যে সে কে? যাকে দেখে অমুক জায়গার পানির কুকুর ঘেউ ঘেউ করবে। হে হুমায়রা (লাল রমনী) তুমি সতর্ক থাক অর্থাৎ আয়েশা রা.।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৮৯ ]
___________________________________
নঈম বিন হাম্মাদ
আমাদের আব্দুল বলুন 
ইবনে মুয়াম্মার Tawoos থেকে রাজ্জাক 
তার পিতা থেকে যে রসূল যে রসূল এর আল্লাহ , সা , 
তার দুই স্ত্রীকে বলল যে Aitken Tenbhaa পানি কুকুর তাই এবং তাই হুঁশিয়ার হে মানে আয়েশা রুবেলা
হাদিস - ১৯০
হযরত আবু হুযাইল থেকে বর্ণিত, হযরত আব্দুল্লাহ ইবনে মাসউদ এবং হুযাইফা রা. বসে ছিলেন। এমতাবস্থায় এক রমনীকে উটের উপরে রেখে নিয়ে যাওয়া হচ্ছিল, যিনি নতুন জিনিষ উদ্ভাবন করেছে। তখন তাদের একজন তার সাথীকে বলল, নিশ্চয় ইনিই তিনি, তখন অপরজন বলল, না নিশ্চয় তার চারপাশের্^ দীপ্তি রয়েছে। আর তারা তার দ্বারা আয়েশা রা. কে উদ্দেশ্য নিলেন।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৯০ ]
___________________________________
নঈম বিন হাম্মাদ
আবু আম্মার চর্বিজাতীয় Hudhayl জন্য ইবনে আব্দুর রাজ্জাক Uyaynah সম্পর্কে আমাদের বলুন 
যে, ইবনে মাসউদ 
এবং হুযাইফা বসা ছিল এবং গৃহীত একটি মহিলার একটি উট আনা হয়েছে প্রায় এক ঘটনা , 
এক বলেন এর তাদের তার মালিক Leahy 
হয় 
সম্পর্কে বলেন যে অন্যান্য অর্থ এই নয় যে একটি আভাস এর আয়েশা , আল্লাহ হতে পারে করা দ্বারা সন্তুষ্ট
হাদিস - ১৯১
হযরত হাসান থেকে বর্ণিত তিনি বলেন, কয়েস বিন উবা রা. হযরত আলি রা. কে বলেন আপনার এই সিদ্ধান্ত কি আপনাকে হুযুর সাল্লাল্লাহ আলাইহি ওয়াসাল্লাম দিয়েছেন না আপনার নিজের সিদ্ধান্ত? তখন হযরত আলি রা. কয়েসকে বলেন এর দ্বারা আপনি কি বুঝাতে চেয়েছেন? তখন তিনি বলেন, আমাদের ধর্ম আমাদের ধর্ম (সম্পর্কে) সতর্ক থাকা চাই, তখন হযরত আলী রা. বলেন, এই সিদ্ধান্ত আমারই সিদ্ধান্ত যা আমি বুঝেছি।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৯১ ]
___________________________________
নঈম বিন হাম্মাদ
আমাদের বলুন 
Uyaynah ইউনিস আল পুত্র - হাসান বলেন 
কায়েস বিন আলী উপাসকদের কিছু বলেন যে অর্ডার হেফাজতে এর 
রসূল এর আল্লাহ , শান্তি তার বা মতামতের উপর হতে আমি তাকে দেখেছি , 
তিনি কি এই করতে চায় , 
সে বলল 
আমাদের ধর্ম , 
তিনি বলেন , কিন্তু কি মতামত আমি দেখেছি
হাদিস - ১৯২
আবুত তুফাইল থেকে বর্ণিত তিনি বলেন, আমি হুযাইফা ইবনে ইয়ামান রা. কে বলতে শুনেছি তিনি বলেন, আমি যদি তোমাদেরকে বলি যে, তোমাদের মাতা তোমাদের সাথে যুদ্ধ করবে। তাহলে তোমরা আমাকে সত্যায়ন করবে? তখন লোকেরা বলল, এটাও কি ঘটবে? তিনি বলেন, এটা সত্য।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৯২ ]
___________________________________
নঈম বিন হাম্মাদ
মুয়াম্মার আব্দুর রাজ্জাক সম্পর্কে আমাদের বলুন 
ওয়াহাব বিন আব্দুল্লাহ আবু পরজীবী থেকে 
শোনা হুযাইফা ইবনুল - ইয়ামন বলছেন যে যদি তোমার মা বলত আপনাকে সামনে 
Ngzokm Otsedkona 
বলেন ডান , তাই বা 
বলেন ডান
হাদিস - ১৯৩
যুবায়ের ইবনুল আওয়াম রা. থেকে বর্ণিত, তিনি বলেন এই আয়াত অবতীর্ণ হয় “ তোমরা ঐ ফিৎনাকে ভয় কর যেই ফিৎনা বিশেষ ভাবে তাদের কে পাকড়াও করবেনা যারা অত্যাচার করে না। অথচ আমরা তখন প্রচুর লোক। তখন আমরা আশ্চার্য হতে লাগলাম, এই ভেবে যে, এই ফিৎনা টি কী? এবং আমরা বলতাম সেই ফিৎনা কি? যা আমাদের নিকট এসে পৌছবে, এক পর্যায়ে তা আমরা দেখলাম।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৯৩ ]
___________________________________
নঈম বিন হাম্মাদ
আমাদের বলুন ইবনে মাহদি জারীর 
ইবনে Hazim আল - হাসান শুনে হয় ঘটছে 
আল থেকে - জুবায়ের ইবনুল - Awam আল্লাহ পারে হতে সন্তুষ্ট সঙ্গে তাকে তিনি বলেন এই আয়াতে ছিল প্রকাশ , 
ভয় গোলমাল যারা তোমাদের বিশেষভাবে প্রতি Tseben না যে দিন এবং আমরা Mtoavron কি একদম তারিফ 
এই রাষ্ট্রদ্রোহ এবং কোন প্রলোভন বলে কি এটা না হওয়া পর্যন্ত আমরা দেখেছি এই হানা
হাদিস - ১৯৪
হযরত মুহাম্মাদ বিন সিরীন থেকে বর্ণিত তিনি বলেন, হযরত আলী রা. বলেন যে আমি আশাবাদী যে, আমি এবং হযরত উসমান রা. ঐ লোকদের অন্তর্ভূক্ত যাদের ব্যাপারে আল্লাহ তায়ালা ঘোষনা করেছেন। “আমি তাদের অন্তর থেকে হিংসা-বিদ্বেষ বের করে দিয়েছি ফলে তারা ভাই ভাই হয়ে উচু আসনে মুখামুখি হয়ে বসেন। (হিযর:৪৭)
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৯৪ ]
___________________________________
নঈম বিন হাম্মাদ
আমাদের বলুন আব্দুল ওয়াহাব 
আইয়ুব মুহাম্মদ বিন সীরীন বলেছেন 
আলী আল্লাহ পারে হতে সন্তুষ্ট সঙ্গে তাকে , আমি আশা করি যে আমি হবে হতে উসমান 
যারা ঈশ্বর বললেন এবং কি আমরা সরানো বিপরীত আসনে আসীন গুল ভাইদের চেস্ট
হাদিস - ১৯৫
হযরত মুররা ইবনে কা’আব রা. থেকে বর্ণিন তিনি বলেন, আমি রসুল সাল্লাল্লাহ আলাইহি ওয়াসাল্লামকে এক ফিৎনার কথা আলোচনা করতে শুনেছি, তো রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম ফিৎনার বিষয় বিষদভাবে আলোচনার মাধ্যমে আমাদের নিকটবর্তী করে ফেললেন। এমন সময় হযরত উসমান রা. অতিক্রম করলেন। তখন হুযুর সাল্লাল্লাহ আলাইহি ওয়াসাল্লাম বললেন এই ব্যক্তি সেদিন হকের উপর থাকবে। বর্ণনাকারী বলেন, তখন আমি হযরত উসমান রা. এর নিকট দাঁড়িয়ে গেলাম এবং তার দুই বাহু ধরে হুযুর সাল্লাল্লাহ আলাইহি ওয়াসাল্লাম এর নিকট নিয়ে গেলাম। আর তার মাথা খুলে দিলাম, কেননা তিনি কাপড় দ্বারা মাথা ঢেকে রেখেছিলেন। তখন আমি বললাম, হে আল্লাহর রসূল ইনি? রাসূল সাল্লাল্লাহ আলাইহি ওয়াসাল্লাম বললেন ইনিই। তখন দেখা গেল তিনি উসমান ইবনে আফ্ফান রা.। এবং খালেদ বলেন কাব ইবনে র্মুরা এবং আবুল আসআস সনআনির কথা উল্লেখ করেননি।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৯৫ ]
___________________________________
নঈম বিন হাম্মাদ
আমাদের বলুন আব্দুল ওয়াহাব আইয়ুব এবং খালেদ সব আবু Qalaabah আবু বিদ্রোহী San'aani থেকে 
সম্পর্কে 
একবার ইবনে কা'ব আল্লাহ পারে হতে সন্তুষ্ট সঙ্গে তাকে : আমি শুনেছি রাসূলুল্লাহ এর আল্লাহ , সাঃ বলেন রাষ্ট্রদ্রোহ Vqrabha 
Famer উসমান বিন আফফান এই যে দিন , তিনি বলেন , উপর নির্দেশিকা আমি পেয়েছিলাম আপ তাকে আমি Beddi নেন এবং তার মুখ দেখা যাচ্ছে 
করার রসূল এর আল্লাহ তাকে এবং তার মাথা সম্পর্কে Hasret Aalih প্রার্থিত এবং ছিল একটি পোষাক Mottaganaa 
আমি বললাম , হে 
রসূল এর ঈশ্বর 
বলেন , এই হয়, তাহলে উসমান বিন আফফান 
খালিদ বিন গোড়ালি একবার বলেছিলেন এবং করা হয়নি 
উল্লেখ পিতা বিদ্রোহী San'aani
হাদিস - ১৯৬
হযরত শাকীক রা. থেকে বর্ণিত তিনি বলেন, আমি সাহল ইবনে হুনাইফ রা. কে সিফ্ফীন যুদ্ধের সময় বলতে শুনেছি। তিনি বলেন, হে মানুষ! তোমরা নিজেদের সিদ্ধান্তকে অপবাদ দিচ্ছ। আল্লাহর শপথ, আবু জান্দালের দিবস আমাার নিজের ব্যাপারে ধারণা করলাম যদি আমি সক্ষম হতাম যে, রসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম এর বিষয়কে প্রতিহত করার তাহলে অবশ্যই করতাম। আল্লাহর শপথ, আমরা যখনই কোন বিষয়ের কারণে নিজেদের কাধের উপর তরবারী উত্তোলন করি, তখন আল্লাহ তায়ালা আমাদের জ্ঞাত বিষয়কে অধিক সহজতর করে দেন তোমাদের এই বিষয় ব্যতিত। বর্ণনাকারী আ’মাশ বলেন শকীকের অবস্থা এমন ছিল যখন তাকে প্রশ্ন করা হত আপনি কি সিফফীন যুদ্ধে উপস্থিত ছিলেন? তিনি উত্তর দেন হ্যাঁ/ আর তা নিকৃষ্টতম সিফ্ফীন।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৯৬ ]
___________________________________
নঈম বিন হাম্মাদ
আমাদের বলুন আবু সিদ Aloamc ভাই ড 
আমি শুনেছি সাহল ইবনে হানিফ বলেছেন দুই সারি হে মানুষ অভিযুক্ত আপনি মনে হয় আমি শপথ নিচ্ছি যে আমি আমাকে দেখে দিন এর 
আবু জান্দালের , যদি আমি উত্তর দিতে পারেন করতে রসূল এর আল্লাহ , শান্তির জন্য তাকেই দায়ী করা হবে যুক্তি উত্থাপিত দ্বারা ঈশ্বর এবং কি 
আমরা কিছু করতে Awatguena আমাদের তলোয়ার করা কিন্তু কখনও কিছু আমাদের সহজ আমরা তাকে শুধুমাত্র এই জানি, 
আল আমাশ বলেন, এবং তিনি একজন ভাই, যদি তিনি বলেন যে 
তিনি দুই সারি দেখেছেন তিনি বলেন: হ্যাঁ,
হাদিস - ১৯৭
হযরত আসওয়াদ বিন কয়েস থেকে বর্ণিত তিনি এক ব্যক্তি থেকে বর্ণনা করেন, তিনি হযরত আলী রা. থেকে, হযরত আলী রা. জামাল যুদ্ধের দিন বলেন, নিশ্চয় রসূল সাল্লাল্লাহ আলাইহি ওয়াসাল্লাম আমাদের নিকট নেতৃত্বের ব্যাপারে কোন সিদ্ধান্ত দেননি তবে এই বিষয়টি আমরা নিজেরা বুঝে নিয়েছি। সুতরাং যদি তা সঠিক হয়ে থাকে তবে আল্লাহর পক্ষ থেকে। আর যদি কোন ভুল হয় তাহলে তা আমাদের উপরে বর্তাবে। অতপর হযরত আবু বকর রা. খলিফা নিযুক্ত হলেন এবং তিনি ইনসাফ প্রতিষ্ঠা করলেন। অতপর হযরত উমর রা. খলিফা নিযুক্ত হলেন এবং তিনিও ইনসাফ প্রতিষ্ঠা করলেন। এমনকি দ্বীনকে সম্মুখে নিয়ে গেলেন। অতপর অনেক জাতি দুন্য়িা অন্বেষন করতে লাগল। আল্লাহ তায়ালা যাদেরকে চান তাদেরকে ক্ষমা করেন। আর যাদেরকে মনে চান শাস্তি দেন।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৯৭ ]
___________________________________
নঈম বিন হাম্মাদ
আমাদের বলুন আবদুল রাজাক সুফিয়ান আসওয়াদ ইবনে কায়েস মানুষ 
আলী আল্লাহ পারে হতে সন্তুষ্ট সঙ্গে তাকে , তিনি 
বলেন উট যে রসূল এর আল্লাহ , শান্তি পরে তার ন্যস্ত হতে হবে করার আমাদের যুগ আমরা গ্রহণ 
আমিরাত, কিন্তু কিছু আমরা নিজেদেরকে দ্বারা দেখা করেছি Iike হয় ডান , এটা আল্লাহ ও যে Iike ত্রুটি , তুমি দ্বারা 
নিজেদেরকে এবং তারপর খলিফা আবু বকর Voqaam এবং তারপর Askhalaf ওমর কড়াকড়ি শিথিল করা এবং তিনি এমনকি কড়াকড়ি শিথিল করা আঘাত বসতি স্থাপন ধর্ম 
Bjeranh তারপর জিজ্ঞেস কিছু লোক যারা ক্ষমা বিশ্বের , এবং যাকে ইচ্ছা আযাব দান
হাদিস - ১৯৮
হযরত আবু ওয়েল থেকে বর্ণিত তিনি বলেন, আমি আম্মার রা. কে এই মিম্বারের উপর বলতে শুনেছি, নিশ্চয়ই আয়েশা ছিদ্দিকা রা. দুনিয়া ও আখিরাতে উভয় জায়গায় তোমাদের নবী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লামের স্ত্রী তবে তিনি হলেন পরীক্ষা যা তোমাদের থেকে নেওয়া হয়েছে।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৯৮ ]
___________________________________
নঈম বিন হাম্মাদ
আমাদের বলুন 
ইবনে আবী আবু ওয়ায়েল থেকে শক্তি থেকে তার বাবার কাছ থেকে ধনী বলেন 
আমি এই প্ল্যাটফর্মের শোনা Amara, বলছেন 
আয়েশা যে , স্ত্রী নবী , শান্তি হতে তার উপর এ এই পৃথিবী ও পরকালে কিন্তু চাবুক Aptleetm
হাদিস - ১৯৯
হযরত আবু ওয়েল থেকে বর্ণিত তিনি বলেন সাহল ইবনে হুনাইফ সিফ্ফীন যুদ্ধের সময় বলেন, হে মানুষ, তোমরা নিজেদেরকে অপবাদ দিচ্ছ। আমরা হুদায়বিয়ার সময় রসূলুল্লাহ সা. এর সাথে ছিলাম। যদি আমরা সেদিন যুদ্ধ করা সমীচীন মনে করতাম তাহলে ঐ সন্ধি অবস্থায় অবশ্্যই আমরা যুদ্ধ করতাম যা রসূল সাল্লালাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম এবং মুশরিকদের মাঝে ছিল।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৯৯ ]
___________________________________
নঈম বিন হাম্মাদ
আমাদের বলুন আব্দুল আজিজ বিন Siah ইবনে Namir সম্পর্কে বলেন থেকে আমাদের হাবিব ইবনে আবু Thabet 
আবু ওয়ায়েল বলেন 
সাহল ইবনে হানিফ , দুই সারি , বলেন হে মানুষ , অভিযুক্ত এর নিজেদের , আমরা ছিলাম 
সঙ্গে রসূল এর আল্লাহ , শান্তি Hudaybiyah উপর তাকেই দায়ী করা হবে আমরা যদি যুদ্ধ দেখতে আছে করেছিলেন ম্যাজিস্ট্রেট , যারা 
মধ্যে ছিল রসূল আল্লাহ তাঁর উপরে ও মুশরিকদের উপর শান্তি বর্ষণ করুন
হাদিস - ২০০
হযরত হুযাইফা ইবনে ইয়ামান রা. থেকে বর্ণিত তিনি বলেন, হুযুর সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম এরশাদ করেন হাউযের নিকট বিভিন্ন জাতি আমার কাছে উপস্থিত হবে। যাদেরকে আমিও চিনব এবং তারাও আমাকে চিনবে, তবে আমি ব্যতিত তারা সবাই কাঁপতে থাকবে, তখন আমি আরজ করলাম হে আমার প্রতিপালক এরা আমার সাহাবা, এরা আমার সাহাবা, তখন আল্লাহ তায়ালা বলবেন, নিশ্চয়ই আপনি জানেন না, আপনার অবর্তমানে তারা কি নতুন জিনিস উদ্ভাবন করেছে।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ২০০ ]
___________________________________
নঈম বিন হাম্মাদ
থেকে আমাদের ইবনে Fadil বলুন 
হুসাইন ইবনে আব্দ আল - থেকে রহমান ভাইয়ের এর বিন সালামা 
হুযাইফা ইবনুল থেকে - ইয়ামন আল্লাহ পারে হতে সন্তুষ্ট সঙ্গে তাকে , বললেন 
রসূল এর আল্লাহ , সাঃ অববাহিকা ভাবেন চান এমনকি যদি আপনি তাদেরকে চিনল এবং আমাকে জানতেন 
Achtjawa Donny , আমি বলতে , হে পালনকর্তা , আমার সঙ্গী , আমার বন্ধুদের বলে , আপনি জানেন না কি তারা পর সৃষ্ট আপনি
হাদিস - ২০১
হযরত যুহরী রা. থেকে বর্ণিত তিনি বলেন রসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসল্লামের সাহাবা ভরপুর থাকা সত্বেও ফিৎনা প্রবল বেগে উত্তেজিত হবে।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ২০১ ]
___________________________________
নঈম বিন হাম্মাদ
আমাদের বলুন ঈসা ইবনে ইউনুস ও ছেলে এর মুয়াম্মার আল - মুবারক আল - 
যুহরী বলেন Hajt রাষ্ট্রদ্রোহ এবং মালিকদের এর 
রসূল এর আল্লাহ , সা Mtoavron
হাদিস - ২০২
হযরত আয়েশা রা. থেকে বর্ণিত তিনি বলেন, আমি রসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসল্লামের এর নিকট প্রবেশ করলাম যেই অবস্থায় উসমান রা. তার সামনে রসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসল্লামের সাথে চুপিসারে কথা বলছেন। তখন আমি তার কথোপকথন কিছুই বুঝতে পারলামনা তবে উসমান রা. এর কথা হে আল্লাহর রাসূল, অন্যায় ভাবে না শত্রুত বশত, অন্যায় ভাবে না শত্রুত বশত? তবে অনুধাবন করতে পারলাম না সেটা কি এক পর্যায়ে উসমান রা. শাহাদত বরণ করলেন। তখন আমি নিশ্চিতভাবে বুঝতে পারলাম নবী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসল্লাম নিশ্চয়ই তার হত্যার বিষয় উদ্দেশ্য নিয়েছিলেন। আয়েশা রা. বলেন আমি পছন্দ করিনি যে, উসমান রা. এর নিকট কিছু পৌঁছাক, তবে আমার নিকট তার মত জিনিস পৌঁছল। তবে আল্লাহ তায়ালা নিশ্চয়ই জানেন আমি তার হত্যাকে পছন্দ করিনা যদি আমি তার হত্যা পছন্দ করতাম, তাহলে আমাকে হত্যা করা হত। আর এটা তখন যখন তার হাওদায বর্শা দ্বারা নিক্ষেপ করা হয়, এমনকি তা শল্লীর মত হয়ে পড়ে।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ২০২ ]
___________________________________
নঈম বিন হাম্মাদ
আমাদের কাছ থেকে ভর্ত্সনা বিন বশির Khsif বলুন 
মুজাহিদ 
আয়েশা , আল্লাহ হতে পারে হতে সন্তুষ্ট সঙ্গে তার প্রবেশ রসূল এর আল্লাহ , সা 
ও তার হাতে থাকে উসমান তাকে মনে আমি তার প্রবন্ধে কিছুই কিন্তু বুঝতে পারছি না শব্দ এর ওসমান Ozlma এবং আগ্রাসন Ozlma 
এবং আগ্রাসন , হে আল্লাহর এর আল্লাহ , কি Drut কি এমনকি ওসমান হয় নিহত আমি যে আবিষ্কৃত নবী , শান্তি হতে উপরে 
তাকে কিন্তু আমাকে হত্যা 
আয়েশা বলেন , আর কি আমি ওসমান কিছুই পৌঁছানোর পছন্দ কিন্তু কাছে এসে 
তাকে পছন্দ কিন্তু আল্লাহ জানতাম আমি পছন্দ করতাম না করতে যদি আমি পছন্দ করেছে তাকে হত্যা করার জন্য তাকে হত্যা হত্যা তা ছুড়ে ফেলে এর Hodgha 
আভিজাত্য পর্যন্ত তিনি মত হয়ে একটি সজারু
হাদিস - ২০৩
হযরত আব্দুল্লাহ ইবনে আব্বাস থেকে বর্ণিত তিনি বলেন, আমি আয়েশা রা. এর নিকট প্রবেশ করত সালাম প্রদান করে বললাম হে আম্মা! তখন তিনি বললেন হে ছেলে! তোমার প্রতিও সালাম। বর্ণনাকারী বলেন আমি তাকে বললাম কুরাইশদের নিফাকী করা সত্ত্বে কোন জিনিষ আপনাকে আমাদের নিকট বের হতে বাধ্য করল? তিনি বলেন এটা নিয়তির ফয়সালা ছিল।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ২০৩ ]
___________________________________
নঈম বিন হাম্মাদ
আমাদের বলুন মুত্তালিব বিন যিয়াদ আমাদের বলেছেন অনেক আবু ইসমাইল 
ইবনে আব্বাস বলেন , আয়েশা প্রবেশ , ঈশ্বর তাদের মঙ্গল করুক এবং আমি বললাম শান্তি উপর আপনি , হে জাতি 
বলেন করার আপনি , আমার ছেলে 
বলল , আমি তাকে জানান কি আনা আপনি আমাদের মুনাফিকদেরকে সঙ্গে কুরাইশ 
বলেন এটা ছিল 
এত সামলানো
হাদিস - ২০৪
হযরত ইব্রাহীম এবং খালেদ হায্যা হাসান থেকে বর্ননা করে বলেন হযরত আলী রা. বলেন, নিশ্চয় আমি আশা রাখি যে, আমি, ত্বলহা ও যুবাইর ঐ সমস্ত লোকদের অন্তর্ভূক্ত হব। যাদের ব্যাপারে আল্লাহ তায়ালা ইরশাদ করেছেন তারা পরস্পর ভাই ভাই মুখামুখি হয়ে আসনে বসবেন। (হিযর:৪৭)
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ২০৪ ]
___________________________________
নঈম বিন হাম্মাদ
সুফিয়ান কিয়া মনসুর ইব্রাহিম এবং খালেদ বুট সম্পর্কে আমাদের বলুন 
আল থেকে - হাসান বলেন 
আলী আল্লাহ পারে করা খুশী সঙ্গে তাকে , আমি আশা করি যে আমি তালহা এবং যুবাইর am , যারা 
ঈশ্বরের বিপরীত আসনে আসীন Taaaly ভাইদের বললেন
হাদিস - ২০৫
হযরত রিবয়্যি ইবনে হিরাশ থেকে বর্ণিত তিনি বলেন জুনাইদ ইবনে সাওদা আলী রা. এর নিকট তখন তিনি বললেন, আল্লাহ তায়ালা এর চেয়ে ইনসাফকারী, তখন আলী রা. এর উপর জোরেসোরে চিৎকার করেন বর্ণনাকারী বলেন, আমি ধারণা করলাম যে, প্রাসাদ ভেঙ্গে দেওয়া হয়েছে। অতপর বলেন যদি আমরাই না হই তাহলে আর কারা হবে?
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ২০৫ ]
___________________________________
নঈম বিন হাম্মাদ
সম্পর্কে Wakee সম্পর্কে বাজলি দেখানো আমাদের বলুন একটি 
সিকি এর বেন Hrash বলেন 
Hanid বেন আলীর কালো ঈশ্বরকে বললেন , আমি প্রতিজ্ঞা করছি যে cried আউট 
কাঁদতে আমি ভেবেছিলাম যে প্রাসাদ এইচডি 
তারপর তিনি বলেন যে, আমরা তারা ছিল না কে
হাদিস - ২০৬
হযরত সুলাইমান ইবনে সুরাদ থেকে বর্ণিত তিনি বলেন, নিশ্চয়ই আমার নিকট আমিরুল মুমিনীন আলী রা. সম্পর্কে এমন কিছু কথার অংশ পৌঁছেছে, যা আমার উপর এমনভাবে প্রভাব ফেলছে যেমন তিরস্কার ও ভীতিপ্রদর্শনের কারণে হয়ে থাকে। তখন আমি দ্রুত তার নিকট রওয়ানা দিয়ে এমন সময় পৌঁছলাম যখন তিনি জামাল যুদ্ধ থেকে ফারেগ হলেন। তখন আমি হাসান রা. এর সাথে সাক্ষাৎ করে বললাম, নিশ্চয়ই আমার নিকট আমিরুল মুমিনীন আলী রা. সম্পর্কে এমন কিছু কথার অংশ পৌঁছেছে, যা আমার উপর তিরস্কার ও ভীতিপ্রদর্শনের ন্যায় প্রভাব ফেলছে। কারণ হয়ে থাকে তখন আমি দ্রুত তার নিকট রওয়ানা দিলাম এই মর্মে যে, আমি তাঁর নিকট উযরখাহী করব অথবা আমার অন্তর থেকে তা বের করে দিব। তখন হাসান রা. বললেন হে সুলাইমান! খোদার কসম নিশ্চয়ই আমিরুল মুমিনীন এ কারণে মর্যদাবানের রক্ত থেকে অপছন্দ করতেন। নিশ্চয় আমিরুল মুমিনীন এক বিষয়ের ইচ্ছা পোষন করেছেন, তবে তা পালাক্রমে আসতে লাগল। তাই তিনি আর কোন উপায় খুঁজে পাননি। আর আমিরুল মুমিনীন এর পক্ষ থেকে আমিই তোমার জন্য যথেষ্ট।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ২০৬ ]
___________________________________
নঈম বিন হাম্মাদ
আমাদের বলুন ছেলে 
থেকে মুহাম্মদ ইবনে আব্দুল্লাহ ইবনে আবী ইয়াকুব বললেন মেহেদী মেহেদী বেন Maimon , আমাকে বলেছে আমার খালা Illtm 
সুলেইমান বিন Sard বলেন কমান্ডার এর আমিরুল তার বিক্রয়ের উপর Chdhir বলার অপেক্ষা রাখে না থেকে মুছে ছেড়ে করুন! 
অভিশাপ ও Ayaad ব্যাখ্যা করতে Hawwada Votih তাকে যখন থেকে তার হাত তুলে উট আমি হাসান বিন পূরণ আলী এবং 
আমি বললাম , থেকে কমান্ডার এর ভক্ত Dhiro কথা শুনতে পেয়ে অভিশাপ ও Aied করার chdir উপর বিক্রয়! ব্যাখ্যা করতে তাকে একটি 
ঘোড়া Votih ক্ষমাপ্রার্থী করতে তাকে বা তাকে শিরক এবং বললেন , হে সুলাইমান , এবং ঈশ্বরের কমান্ডার এর বিশ্বস্ত ছিল 
এই রক্তের ঘৃণা এর Sneh দ্য কমান্ডার এর বিশ্বস্ত চেয়েছিলেন করতে Vttabat জিনিসগুলি হতে এবং Menzaa খুঁজে পাইনি 
এবং Sokvic আমির বিশ্বাসীদের
হাদিস - ২০৭
হযরত সুলাইমান ইবনে সুরাদ থেকে বর্ণিত তিনি বলেন, আমি হযরত আলী রা, এর নিকট এমতাবস্থায় পৌঁছলাম যখন তিনি জামাল যুদ্ধ থেকে ফারেগ হন। তিনি আমাকে দেখে বললেন হে ইবনে সুরাদ! তুমি দুর্বল হয়ে স্থানচ্যুত হয়ে পড়েছ এবং আল্লাহ তায়ালা তোমার সাথে কি আচরণ করবেন তার অপেক্ষা করছ? তখন আমি বললাম হে আমিরুল মুমিনীন, নিশ্চয়ই সফর অনেক লম্বা আর আল্লাহ তায়ালা অনেক বিষয় অবশিষ্ট রেখেছেন যার মধ্যে তুমি তোমার শত্রুকে বন্ধু থেকে চিনতে পারবে। যখন তিনি দ-ায়মান হলেন আমি হাসান ইবনে আলী রা. কে বললাম আমিা তোমাকে দেখছি যে, তুমি আমার থেকে বেপরওয়া হয়ে গেছো অথচ আমি তার সাথে উপস্থিত হতে অনুরাগী। তখন তিনি বললেন ইনি তোমাকে উহাই বলেন যা তুমি বলছ। আর জামাল যুদ্ধের দিন যখন কিছু মানুষের নিকট গেল, তখন তিনি আমাকে বলেন, হে হাসান তোমার আম্মা ধ্বংশ হোক। অথবা তোমার মাতা তোমাকে হারাক। আল্লাহর কসম এর পর আর কোন কল্যাণ দেখিনি।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ২০৭ ]
___________________________________
নঈম বিন হাম্মাদ
আমাদের বলুন ইবনে মাহদি আবু আওয়ানা ইব্রাহিম বিন মোহাম্মদ 
বিন তাঁর পিতা Obeid বিন Ndalh সুলেইমান বিন Sard ছড়িয়ে বললেন , 
আমি শীর্ষ শেষ হলে এসে 
উট আমাকে দেখেই তিনি বললেন , হে পুত্র এর Sard Tnonot এবং পরিবর্তন করে Trbest কীভাবে আপনি ঈশ্বরের উপার্জন দেখতে 
আমি বললাম , 
হে কমান্ডার এর বিশ্বস্ত যে অর্ধেক potbellied ছিল কিছু কি শত্রু জানি ঈশ্বর রাখা 
আপনার বন্ধুর যখন তিনি 
হাসান বিন আলী বললেন 
কি আমি Agnete কিছুই দেখতে থেকে আমাকে । আমি এরূপ সাক্ষ্য দেব সতর্কতা অবলম্বন ছিল 
তার সাথে , 
তিনি বলেন এই বলে কি এটা বলে আমাকে বলা হয়েছে দিন বাক্য যখন মানুষ প্রতিটি পদচারণা 
কিছু 
ভাল উহু কিছু যে আপনার মা বা Hbeltk topples আপনার মা এবং ঈশ্বর যা আমি এই পরে দেখতে ভাল হয়
হাদিস - ২০৮
হযরত মুহাম্মাদ ইবনে আলী রা. থেকে বর্ণিত তিনি বলেন, হযরত আলী রা. বলেন যদি উসমান রা. আমাকে সিরার নামক স্থানে ভ্রমন করান তাহলে তার কথা শুনব ও অনুসরণ করব।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ২০৮ ]
___________________________________
নঈম বিন হাম্মাদ
ইবনে মাহদী আমাদেরকে আবু আলী কর্তৃক মোহাম্মদ বিন আলী কর্তৃক কর্তৃত্বের ভিত্তিতে তার পিতার কর্তৃত্ব সম্পর্কে সুফিয়ান সম্পর্কে বলেছিলেন: 
"আলী, 
আল্লাহ তাঁর প্রতি খুশী হন তিনি বললেন :
হাদিস - ২০৯
হযরত আয়েশা রা. থেকে বর্ণিত তিনি বলেন, আল্লাহর শপথ আমার আশা কখনই আমি উসমান রা. সম্পর্কে কোন বাক্য উল্লেখ করিনি। আর আমি দুনিয়ায় জীবন যাপন কুষ্টরোগী ও কুশ্রী অবস্থায় করেছি। উসমান রা. এক আঙ্গুল যা দ্বারা তিনি আসমানে দিকে ইঙ্গিত করেন তা আলি রা. এর পূর্ণ যমীন থেকে উত্তম।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ২০৯ ]
___________________________________
নঈম বিন হাম্মাদ
আমাদের আবদুল কুদ্দুস বলুন 
সাফওয়ান ইবনে আমর আব্দ আল থেকে - তার বাবার কাছ থেকে রহমান ইবনে জাবির 
আয়েশা থেকে , আল্লাহ হতে পারে হতে সন্তুষ্ট সঙ্গে তার 
ঈশ্বরের ভাল হবে , আমি ওসমান কখনও উল্লেখ না একটি শব্দ , এবং আমি বাস করতেন এই বিশ্ব কুষ্ঠ dissecans এবং আঙুল ওসমান , 
যা বোঝায় আকাশ আলী থেকে talaa জমি চেয়ে ভাল
হাদিস - ২১০
হযরত আউফ ইবনে মালেক আশযায়ী রা. থেকে বর্ণিত তিনি বলেন, রসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম স্বর্ণের সিকলের একটি টুকরা যা মালে গনীমতের অবশিষ্ট অংশ ছিল নিজের লাঠির অগ্রভাগ দ্বারা উত্তোলন করলেন অতপর তা পড়ে গেল পুনরায় আবার উত্তোলন করে বললেন, যখন তা এর চেয়ে অধিক হবে তোমাদের অবস্থা তখন কি হবে? তখন কেউ কোন উত্তর দিল না। তখন রসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম এর জনৈক সাহাবা বলেন। আল্লাহর শপথ আমরা আশা করি যদি আল্লাহ তায়ালা এর চেয়ে অধিক পরিমান দেন তাহলে কিছু লোক ধৈর্য্য ধারন করবে তারা ধৈর্য্য ধারণ করবে এবং কিছু লোক ফিৎনায় নিপতিত হবে। তখন রসূলুল্লাহা সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বলেন, হয়তবা তুমি তাতে নিকৃষ্টতম ফিৎনায় পতিত হবে।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ২১০ ]
___________________________________
নঈম বিন হাম্মাদ
আমাদের কাছ থেকে আবদুল কুদ্দুস বলুন 
সাফওয়ান ইবনে আমর আব্দ আল - তার বাবার কাছ থেকে রহমান ইবনে জাবের ইবনে Bugle 
আওফ ইবনে মালেক Ashja'i থেকে 
আল্লাহ পারে হতে সন্তুষ্ট সঙ্গে তাকে করতে বাড়াতে রসূল এর আল্লাহ , সা একটি টুকরা একটি সোনার সিরিজ , বাকি রয়ে 
বিভক্ত আলোছায়া ডগা এর তার লাঠি এবং পতনের এবং তারপর আনা তিনি বলেছেন , এবং কিভাবে আপনি যেদিন তুমি ঘন ঘন এই কোন থেকে 
এক বললেন , 
বলেন একটি থেকে মানুষ সঙ্গী এর রসূল এর আল্লাহ , শান্তি তাকে এবং ঈশ্বরের Oddna উপর হলে আরো 
ঈশ্বরের জন্য আমাদের থেকে তাকে এবং ধৈর্য্যের ধৈর্য এবং সংবেশিত সংবেশিত 
রসূল এর আল্লাহ , চিউইং গাম জন্য সা 
যা মন্দ চক্রান্ত হয়
হাদিস - ২১১
হযরত উহবান গিফারীর মেয়ে থেকে বর্ণিত যে আলী রা. উহবানের নিকট এসে বললেন কিসে তোমাকে আমার অনুসরণ করতে বাধা দিচ্ছে। প্রতিউত্তরে তিনি বলেন আমাকে আমার বন্ধু এবং আপনার চাচাত ভাই উপদেশ দিয়েছেন, যে ভবিষ্যতে বিভিন্ন দলে ভিভক্ত হয়ে পড়বে এবং ফিৎনা এবং মতবিরোধ দেখা দিবে। যখন এমনটি ঘটবে তখন তুমি নিজের তরবারী ভেঙ্গে ফেল, নিজের ঘরে বসে থাক, এবং কাঠ দ্বারা তরবারী তৈরী কর।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ২১১ ]
___________________________________
নঈম বিন হাম্মাদ
আমাদের বলুন আব্দুল সামাদ ইবনে আবদুল Waris, হাম্মাদ ইবনে সালামা 
আমাদের বলেছেন আবু আমর Alksmla সম্পর্কে বলেন মেয়ে Ohban Ghafari 
যে আলী আল্লাহ পারে হতে সন্তুষ্ট সঙ্গে তাকে এসেছিলেন 
Ohban বলেন , তুমি কি বাধা দেয় আমাদের অনুসরণ করতে 
বললেন , আমাকে আদেশ করা আমার ছেলেবন্ধুর এবং পুত্র এর আপনার চাচা পারে আল্লাহ তাকে আশীর্বাদ এবং 
যে হতে হবে বিভাগ এবং শত্রুতা , এবং একটি পার্থক্য । যদি এটি Vaksr তলোয়ার আর তোমার ঘরে বসো আর 
কাঠের তলোয়ার নিয়ে এস
হাদিস - ২১২
আবু জানাব থেকে বর্ণিত তিনি বলেন, আমি ত্বলহা রা. এর নিকট উপস্থিত হলে তিনি বলেন, আমি অনেক মাথার খুলির নিকট উপস্থিত, তবে আমি কোন তীর দ্বারা আঘাত করিনি এবং কোন তরবারী দ্বারাও না। আর আমার ধারণা, এদুটি এখান থেকে কর্তন করা হয়েছে, অর্থাৎ তার হাতল। আর আমি সেখানে উপস্থিত ছিলাম না।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ২১২ ]
___________________________________
নঈম বিন হাম্মাদ
আমাদের বলুন পুত্র এর আবু Uyaynah জানাব বলেন 
করাত তালহা , তিনি দেখেছিলেন বলে 
খুলি , কি ছিল ছুরিকাঘাত একটি সঙ্গে বর্শা এবং আঘাত তরবারি ও হতে ভাল যে তারা তার হাত থেকে বিচ্ছিন্ন এবং এখানে বলিনি হয় 
আমি সাক্ষী
হাদিস - ২১৩
হযরত কাইস ইবনে আব্বাদ রাযি থেকে বর্ণিত, তিনি বলেন আমরা আম্মার রাযিঃ কে বললাম, তোমাদের এই যুদ্ধ সম্বন্ধে আপনার অভিমত কি? এ সম্পর্কে কি আপনার কোনো সিদ্ধান্ত রয়েছে| কেননা, সিদ্ধান্ত বা রায় এর ক্ষেত্রে সঠিক বা ভূল উভয়টি রয়েছে অথবা এসব ব্যাপারে রাসূলুল্লাহ সাঃ এর পক্ষ থেকে কোনো দিক নির্দেশনা রয়েছে, যা আপনাদেরকে দেয়া হয়েছে। জবাবে তিনি বললেন, এসম্বন্ধে রাসূলুল্লাহ সাঃ এর পক্ষ থেকে কোনো দিক নির্দেশনা দেননি।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ২১৩ ]
___________________________________
নঈম বিন হাম্মাদ
আমাদের বলুন পুত্র এর এর সুখী আবু Nasra কায়েস বিন থেকে কাতাদা জন্য বিভাগ 
আব্বাদ বলেন 
আমরা বলেছিলাম আম্মার আপনি আপনার যুদ্ধ এই Arai থেকে দেখতে কি আছে মতামত flubs প্রভাবিত বা দেখা 
চুক্তি রাজত্বের করতে আপনি রসূল এর আল্লাহ , সা , 
বলেন যে যুগ এর আমাদের রসূল এর আল্লাহ শান্তি বর্ষিত হোক 
, আল্লাহ সে ব্যাক্তিকে কিছু সা যে ছিল না হয়েছে থেকে মানুষ সব 
কি হয় ভোজবাজি সুপারিশ এর টাকা এবং ছেলে 
মধ্যে শত্রুতা যে দিন ও মুস্তাহাব অর্থ এবং অন্যান্য