এসো হাদিস পড়ি ?
এসো হাদিস পড়ি ?
হাদিস অনলাইন ?

হাদিস - ১৮৩৮
হযরত ইয়াযীদ ইবনে শুরাইহ ও আমর ইবনে সালমান রাযিয়াল্লাহু আনহু এরা সকলেই বলেন যে, পশ্চিম দিক হতে একদিন সূর্য্য বিলম্বে উদিত হবে। আর সেদিন মানুষের অন্তরে যা থাকবে তার উপর তাকে মহর এটেঁ দেয়া হবে। আর সেদিন আমল, হিফয তথা সংরক্ষণতা উঠিয়ে নেয়া হবে। আর ফেরেশতাদের আদেশ দেয়া হবে যে, তারা যেন মানুষের কোন আমল না লিখে। আর সেদিন কিয়ামাতের সংগঠিত হওয়ার ভয়ে সূর্য্য ও চন্দ্র ভয়ে শংকিত হবে।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৮৩৮ ]
___________________________________
নাঈম বিন হাম্মাদ - 1838
আমাদের হাকাম ইবনে Nafie বলুন , জন্য জন্য Oirtah ক্ষত 
একবার অনেক পুত্র ও Shurayh আমর ইবনে সুলাইমান বিন উপর 
বললেন মরোক্কো থেকে গত সূর্যোদয় 
এবং একদিন না একদিন তাদের অজুহাত হবে করা ছাপা লিফট memorizers কাজ সহ অন্তরে , এবং তাঁর ভৃত্যদের আদেশ ফেরেশতাগণ 
যে লিখুন না একটি চাকরি ভীতি সূর্য ও চাঁদ জন্য কেয়ামত ভয়ে
হাদিস - ১৮৩৯
হযরত যায়েদ ইবনে আবু ইতাব হতে বর্ণিত যে, তিনি হযরত আবু হুরাইরা রাযিয়াল্লাহু আনহু কে বলতে শুনেছেন যে, রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বলেন কিয়ামাততের পাঁচটি নিদর্শন রয়েছে। উক্ত নিদর্শনগুলো হতে প্রথম নিদর্শন কখন ঘটবে তা আমার জানা নাই। আর যখন উহার আলামত সমূহ আসবে তখন এমন ব্যক্তির ঈমান তাকে কোন উপকার দিবে না, যে ব্যক্তি উহার আগমনের পূর্বে ঈমান আনায়ন করে নাই। অথবা সে তার ঈমানের ভিতর পূণ্যতা উপার্জন করে নাই। পশ্চিম দিক হতে সূর্য্য উদয়, দাজ্জাল, ইয়াজুয মাজুয, ধোঁয়া, চতুস্পদ জন্তু।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৮৩৯ ]
___________________________________
নাঈম বিন হাম্মাদ - 1839
আমাদের সুইডেন বলুন 
জায়িদ ইবনে আবী উপদেশ থেকে ইসহাক ইবনে আবী মাথার খুলি থেকে বিন আব্দুল আজিজ 
শুনলাম আবু Hurayrah , আল্লাহ হতে পারে হতে সন্তুষ্ট সঙ্গে 
তাকে বলে রসূল এর আল্লাহ , শান্তি তাঁর পাঁচটি ওয়া সাল্লাম আমি তাদের রাষ্ট্র জানি না এর প্রথম আয়াত এবং তাদের রাষ্ট্র 
শ্বাস উপকৃত না এসে তাদের বিশ্বাস করার আগে বিশ্বাস বা তার বিশ্বাসে অর্জিত হয়নি ভাল সূর্য রি 
থেকে পশ্চিম ও খ্রীষ্টশত্রু এবং ইয়াজুজ ও মাজুজ, ধোঁয়া ও পশু
হাদিস - ১৮৪০
হযরত ওহাব ইবনে মানবাহ রা, হতে বর্ণিত যে, তিনি বলেন সূর্য্যদয়টা হল কিয়ামাতের দশম আলামত। আর এটাই কিয়ামাতের শেষ আলামত। অতপর প্রত্যেক গর্ভধারীনি তার গর্ভ সম্পর্কে ভুলে যাবে। প্রত্যেক ধনবান ব্যক্তি তার মাল সম্পদ প্রত্যাখ্যান করবে। আর প্রত্যেক ব্যবসায়ী তার ব্যবসা হতে অন্যমনস্ক হয়ে যাবে।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৮৪০ ]
___________________________________
নঈম বিন হাম্মাদ - 1840
আমাদের আবু marauding সম্পর্কে আমাদের বলুন 
তার সম্পর্কে পুত্র শেখ আইয়াশ 
জন্য রি দান বিন বিপদাশঙ্কা সূর্য দশম আয়াতে একজন বলল 
আয়াত এবং তারপর সব নার্সিং কি breastfeeds ও তাঁর সব টাকা দিয়ে টাকা উত্থাপন ও তার ব্যবসার জন্য প্রতি ব্যবসায়ীর রান stuns
হাদিস - ১৮৪১
হযরত মাসরুক আল্লাহ তা’আলার বাণী ”যেদিন তোমার প্রতিপালকের কোন নিদর্শন আসিবে সেদিন তাহার ঈমান কাজে আসিবে না, যে ব্যক্তি পূর্বে ঈমান আনে নাই কিংবা যে ব্যক্তি ঈমানের মাধ্যমে কল্যাণ উপার্জন করে নাই। সূরা আনআ’ম। আয়াত- ১৫৮ (এর তাফসীর) সম্পর্কে হযরত আব্দুল্লাহ রাযিয়াল্লাহু আনহু হতে বর্ণনা করেন যে, (উক্ত আয়াত হল, পশ্চিম দিক হতে সূর্য্যদয় হওয়া।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৮৪১ ]
___________________________________
নাঈম বিন হাম্মাদ - 1841
চোরাই মাল মুসলিম ইবনে সাবিহ থেকে আমাদের আবু সিদ Aloamc বলুন 
আব্দুল্লাহ থেকে 
কিছু বলার অপেক্ষা রাখে না যে এর আয়াত আপনার এর পালনকর্তা শ্বাস উপকৃত না আসে তাদের বিশ্বাস দ্বারা বিশ্বাস করা হয় নি [বা অর্জিত 
সরল বিশ্বাসে মধ্যে [বললেন সূর্য থেকে রি পশ্চিমে
হাদিস - ১৮৪২
হযরত আব্দুল্লাহ রাযিয়াল্লাহু আনহু রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম হতে বর্ণনা করেন যে, রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বলেন ঈসা আলাইহিস সালাম ও তার সাথীদের কর্তৃক ইয়াজুয মা’জুয এর বিরুদ্ধের দোয়া কবুল করা হবে। অতপর তারা জীবিত থাকবে এমনকি পশ্চিম দিক হতে সূর্য্যদয়ের রাত্রে তারা সাড়া দিবে। অতপর তারা দাব্বাতুল আরদের অবির্ভাবের পর চল্লিশ বছর পর্যন্ত তারা সুখ শান্তি ও নিরাপদে জীবন ধারন করবে।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৮৪২ ]
___________________________________
নাঈম বিন হাম্মাদ - 184২
আমাদের আবু ওমর ইবনে বলুন 
হারেস থেকে তার বাবার কাছ থেকে Hiệp আব্দ ওয়াহাব বিন হুসাইন মুহাম্মদ ইবনে সাবেত 
থেকে আব্দুল্লাহ 
সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম , সাঃ যীশু সাড়া সাইদ ও ইয়াজুজ ও মাজুজ তার সঙ্গী এবং তারপর বাস থেকে 
Aajabua রাত সূর্য থেকে রি পশ্চিমে এবং এমনকি পরে ভোগ প্রস্থানের এর পশু জমি চার্লস 
গ্রেস এবং নিরাপত্তা
হাদিস - ১৮৪৩
হযরত আব্দুল্লাহ রাযিয়াল্লাহু আনহু রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম হতে বর্ণনা করেন যে, রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বলেন তোমাদের অল্প সংখ্যাক লোক ইয়াজুয মাজুযের পর জীবিত থাকবে। এমনকি সূর্য্য পশ্চিম দিক হতে উদিত হবে। অতপর যখন আল্লাহ তা’আলা উহার আলোকে আমাদের উপর ফিরিয়ে নিবেন এভাবে যে, সূর্য্য পূর্ব বা পশ্চিম দিক হতে উঠবে না। তখন তিনি বলবেন আমার তিরান্দাজে কার ঐ ব্যক্তি কে যার কোন অংশীদারিত্ব নেই? তিনি বলেন অতপর তারা আকাশ হতে একজন আহবানকারীর আহবান শুনবে। তাতে বলা হবে, হে ঐসমস্ত লোক যারা ঈমান আনায়ন করেছ, তোমাদের ঈমান গ্রহণ করা হয়েছে। আর তোমাদের থেকে আমল উঠিয়ে নেওয়া হয়েছে। আর ঐসমস্ত লোক যারা কুফুরী করেছ, তোমাদের থেকে তাওবার দরজা বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। কলম জমে গেছে অর্থাৎ আমলনামা বন্ধ হয়ে গেছে। কিতাব মুছে গেছে। সুতরাং কোন একজনের থেকে তাওবা গ্রহণ করা হবে না। আর কোন ব্যক্তির ঈমানও গ্রহণ করা হবে না। তবে যারা উক্ত সময়ের পূর্বে ঈমান আনায়ন করেছে। ফলে উক্ত সময়ের পরে কোন মুমিন মুমিন ব্যতীত জন্ম গ্রহণ করবে না। কোন কাফের কাফের ব্যতীত জন্ম গ্রহণ করবে না। আর শয়তান সিজদায় পড়ে যাবে। আর সে ডেকে ডেকে বলবে, হে আমার প্রতিপালক! আমাকে আপনি যে জীব বস্তুকে এবং জড় বস্তুকে চান তাকে সিজদা করার জন্য আদেশ করুন। আর অন্যান্য শয়তান তার নিকট জমায়েত হবে। আর তারা বলবে, হে আমাদের নেতা! আমরা কাকে ভয় করবো? তখন সে বলবে, আমি আমার প্রতিপালকের নিকট কিয়ামাতের দিবস এবং নির্দিষ্ট সময়ের দিন পর্যন্ত সুযোগ চেয়েছিলাম। আর এই সূর্য্য পশ্চিম দিক হতে উদয় হয়েছে। আর এটাই হল নির্দিষ্ট সময়। সুতরাং আজকের পর আর কোন আমল নেই। আর সেদিন থেকে শয়তান প্রকাশ্য হয়ে পড়বে। এমনকি লোকজন বলবে, এইতো আমার সেই বন্ধু যে আমাকে ধোঁকা দিয়েছিল। সমস্ত প্রশংসা ঐ আল্লাহ তা’আলার জন্য যিনি তাকে অপদস্থ করেছেন। আর আমাকে তার থেকে দয়া করেছেন। আর মানুষ জ্বীন, শয়তানদের তাদের খাওয়া দাওয়া, পানাহার, তাদের জীবন, তাদের মৃত্য, প্রকাশ্য ভাবে দেখবে। দাব্বাতুল আরদ বাহির হওয়া পর্যন্ত শয়তান সিজদায় পড়ে কাদতে থাকবে। অতপর দাব্বাতুল আরদ শয়তানকে হত্যা করবে।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৮৪৩ ]
___________________________________
নাঈম বিন হাম্মাদ - 1843
আমাদের আবু ওমর ইবনে Hiệp আব্দ ওয়াহাব বিন হুসাইন মুহাম্মদ বিন বলুন 
হারেস থেকে তার বাবার কাছ থেকে ধ্রুবক 
থেকে আব্দুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম , শান্তি হতে তার উপর বললেন না Talpthon 
পর ইয়াজুজ ও মাজুজ শুধুমাত্র সামান্য পর্যন্ত সূর্য থেকে রি পশ্চিমে , তিনি বলেছেন , এর সৃজনশীলভাবে তাকে উদাসীন না 
যদি প্রতিক্রিয়া ঈশ্বর পরিপ্রেক্ষিতে আমাদের escorts এর কি তালাত Mushargaha বা Morha 
বলেন Visamaon আবেদন 
স্বর্গ থেকে , 
হে মুমিনগণ ! আপনি আগে তোমাদের ঈমান আছে এবং আপনি হে কাজ বাড়াতে 
যারা কাফের আপনি বন্ধ করে থাকেন দরজা এর তাওবার এবং শুকনো আপ কলম এবং গুটান সংবাদপত্র এক গ্রহণ করা হয় না এর 
জন্য অনুশোচনা ও বিশ্বাস শুধুমাত্র নিরাপদ যে তারপর জেনারেট না শুধুমাত্র বীমাকৃত একটি বিশ্বাসী এবং অবিশ্বাসী 
শুধুমাত্র একটি অবিশ্বাসী এবং শয়তান ইয়েন সিজদা অধ: পতিত হত্তয়া আমার 
ঈশ্বর Mrni যারা উপাসনা যদি আপনি চান এবং আপনি কি চান এবং পূরণের 
তাকে ভূত 
বলে কাছে তাকে , হে যারা ভয় পাই আমাদের পালনকর্তা 
তিনি বলেছেন , কিন্তু আমি আমার পালনকর্তা জিজ্ঞাসা
থেকে Anzerna দিন এর পুনরুত্থান দিন সময় হয় পরিচিত এবং সূর্য থেকে তালাত হয়েছে পশ্চিমে , একটি 
সময় আজকের পর কাজ না এবং দৃশ্যমান ভূত হয়ে পরিচিত স্থল তাই 
বলে 
মানুষ এই corniculate যারা Aguiney ছিল, ঈশ্বরকে ধন্যবাদ , যারা Okhozah এবং আমাকে তা থেকে রিফ্রেশ এবং মানুষের চেহারা 
থেকে গ্রাসকারী ও পান এবং Mahaahm জিনদের এবং demons এবং তারা মারা না যায শয়তান এখনও পর্যন্ত prostrating হয় যতক্ষণ 
না পৃথিবীর পশু বেরিয়ে আসে এবং তাকে হত্যা করে
হাদিস - ১৮৪৪
হযরত ইবনে আব্বাস রাযিয়াল্লাহু আনহুমা রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম হতে বর্ণনা করেন যে, তিনি বলেন যখন পশ্চিম দিক হতে সূর্যদয় হবে তখন মাতৃগণ তাদের সন্তান সম্পর্কে, প্রিয়জন তাদের ভালবাসার ফল সম্পর্কে ভুলে যাবে। আর প্রত্যেক ব্যক্তি তার নিকট যা আসবে তা নিয়ে ব্যস্ত হয়ে যাবে। আর উহার পর কারো তওবা কবুল করা হবে না। তবে যে তার ঈমানের মধ্যে সৎকর্মকারী থাকবে। কেননা উহার পর তার আমলনামা (ছওয়াব) লেখা হবে যেমননাকি উহার পুর্বে লেখা হত। আর কাফেরদের উপর পরিতাপ ও দুঃখ দুর্দশা হবে। পশ্চিম দিক হতে সূর্য উদয় হওয়া থেকে যদি কোন ব্যক্তি ঘোড়া পায় তাহলে সে ঘোড়ায় উঠতে পারবে না। তার পূর্বেই কিয়ামাত সংগঠিত হয়ে যাবে। আর কিয়ামাত সংগঠিত হবে এমতবস্থায় যে, মানুষ বাজারে বাজার করতে থাকবে। বাজারে দুইজন ব্যক্তি কাপড় (ক্রয় বিক্রয়ের জন্য) ছড়াবে কিন্তু তারা তাদের ক্রয় বিক্রয় সম্পন্ন করতে পারবে না, আবার ভাজও করতে পারবে না। একজন মানুষ খানা খাওয়ার জন্য মুখে খানা তুলবে কিন্তু সে তা খেতে পারবে না। অতপর তিনি তেলাওয়াত করলেন, ”আর তাদের নিকট তা হঠাৎ করে আসবে। আর তারা তা বুঝতে পারবে না।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৮৪৪ ]
___________________________________
নাঈম বিন হাম্মাদ - 1844
থেকে আমাদের নোয়া ইবনে আবী মারইয়াম বলুন জঙ্গী থেকে বেন Hayan 
Ikrima 
ইবনে আব্বাস থেকে , আল্লাহ সন্তুষ্ট হতে পারে সঙ্গে নবী , শান্তি হতে তার উপর তিনি বলেন যদি তালাত 
থেকে সূর্য পশ্চিমে সম্পর্কে মায়েদের stuns তাদের এবং প্রায় শিশু প্রিয়জনদের ফল এর ওদের অন্তরকে সত্য V_igl সব একই 
Ataha যেমন হয় এক তারপর গ্রহণযোগ্য নয় এর তাওবার শুধুমাত্র ছিল তার ঈমান উন্নত তিনি লিখেছেন করতে পরে তাকে 
যে তিনি তাদের লিখছিলাম আগে ও কাফের হইবে উপর তাদের দুঃখ ও দু: খ প্রকাশ করে মানুষ উত্পাদিত একটি 
ঘোড়া থেকে যতক্ষণ না অশ্বারোহণে করা হয়নি সময় উপস্থিতি এর সূর্য থেকে রি পশ্চিমে যতক্ষণ না আপনি সময় 
এবং Tqomn সময় এবং তাদের বাজারে মানুষ প্রকাশ করতে পারেন দুই পুরুষ না ইস্ত্রি Itbayaanh না Ataiwianh 
প্রত্যাহার করে নিয়েছে শিখর মানুষের হয় তারপর খাওয়ানো পড়তে এবং হঠাৎ তাদের আনতে, এবং তারা বোধ করবেন না
হাদিস - ১৮৪৫
হযরত আব্দুর রহমান ইবনে মুয়াবিয়া রাযিয়াল্লাহু আনহু হযরত আব্দুল্লাহ ইবনে উমর রাযিয়াল্লাহু আনহু কে বলতে শুনেছেন যে, একদিন সন্ধ্যা বেলায় চন্দ্র ও সূর্য্য আকাশের এক স্থানে একত্রিত হবে। আর তখন দিন বিশ বছর দীর্ঘ হবে।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৮৪৫ ]
___________________________________
নাঈম বিন হাম্মাদ - 1845
আমাদের বলুন পুত্র এর ইবনে Hiệp থেকে দান ইবনে আবু হাবিব আমার চেয়ে বেশি দিয়েছেন বললেন একটি 
আব্দুর রহমান বিন মুয়াবিয়ার সম্পর্কে বই 
শোনা আব্দুল্লাহ ইবনে উমর বলছেন যে সূর্য ও চন্দ্র দেখা আকাশ অবস্থা এর বাসা 
হইবে দিন Sarmada বিশ বছর
হাদিস - ১৮৪৬
হযরত ওহাব ইবনে জাবের রাযিয়াল্লাহু আনহু খাইওয়ানী থেকে বর্ণিত যে, তিনি বলেন আমি একবার আব্দুল্লাহ ইবনে আমর রাযিয়াল্লাহু আনহু এর নিকট ছিলাম। তখন তিনি আমাদের সাথে কথা বলা শুরু করলেন। অতপর বললেন যখন সূর্য্য ডুবে যায় তখন তা সালাম দেয় ও সিজদা করে। এবং পরবর্তী দিন উদিত হওয়ার জন্য অনুমতি প্রার্থনা করে। আর তাকে অনুমতি দেওয়া হয়। এমনকি যখন দিন হয় তা ডুবে যায়। অতপর বলে হে প্রতিপালক! নিশ্চই যাত্রা অনেক দুরের!! আর আমাকে অনুমতি না দেওয়া হত। আমি পৌছতাম না। তিনি বলেন অতপর আল্লাহ তা’আলা যতক্ষণ চান তা আটকে রাখবেন। অতপর সূর্য্যকে বলা হবে, তুমি যেখান থেকে ডুবেছ সেখান থেকে উদিত হও। সুতরাং সেদিন হতে কিয়ামাত পর্যন্ত কোন ব্যক্তির ঈমান তাকে উপকার করতে পারবে না, যে ব্যক্তি নিদর্শনের পূর্বে ঈমান আনায়ন করে নাই।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৮৪৬ ]
___________________________________
নাঈম বিন হাম্মাদ - 1846
আমাদের আব্দুর রাজ্জাক এবং বলুন ছেলে একটি এর মুয়াম্মার থেকে গরু 
আবু ইসহাক ওয়াহাব বিন জাবের আল - Khaiwani বলেন 
আমি ছিল যখন হযরত আবদুল্লাহ ইবনে আমর সে তৈরী করতে আমাদের বলতে , 
তিনি বলেছেন যে যদি সূর্য Ghorbat বিতরণ এবং নীচু করে Viazn তার এমনকি যদি দিন Ghorbat অনুমতি চেয়েছে তাদেরকে অনুমতি 
বলছেন কোন প্রভু এর লংমার্চ , এবং আমি আমি নই অনুমোদিত নই তিনি বলেন, 
Vtanbs তিনি যা ইচ্ছা করতে 
আল্লাহ ও হয় বলেন করার আছে 
পড়ুন সঙ্গে পদ এটা এর Ghorbat যে দিন পর্যন্ত প্রতিদিন এর কেয়ামতের শ্বাস কাজ করে না তাদের 
বিশ্বাস দ্বারা বিশ্বাস করা হয় নি শ্লোক
হাদিস - ১৮৪৭
হযরত উবাইদ ইবনে উমাইর রাযিয়াল্লাহু আনহু হতে বর্ণিত যে, তিনি বলেন একদিন তোমার প্রভুর কিছু আলামত আসবে। তিনি বলেন (আর সেটা হল) পশ্চিম দিক হতে সূর্য্যদয়।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৮৪৭ ]
___________________________________
নাঈম বিন হাম্মাদ - 1847
আমাদের বলুন ছেলে Uyaynah আমর বিন ওবায়েদ বিন 
আমির কিছু আয়াত বলেন এর পালনকর্তা আসে সূর্য রি থেকে পশ্চিমে বলেন
হাদিস - ১৮৪৮
হযরত আব্দুল্লাহ রাযিয়াল্লাহু আনহু হতে বর্ণিত যে, তিনি বলেন পশ্চিম দিক হতে সূর্য্যদয়টা দুটি একত্রিত ছাগলের বাচ্চার ন্যায়।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৮৪৮ ]
___________________________________
নাঈম বিন হাম্মাদ - 1848
আবদুল্লাহর 
কাছ 
থেকে চুরি হয়ে যাওয়া আবু আল দৌহা থেকে অন্ধের উপর মনসুর ও ওয়াকি সম্পর্কে সুফিয়ান সম্পর্কে বলুন 
সূর্য মাগরেব থেকে দুজন কোরিয়ানদের মতই উঠেছে।
হাদিস - ১৮৪৯
হযরত আব্দুল্লাহ ইবনে আমর রাযিয়াল্লাহু আনহু হতে বর্ণিত যে, তিনি বলেন পশ্চিম দিক হতে সূর্য্যদয়ের পর মানুষ একশত বিশ বছর জীবিত থাকবে।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৮৪৯ ]
___________________________________
নঈম বিন হাম্মাদ - 184২
আব্দুল্লাহ বিন আমর থেকে 
খায়থামাকে ইসমাঈল ইবনে আবি খালিদ সম্পর্কে আমাদের একটি কাহিনী বলুন 
যে মানুষ মরক্কো থেকে সূর্য উদয়ের পর বিশ 
এবং একশ বছর
হাদিস - ১৮৫০
হযরত সাফওয়ান ইবনে আসসাল মুরাদী রাযিয়াল্লাহু আনহু হতে বর্ণিত যে, তিনি বলেন রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম আমাদের নিকট বর্ণনা করেছেন যে, পশ্চিমে তওবার জন্য একটি দরজা আছে। যার মাঝে প্রসস্ততা হল চলার সত্তর অথবা চল্লিশ বছর। তা কখনো বন্ধ হবে না। এমনকি তার দিক থেকে সূর্য্যদয় হবে। অতপর তিনি এ আয়াত তিলাওয়াত করেন ” যেদিন তোমার প্রভূর কতিপয় আলামত আসবে, সেদিন যারা পূর্বে ঈমান আনায়ন করে নাই তাদের ঈমান কোন উপকারে আসবে না। অথবা সে তার ঈমানের মধ্যে মঙ্গল কিছু অর্জন করেছে। ”
অধ্যায়
অষ্টমাংশের শেষাংশ
বিসমিল্লহির রহমানির রহীম।
দাব্বাহ বের হওয়া প্রসঙ্গে
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৮৫০ ]
___________________________________
নাঈম বিন হাম্মাদ - 1850
আমাদের বলুন ছেলে Uyaynah আসিম শোনা একটি বোতাম 
সাফওয়ান ইবনে আছছালা Moradi 
বলেন করার আমাদের রসূল এর আল্লাহ , সা যে 
মরক্কো , তাওবার পোপ বর্তমানে মিছিল 
সত্তর বা চল্লিশ বছর সূর্য পর্যন্ত এটি বন্ধ না আগে তাকে তাহলে এই শ্লোক পড়া , প্রতিদিন 
আসে কিছু আয়াত আপনার এর পালনকর্তা শ্বাস কাজ করে না তার বিশ্বাস আগে বিশ্বাস ছিল না বা তার বিশ্বাস 
ভাল অর্জন না