এসো হাদিস পড়ি ?
এসো হাদিস পড়ি ?
হাদিস অনলাইন ?

পৃথিবীর সবচেয়ে সুন্দর স্থান (পর্ব-১)

আপনার মনকে  পৃথিবীর সবচেয়ে সুন্দর স্থানে নিয়ে চলুন। চমৎকার স্থাপত্য কৃতিত্ব, একটি গ্রীষ্মমন্ডলীয় স্বর্গ এবং একটি ছোট স্ক্যান্ডিনেভিয়ার শহরে ভ্রমণ করুন।

আপনার মনকে  পৃথিবীর সবচেয়ে সুন্দর স্থানে নিয়ে চলুন। চমৎকার স্থাপত্য কৃতিত্ব, একটি গ্রীষ্মমন্ডলীয় স্বর্গ এবং একটি ছোট স্ক্যান্ডিনেভিয়ার শহরে ভ্রমণ করুন। আমরা আপনাদের জন্য ২১টি সেরা সুন্দর স্থানের তালিকা সংগ্রহ করেছি। এই তালিকার যেকোন একটিতে ভ্রমণে যেতে পারলে নিজেকে সৌভাগ্যবান মনে হবে।

প্রথম পর্বে পৃথিবীর সবচেয়ে সুন্দর গ্রীষ্মমন্ডলীয় স্থানের নাম শেয়ার করছি।

১. লংশেং এর ধান ক্ষেত, চীন

(Credit: Wikipedia)

লংশেং নামটি লংজির নামকরণে হয়েছে, যা অনুবাদ করলে দাঁড়ায় ড্রাগনের মেরুদণ্ড। পাহাড়ের ছাঁদ এবং বয়ে চলা ধান ক্ষেতগুলো ড্রাগনের মেরুদন্ডের অনুরূপ।

২. বোরা বোরা, ফ্রেঞ্চ পলিনেশিয়া

(Credit: St. Regis Bora Bora)

বোরা বোরা একটি দ্বীপ যা পূর্বে একটি আগ্নেয়গিরি ছিলো, যেটি পরবর্তীতে শান্ত হয় এবং একটি প্রবাল প্রাচীরে পরিণত হয়। এই প্রবাল বাস্তুসংস্থান স্বচ্ছ পরিষ্কার নীল পানি সৃষ্টি করে এবং প্রবাহিত স্রোতের ঢেউ একটি সুরক্ষিত আশ্রয়স্থান প্রদান করে।

৩. কাওয়াই, হাওয়াই 

(Credit: Trip Advisor)

হাওয়াই এর কাওয়াই পৃথিবীর মধ্যে সবচেয়ে বেশী বৃষ্টিবর্ষণের জন্য বিখ্যাত, যা একটি গ্রীষ্মমন্ডলীয় স্বর্গরাজ্য সৃষ্টি করে। পর্বত আরোহণ, সাইকেল চালনা, সাঁতার এবং জলে ঝাঁপ দেওয়া সব কিছু করতে পারবেন এখানে।

৪. ভিক্টোরিয়া জলপ্রপাত, জাম্বিয়া/জিম্বাবুয়ে

(Credit: springbokatlas.com)

ভিক্টোরিয়া জলপ্রপাত জাম্বিয়া এবং জিম্বাবুয়ের সীমান্তে অবস্থিত। এটি পৃথিবীর সর্ববৃহৎ জলপ্রপাত। এই জলপ্রপাত একটি ৩৫০ ফুট খাড়ি থেকে বিস্ময়করভাবে প্রতি সেকেন্ডে ১,০৮৮ ঘনমিটার জল নিচে পড়ে।

৫. অ্যামাজন নদী, ব্রাজিল

(Credit: Dailybackgrounds.com)

অ্যামাজন নদী পৃথিবীর বৃহত্তম রেইনফরেস্ট। এটি সবচেয়ে বেশী পানি প্রবাহিত করা নদী এবং একটি দীর্ঘতম নদী। সম্পূর্ণ রেইনফরেস্টটি পৃথিবীর অবশিষ্ট রেইনফরেস্টের অর্ধেক ।

৬. ঝাঞ্জাই ডানজিয়ার রংধনু পর্বতমালা, চীন​​​​​​​

Credit: Huffington Post

চীনের ঝাঞ্জাই ডানজিয়ার রংধনু পর্বতমালার আবহাওয়া এবং ক্ষয় এটিকে অনেক সুন্দর করে তুলেছে। বেলেপাথরের মধ্যে খনিজ পদার্থের চিহ্নের ফলে পর্বতের মধ্যে এই রঙের সৃষ্টি হয়েছে, বালিগুলোর রং লাল, সবুজ এবং হলুদ।

৭. রেইলে, থাইল্যান্ড

(Credit: magic4walls.com)

রেইলে, থাইল্যান্ডের একটি ছোট উপদ্বীপের উপরএমন এক জাদুকরী জায়গা যেখানে কেবলমাত্র নৌকা দিয়ে যেতে হয়। লাইমস্টোন খাড়িতে পর্বত আরোহণ করে সময় উপভোগ করতে পারেন, বিশাল গুহার অনুসন্ধান বা কাছের দ্বীপে সাঁতার কাটতে পারেন।

পৃথিবীর সবচেয়ে সুন্দর স্থান (পর্ব-২)

আপনার মনকে  পৃথিবীর সবচেয়ে সুন্দর স্থানে নিয়ে চলুন। চমৎকার স্থাপত্য কৃতিত্ব, একটি গ্রীষ্মমন্ডলীয় স্বর্গ এবং একটি ছোট স্ক্যান্ডিনেভিয়ার শহরে ভ্রমণ করুন।

আপনার মনকে  পৃথিবীর সবচেয়ে সুন্দর স্থানে নিয়ে চলুন। চমৎকার স্থাপত্য কৃতিত্ব, একটি গ্রীষ্মমন্ডলীয় স্বর্গ এবং একটি ছোট স্ক্যান্ডিনেভিয়ার শহরে ভ্রমণ করুন। আমরা আপনাদের জন্য ২১টি সেরা সুন্দর স্থানের তালিকা সংগ্রহ করেছি। এই তালিকার যেকোন একটিতে ভ্রমণে যেতে পারলে নিজেকে সৌভাগ্যবান মনে হবে।

দ্বিতীয় পর্বে পৃথিবীর সবচেয়ে সুন্দর ঠাণ্ডা স্থানের তালিকা শেয়ার করছি।

৮. সুমেরুপ্রভা, আইসল্যান্ড

(Credit: Icelandonline.com)

আইসল্যান্ডের পর্যটন আকর্ষণের সেরা স্থানের একটি হলো সুমেরুর আকাশে বিভিন্ন রঙের প্রাকৃতিক প্রদর্শন। দুর্ভাগ্যবশত, এটি অনিশ্চিত, আপনার ভাগ্য ভালো থাকলে একদিনেই এর দেখা পাবেন আর ভাগ্য না থাকলে কয়েকবারের চেষ্টায় দেখতে পাবেন।

৯. নিউশানস্টেইন প্রাসাদ, জার্মানি​​​​​​​

(Credit: unikwallpaper.blogspot.com)

জার্মানির দক্ষিণে অবস্থিত নিউশানস্টেইনউনিশ শতাব্দীর একটি প্রাসাদ ডিজনিল্যান্ডের ঘুমন্ত প্রাসাদের সৌন্দর্যের জন্য অনুপ্রেরণা যুগিয়েছে। আশ্রয় এবং শান্তির একটি প্রতীক হিসেবে গ্রীষ্মকালে এই জার্মান পর্যটন স্থান নিয়মিত ভ্রমণ করা হয়।

১০. অ্যান্টার্টিকা

(Credit: visitworldplaces.com)

সাতটি মহাদেশের মধ্যে অ্যান্টার্টিকা সবচেয়ে ঠাণ্ডা, ঝড়ো এবং শুষ্ক। এই জনশূন্য মহাদেশ বিভিন্ন প্রজাতির লক্ষাধিক পেঙ্গুইনের আবাসস্থল।

১১. ইয়েলোস্টোন ন্যাশনাল পার্কে বাইসন, ওয়াইমিং

ইয়েলোস্টোন ন্যাশনাল পার্ক মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের এবং সম্ভবত পৃথিবীরও সবচেয়ে পুরানো পার্ক। পার্কের মধ্যে ভ্রমণের সময় আপনার কাছ থেকে ১০ ফুট দূরত্বে আপনি বন্যজীবন দেখার সুযোগ পাবেন।

১২. ট্রেসি আর্ম ফিয়র্ড, আলাস্কা

(Credit: Jack Moskovita)

পর্বত উপত্যকার হিমবাহ আস্তে আস্তে ক্ষয় হয়ে নিচে সাগরের দিকে তলিয়ে যাওয়ার ফলে ফিয়র্ডের সৃষ্টি হয়। আলাস্কার ট্রেসি আর্ম ফিয়র্ড অর্কাদের আবাস এবং এখানে আবহাওয়া খুব দ্রুত পরিবর্তিত হয়। 

১৩. টরেস ডেল পাইন প্যাটাগনিয়া, চিলি

(Credit: Wikipedia)

প্যাটাগনিয়ার দক্ষিণে টরেস ডেল পাইন একটি ন্যাশনাল পার্ক অবস্থিত, যা সুন্দর পর্বত, হিমবাহ, লেক এবং নদী নিয়ে সগৌরবে বিরাজ করে। আপনি প্যাটাগনিয়ার দক্ষিণে ভ্রমণ যান এবং সেখানে আপনি চমৎকার গ্রানাইট চূড়ায় কিছু অংশ বা চারপাশের সম্পূর্ণ পরিসীমা আরোহণ করতে পারবেন।

১৪. স্যাভালবার্ড, নরওয়ে

(Credit: nordnorge.com)

স্যাবালবার্ডের অবিশ্বাস্য ঠাণ্ডা দ্বীপটি ইউরোপের মূল ভূখন্ডের উত্তরে, উত্তর মহাসাগরের মধ্যে অবস্থিত। স্যাভালবার্ড পৃথিবীর সর্ব উত্তরের জনপদ, যেখানে স্থায়ীভাবে মানুষ বাস করে। এখানে মেরু ভালুক এবং মেরু শিয়ালের দেখা পাবেন।

পৃথিবীর সবচেয়ে সুন্দর স্থান (শেষ পর্ব)

 দীনা রিছিল 
 সোমবার, নভেম্বর ২৭, ২০১৭ 
 সারাবিশ্ব
আপনার মনকে পৃথিবীর সবচেয়ে সুন্দর স্থানে নিয়ে চলুন। চমৎকার স্থাপত্য কৃতিত্ব,  একটি গ্রীষ্মমন্ডলীয় স্বর্গ এবং একটি ছোট স্ক্যান্ডিনেভিয়ার শহরে ভ্রমণ করুন।

আপনার মনকে পৃথিবীর সবচেয়ে সুন্দর স্থানে নিয়ে চলুন। চমৎকার স্থাপত্য কৃতিত্ব,  একটি গ্রীষ্মমন্ডলীয় স্বর্গ এবং একটি ছোট স্ক্যান্ডিনেভিয়ার শহরে ভ্রমণ করুন। আমরা আপনাদের জন্য ২১টি সেরা সুন্দর স্থানের তালিকা সংগ্রহ করেছি। এই তালিকার যেকোন একটিতে ভ্রমণে যেতে পারলে নিজেকে সৌভাগ্যবান মনে হবে।  

তৃতীয় পর্বে আজ আমরা আপনাদের সাথে পৃথিবীর সবচেয়ে সুন্দর স্থাপত্য স্থানের তালিকা শেয়ার করছি।

১৫.  বাগানের মন্দির, মায়ানমার 

(Credit: Quinn Ryan Mattingly)

মায়ানমারের পূর্বের রাজধানী বাগান বৌদ্ধ শিক্ষার সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ কেন্দ্রগুলির মধ্যে একটি ছিল। উঁচু স্তূপ, ঘণ্টা আকৃতির গম্বুজ এই অঞ্চলে বৌদ্ধ স্থাপত্যের বৈশিষ্ট্য। অধিকাংশ মন্দির গুলো এগার’শ বা বার’শ শতাব্দীর পূর্বে নির্মিত হয়েছিলো।

১৬. পেত্রা, জর্ডান

(Credit: Dave Bouskill)

প্রাচীন শহর পেত্রা, জর্ডানের একটি সেরা স্থাপত্য শিল্প। এটি একটি পাথর পাহাড়ের পাশে তৈরি করা হয়, পেত্রা ৩১২ খ্রিষ্টপূর্বের আগেই নির্মাণ করা হয়েছিলো। পেত্রা ইউনেস্কোর বিশ্ব ঐতিহ্য সম্পদে পরিণত হয়েছে এবং এটি ১৮১২ সাল পর্যন্ত পশ্চিমা বিশ্বের কাছে অপরিচিত ছিল।

১৭. মাচু পিচু, পেরু

(Credit: Mypetyak on Flickr)

এই প্রাচীন পথটি ইনকা সভ্যতা দ্বারা নির্মিত হয়েছিলো যা প্রায় ছয় শতাব্দী পর্যন্ত টিকে ছিলো। বর্তমানে, স্থানীয় ট্যুর গাইডেরা পর্যটকদেরকে এই পথে নেতৃত্ব দেয়। এই প্রাচীন পথটি প্রথমে বনের মধ্যে, পরে পাহাড়ের উঁচু চূড়ায় এবং সবশেষে পর্যটকদের নিয়ে যাবে আসল বিস্ময়ের কাছেঃ ‘স্বর্গের শহর’ ইনকা সাম্রাজ্যের পবিত্র শহর, মাচু পিচু। পালিশ করা পাথর নির্মিত এই শহরের প্রধান স্থাপনাগুলো হচ্ছে ইন্তিউয়াতানা (কেচুয়া: Intiwatana সূর্য স্তুপ), সূর্য মন্দির ও তিন জানালা ঘর ইত্যাদি।

১৮. ভেনিস, ইতালি

(Credit: Findpik.com)

ভেনিস জলের শহর, এটি ১১৮টি ছোট দ্বীপ নিয়ে গঠিত হয় যা খালের মধ্যে একটি বিশাল নেটওয়ার্ক দ্বারা বিভাজিত ছিলো। ভেনিসের মতো কোন কিছুই হয় না; তার খাল, গাড়ীমুক্ত পাথর বাঁধানো জটিল রাস্তা এবং গোপন হাঁটার পথগুলো অসাধারণ। এমনকি এখানে হারিয়ে যাওয়াটাও একটা জাদুর মতো।

১৯. গিজা পিরামিড, মিশর

(Credit: Dale Johnson, 500px)

মিশরের এল গিজায় অবস্থিত গিজা পিরামিড বিশ্বের প্রাচীন সপ্তম আশ্চর্যের মধ্যে একটি। এই পিরামিডটি ২৫৬০ খ্রিষ্টপূর্বে মিশরীয় রাজা ফারাও খুফুর একটি সমাধি হিসেবে নির্মিত হয়েছিলো।

২০. তা ফ্রহম, কম্বোডিয়া

(Credit: sovanady.com)

প্রাচীন মন্দির তা ফ্রহম একটি বৌদ্ধ আশ্রম এবং বিশ্ববিদ্যালয় হিসেবে নির্মিত হয়েছিলো। মন্দিরটি এতো বিশাল যে, এই স্থাপত্যের মধ্য দিয়ে গাছ এবং শেওলা বৃদ্ধি পেয়েছে।

২১. তাজ মহল, ভারত

(Credit: Nedim Chaabene on Flickr)

তাজমহলকে মুঘল স্থাপত্যশৈলীর একটি আকর্ষণীয় নিদর্শন হিসেবে মনে করা হয়, যার নির্মাণ শৈলীতে পারস্য, তুরস্ক, ভারতীয় এবং ইসলামী স্থাপত্যশিল্পের সম্মিলন ঘটানো হয়েছে। যদিও সাদা মার্বেলের গোম্বুজাকৃতি রাজকীয় সমাধীটিই বেশি সমাদৃত, তাজমহল আসলে সামগ্রিকভাবে একটি জটিল অখণ্ড স্থাপত্য। এটি ১৯৮৩ সালে ইউনেস্কো বিশ্ব ঐতিহ্যবাহী স্থান হিসেবে তালিকাভুক্ত করা হয়েছিল। বিশ্বের সপ্তম আশ্চর্যের অন্যতম হলো তাজমহল।