এসো হাদিস পড়ি ?

এসো হাদিস পড়ি ?

হাদিস অনলাইন ?

আব্বাসীয় খেলাফত ধ্বংসের কারণ ও তুর্কীদের আত্মপ্রকাশ প্রসঙ্গে

একটি আরবি শব্দ ডাবল ক্লিক করে তার অভিধান এন্ট্রি দেখায়
হাদিস - ৬০৭
ওলীদ ইবনে মুসলিম বয়ান করতে গিয়ে বলেন, আমাদেরকে কুস্তুনতুনিয়ার দিকে প্রেরিত ওলীদ ইবনে ইয়াযিদের প্রতিনিধির কাছ থেকে যে শুনেছেন সে বর্ণনা করেন, তিনি ওলীদ ইবনে ইয়াযিদকে বলতে শুনেছেন। তোমাদের মধ্যে ভয়াবহ যুদ্ধ চলতে থাকবে এবং সেটা কালো পতাকাবাহীর আগমন পর্যন্ত স্থায়ী হবে। অতঃপর তোমাদের বিরুদ্ধে তুর্কিদের আত্মপ্রকাশ ঘটবে। তোমাদের সাথে তাদের যুদ্ধ হলে তারা প্রতিপক্ষকে হত্যা করবে। এভাবে চলতে চলতে তোমাদের বাহনের চাদর শুকানোর পূর্বে পশ্চিমাদের আগমন ঘটবে।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ৬০৭ ]
___________________________________
নাঈম বিন হাম্মাদ - 607
আমাদের বলুন ওয়ালিদ বিন মুসলিম আমাদের বলেছেন শুনলেন য়ে কনস্টান্টটাইন করার ওয়ালিদ ইবনে ইয়াযীদ রাসূল শোনা ওয়ালিদ ইবনে ইয়াযীদ বলেন এমনকি কালো তোমার কাছে আসছি এবং তারপর আপনি Viqatlonhm তুর্কী Afikthelonhm আসা আউট তারপর শুকিয়ে না হওয়া পর্যন্ত আপনার পশুরা মরক্কো লোকদের প্রতিবন্ধক পতাকা মধ্যে মহাকাব্য
হাদিস - ৬০৮
ওলীদ ইবনে মুসলিম রহঃ বয়ান করেন, তিনি বলেন, আমাকে এমন এক গোত্র বর্ণনা করেছেন, যারা আরমীনিয়া // থেকে আগমন করে শামের উদ্দেশ্যে রওয়ানা দিয়েছে। এক পর্যায়ে তাদের সাথে আবু মুসলিমের স্বাক্ষাৎ হয়। তারা বলেন, আমরা আব্দুল্লাহ ইবনে আলীকে অপছন্দ করে, ফলে আমরা বয়কট করতে চায়। জবাবে তিনি বলেন, তোমরা ঠিকই করেছো। কালো ঝান্ডাবাহীদের বিজয় হতেই থাকবে তাদের অধীনস্থদের উপর। তাদের এই অভিযান তুর্কি সম্প্রদায় আরমেনিয়ার দোরগোড়াই উপস্থিত হওয়া পর্যন্ত থাকবে। ওলীদ ইবনে মুসলিম বলেন, তাদের পরস্পর মত বিরোধ ও এখতেলাফের মাধ্যমে রাজত্বের পতন হওয়ার প্রথম লক্ষণ।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ৬০৮ ]
___________________________________
নাঈম বিন হাম্মাদ - 608
আমাদের বলুন ওয়ালিদ বিন মুসলিম আমাকে বলেছিল যারা থেকে এসেছেন মানুষ এর আবু মুসলিম দ্বারা শাম Vrul আর্মেনিয়া চান তারা বলেছিল , নিশ্চয় আমি আব্দুল্লাহ বেন আলীর বিচ্ছিন্নতা চেয়েছিলেন ঘৃণা , তিনি ন্যায়ত বলেন থাকা সত্বেও প্রবেশ Nawohm প্রদর্শিত কালো পতাকা হল আর্মেনিয় দরজার তুর্কী 
এছাড়া আল ওয়ালিদ বলেন প্রথম সাইন তারা তাদের পার্থক্য বিরুদ্ধে ছিল
হাদিস - ৬০৯
হযরত কা’ব রহঃ থেকে বর্ণিত, তিনি বলেন, যেন আমি এখন তুর্কিদের তূণীরের আওয়াজ শুনছি। সেটা আল আগিল্লা ও বারিক এর মধ্যবর্তী স্থলে ।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ৬০৯ ]
___________________________________
নঈম বিন হাম্মাদ
আমাদের বলুন বাকি এর ইবন আল - ওয়ালিদ বললেন রেফারি আমাদের সাফওয়ান ইবনে আমর ইবনে ওবায়েদ Shurayh বলেন 
থেকে গোড়ালি যদি আমি বললাম আমি শুনেছি Djaab তুর্কী pulsate Aloglh এবং পৃষ্ঠস্থ মধ্যে
হাদিস - ৬১০
বিশিষ্ট সাহাবী হযরত মুআবিয়া ইব্নে আবু সুফিয়ান রাযিঃ থেকে বর্ণিত, তিনি বলেন, নিঃসন্দেহে, যারা পর্বতে শীর্ষে ঘোড়া হাঁকায় তারা অতিসত্ত্বর শাম এবং জমিরায় গিয়ে পৌঁছবে।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ৬১০ ]
___________________________________
নঈম বিন হাম্মাদ - 610
আমাদের আবদুল কুদ্দুস বলুন 
সম্পর্কে আপ্ততা বিন রশিদ এসাম বিন ইয়াহিয়া আব্দুল্লাহ ইবনে আবী কায়েস থেকে হাদরামী ইবনে আইয়াশ 
হাদরামী 
মুয়াবিয়ার ইবনে আবী সুফিয়ান থেকে , তিনি বলেন যে যারা চড়ে Almkhrmat হবে পড়া 
শাম এবং পাহাড় এর দ্বীপ
হাদিস - ৬১১
হযরত আরতাত রহঃ থেকে বর্ণিত, তিনি বলেন, যখন দামেশ্কে কোনো একটি গ্রাম ধসে পড়বে, এবং তার মসজিদের পূর্ব সাইডের একটি অংশ ভেঙ্গেঁ যাবে। তখনই তুর্কি এবং রোমানরা একত্রিত হয়ে যুদ্ধে লিপ্ত হবে এবং শাম দেশে তিনটি পতাকা উত্তোলন করা হবে, অতঃপর সুফিয়ানীর সাথে তাদের যুদ্ধ হবে। এক পর্যায়ে তারা কারকীসিয়্যাহ এসে পৌঁছবে। ইসমত বলেন, আমাকে আবু হুকাইমা বর্ণনা করেছেন, তিনি বলেন, আমার এক বোন আত্মপ্রকাশ করেছে এবং আমি শাম দেশে অবস্থান করছিলাম, অতঃপর বলা হলো, যারা পর্বতের শীর্ষে ঘোড়া হাঁকায়, অতি সত্ত্বর তারা শাম এবং জামিরার টীলার উপর অবস্থান করবে। তাদের মহিলাদেরকে বন্দি করা হবে। এমনকি কোনো পুরুষ তার স্ত্রীর পায়ের নুপুর দেখতে পেলেও তার ব্যাপারে কোনো পদক্ষেপ নিতে পারবেনা।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ৬১১ ]
___________________________________
নাঈম বিন হাম্মাদ - 611
আমাদের সম্পর্কে রায় বলুন ক্ষত 
Oirtah থেকে বললেন যদি গ্রস্ত আপ 
গ্রাম গ্রামে মধ্যে দামেস্ক ও পশ্চিম মসজিদ পরিসীমা যখন তুর্কী পূরণ করে পড়ে গিয়ে যুদ্ধ রোমান 
সব এবং তিনটি ফ্ল্যাগ Baham বাড়াতে এবং তারপর Sufiani মারামারি পর্যন্ত তিনি তাদের কাছে এসেছে Circesium বলেন আপ্ততা 
আমাকে বলেছে আবু জ্ঞানী কন্যা আউট বললেন করার আমার ও আমি বাস শাম যে বলা হয়েছে যারা অশ্বারোহণে 
উপর Almkhrmat দ্বীপ হবে পড়া এবং লেভান্ট পাহাড় 
তাদের মহিলাদের Vespon , 
এমনকি যদি মানুষ দেখতে সাদা 
তার স্ত্রী নূপুর হয় তাদের পরিশোধ করতে পারবে না
হাদিস - ৬১২
হযরত কা’ব রাযিঃ থেকে বর্ণিত, তিনি বলেন, তুর্কিবাহিনী জাযিরায় এসে ছাউনি ফেলবে। এক পর্যায়ে তাদের ঘোড়াকে ফুরাত নদী থেকে পানি পান করাবে, তাদের প্রতি আল্লাহ তাআলা মহামারী প্রেরণ করবে, যার কারণে অনেকে মারা যাবে। উক্ত মহামারী থেকে মাত্র একজন লোক মুক্তি পাবে। ইবনু আইয়াশ রহঃ বলেন, আব্দুল্লাহ ইব্নে দীনার সংবাদ দিয়েছেন, কা’ব রহঃ থেকে বর্ণিত, তিনি বলেন, তারা এসে আ’মাদ নামক এলাকায় অবস্থান করবে এবং দাজলা ও ফুরাত নদী থেকে পানি পান করবে। তারা জাযিরা দখল করতে সর্বশক্তি নিয়োগ করবে। তখন মুসলমানরা উক্ত জাযিরায় অবস্থান করবে। তারা তাদের সাথে কোনো অবস্থাতেই পেরে উঠবেনা। তাদের উপর আল্লাহ তাআলা বরফ বর্ষণ করবেন। বরফের সাথে ছিল, ঠান্ডা বাতাস, আওয়াজ ও তুষারাপাত। যার কারণে তারা ঠান্ডায় নির্বাক হয়ে ফিরে যাওয়ার মনস্থ করবে। তারা সহসা বলে উঠবে, আল্লাহ তাআলা অবশ্যই তাদেরকে শাস্তি দিবেন এবং তাদের সাস্তির জন্য শত্রুই যথেষ্ট হবে। তাদের একজনও জীবিত থাকবেনা, এমনকি সর্বশেষ লোকটিও মারা যাবে।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ৬১২ ]
___________________________________
নাঈম বিন হাম্মাদ - 612
ইবনে আইয়াশ বলেন তিনি আমাকে বিন তামিম থ্রেশহোল্ড বলেন 
এছাড়া আল ওয়ালিদ বিন আমের Alezne থেকে Altnokhi উপর খামির বিন জন্য 
কা'ব বলেন , 
প্রদত্ত তুর্কী 
দ্বীপ পর্যন্ত থেকে Asagoa ঘোড়া ইউফ্রেটিস 
ঈশ্বরের সৃষ্টি , তারা 
প্লেগ 
Afiktlhm না অব্যাহতি 
তাদের , কিন্তু এক ব্যক্তি 'র 
পুত্র আইয়াশ বলেন , এবং আমাকে বলেছিলেন যে আব্দুল্লাহ ইবনে দিনার 
থেকে গোড়ালি বলেন 
Amed নেমে থেকে মদ্যপান সেইসঙ্গে টাইগ্রিস এবং ইউফ্রেটিস নদী চাইতে 
দ্বীপ এবং মানুষ এর দ্বীপে ইসলাম 
তাদের কিছু সামর্থ্য না করতে পারেন ঈশ্বরের সৃষ্টি জন্য তাদের 
তুষার মধ্যে যা ঝাঁঝরি ও বায়ু এবং বরফ । 
যদি তারা Khamdon 
তারা আবার আসবে এবং বলে যে, ঈশ্বর decimated হয়েছে এবং যথেষ্ট এর শত্রু বাকি ছিল এর সমস্ত লোককে এক বরবাদ হয়ে 
গত এর তাদের
হাদিস - ৬১৩
হযরত মাকহৃল রহঃ থেকে বর্ণিত, তিনি রাসূলুল্লাহ সাঃ থেকে বর্ণনা করেন, তিনি এরশাদ করেন, তুর্কিরা মোট দুইবার আত্মপ্রকাশ করবে, একবার বিশাল বাহিনী সহকারে আসবে, দ্বিতীয়বার ফুরাত নদীর তীরে তাদের ঘোড়াকে বেধেঁ রাখবে। এরপর তুর্কিদের আর আবির্ভাব ঘটবেনা।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ৬১৩ ]
___________________________________
নাঈম বিন হাম্মাদ -
আমাদের তার পিতা থেকে ইবনে আবদুল খালেক বিন থেকে উঠেছি বলুন 
থেকে Makhoul সম্পর্কে নবী , 
শান্তি হতে তার উপর তিনি চলে যেতে বলল Khrjtan Kharja এবং অন্তক দ্বিতীয় ঘোড়া Balafrat সংযোগ আছে 
না করার পরে ছেড়ে
হাদিস - ৬১৪
হযরত আরতাত রহঃ থেকে বর্ণিত, তিনি বলেন, সুফিয়ানী এবং তুর্কিদের মধ্যে ভয়াবহ যুদ্ধ সংঘটিত হবে, এরপর খলীফা মাহ্দীর হাতে তাদের মূলৎপাটন হবে। তিনিই হবেন মুদা নামক স্থানে প্রথম পতাকা স্থাপনকারী, যাকে তুর্কিদের দিকে প্রেরণ করা হবে।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ৬১৪ ]
___________________________________
নাঈম বিন হাম্মাদ - 614
হাকাম ইবনে Nafie সম্পর্কে আমাদের জানান ক্ষত 
বলেন Oirtah থেকে 
যুদ্ধ 
Sufiani তুর্কী 
তারপর করা 
এ উপড়ে ফেলা হাত এর মাহদি 
, অনুষ্ঠিত প্রথম ব্রিগেড দ্বারা শব্দটি পুনরুত্থিত 
তুর্কী করতে
হাদিস - ৬১৫
বিশিষ্ট সাহাবী হযরত আব্দুল্লাহ ইব্নে আমর ইবনুল আস রাযিঃ থেকে বর্ণিত, তিনি বলেন, যুদ্ধ-বিগ্রহ থেকে একটি মাত্র যুদ্ধ বাকি রয়েছে, আর সেটা হচ্ছে, জাযিরার অধিবাসিদের সাথে তুর্কিদের যুদ্ধ।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ৬১৫ ]
___________________________________
নাঈম বিন হাম্মাদ - 615
আল-ওয়ালেইদ বিন মুসলিম ইবনে লাহিয়া থেকে 'উবাইদুল্লাহ ইবনে আল মুঘারাহ্ 
' আব্দ-আল্লাহ ইবনে আমর থেকে আমাদের বলেছিলেন যে তিনি ইমামদের থেকে দূরে ছিলেন, প্রথমটি দ্বীপে আল-তুর্কের মহাকাব্য।
হাদিস - ৬১৬
হযরত মাকহৃল রহঃ থেকে বর্ণিত, তিনি বলেন, রাসূলুল্লাহ সাঃ এরশাদ করেছেন, তুর্কিরা মোট দুইবার আক্রমণ করবে, একবার আযারবায়জান নামক এলাকা বিরান ভূমিতে পরিনত করবে, দ্বিতীয়বার ফুরাত নদীর দুইকুলে আক্রমণ করবে। হযরত আব্দুর রহমান ইব্নে ইয়াযিদ তার হাদীসে রাসূলুল্লাহ সাঃ থেকে বর্ণনা করেন, তিনি এরশাদ করেন, আল্লাহ তাআলা তাদের ঘোড়াসমূহের মধ্যে মৃত্যু চাপিয়ে দিবেন। যার কারনে তারা চলে যেতে বাধ্য হবে। পরবর্তীতে তাদের মধ্যে এমন ব্যাপক গনহত্যা চলবে, কোনো তুর্কিই আর অবশিষ্ট থাকবেনা।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ৬১৬ ]
___________________________________
নাঈম বিন হাম্মাদ - 616
আমাদের ওয়ালিদ ইবনে জাবের বলুন এবং অন্যদের 
Makhoul সম্পর্কে বলেন রসূল এর আল্লাহ , শান্তি 
তাঁর উপর করা 
ত্যাগ করার Khrjtan 
এক আজারবাইজান অন্তক এবং 
দ্বিতীয় তারা বক্র শুরু ইউফ্রেটিস 
আব্দুর রহমান বিন বলেন , তার আলাপ বেশি নবী , শান্তি হতে তার উপর , সে বলল সে প্রেরিত 
তাদের ঘোড়া উপর ঈশ্বরের , মৃত্যুর Verhalhm হইবে সর্বশ্রেষ্ঠ ঈশ্বর এর বধ অন্তর্ভুক্ত পরে ছেড়ে না
হাদিস - ৬১৭
বিশিষ্ট সাহাবী হযরত হোজাইফা ইবনুন ইয়ামান রাযিঃ থেকে বর্ণিত, তিনি এরশাদ করেন, যদি তোমরা প্রথমে কোনো তুর্কিকে জাযিরাতুল আরবে দেখতে পাও তাহলে তাদের সাথে যুদ্ধে লিপ্ত হবে। যতক্ষণ পর্যন্ত তারা তোমাদের হাতে পরাজিত না হবে, কিংবা আল্লাহ তাআলা তোমাদেরকে শাহাদাত নসীব করবেন কেননা, তারা হারাম শরীফকে অপবিত্র করবে, সেটাই হবে পশ্চিমাদের আত্মপ্রকাশ এবং তাদের রাজত্বের পতন হওয়ার লক্ষণ।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ৬১৭ ]
___________________________________
নাঈম বিন হাম্মাদ - 617
আমাদের মুহাম্মদ বিন আব্দুল্লাহ আব্দুল বলুন - থেকে রহমান বিন যিয়াদ Makhoul 
হুযাইফা সম্পর্কে 
যিনি বলেছেন আপনি আছে দেখা প্রথম তুর্কী দ্বীপ তাদের Thzmohm বা ঈশ্বর পর্যন্ত যুদ্ধ , আপনি 
Manthm , 
তারা এক্সপোজ আশ্রয়স্থল 
এটি দ্বারা 
আউট এর মানুষ এর মরক্কো চিহ্ন 
এবং অকার্যকর ও বাতিল রাজা এর তাহাদেরই যে প্রতিদিন
হাদিস - ৬১৮
হযরত মাকহৃল রহঃ থেকে বর্ণিত, তিনি বলেন, রাসূলুল্লাহ সাঃ এরশাদ করেছেন, তুর্কিরা দুই দলে বিভক্ত হয়ে আত্মপ্রকাশ করবে, একদল প্রকাশ হবে জাযিরা এলাকায়, যারা সুন্দুরী নারীদেরকে বেঁধে রাখবে, অতঃপর আল্লাহ তাআলা মুসলমানদেরকে বিজয়ী করবেন, ফলে তাদেরকে গন হারে হত্যা করা হবে।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ৬১৮ ]
___________________________________
নাঈম বিন হাম্মাদ - 618
আমাদেরকে ইবনে আইয়শের একজনকে বলুন না 
যে, মকশাল সম্পর্কে তাকে বলেছিলেন, "আল্লাহর রসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম-এর 
দু'টি বাহু ছেড়ে যাওয়ার জন্য হজ্বের শিকার হচ্ছেন এবং আল্লাহ 
তাদেরকে মুসলমানদের সাথে পুরস্কৃত করবেন।
হাদিস - ৬১৯
হযরত আম্মার ইব্নে ইয়াযির রহঃ থেকে বর্ণিত, তিনি বলেন, তোমাদের নবীর পরিবারের জন্য কিছু নিদর্শন রয়েছে, সুতরাং তোমরা তোমাদের ভূখন্ডকে আকড়ে ধরবে। এক পর্যায়ে জনৈক তুর্কির আত্মপ্রকাশ হবে এক দুর্বল ব্যক্তির শপথের কারণে। অতঃপর দুই বৎসর পর তার বাইয়াত রহিত করে দেয়া হবে এবং তুর্কিরা রোমানদের বিপক্ষে শপথ পাঠ করাবে। ইতোমধ্যে দামেশ্কের মসজিদের পশ্চিম অংশ ধসে যাবে এবং শাম দেশে তিন ধরনের লোকের আবির্ভাব ঘটবে। যেখান থেকে তাদের রাজত্ব শুরু হয়েছে সেখানে গিয়ে ঠেকবে। তুর্কিদের আত্মপ্রকাশ জাযিরা থেকে হলেও রোমানরা কিন্তু ফিলিস্তিন থেকে ক্ষমতা লাভ করবে। জনৈক আব্দুল্লাহ আরেক আব্দুল্লাহকে ধাওয়া করবে এবং কারকীসিয়া নামক স্থানে তার সৈন্যবাহিনীর সাথে মোকাবেলা করবে।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ৬১৯ ]
___________________________________
নাঈম বিন হাম্মাদ - 619
আমাদের বলুন ওয়ালিদ এবং Rushdin ইবনে Hiệp আমাদের বলেছেন আবু সেরহ আব্দুল্লাহ বিন Zarir 
আম্মার বিন ইয়াসির আল্লাহ পারে হতে সন্তুষ্ট সঙ্গে তাকে তিনি বলেছেন যে 
মানুষ এর ঘর এর আপনার নবী স্বাক্ষর 
Valsmoa স্থল পর্যন্ত 
তুর্কী Hallaf প্রবাহ 
Centenn পর দুর্বল মানুষ Vijla 
এর শপথ এর আনুগত্য এবং 
হতভাগ্য তুর্কী 
উপর রোমান 
এবং Akhosv মধ্যে পশ্চিমা দামেস্ক মসজিদ আবার তা তিন turnoff Baham থেকে আসে আসে আউট ধ্বংস এর তাদের রাজা এবং যেখানে তিনি শুরু করেন করার হতে 
বেদুইন 
তুর্কী দ্বীপ 
এবং 
রোমানদের মধ্যে প্যালেস্টাইন 
এবং আব্দুল্লাহ আব্দুল্লাহ অনুসৃত এমনকি তার সৈন্য পূরণ 
Baqrqaysia
হাদিস - ৬২০
প্রসিদ্ধ সাহাবী হযরত আব্দুল্লাহ ইব্নে মাসউদ রাযিঃ থেকে বর্ণিত, তিনি এরশাদ করেন, যখন তুর্কি এবং খারয বাহিনী জাযিরা ও আজারবায়যান নামক এলাকায় আত্মপ্রকাশ করবে, আর রোমানরা আমাক এবং তার আশেপাশের এলাকায় ক্ষমতা প্রদর্শন করবে তখন আহলে কানসারীনের কায়স বংশের এক লোককে জনৈক রোমী হত্যা করবে। ঐ সময় সুফিয়ানী ইরাকে অবস্থান করতঃ পূর্বদিক থেকে আগত বাহিনীর বিরুদ্ধে যুদ্ধে লিপ্ত থাকবে। প্রতিটি প্রান্ত তখন শত্রু দ্বারা আক্রান্ত থাকবে। এভাবে যুদ্ধ যখন দীর্ঘ চল্লিশ দিন পর্যন্ত চলবে এবং কোথাও থেকে সাহায্যও আসবেনা তখন রোমানরা এমর্মে সন্ধি করার প্রস্তাব পাঠাবে যে, উভয় দলের কেউ কাউকে কিছুই দিবেনা।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ৬২০ ]
___________________________________
নঈম বিন হাম্মাদ
আমাদের ইবনে Hiệp আব্দ ওয়াহাব বিন হুসাইন আবু আমর বসরী বলুন 
আল থেকে তার বাবার কাছ থেকে মুহাম্মাদ ইবনে সাবিত - হারেস 
ইবনে মাসউদ আল্লাহ পারে হতে সন্তুষ্ট সঙ্গে তাকে তিনি বললেন যদি 
তুর্কী হাজির 
এবং কাস্পিয়ান দ্বীপ, আজারবাইজান 
ও রোমান গভীরতা এবং দলগুলোর লড়াই থেকে পরিমাপ রোমান মানুষ মানুষ এর 
Guensrin এবং Sufiani মধ্যে ইরাক যুদ্ধ মানুষ এর মাসরেক তিনি সর্বপ্রকার শত্রু হাত কাজ , যদি যুদ্ধ জন্য 
চল্লিশ দিন এবং আসেনি করতে তাকে এ পক্ষে এর রোমানদের বাড়ানো যে এক দল মালিক কিছু বাড়ে
হাদিস - ৬২১
হযরত আবু জাফর রহঃ কর্তৃক বর্ণিত তিনি বলেন, সুফিয়ানী যখন আবকা’ ও মানসুর ইয়ামানীর উপর জয়লাভ করবে। অন্যদিকে তুর্কি ও রোমানবাহিনী এগিয়ে আসবে তখন তাদের বিরুদ্ধে যুদ্ধেও সুফিয়ানী জয়ী হবে।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ৬২১ ]
___________________________________
নাঈম বিন হাম্মাদ - 6২1
বলল আবু উসমান জাবের সম্পর্কে আমাদের জানান 
যদি Sufiani হাজির আবু জাফর 
maculata এবং মনসুর আল ইয়ামানী তুর্কী বাইরে এসে হাজির করার তাদের রোমান Sufiani 
কি সামান্য লক্ষণ আকাশ যেখানে বাধা এর রাজা এর বানি আব্বাস

Your content goes here...

Desktop Site