এসো হাদিস পড়ি ?

এসো হাদিস পড়ি ?

হাদিস অনলাইন ?

আব্বাসীয় শাসনামল পতনের ক্ষেত্রে আসমানী নিদর্শনের বর্ণনা

একটি আরবি শব্দ ডাবল ক্লিক করে তার অভিধান এন্ট্রি দেখায়
হাদিস - ৬২২
হযরক কা’ব রহঃ থেকে বর্ণিত, তিনি বলেন, বনু আব্বাসের রাজত্ব পতন হওয়ার অন্যতম লক্ষণ হচ্ছে, আসমানের বুকে এক প্রকার লাল বর্ণের আত্মপ্রকাশ করা এবং সেটা রমাযানের দশ তারিখ থেকে পনের তারিখ পর্যন্ত স্থায়ী হবে। আরেক ধরনের জীর্ণতা দেখা দিবে যা বিশ রমাযান প্রকাশিত হয়ে চব্বিশ রমাযান পর্যন্ত থাকবে। একটি তারকা উদিত হবে যেটা পূর্নিমার রাত্রির মত উজ্জল হয়ে হঠাৎ বাঁকা হয়ে যাবে। হাদীস বর্ণনাকার ওলীদ বলেন, আমার নিকট হযরত কা’ব থেকে সংবাদ এসেছে, তিনি বলেন, পূর্বদিকের এলাকায় দুর্ভিক্ষ দেখা দিবে, পশ্চিমে জীর্ণতা প্রকাশ পাবে, আসমানে লালিমা দৃশ্যায়ন হবে এবং কেবলার দিকে ব্যাপকহারে মানুষ মারা যাবে।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ৬২২ ]
___________________________________
নাঈম বিন হাম্মাদ
আমাদের বলুন ওয়ালিদ বিন মুসলিম 
আমাদের শেখ ইয়াযীদ ইবনুল বলেন - ওয়ালিদ আল - Khuzai 
থেকে গোড়ালি , তিনি বলেন বিভ্রাট রাজা ছিল জন্মগ্রহণ আব্বাস চিহ্নিত 
লাল 
প্রদর্শিত বায়ুমণ্ডল এর স্বর্গ , এবং এই মধ্যে হয় দশ দিন পনের করুন এবং রমজান 
অথর্ব 
মধ্যে থেকে বিংশ বিশ - রমজান চতুর্থ এবং 
তারকা থেকে দেখা উজ্জ্বল shines shines যেমন 
চাঁদ 
পূর্ণিমা রাত এবং তারপর Anaagaf 
এছাড়া আল ওয়ালিদ বলেন উপর বিক্রয়! কা'ব বলেন, এ শুষ্কতা উজ্জ্বল 
এবং মরোক্কোতে ঠুনকো এবং লাল মধ্যে গহ্বর এবং মৃত্যুর একটি ফ্যাসিবাদী দিক
হাদিস - ৬২৩
হযরত আবু জাফর রহঃ থেকে বর্ণিত, তিনি এরশাদ করেন, যখন বনু আব্বাছে রাজত্বের বিস্তৃতি খোরাছান পর্যন্ত গিয়ে পৌঁছবে তখন পশ্চিমাকাশে আলোকিত একটি শিং জাতীয় বস্তু প্রকাশ পাবে। এভাবে আলামত পাওয়া যাওয়া নূহ আঃ এর কওমে পানিতে ডুবিয়ে মারার আগেও পাওয়া গিয়েছিল। তেমনিভাবে হযরত ইবরাহীম আঃ কে নমরূদ কর্তৃক আগুনে নিক্ষেপ করার আগেও প্রকাশ পেয়েছিল। যখন আল্লাহ তাআলা ফেরআউনকে তার দলবলসহ ধ্বংস করেছিলেন তখনও সেটা উদিত হয়েছিল, হুবহু সেটা দেখা গিয়েছিল যখন ইয়াহইয়া ইবনে যাকারিয়া আঃ কে শহীদ করা হয়েছিল। সুতরাং তোমরা সেই তারাটি দেখতে পেলে যাবতীয় ফেৎনার অনিষ্টতা থেকে আল্লাহ তাআলার দরবারে পানাহ চাও। সেই তারকাটি উদিত হয়েছিল, চন্দ্র-সূর্য গ্রহন নেয়ার পর। তারপর আর বেশিদিন অপেক্ষা করতে হয়নি,এক পর্যায়ে মিশরে আরকা’বাহিনীর আবির্ভাব হয়ে যায়।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ৬২৩ ]
___________________________________
নাঈম বিন হাম্মাদ
বলুন বলল আবু 
উসমান জাবের 
আবু জাফর বলেন যে যদি আব্বাস রাজাভি পৌঁছে 
এসে Palmcherq এক শতক 
Shifa ছিল প্রথম জিনিস যে এসে থেকে ধ্বংস মানুষ এর নূহ 
যখন ঈশ্বর নিমজ্জিত এবং এসেছিলেন আপ মধ্যে সময় এর আব্রাহাম 
শান্তি যেখানে তিনি ছুড়ে ফেলে 
মধ্যে আগুন , এবং যখন পরিবার এর ঈশ্বর, ফরৌণ এবং তাঁর সঙ্গীদের , এবং যখন হত্যা এর ইয়াহিয়া বিন জাকারিয়া 
আপনি যদি আছে থেকে এটা Fastaazu ঈশ্বর দর্শন মন্দ 
প্রলোভন 
এবং হতে Taluah Anksav পর সূর্য ও চাঁদ এবং 
তারপর বেশ তাড়াতাড়ি না 
প্রদর্শিত 
maculata মধ্যে 
মিসর
হাদিস - ৬২৪
হযরত ইবনে শিহাব যুহরী রহঃ কর্তৃক বর্ণিত, তিনি এরশাদ করেন, সুফিয়ানীর আগমনের পরপর আসমানে বিভিন্ন ধরনের আলামত দেখতে পাবে।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ৬২৪ ]
___________________________________
নাঈম বিন হাম্মাদ - 6২4
শেখ ওয়ালিদ সম্পর্কে আমাদের বলুন আল 
যুহরী বলেন প্রস্থান 
Sufiani দেখতে একটি সাইন ইন আকাশ
হাদিস - ৬২৫
হযরত আব্দুল্লাহ ইবনে মাসউদ রাযিঃ হতে বর্ণিত, তিনি এরশাদ করেন, সফর মাসে নির্দশন প্রকাশ পাওয়ার পর আসমানে একাধিক লেজ বিশিষ্ট তারকা উদিত হবে।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ৬২৫ ]
___________________________________
নাঈম বিন হাম্মাদ - 6২5
আমাদের বলুন Rushdin ইবনে Hiệp আব্দ 
আজিজ বিন সালেহ আলী ইবনে ইবনে মাসউদ থেকে রাবাহ বলা যেতে পারে একটি নিদর্শন এর শূন্য এবং 
তার তারকা শুরু 
Znab
হাদিস - ৬২৬
হযরত মাকহৃল রহঃ থেকে বর্ণিত, তিনি বলেন, রাসূলুল্লাহ সাঃ এরশাদ করেন, আসমানে একটি লক্ষণ প্রকাশ পাবে, দুই রাত্র অতিবাহিত হওয়ার পর, শাওয়াল মাসে গুরুত্বপূর্ন বিষয় প্রকাশ পাবে, জিলক্বদ মাসে ব্যাপক আচরন দেখা দিবে। জিলহজ্ব মাসে আবির্ভাব ঘটবে বিভিন্ন বালা-মসিবতের। মুহাররমে কি হবে তা বলাই যায়না। বর্ণনাকারী আব্দুল ওয়াহাব ইব্নে বুখ্ত বলেন, আমাদের কাছে সংবাদ পৌঁছেছে রাসূলুল্লাহ সাঃ এরশাদ করেন, রমাযান মাসে আসমানে একটি আলামত প্রকাশ পাবে যা হবে উজ্জল একটি পিলারের ন্যায়। শাওয়াল মাসে বিভিন্ন বালা-মসিবত দেখা দিবে, জিলক্বদ মাসে ধ্বংস হয়ে যাবে এবং জিলহজ্ব মাসে হারাম শরীফের উদ্দেশ্যে রওয়ানাকারীদেরর ছিনতাই করা হবে। আর মুহাররম মাসের কথা তো কিই বা বলব।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ৬২৬ ]
___________________________________
নাঈম বিন হাম্মাদ
ইবনে Lahee'ah বলেন তিনি আমাকে আব্দুল ওয়াহাব বিন বখত বলেন 
Makhoul সম্পর্কে বলেন ওয়াসাল্লাম বলেছেন 
, আল্লাহ , শান্তি স্বর্গে তাঁর উপর করা 
কোন 
এর রাত Khalta এবং 
অক্টোবর 
মধ্যে টাস্ক 
একটি 
নভেম্বর 
দাঙ্গাহাঙ্গামা এবং এ 
যু আল Hijjah 
মধ্যে Alenzail 
মহরম এবং 
কি করা হয় নিষিদ্ধ , 
আব্দুল ওয়াহাব বিন বলেন 
বখত এবং শুনেছি যে রসূল এর আল্লাহ তাকে বলেন 
রমজান 
স্বর্গে যেমন একটি কলাম জ্বলজ্বলে 
মধ্যে 
শাওয়ালের 
কষ্ট এবং মধ্যে 
নভেম্বর সঙ্গে 
গজ এবং এ যু আল Hijjah এবং মহরম Anthb আলহাজ্ব মহরম
হাদিস - ৬২৭
হযরত আব্দুল গাফ্ফার রহঃ থেকে বর্ণিত, তিনি সুফিয়ান আল-কালব্বী থেকে বর্ণনা করেন, এরশাদ হচ্ছে, সপ্তম মাসে বিভিন্ন বালা-মসীবত দেখা দিবে, অষ্টম মাসে সবকিছু ধ্বংস হয়ে যাবে এবং নবম মাসে ব্যাপক দুর্ভিক্ষ আসবে।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ৬২৭ ]
___________________________________
নাঈম বিন হাম্মাদ
সম্পর্কে Rushdin ইবনে আবদুল গাফফার সম্পর্কে আমাদের বলুন প্রকৃতি 
সুফিয়ান কালবী সাত বলেন 
কষ্ট এবং 
মধ্যে আট 
গজ এবং 
মধ্যে নয়টি 
ক্ষুধা
হাদিস - ৬২৮
হযরত আবু হুরায়রা রাযিঃ থেকে বর্ণিত, তিনি রাসূলুল্লাহ সাঃ থেকে বর্ণনা করেন, রাসূলুল্লাহ সাঃ এরশাদ করেন, রমাযান মাসে একটি আলামত প্রকাশিত হবে। এরপর শাওয়াল মাসে এক দলের আত্মপ্রকাশ হবে। অতঃপর জিলক্বদ মাসে ব্যাপক বালা-মসিবত দেখা দিবে, জিলহজ্ব মাস আসলে হাজীদের রসদপত্র ছিনতাই করে নেয়া হবে। মুর্হারম মাসে সকলের সম্মাানের উপর চরম আঘাত করা হবে, অতঃপর সফর মাসে বিকট এক আওয়াজ শুনা যাবে, এরপর রাবিউল আওয়াল ও রবিউস্সানী মাসদ্বয়ে বিভিন্ন গোত্রের মধ্যে ঝগড়া-ফাসাদ হবে। রজব এবং জুমাদাল উলা ও জুমাদিউল উখ্রা মাসে অতি আশ্চর্য বিষয় আত্মপ্রকাশ করবে। এরপর তিনি বলেন, হাওদা বোঝাই উট বিনোদন সামগ্রী বোঝাই লক্ষ উটের চেয়ে উত্তম। আবু আব্দুল্লাহ নুআঈম রহঃ বলেন, আমি জানিনা, তবে শুনেছি মাসলামা ইব্নে আলীর কাছ থেকে ইনশাআল্লাহ! তার এবং কাতাদাহ এর মাঝে মাত্র একজন লোক রয়েছে।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ৬২৮ ]
___________________________________
নাঈম বিন হাম্মাদ
আমাদের বলুন ছেলে এর থেকে দান জন্য মুসলিম বিন আলী 
থেকে সাঈদ ইবনুল কাতাদা - Musayyib 
আবু Hurayrah তাকে Rdyallah থেকে যে নবী সা , 
বলেন করার হতে একটি 
মধ্যে শ্লোক মাস এর রমজান 
এবং গ্যাং অক্টোবর প্রদর্শিত এবং তারপর একটি নভেম্বরে অশান্তি হতে এবং তারপর 
দূরে যু মধ্যে আলহাজ্ব আল Hijjah এবং তারপর অজাচার লঙ্ঘন মহরম মধ্যে এবং 
তারপর ভোট করা 
শূন্য মধ্যে এবং 
তারপর 
যুদ্ধ মধ্যে উপজাতিদের মাস এর বসন্ত এবং তারপর আশ্চর্য সব জামাদিউল উলা এবং রজব বিস্ময় তারপর উট Mguetbh হয় বেশী ভালো 
হ্যামলেটসের অশ্বতর এক লাখ , 
বলেন আবু আব্দুল্লাহ নাঈম আমি জানি না , কিন্তু আমি মুসলিম ইবনে থেকে শোনা 
আলী, ঈশ্বর ইচ্ছুক , অতঃপর তাঁকে ও কাতাদা মধ্যে , একটি মানুষ
হাদিস - ৬২৯
হযরত সাঈদ ইবনুল মুসাইয়্যাব রহঃ থেকে বর্ণিত, তিনি বলেন, মুসলমানদের কাছে এমন এক যুগ আসবে যখন রমাযান মাসে বিকট আওয়াজ শুনা যাবে, শাওয়াল মাসে গুরুত্বপূর্ণ বিষয়ের আবির্ভাব হবে, জিলকদ্ব মাসে এক গোত্রের লোকজন অন্য গোত্রের উপর হামলে পড়বে। জিলহজ্ব মাসে হাজী সাহেবদের যাবতীয় রসদপত্র ছিনিয়ে নেয়া হবে। মুহাররম মাস সম্বন্ধে কি বলব; মুহাররম মাস, যেটা সম্বন্ধে কিই বা বলার আছে।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ৬২৯ ]
___________________________________
নাঈম বিন হাম্মাদ
আমাদের সম্পর্কে উপর খয়রাত বিন ওয়ালিদ বলুন 
কাতাদা 
সাঈদ ইবনুল থেকে - Musayyib বলেন , আসে সময় এর মুসলমানদের তাকে একটি 
রমজান ভয়েস 
মধ্যে 
শাওয়ালের নভেম্বরে Manmhh হতে সঙ্গে গোষ্ঠীগুলো পক্ষপাতমূলক উপজাতিদের এবং আছে একটি যুক্তি মধ্যে যা loots 
হজ করা হয় নিষিদ্ধ এবং কি করা হয় নিষিদ্ধ এবং যা হয় নিষিদ্ধ করা হয় নিষিদ্ধ
হাদিস - ৬৩০
হযরত শহর ইব্নে হাওশব রহঃ থেকে বর্ণিত, তিনি বলেন, আমাদের কাছে সংবাদ পৌছেছে, রাসূলুল্লাহ সাঃ এরশাদ করেন, রমাযান মাসে বিকট আওয়াজ প্রকাশ পাবে, শাওয়াল মাসে গুরুত্বপূর্ণ বিষয় দেখা যাবে। জিলকদ মাসে বিভিন্ন গোত্রের মাঝে যুদ্ধ হবে। জিলহজ্ব মাসে হাজীদের সম্পদ ছিনিয়ে নেয়া হবে। মহররম মাসে আসমানে এক ঘোষক ঘোষণা করবে,শুনে রাখ, নিঃসন্দেহে আল্লাহ তাআলার অকৃত্রিম বন্ধু হচ্ছে এমন লোক যার পিছনে অমুক ব্যক্তি রয়েছে। সুতরাং তোমরা তার কথা শুনো এবং অণগত কর।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ৬৩০ ]
___________________________________
নঈম বিন হাম্মাদ
আমাদের বলুন ওয়ালিদ প্রাক্প্রচার পরীক্ষা ডাউনলোড করুন 
Qurashi সালামা ইবনে আবী সালামা 
জন্য মাস কয়েক বিন Hawshab বলেন যে রাসূল এর আল্লাহ শান্তি হতে বিক্রয়! 
তাঁর বললেন করার হতে 
রমজান ভয়েস 
একটি বিবদমান গোষ্ঠী নিজেদের সঙ্গে শাওয়ালের Manmhh মধ্যে নভেম্বরে 
যুক্তি Anthb আল - হজ্জ 
মহরম স্বর্গ থেকে ঘোষক আহ্বান , 
না করার অভিজাত আল্লাহ তাঁর পিছনে রয়েছেন, অতএব 
তাঁকে তাঁর আনুগত্য কর এবং তাঁর আনুগত্য কর
হাদিস - ৬৩১
আমর ইবনে শুআইব, স্বীয় পিতা এবং দাদা থেকে বর্ণনা করেন, রাসূলুল্লাহ সাঃ এরশাদ করেন, রমাযান মাসে বিকট আওয়াজ শুনা যাবে, শাওয়াল মাসে যোদ্ধাদের হুংকার চলবে, জিলক্বদ মাসে বিভিন্ন গোত্রের মাঝে যুদ্ধ বাঁধবে। সেই বৎসরই হাজীদের রসদপত্র ছিনতাই করা হবে, এবং মিনার ময়দানে ভয়াবহ যুদ্ধ সংঘটিত হবে। যার মধ্যে ব্যাপক গন হত্যা ও রক্তপাত হবে। সে অবস্থায় তারা আকাবাতুল জামাবায় থাকবে।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ৬৩১ ]
___________________________________
নাঈম বিন হাম্মাদ - 631
আমাদের আবু ইউসুফ আল বলুন - Maqdisi আব্দ আল মালিক ইবনে আবী সুলায়মান 
তার বাবার কাছ থেকে আমর ইবনে Shuaib থেকে 
থেকে তার পিতামহ , নবী , সা , বলেন করার হতে একটি 
ভয়েস 
রমজান 
এবং অক্টোবরে অশান্তি এবং বিবদমান গোষ্ঠী নিজেদের এবং Aamiz Anthb আলহাজ্ব সঙ্গে নভেম্বরে এবং হতে একটি মহাকাব্য 
মহান শুক্রাণু মৃত ভরা রক্ত মধ্য দিয়ে তারা অ্যানথ্রাক্সের বাধাতে থাকে
হাদিস - ৬৩২
হযরত আব্দুল্লাহ ইব্নে আমর ইবনুল আস রাযিঃ থেকে বর্ণিত, তিনি বলেন, সকলে একসাথে হজ্ব করবে, অন্য এক ইমামের উপর সকলে পরিচিত হবে। তারা এমন অবস্থায় থাকাকালীন তারা যখন মিনায় পৌঁছবে হঠাৎ তাদেরকে কুকুরের ন্যায় আটক করা হবে। ফলে একগোত্র অন্য আরেক গোত্রের উপর প্রাধান্য বিস্তার করতে গিয়ে যুদ্ধে লিপ্ত হয়ে যাবে। যার কারণে গোটা আকাবা রক্তে রঞ্জিত হয়ে যাবে।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ৬৩২ ]
___________________________________
নাঈম বিন হাম্মাদ - 6২3
তাঁর পিতা আবু ইউসুফ মুহাম্মদ বিন আব্দুল্লাহ আমর ইবনে Shuaib সম্পর্কে আমাদের বলুন 
আব্দুল্লাহ বিন 
আমর , আল্লাহ হতে পারে সন্তুষ্ট তাদের , বলেন, জনগণ একসঙ্গে হজ এবং একসঙ্গে জানেন ইমাম এর Fbenahm বংশদ্ভুত মধ্যে মীনা 
যেহেতু কিছু নিয়ে যাওয়া এর উপজাতিদের , কুকুর ছিল না হওয়া পর্যন্ত রক্ত প্রবাহিত আকাবা কিছু Vaguettheloa করার প্রভাবশালী
হাদিস - ৬৩৩
হযরত খালেদ ইব্নে মা’দান রহঃ থেকে বর্ণিত, তিনি বলেন, অতিসত্ত্বর পূর্বদিক থেকে আগুনের তৈরি পিলারের ন্যায় এক নিদর্শন প্রকাশ পাবে। যেটা জমিনের সকলে দেখবে। তোমাদের কেউ এমন যুগ প্রাপ্ত হলে, সে যেন তার পরিবারের জন্য এক বৎসরের খোরাকী প্রস্তুত রাখে।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ৬৩৩ ]
___________________________________
নাঈম বিন হাম্মাদ
আমাদের বলুন ঈসা ইবনে ইউনুস ও থর বিন ইয়াযীদ থেকে ওয়ালিদ বিন মুসলিম 
খালেদ বিন Ma'dan বলেন 
Stbdoa 
আয়াতে একটি দ্বারা দেখা আগুনের কলাম মাসরেক 
সব দেখেন মানুষ এর পৃথিবী , এটা প্রতীত হয় যে 
তার পরিবারের খাদ্য বছরের জন্য একই জিনিস
হাদিস - ৬৩৪
হযরত কাসির ইব্নে মুররা আল হাজরনী রহঃ থেকে বর্ণিত, তিনি বলেন, রমাযান মাসে আসমানে বিভিন্ন আলামত প্রকাশ পেতে থাকলে মানুষের মাঝে ব্যাপক এখতেলাফ দেখা দিবে । তুমি এমন অবস্থা প্রাপ্ত হলে তোমার সাধ্যানুযায়ী খাবারের মজুদ করে রাখ।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ৬৩৪ ]
___________________________________
নাঈম বিন হাম্মাদ
ওয়ালিদ ইবনে আমর Vokhbernasfoan আব্দুর রহমান বিন সম্পর্কে বলেন 
জাবির ইবনে Nufayr 
অনেকবার বিন হাদরামী বলেন জন্য 
Aya রমজান ঘটনা 
তার চিহ্ন 
আকাশ 
। 
তারপর মানুষের মধ্যে একটি পার্থক্য, আমি আমি পারে খাদ্য চেয়ে আরও উপলব্ধি
হাদিস - ৬৩৫
হযরত ইব্নে শিহাব যুহরী রহঃ থেকে বর্ণিত, তিনি বলেন, দ্বিতীয় সুফিয়ানীর রাজত্ব এবং তার আবির্ভাবের মধ্যে এমন কতক আলামত রয়েছে, যা তুমি আকাশে দেখতে পাবে।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ৬৩৫ ]
___________________________________
নাঈম বিন হাম্মাদ
তিনি বলেন, 
ওয়ালিদ আমাকে বলেছিলেন শেখ 
যুহরী রাষ্ট্র Sufiani দ্বিতীয় প্রস্থান চিহ্ন বলেন আপনি দেখতে 
মধ্যে আকাশ
হাদিস - ৬৩৬
হযরত কাসীর ইব্নে র্মুরা রহঃ থেকে বর্ণিত, তিনি এরশাদ করেন, সত্তর বৎসর থেকে আমি রমাযান মাসে আত্মপ্রকাশকারী নিদর্শনের অপেক্ষায় আছি।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ৬৩৬ ]
___________________________________
নাঈম বিন হাম্মাদ - 636
ইবনে ওয়াহাব ইবনে আইয়শ থেকে সাফওয়ান ইবনে আমর 
থেকে 'আবদ আল-রাহমান 
ইবনে যুবাইর 
থেকে অনেকবার বর্ণনা করেছেন। তিনি বলেন: "আমি 
সতের বছর আগে রমজানে দুটো ঘটনাকে একটি চিহ্নের জন্য অপেক্ষা করব ।"
হাদিস - ৬৩৭
হযরত কাসীর ইবনে র্মুরা থেকে বর্ণিত তিনি বলেন, আমি রমযান মাসে সত্তর বৎসর যাবত নতুন ঘটনাবলী সংঘটিত হওয়ার নিদশর্নের অপেক্ষা করছি।
বিসমিল্লাহির রহমানির রহীম।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ৬৩৭ ]
___________________________________
নাঈম বিন হাম্মাদ - 637
আব্দুর রহমান বিন জাবির থেকে Jnadp বিন ঈসা Oirtah সম্পর্কে আমাদের বলুন 
অনেক বিন জন্য 
একবার তিনি বলেন , আমি অপেক্ষা করছি একটি জন্য নিদর্শন এর থেকে রমজান সত্তর বছরে ঘটনা
হাদিস - ৬৩৮
হযরত আব্দুল্লাহ ইব্নে মাসউদ রাযিঃ থেকে বর্ণিত, তিনি বলেন, রাসূলুল্লাহ সাঃ এরশাদ করেছেন, যখন রমযান মাসের বিকট আওয়াজ প্রকাশিত হবে,শাওয়াল মাসে, যুদ্ধের ঝংকার শুনবে, জিলকদ মাসে বিভিন্ন গোত্রের মাঝে মতপার্থক্য দেখা দিবে, জিলহজ্ব মাসে রক্তপাত হবে। মুহাররম মাসে, মুহাররম কি? সে মাসে বিভিন্ন ধরনের মারামারি, হানাহানি, ঝগড়া-ফাসাদ চলতে থাকবে। একথাটি তিনি তিনবার বলেছেন। তিনি বলেন, আমরা বললাম, ইয়া রাসূলুল্লাহ! যায়হাহ্ কি? জবাবে রাসূলুল্লাহ সাঃ বললেন, এটা অর্ধরমাযান মাসের জুমার রাত্রে প্রকাশ পাবে। যার কারণে ঘুমন্ত ব্যক্তিরা জাগ্রত হয়ে যাবে, দাড়ানো অবস্থায় থাকা লোকজন বসে যাবে, কুমারী নারীগন ভয়-আতঙ্কে পর্দার ভিতর থেকে বেরিয়ে আসবে। এটা হবে এক জুমার রাত্রিতে, এমন এক বৎসর যখন অধিকহারে ভুমিকম্প হবে। সুতরাং তোমরা জুমার দিন নামায আদায় করার সাথে সাথে ঘরে প্রবেশ করে দরজা-জানালা লাগিয়ে দিবে। নিজেদেরকে চাদরাবৃত করলেও কানকে সজাগ রাখবে। যখনই বিকট কোনো আওয়াজ শুনতে পাবে তখনই আল্লাহ্র দরবারে সেজদাবনত হয়ে যাবে এবং সুবহানাল কুদ্দুছ, সুবহানাল কুদ্দুছ বলতে থাকবে।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ৬৩৮ ]
___________________________________
নাঈম বিন হাম্মাদ - 638
আমাদের বলুন আবু ওমর 
ইবনে Lahee'ah থেকে তার বাবার কাছ থেকে আব্দুল ওয়াহাব ইবনে হুসাইন মুহাম্মদ ইবনে সাবেত বনানী আমাকে বলেছে 
আল - হারেস আল - হামদানি 
ইবনে মাসউদ থেকে আল্লাহ পারে হতে সন্তুষ্ট সঙ্গে থেকে তাকে নবী , শান্তি হতে তার উপর তিনি বলেন 
যদি 
কান্না 
রমযান মাসে হয় অক্টোবরে অশান্তি এবং চিহ্নিত একটি নভেম্বরে উপজাতিদের এবং চালা 
রক্ত যু আল Hijjah এবং মহরম এবং কি করা হয় নিষিদ্ধ বলে এটা চিৎকার করে কাঁদতে তিনবার করার চাঁদ কান্না করার জন নিহত 
চিল্লাচিল্লি চিল্লাচিল্লি 
তিনি বলেন , এবং 
হুররে 
হে আল্লাহর এর আল্লাহ 
রমজান অর্ধেক বলেন এই 
শুক্রবার রাতে Vtkon 
খাত 
জাগ্রত নিদ্রা এবং বসতে - ভিত্তিক এবং রাতে Khaddorhn থেকে Alawatq স্নাতক এর 
বহু বছর শুক্রবার এর ভূমিকম্প । তাহলে আপনার হোম Vedjloa শুক্রবার ভোর প্রার্থনা এবং অবরুদ্ধ 
Aboa এবং তারা আপনার মুখ বন্ধ এবং নিজেকে chastened এবং আপনার কান বন্ধ
এবং বলো, সুবহান আল কদোস, সুবহান আল-কাদো, আমাদের পবিত্র পালনকর্তা, যে কেউ এটাকে বেঁচেছে, আর যে কেউ তা করে না সে 
ধ্বংস হয়ে যায়
হাদিস - ৬৩৯
ওয়ালিদ হতে বর্নিত, তিনি বলেন, রমযান মাসের কিছু দিন অতিবাহিত হওয়ার পর আমরা দিমাশ্কবাসীদের উপর এক ধরনের ভুমিকম্প হতে দেখলাম|যদ্বারা ১৩৭ হিজরী সনের রমযান মাসে অনেক লোক মৃত্যু বরন করে।তবে খুরাস্তা নগরীতে যে ভূমিধসের কথা প্রসিদ্ধ রয়েছে আমরা দেখিনি। কিন্তু এক ধরনের লেজ বিশিষ্ট তারকা, যেটা ১৪৫ হিজরী সনের মুহাররম মাসে পূর্ব দিকে ফজরের সময় উদিত হয়েছিল, সেটা আমি দেখেছি।মুহাররমের কয়েকদিন বাকি থাকতে ফজরের পূর্ব মুহুর্তে সেটাকে দেখা গিয়েছিল, এরপর দ্রুত আবার গায়েব হয়ে যায়।এরপর সূর্য অস্ত যাওয়ার পর পশ্চিমাকাশে আবারো সেটাকে আমরা দেখতে পাই। অতঃপর ফুরাত নদী এবং তার পার্শ্বে খালি স্হানে প্রায় দীর্ঘ দুই-তিন মাস পর্যন্ত দেখা যায়। আর দুই-তিন বৎসর পর্যন্ত দেখা যায়নি।পরে আমরা আরো একটি আলোযুক্ত ছোট্র তারকা দেখতে পেলাম,যা প্রায় এক হাত পর্যন্ত আলো ছড়ায়।যার চতুর্পাশ্বে বিভিন্ন তারকা ঘুরতে থাকে।সেটা অবশ্যই জুমাদিউল উলা, জুমাদিউল উখরা এবং রজব মাসের কিছুদিন পর্যন্ত নিয়মিত উদিত হতে থাকে,এরপর আর দেখা যায়নি। কিছুদিন পর আমরা আরেকটি তারকা দেখতে পেলাম,যা তেমন উজ্জল ছিলনা।সেটা
মূলতঃউদিত হয়েছিল শাম দেশের ডান পার্শ্বে।ধীরে ধীরে তার আলো শাম থেকে জওফ এবং আরমেনিয়া পর্যন্ত ছড়াতে থাকে।উক্ত ঘটনাটি আমাদের মাঝে অলিগলি ও কক্ষপর্যন্ত সম্বনেধ অভিজ্ঞ লোককে জিজ্ঞাসা করলে তিনি বলেন,সে তারকাটি ঐ তারকার অন্তর্ভুক্ত নয়,যার জন্য আমরা অপেক্ষমান।বর্ননা কারী বলেন,আবু জাফরের হুকুমতের কয়েক বৎসর বাকি থাকতে আরেকটি তারকা দেখতে পায়।অতঃপর সেটা ধীরে ধীরে বাঁকা হতে থাকে, এক পর্যায়ে রাত্রের কিছু অংশে তার উভয় পার্শ্ব মিলিত হয়ে বেড়ির মত হয়ে যায়,
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ৬৩৯ ]
___________________________________
নাঈম বিন হাম্মাদ
আমাদের বলুন ওয়ালিদ বলেন আমরা দেখেছি একটি শিহরণ আঘাত মানুষ এর মধ্যে দামাস্কাস দিনের Amadan 
রমজান Vhlk তাই অনেক মানুষের মন্দ এর রমজান মধ্যে বছর ত্রিশ - সাত এবং একশত এবং Nrma ঠুনকো উল্লেখ করা হয়নি , 
একটি অবনতি যা হয় উল্লেখ গ্রাম হয় বলেন কাছে Harasta আছে এবং 
আমি দেখেছি একটি তারকা থেকে তাকে অপরাধবোধ মহরম এসে 
মধ্যে 
চল্লিশ - পাঁচশত সঙ্গে ভোর ওরিয়েন্ট আমরা ব্যবহৃত থেকে তাকে দেখতে মধ্যে হাত এর ভোর বাকি এর নিষিদ্ধ এবং তারপর গোপন , 
তারপর আমরা সূর্যাস্তের পর দেখা করেছি গোধূলি মধ্যে পরে গহ্বর এবং ইউফ্রেটিস দুই বা তিন মাস এবং তারপর 
দুই বা তিন বছর গোপন এবং আমরা দেখেছি তারপর একটি তারকা হিসেবে তাঁর মশাল গোপন কাছ থেকে শীঘ্রই বাহু চোখ দৃশ্য একটি 
প্রায় গুরুতর পালা ঘূর্ণন এর জ্যোতির্বিদ্যা Jumadin এবং Rajab দিন এবং তারপর লুকানো এবং তারপর আমরা একটি তারকা দেখতে না হয় 
আল Azhar আগে অধিকার এসেছিলেন সূর্য কিবলা থেকে জুফ থেকে আর্মেনীয় পর্যন্ত উজ্জ্বল হয়ে উঠেছিল, 
তাই আমি এটা স্কাকের পুরাতন শেখের কাছে উল্লেখ করেছিলাম , এই তারকা আশা করেছিল না 
। 
আলওয়ালিদ বললেন এবং দেখেছি
একজন সুন্নি Snaat তারকা আবু জাফর রয়ে গেলেন এবং তারপর পূরণ বাঁক ওঠে তার এর Ktouk ঘণ্টা দলগুলোর 
রাত
হাদিস - ৬৪০
বলেন,হযরত কা’ব রহঃ এরশাদ করেন সেটা ঐ তারকার অন্তর্ভুক্ত,যা পূর্বাকাশে প্রকাশ পাবে এবং পূর্নিমার রাত্রের চন্দ্রের ন্যায় গোটা বিশ্বকে আলোকিত করে দিবে।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ৬৪০ ]
___________________________________
নঈম বিন হাম্মাদ
আল ওয়ালেদ বলেছিলেন: "কাও'আব 
একটি উজ্জ্বল 
নক্ষত্র 
, যা প্রাচ্য থেকে বেরিয়ে আসে এবং পূর্ণ চন্দ্রের রাতে চন্দ্রের মত 
পৃথিবীর মানুষকে উজ্জ্বল করে ।"

হাদিস - ৬৪১
রহঃ বলেন,আমরা যে লালিমা এবং তারকা দেখতে পেয়েছি,সেটা কিন্তু কিয়ামতের নিদর্শন নয়,বরং তারকা সম্বলিত আলামত হচ্ছে,যা সফর রবিউল আওয়াল,রবিউসসানী এবং রজব মাসে পৃথিবীর বভিন্ন স্থানে দেখা যাবে।ঐ সময় খাকান বাদশাহ তুর্কিদের দিকে ভ্রমন করবে এবং রুমবাসীরা ঝান্ডা ও ক্রুস সহকারে তার অনুস্বরন করতে থাকবে।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ৬৪১ ]
___________________________________
নঈম বিন হাম্মাদ
নবজাতক এবং snappers এবং বড় যে আমরা আছে দেখা , না বলেন 
আয়াত কিন্তু 
তারকা আয়াত তারকা পালা শূন্য এ সম্ভাবনা 
বা Rabiein অথবা রজব যখন 
এটা অনুসৃত khaqan রাম ঘটনা যায় দ্বারা তুর্কস ও ইস্পাত ব্যানার
হাদিস - ৬৪২
ওলীদ রহঃ কা’ব রহঃ হতে বর্ননা করেন,তিনি বলেন,হযরত মাহদি আঃ এর আগমনের পূর্বে পূর্বাকাশে জুলফি বিশিষ্ট একটি তাঁরকা উদিত হবে।
তিনি বলেন আমি শরীফ রহঃ থেকে বর্ননা করেছি,তিনি বলেন, আমার কাছে সংবাদ পৌছেছে,হযরত মাহদি আঃ এর আগমনের পূর্বে রমাযান মাসে মোট দুইবার সূর্য গ্রহন হবে।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ৬৪২ ]
___________________________________
নঈম বিন হাম্মাদ
থেকে এছাড়া আল ওয়ালিদ 
সম্পর্কে বলেন গোড়ালি , তিনি বলেন উপর বিক্রয়! 
দেখা একটি থেকে তারকা পূর্ব সামনে মাহদি Znab হয়েছে 
বলেন , 
সেখানে ছিল একটি অংশীদার , তিনি বলেছেন যে মাহদি Tnksv আগে সূর্য মাস এর রমজান দুইবার উপর বিক্রয়!
হাদিস - ৬৪৩
কা’ব রহঃ থেকে বর্নিত,তিনি বলেন, বনু আব্বাছের ধ্বংস হবে, একটি এমন তারকার সময়,যা মধ্যবর্তি স্থানে প্রকাশ পাবে।অতঃপর বিভিন্ন ধরনের দূর্বলতা ও বিশৃঙ্খলা দেখা দিবে।এসব কিছু হবে মূলতঃ রমযান মাসে। লালিমা প্রকাশ পাবে রমাযান মাসের পাঁচ তারিখ বিশ তারিখের মধ্যে।আর বিকট শব্দ প্রকাশ হবে রমাযানের পনের তারিখ থেকে বিশ তারিখের মধ্যে আর দুর্বল ও রুগ্নতার আবির্ভাব হবে বিশ রমাযান থেকে চব্বিশ রমাযানের মধ্যবর্তি সময়ের মধ্যে।অতঃপর এমন একটি তারকা উদিত হবে,যার আলো হবে চন্দ্রের আলোর ন্যায়।এরপর উক্ত তারকা সাপের ন্যায় কুন্ডুলি পাকাতে থাকবে।যার কারনে তার উভয় মাথা একটা আরেকটার সাথে মিলিত হওয়ার উপক্রম হবে।
দীর্ঘকার রাত্রে দুইবার ভুমিকম্প হওয়া এবং আসমান থেকে জমিনের দিকে যে তারকাটি নিক্ষিপ্ত হবে,তার সাথে থাকবে বিকট আওয়াজ।
এক পর্যায়ে সেটা পূর্বাকাশে গিয়ে পতিত হবে। যদ্বারা মানুষ বিভিন্ন ধরনের বালা-মুসিবতের সম্মুখিন হবে।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ৬৪৩ ]
___________________________________
নঈম বিন হাম্মাদ
আমাদের Ortoh বিন মুনযির জন্য আবদুল্লাহ ইবনে মারওয়ান বিক্রি সম্পর্কে আমাদের বলুন 
থেকে গোড়ালি , বলেন 
ক্ষয় এর বানি আব্বাস যখন একটি 
তারকা 
দেখা গহ্বর এবং 
খাত 
এবং 
ঠুনকো 
সর্বসম্মত হতে হবে 
মধ্যে মাস এর রমজান 
snappers মধ্যে থেকে পাঁচ হয় বিশ অর্ধেক মধ্যে রমজান এবং দুম্ করিয়া বিশ 
মধ্যে ঠুনকো বিশ বিশ - চার তারকা নিক্ষিপ্ত shines এবং shines চাঁদ এবং তারপর 
পাকান এবং প্রায় Rosaha দেখা এবং যতক্ষণ লাইভ পাক 
Alrgevtan 
রাত Alveshan ওয়া এ 
এর তারকা , 
যা করা হয় শিহাব দ্বারা নিক্ষিপ্ত 
থেকে ভাঙ্গা আকাশ একটি 
খুব শব্দ 
যাতে যে 
অবস্থিত উজ্জ্বল 
মানুষ তাঁকে প্রভাবিত 
খুব চাবুক
হাদিস - ৬৪৪
মুহাদ্দিস আবুল হওসা রহঃ বিশিষ্ট তাবেঈ হযরত তাউস রহঃ থেকে হাদীস বর্ননা করেন,তিনি বলেন, অতিসত্ত্বর তিন ধরনের ভুমিকম্প সংঘটিত হাবে।ইয়ামানে মারাত্নক ভমিকম্প দেখা দিবে, শামদেশে এর চেয়েও কঠিন ভুমিকম্প সংঘটিত হবে।
আরেকটি কম্পন হবে মাশরিকের দিকে।সেটিই হবে মূলতঃ সমূলে নিপাতকারী।অন্য বর্ননা দ্বারা বুঝা যায়,ইয়ামান এবং শামে ভুমিকম্প হবে,মাশরিকে নয়।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ৬৪৪ ]
___________________________________
নঈম বিন হাম্মাদ
আমাদের আবু Alhossae থেকে তার বাবার কাছ থেকে হযরত আবদুল্লাহ ইবনে মারওয়ান বলুন 
ময়ূর থেকে 
বললেন তিন কম্পনের তীব্র কম্পন হয় মধ্যে ইমেন , এবং সবচেয়ে এর তাদের ছোট টুকরা এবং Baham Palmcherq যা ছোট টুকরা 
Gahv হয়েছে মধ্যে ইয়েমেন ও লেভান্ট Palmcherq হয়নি
হাদিস - ৬৪৫
সাহাবী হযরত আবু হুরায়রা রাযিঃ হতে বর্নিত,তিনি বলেন,রমাযান মাসে এমন বিকট আওয়জ প্রকাশ পাবে, যদ্বারা ঘুমন্ত লোকজন জাগ্রত হয়ে যাবে এবং কুমারী নারীগন পরদা ছেড়ে বেরিয়ে পড়বে।শাওয়াল মাসে মহামারি দেখা দিবে।জিলক্বদ মাসে একগোত্র আরেক গোত্রের বিরুদ্ধে যুদ্ধে জড়িয়ে যাবে।এবং জিলহজ্ব মাসে পরস্পরের মাঝে খুন-খারাপি দেখা দিবে। অতঃপর মুহার্রম মাসে,মুহার্রম কি!এভাবে তিনবার উচ্চারন করার পর বললেন মুহাররম মাস হচ্ছে,তৎকালীন রাজা-বাদশাহদের রাজত্ব খতম হয়ে যাওয়ার মাস।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ৬৪৫ ]
___________________________________
নঈম বিন হাম্মাদ
সম্পর্কে Alkoviin থেকে আমাদের শেখ বলুন 
জন্য লাইস মাস এর বিন Hawshab 
আবু Hurayrah থেকে , আল্লাহ হতে পারে হতে সন্তুষ্ট সঙ্গে তাকে রমজান বলেন 
খাত 
জাগ্রত ঘুমন্ত 
এবং Alawatq Khaddorha থেকে স্নাতক অক্টোবরে 
Manmhh 
সঙ্গে নভেম্বরে একটি 
হাঁটার উপজাতিদের 
একে অপরের এবং 
যু মধ্যে আল Hijjah 
Thrac রক্ত এবং 
এ নিষিদ্ধ এবং কি করা হয় নিষিদ্ধ বলে এটা তিনবার তিনি বলেন, 
যখন তাদের 
রাজা ছিন্ন করা হয়
হাদিস - ৬৪৬
হোজায়ফা ইবনুল ইয়ামান রাযিঃ থেকে বর্নিত,তিনি বলেন রাসূলুল্লাহ সাঃ এরশাদ করেছেন,নিঃসন্দেহে আমার উম্মত ধ্বংস হবে না,যতক্ষন পর্যন্ত তাদের মধ্যে তামাউয, তামাউল এবং মাআমু প্রকাশ পাবেনা।হোজায়ফা রাযিঃবলেন,আমি জিজ্ঞাসা করলাম, ইায়া রাসূলুল্লাহ তামাউয কি জিনিস? উাত্তরে তিনি বললেন,আমি দুনিয়া থেকে চলে যাওয়ার পার ইসলামের ক্ষেত্রে মানুষের মাঝে যে স্বজনপ্রীতি প্রকাশ পাবে সেটাই হচ্ছে, তামাউয। অতঃপর আমি “তামাউল” সম্বন্ধে জানতে চাইলে তিনি বললেন, এক গোত্র আরেক গোত্রের বিরুদ্ধে এমনভাবে লেলিয়ে পড়বে,যদ্বারা মনে করবে।এরপর আমি মাআমু সম্পর্কে জিজ্ঞাসা করলে রাসূলুল্লাহ সাঃ এরশাদ করেন, মাআমু হচ্ছে, এক শহরের লোকজন অন্য শহরের প্রতি যুদ্ধ করার জন্য ধেয়ে আসবে।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ৬৪৬ ]
___________________________________
নঈম বিন হাম্মাদ
বলুন উসমান বিন অনেক এবং হাকাম ইবনে Nafie বিন সাঈদ 
সিনান 
একবার ইবনে উমর Schbrh অনেক বিন আবু Zahrieh 
হুযাইফা ইবনুল - ইয়ামন আল্লাহ পারে হতে সন্তুষ্ট সঙ্গে 
তাকে রসূল এর আল্লাহ , সা বিনষ্ট না হয় আমার এমনকি তাদের বিভেদ দেন 
এবং bobbing এবং Alamaama 
আমি বললাম , হে নবী এর ঈশ্বর কি বিভেদ 
বলেন ভয় সৃষ্ট দ্বারা আমার পরে মানুষ 
ইসলামে , এবং 
আমি বললাম , কি waddling 
যেমন বলেন একটি যেমন Visthal পবিত্রতা প্রবণতা 
আমি বললাম কি Alamaama 
কিছু পাথ এর অঞ্চলে , কেউ কেউ তাদের ঘাড়ে যুদ্ধে ভিন্ন
হাদিস - ৬৪৭
হযরত কাসীর ইবনে মুররা রহঃ হতে বর্নিত,তিনি বলেন,ফেৎনার সূচনা লক্ষন সমূহ প্রকাশপাবে মূলতঃ রমযান মাসে, তীব্র আকার ধারন করবে শাওয়াল মাসে।জিলকদ মাসে এক এলাকার লোকজন আরেক এলাকর দিকে ধাবিত হবে এবং জিলহজ্ব মাসে এক শহরের বাসিন্দাগন অন্য শহরের বাসিন্দাদের প্রতি যুদ্ধের লক্ষে ধেয়ে আসবে।এসব কিছুর চুড়ান্ত নিদর্শন হচ্ছে, আকাশে আলোকিত-উজ্জল কোনো পিলার প্রকাশ পাওয়া
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ৬৪৭ ]
___________________________________
নঈম বিন হাম্মাদ
আমাদের বলুন অনেক উসমান বিন জারীর ইবনে উসমান বিন সুলায়মান সমীর 
অনেক Ben জন্য 
একবার বলেছিলেন 
ঘটনা শ্লোক 
রমজান এবং Alheih একটি মধ্যে দাঙ্গাহাঙ্গামা মধ্যে Alenzail সঙ্গে অক্টোবর ও নভেম্বর মাসে 
যুক্তি এবং একটি 
শ্লোক তাই উজ্জ্বল কলাম 
মধ্যে আকাশ 
আলোর
হাদিস - ৬৪৮
আরতাত রহঃ থেকে বর্নিত,তিনি বলেন,দ্বিতীয় সুফিয়ানীর যুগে নিকৃষ্ট চরিত্রের কিছু লোকের আবির্ভাব ঘটবে এবং শামের দিকে বিভিন্ন ধরনের ফেৎনা প্রকাশ পাবে।এক পর্যায়ে প্রত্যেকে মনে করবে, যে তার পার্শ্ববর্তি এলাকার লোকজন থেকে বেশি খারাপ অবস্থায় রয়েছে।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ৬৪৮ ]
___________________________________
নঈম বিন হাম্মাদ
একজন সার্জন আমাদেরকে অ্যারায়ণ সম্পর্কে বলেছিলেন, যিনি 
দ্বিতীয় ভীতির সময় 
শামে হুদা তৈরির সময় বলেছিলেন 
যাতে সবাই মনে করে যে এর ফলে কী ক্ষতি 
হয়?
হাদিস - ৬৪৯
ইব্নে মা’দান রহঃ থেকে বর্নত,তিনি বলেন, যখন তোমরা আকাশে রমাযান মাসে মাশরেক থেকে আগুনের কিছু পিলার প্রকাশ পেতে দেখবে,তখন সাধ্যমত খাবার জোগাড় করে রাখবে।কেননা তার পরবর্তী বৎসর হচ্ছে দুর্ভিক্ষের বৎসর।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ৬৪৯ ]
___________________________________
নাঈম বিন হাম্মাদ
আমাদের সম্পর্কে আবদুল কুদ্দুস বলুন একটি ক্রীতদাসী খালেদ বিন Ma'dan 
তার বাবা সম্পর্কে খালিদ বিন 
Ma'dan বলেন , যদি আপনি দেখেন একটি আগুনের কলাম মধ্যে ওরিয়েন্ট মাস এর রমজানে আকাশ , তারপর মুখে 
খাদ্য হিসাবে আপনি এটা করতে পারেন একটি বছর এর ক্ষুধা
হাদিস - ৬৫০
হযরত কাসীর ইবনে মুররা হাজরামী রহঃ থেকে বর্নিত, তিনি বলেন, আমি দীর্ঘ সত্তর বৎসর যাবত রমযান মাসে ফিৎনা প্রকাশ পাওয়ার রাত্রের অপেক্ষায় প্রহর গুনছি।হযরত আব্দুর রহমান ইব্নে যুবায়ের রহঃ বলেন, যখনই আকাশে এধরনের কোনো আলামত প্রকাশ পাবে সাথে সাথে মানুষের মাঝে বিশৃঙ্খলা দেখা দিতে থাকবে।
যদি তুমি সে অবস্থার সম্মুখিন হও তাহলে সাধ্য অনুযায়ী খাবার জোগাড় করে রাখবে।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ৬৫০ ]
___________________________________
নঈম বিন হাম্মাদ
আমাদের আবদুল কুদ্দুস এবং বলুন বাকি এর ক্ষমতাসীন বিন 
Nafie সাফওয়ান আব্দুর রহমান বিন জাবির থেকে 
অনেক বিন জন্য একবার হাদরামী বলেন , আমি অপেক্ষা করছি জন্য 
সত্তর বছর ধরে রমজান রাতে ঘটনা , 
আব্দুর রহমান বিন জাবির বলেন চিহ্ন রয়েছে 
আকাশ একটি মধ্যে পার্থক্য মানুষ, আপনি পারেন হিসাবে overtaken আরো খাদ্য
হাদিস - ৬৫১
মুহাজির নিবাল বলেন যখন রমযান মাস আসবে মানুষের অন্তু জ্বলে পুড়ে যাবে, শাওয়াল মাসে তারা একে অন্যকে আঘাত করতে থাকবে, জিলক্বদ মাস আসলে পরস্পর একে অন্যের এলাকায় আধিপত্য বিস্তার করতে থাকবে। আর জিলহজ্ব মাস শুরু হলে মানুষ খুনো খুনিতে লিপ্ত হয়ে পড়বে।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ৬৫১ ]
___________________________________
নাঈম বিন হাম্মাদ - 651
তিনি বলেন, 
সাফওয়ান বললেন করার হতে একটি অভিবাসী রমজান এবং শাওয়ালের Fteramad অন্তরে catapults একটি তাদের Chal 
যু নভেম্বরে Astqadhm আল Hijjah রক্তপাত
হাদিস - ৬৫২
শাহার ইবনে হাওশব থেকে বর্নিত, রিনি বলেন, ফিৎনা-ফাসাদের সূচনা হবে রমযান মাস থেকে, বিভিন্ন শহরের লোকজন একে অন্যের বিরুদ্ধে যুদ্ধে লিপ্ত হবে শওয়াল মাসে, জ্বিলকদ মাসে অন্য এলাকার মধ্যে সামরিক স্থাপনা ফলবে এবং জিলহজ্ব মাস আসলে একে অপরের উপর হামলা করবে, অর্থাৎ চুড়ান্ত লড়াই শুরু হয়ে যাবে। সে বৎসরই হাজিদের উপর আক্রমন করা হবে।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ৬৫২ ]
___________________________________
নাঈম বিন হাম্মাদ - 65২
আমাদের বলুন আবদুল কুদ্দুস ইবনে আইয়াশ 
জন্য ওয়ালিদ বিন উপাসকদের জন্য মাস কয়েক বিন Hawshab তিনি বলেন ঘটনা এর রমজান এবং শাওয়ালের দাঙ্গাহাঙ্গামা এবং Alenzail 
সঙ্গে নভেম্বর একটি আঘাত ঘাড় সেই বছরেই যুক্তি ঈর্ষান্বিত এর তীর্থযাত্রির
হাদিস - ৬৫৩
কসীর ইবনে মুররা থেকে বর্নিত, তিনি এরশাদ করেন, ফিৎনার সূচনা হবে রমযান মাস থেকে, মারাত্নক গোলযোগ হবে শাওয়াল মাসে, অন্য শহরের উপর হামলে পড়বে জিলক্বদ মাস আসলে, চুড়ান্ত লড়াই শুরু হয়ে যাবে জিলহজ্ব মাসে এবং ফায়সালা হবে মুহাররম মাসে। অতঃপর তিনি বলেন, আমি দীর্ঘ সত্তর বৎসর থেকে এমন ফিৎনার সূচনা দেখতে অপেক্ষায় আছি।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ৬৫৩ ]
___________________________________
নাঈম বিন হাম্মাদ - 653
আমাদের বলুন 
Heriz সম্পর্কে আবদুল কুদ্দুস 
অনেক Ben জন্য একবার তিনি বলেন অক্টোবরে রমজান এবং Alheih ঘটনা 
একটি এবং Alenzail 
নভেম্বর এবং এর বিভ্রান্তির যুক্তি এবং নিষিদ্ধ নিষ্কাশন এবং তারপর তিনি বলেন আমি ছিল জন্য অপেক্ষা 
ঘটনা এর সত্তর বছর পূর্বে
হাদিস - ৬৫৪
খালেদ ইবনে ইয়াযিদ ইবনে মোয়াবিয়া রহঃ থেকে বর্নিত, তিনি বলেন, যখন তুমি মানুষকে নিজের সিদ্ধান্তের উপর পুরোপরি সন্তুষ্ট হয়ে আশ্চর্য্য প্রকাশ করতে দেখবে, তখন মনে করবে তার লাঞ্চনা অবধারিত।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ৬৫৪ ]
___________________________________
নঈম বিন হাম্মাদ - 654
আমাদের বলুন পুত্র এর সুখী এবং পুত্র এর ইবনে Hiệp ইয়াযীদ থেকে দান 
ইবনে আবী হাবীব 
খালিদ বিন ইয়াযীদ বিন মুয়াবিয়ার কারণ তিনি বলেছিলেন যদি আমি দেখেছি একটি মানুষ Baharma প্রশংসিত 
তার মতামত হারানোর হয়েছে 
রাষ্ট্রদ্রোহ শাম শুরু

Desktop Site