এসো হাদিস পড়ি ?

এসো হাদিস পড়ি ?

হাদিস অনলাইন ?

আমাক এবং কুস্তুনতিনিয়া বিজয়ের বাকি আলোচনা

একটি আরবি শব্দ ডাবল ক্লিক করে তার অভিধান এন্ট্রি দেখায়
হাদিস - ১৩১৩
হযরত শুরাইহ ইবনে উবাইদ রহঃ থেকে বর্নিত, তিনি বলেন:
আমি হযরত কাব রহঃ কে বলতে শুনেছি, বায়তুল মোকাদ্দাসের ধ্বংসের পর পরই কুস্তুনতিনিয়া আবাদ করা হবে। সেখানে অনেকে সম্মানিত এবং বড়ত্ব প্রদর্শন করবে, অতপর তাদেরকে বড়ত্ব প্রদর্শনকারী হিসেবে আহ্বান করা হবে। তখন সে বলবে আমার প্রভুর আরশ পানির উপর স্থাপন করা হয়েছে এবং আমিই সেটাকে পানির উপর প্রতিষ্ঠা করেছি।
অতঃপর আল্লাহ তাআলা কিয়ামতের পূর্বে আযাব দেয়ার ওয়াদা করেছেন। এরপর আল্লাহ তাআলা বলেছেন, আমি অবশ্যই তখন তোমার অলঙ্কার, তোমার কাপড় এবং উড়না ছিনিয়ে নিব এবং তোমাকে এমন এলাকায় ছেড়ে দিব সেখানে মোরগ পর্যন্ত ডাকবেনা। তোমার এলাকায় শিয়াল ব্যতীত কোনো জীবজন্তু আবাদ হবেনা। সেখানে কোনো গাছপালা, পাথর, ঘাস বলতে কিছুই থাকবেনা এবং তোমার উপর আমি তিন প্রকারের আগুন অবতীর্ন করব। এক প্রকারের আগুন হবে আলকাতরার, দ্বিতীয় প্রকারের হবে দিয়শলাইয়ের এবং তৃতীয় প্রকারের আগুন হবে পেট্রোলের। এবং আমি টেকো মাথা এবং উদ্ভিদ বিহীন ভূখন্ডের অধিকারী করে ছাড়বো। আসমানের নিচে জমিনের উপরে তোমার সাথে কেউ থাকবেনা। তোমার চিৎকার এবং আহাজারী কোথাও পৌছবেনা। এবং আসমানের উপর আধিষ্ঠিত থাকব। যেহেতু সে দীর্ঘ দিন থেকে আল্লাহর সাথে শিরক করে আসছিল এবং আল্লাহ তাআলা ব্যতীত অন্যের উপাসনায় লিপ্ত ছিল।
যে প্রতিবেশী তার সৌন্দর্যে পাগল হয়ে বারবার তাকে সূর্যের সাথে দেখতে চেয়েছিল সে এসে তোমার দরজায় করাঘাত করবে। যারা তার মালিকানাধীন ঘরের দিকে পায়ে হেটে আসতে চেয়েছিল তারা আর কখনো দূর্বল হবেনা। যেহেতু তারা সেখানে প্রায় বারোজন বাদশাহর সম্পদ প্রাপ্ত হবে প্রত্যেকের সম্পদে বৃদ্ধিই পেতে থাকবে কোনো ধরনের কমতি হবে না। সেই সম্পদ গরুর সমতুল্য হবে, আর কারো কারো সম্পদ হবে শিশার তৈরি ঘোড়ার সমতুল্য। যেগুলোর মাথার উপর পানি প্রবাহিত থাকবে।
তাদের সম্পদগুলো ঢালের উপর রেখে বন্টন করা হবে এবং কুড়াল দ্বারা সেটা কর্তন করা হবে। তারা এমন অবস্থায় দিনাতিপাত করতে গেলে হঠাৎ করে আল্লাহ তাআলার পক্ষ থেকে ওয়াদাকৃত আগুন এসে যাবে। এ অবস্থা দেখে তারা সাধ্যমত মাল-সামানা বহন করে নিয়ে যাবে এবং ফরকাদুনা নামক স্থানে সেটা বন্টন করবে।
অতঃপর শামের দিক থেকে হঠাৎ সংবাদ এসে পৌছবে যে, দাজ্জালের আবির্ভাব হয়েছে, একথা শুনে তারা হাতের সবকিছু ছুড়ে ফেলে দিয়ে দৌড় দিবে এবং শামে পৌছে জানতে পারবে সংবাদটি প্রতারনা এবং মিথ্যা ছিল।
হাদীস বর্ননাকারী আবু আইউব রহঃ বলেন, শব্দটি হচ্ছে, নাফজাতুন। তিনি আরো বলেন, ঐ সময় যারা নিজেদের ঘরের দেয়ালের উপর দাড়াবে, তারা ভয়ে আতংকে প্রশ্রাব করে দিবে।
সংরক্ষণ করুন বাতিল
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৩১৩ ]
___________________________________
নাঈম বিন হাম্মাদ -
আমার জন্য Shurayh থেকে Oirtah জন্য আবু আইয়ুব বলা গোড়ালি 
এবং বাকি এর ইবন আল - ওয়ালিদ ও আবু 
সাফওয়ান ইবনে আমর থেকে marauding আমাদের বলেছেন Shurayh বিন Obeid বলেন 
আমি শুনেছি গোড়ালি কালি বলতে হয় নামক 
কনস্টান্টিনোপল 
নষ্ট ঘর এর পবিত্র Vtazzat এবং Tjbert 
Vdeit অহংকারী 
বললেন করার হতে সিংহাসন এর আমার পালনকর্তা ছিল 
নির্মিত পানি 
এ তৈরি হয়েছিল পানি 
তিনি গড অলমাইটি প্রতিশ্রুত সামনে শাস্তি দিন এর কেয়ামতের , তিনি বলেন 
Onzaan Halik এবং Harirk এবং Khmirk এবং Otrkink করার চিত্কার না আপনি পূর্ণ না করা আছে এর শুধুমাত্র শিয়ালের 
এবং গাছপালা শুধুমাত্র পাথর ও Prosopis এবং 
আপনি তিনটি অগ্নিতে Onzln করতে এর 
পিচ এবং গন্ধক আগুন থেকে আগুন 
থেকে আগুন তেল এবং Otrkink Gelh Qraa স্বর্গ কিছু করতে প্রতিরোধ করা হবে না এবং তারা আপনার ভয়েস পৌঁছানোর 
এবং আপনার ধোঁয়া এবং আমি স্বর্গে আছে আমি দীর্ঘকাল ধরে আল্লাহ্র সাথে এটিকে সংযুক্ত করেছি এবং অন্যদের পূজা করছি, যাতে তারা এতে প্রবেশ করতে পারে
পরবর্তী করার কি Akdn তারা দেখে সূর্য Hassanhn থেকে তোমাদের মধ্যে না Aadzn 
আপনি হেঁটে ঘর এর 
টালি তাহাদেরই , 
আপনি একটি পাবেন 
ধন এর বারো রাজা 
এটা সর্বাঙ্গে রাজাদের সরে যায় না কেন 
তে এটি থেকে মূর্তি এর গরু বা তামা সহ হচ্ছে ঘোড়া - সভাপতিত্বে পানি 
Vliqtzmn কোষাগার এজেন্ট 
Balotersh 
এবং টুকরা Balvas তোমরা তাঁকে এমনকি Ajlkm আগুন যে ঈশ্বর প্রতিজ্ঞা উপর 
Vtanmlon তুমি কি করতে পারেন তাদের কোষাগার 
Tqtzmoh Balvrkdouna পর্যন্ত 
Viotekm শাম আসেন যে 
খ্রীষ্টশত্রু বের হয়ে এসেছেন Vtervdon কি হয় আপনার হাতে । যদি বার্তা শাম তুলে ধরা আপনি তা খুঁজে পেতে মধ্যে নিরর্থক, কিন্তু 
Nfjh lied 
বললেন আবু আইয়ুব Nfjh বলেন Alvrkdouna বলেন একটি মানুষ তার বাড়ি থেকে নয় 
থেকে একটি Jdrick হাঁ প্রাচীরের আপনাকে
হাদিস - ১৩১৪
হযরত কাব রহঃ বলতেন, যখন সবচেয়ে বড় যুদ্ধ, অর্থাৎ, রোমের যুদ্ধ সংগঠিত হবে, তখন তোমাদের এক তৃতীয়াংশ পলায়ন করে রোম বাহিনীর সাথে সম্পৃক্ত হয়ে যাবে, দ্বিতীয় আরেক তৃতীয়াংশ বেরিয়ে পড়বে। আল্লাহ তাআলা তোমাদেরকে নিরাপদে রাখবেন। তবে আল্লাহ তাআলা তাদের অবশিষ্টদের প্রতি এক প্রকারের পাখি প্রেরন করবেন, যারা তাদের চোখ উপড়ে ফেলবে। ফলে বাকি লোকজন বিকৃতাবস্থায় পড়ে থাকবে। হে আল্লাহর বান্দাগন! তোমাদের কেউ এমন অবস্থার সম্মুখিন হলে নিজেকে কাপুরুষতা থেকে বাচিয়ে রেখে যেন পালানের নিচে এসে প্রবেশ করে। অথবা উক্ত পালানের খুটি শক্ত করে ধরবে এবং ধৈর্য্য ধারন করবে। যেহেতু আল্লাহ তাআলা এ তৃতীয় দলকে অবশ্যই সাহায্য করবেন। এটা তখনই হবে যখন তোমাদেরকে রোম বাহিনী দুর্বল করে ফেলবে এবং তোমাদের প্রতি তারা লোভী হয়ে উঠবে। রোমীরা বলবে সকাল হলেই তোমরা নিজেদের ঘোড়ার উপর আরোহন করতঃ মুসলমানদেরকে পিসে মাটির সাথে মিশে দাও, যেন এ জমিনে কেউ কখনো ইসলামের কথা বলতে না পারে। তার কথা শুনে আল্লাহ তাআলা খুবই রাগান্বীত হবেন এক পর্যায়ে চতুর্থ আসমানে থাকা আল্লাহর হাতিয়ারও আযাবকে সম্মোধন করে বলবেন, এ পৃথিবীতে একমাত্র আমার দ্বীন ইসলাম এবং আমিই বাকি থাকব। আর ইয়ামান বাসিও কাইস বাকি থাকবে। আজ আমি আমার বান্দাদেরকে অবশ্যই সাহায্য করব। আল্লাহ তাআলার দুই হাত দুই কাতারের উপর থাকবে। উক্ত হাতকে কোনো গোত্রের উপর প্রসারিত করলে তারা পরাজিত হয়ে পৃষ্টপ্রদর্শন করতে বাধ্য হয়। হে ইয়ামান বাসিরা! তোমরা কাইসের সাথে শত্রুতা পোষন করোনা। হে কাইস! তোমরা ইয়ামান বাসিকে ভালোবাসো। যেহেতু কাইস বাসির ব্যক্তিগতও চারিত্রিকভাবে উত্তম মানুষদের অন্তর্ভুক্ত। কসম সে সত্তার যার হাতে কাবের প্রান, হে ইয়ামান বাসিরা! কাইসও তোমরাই সেদিন ইসলাম ধর্মের উপর পুরোপুরি অবিচল থাকবে। সেদিন কাইস গোত্রের লোকজন অনেক দুশমনকে হত্যা করলেও দুশমনের কেউ তাদেরকে হত্যা করতে পারবেনা। তেমনিভাবে বনী আযদও শত্রুদেরকে হত্যা করবে, তবে তাদেরও কতক লোক মারা যাবে। আর লাখমও জুযাম গোত্রের লোকজনও শত্রুদেরকে হত্যা করবে এবং শত্রুরা তাদের কাউকে হত্যা করতে পারবেনা।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৩১৪ ]
___________________________________
নাঈম বিন হাম্মাদ - 1314
সাফওয়ান বললেন Shurayh বিন Obeid সালেম ইবনে এবং আমাকে বলেছিলেন 
আমের Aljbairan 
যে কাবা যদি মহান মহাকাব্য মহাকাব্য রোমান পালিয়ে বলছিলেন থেকে 
আপনি একটি গ্রুপ Vlhakt শত্রু অন্য থাবা Voslmokm ঈশ্বর গ্রস্ত এসে সঙ্গে, একে অপরের এবং যারা বামদিকে পাঠানো 
তাদের একটি পাখি তাদের দৃষ্টিশক্তি অক্ষরগুলো এবং বিশ্বস্ত বান্দাদের তারপর Althelp অবশিষ্ট এর ঈশ্বর রয়ে 
বুঝতে পারি যে আপনি 
নিজেকে Vglapth পনির 
Akavh অধীনে Vladechl বা অধিষ্ঠিত একটি মেরু Vstath এবং রোগীর, ঈশ্বর 
সর্বশক্তিমান নাসের Althelp অবশিষ্ট । যে যখন Astdafkm হয় রোমানদের এবং আপনি লোভ , 
মালিক বলছেন 
রোমানরা যদি আপনার উপর Farcbwa হয়ে পশুদের তারপর Ootahm এবং মেলামেশার একই খুর দিয়ে এক এই উল্লেখ না 
পৃথিবীতে ধর্ম কখনোই মানে ইসলাম 
বলেন ঈশ্বর সম্পর্কে রাগ হয় তাই, এমনকি তাতে রয়েছে আকাশ 
চতুর্থ যেখানে ঈশ্বর বলেছেন অস্ত্র ও শাস্তি 
বাম শুধুমাত্র আমি ধর্মীয় ইসলাম ও মানুষ এর ইমেন কায়েস
এবাদি দিন ওয়েড Onasrn করার এর বাংলাদেশের মধ্যে ঈশ্বরের যদি তাদের আশা যারা raws ছিল তাদের বিশ্বস্ত 
মানুষ এর ইমেন Tbgadwa আল-Qisa হে কায়েস পছন্দ মানুষ এর , আল Qisa মানুষ ইমেন বিকল্প এর Onevsa 
এবং সুনীতি যা হয় একই গোড়ালি সঙ্গে তার হাত সম্পর্কে Ajald না ধর্ম এর ইসলাম যে প্রতিদিন , কিন্তু আপনি , হে মানুষ এর ইমেন 
এবং কায়েস কায়েস যে প্রতিদিন শত্রুদের বধ, খুন ও Alozd শত্রুদের হত্যা হত্যা বা বলেন , 
কিংবা হত্যা Lkhm শত্রুদের হত্যা কুষ্ঠ হত্যা করো না
হাদিস - ১৩১৫
হযরত কাব রহঃ থেকে বর্নিত, তিনি বলেন, সাবা এবং কাযের এর সন্তানদের হাতে কুস্তুনতিনিয়া নগরীর বিজয় হবে।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৩১৫ ]
___________________________________
নাঈম বিন হাম্মাদ - 1315
সাফওয়ান বলেন এবং আমাকে বলেছিলেন যে 
শাহেদ বিন ওবায়দ ও আবু মুথান্না কাবা 
থেকে বলেছিলেন যে সবার পুত্র কনস্ট্যান্টিনোপল এবং একটি 
ভিলেনের পুত্র বিজয়
হাদিস - ১৩১৬
বিশিষ্ট তাবেয়ী হযরত কাব রহঃ থেকে বর্নিত, তিনি বলেন, অতিসত্তর ইয়াফা এলাকার ঘটনা সংঘঠিত হবে, যার মধ্যে মুসলমানগন তাদেরকে হত্যা করবে। যে যুদ্ধটি লাগাতার বুধ, বৃহস্পতি, শুক্র, শনিও রবিবার পর্যন্ত চলতে থাকবে। এরপর সোমবার দিন আল্লাহ তাআলা মুসলমানদেরকে বিজয়ী করবেন। হাদীস বর্ননাকারী হযরত সফওয়ান রহঃ বলেন, আমি এহাদীসটি সম্বন্ধে হযরত খালেদ ইবনে কায়সানকে জিজ্ঞাসা করলে তিনি বলেন, আমার কাছে আমার পিতা হাদীস বর্ননা করেছেন, তিনি বলেন, ইয়াফা নগরীতে যখন আল্লাহ তাআলা রোম বাহিনীকে পরাজিত করবেন তখন তারা সেখান থেকে চলে গিয়ে আমাক নামক স্থানে সংঘটিত হবে। অতঃপর সে এলাকায় মারাতœক এক যুদ্ধ হবে।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৩১৬ ]
___________________________________
নাঈম বিন হাম্মাদ - 1316
আমাদের বলুন Shurayh বিন Obeid জন্য সাফওয়ান বাকি 
থেকে গোড়ালি বলেন করার করা 
ভোজের আয়োজন 
জাফা 
মুসলমানদের যুদ্ধ হয় বুধবার, বৃহস্পতিবার, শুক্রবার, শনিবার এবং রবিবার , এবং তারপর 
ঈশ্বর প্রর্দশিত 
সোমবার মুসলমানদের জন্য , 
সাফওয়ান বললেন , তিনি সম্পর্কে জিজ্ঞাসা খালিদ বিন কিষাণ বলেন যে , আমাকে বলেছে আমার পিতা বললেনঃ 
যদি আল্লাহ রোমানরা পরাজিত 
জাফা 

আপ পদচারণা করতে দেখা 
অতল 
হইবে একটি মহাকাব্য কাহিনী এর 
গভীরতা
হাদিস - ১৩১৭
হযরত কাব রহঃ থেকে বর্নিত, তিনি বলেন, অতিসত্তর তোমরা কায়সারিয়াতুর রোম আবাদ করবে তখন মুসলমানগন সে এলাকার পাহাড় গুলোকে রশিও পরিমাপের স্কেলের বিনিময়ে বিক্রি করবে। সে সময় পৃথিবীতে শান্তি এবং নিরাপত্বা এমন ভাবে বিরাজ করবে জনৈকা মহিলা একাকীভাবে তার গাধার উপর আরোহন করে বায়তুল মোকাদ্দাসের উদ্দেশ্যে রওয়ানা হবে। একমাত্র তার সাথে পিছনে পিছনে তার কুকুরই আসবে। সে মহিলা লোকজনকে জিজ্ঞাসা করবে বায়তুল মোকাদ্দাসের সহজ রাস্তা কোনটি। এভাবে চলার পথে সে কাউকে ভয় করবেনা। লোকজনের কাছ থেকে কোনো প্রকারের আশংকা বোধ করবেনা, এমনকি হাতে কোনো লাঠিও রাখবেনা, যেটা থাকবে এক সময় সেটাকেও ফেলে দিবে। একমাত্র আল্লাহ তাআলা ছাড়া আর কাউকে ভয় করবেনা।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৩১৭ ]
___________________________________
নাঈম বিন হাম্মাদ - 1317
Shurayh বিন Obeid থেকে আমাদের আবদুল কুদ্দুস সাফওয়ান বলুন 
থেকে গোড়ালি বলেন 
Stamr 
কৈসরিয়া রোমান 
পর্যন্ত মুসলমানদের বিভক্ত Marjha দড়াদড়ি এবং অস্ত্র যাতে যে নারী চান করতে বাইরে যেতে 
Hmerha নিরাপদ জেরুজালেম অনুসৃত দ্বারা তার কুকুর কোনো পাথ জেরুজালেম কাছাকাছি জিজ্ঞাসা হল না 
ভয় এর কিছু এবং নিরাপদ মানুষ লাঠি পেয়েছি
হাদিস - ১৩১৮
বিশিষ্ট সাহাবী হযরত আব্দুল্লাহ ইবনে আমর আবনুল আস রাযিঃ থেকে বর্নিত, তিনি বলেন, নিঃসন্দেহে তোমাদেরকে রোমবাহিনী ছিন্নভিন্ন করতে করতে বের করে দিবে। এমনকি তোমাদেরকে লাখমও জুযাম এলাকায় ছাউনি ফেলতে বাধ্য করবে। একপর্যায়ে তোমাদেরকে পৃথিবীর একপ্রান্তে কোনঠাসা হতে বাধ্য করবে।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৩১৮ ]
___________________________________
নাঈম বিন হাম্মাদ - 1318
সম্পর্কে আমাদের বলুন বাকি এর হাতেম বেন যুদ্ধ থেকে সাফওয়ান 
আব্দুল্লাহ ইবনে আমর ইবনুল থেকে - আস Takrcengm রোমান অবিশ্বাস অবিশ্বাস Jordonkm পর্যন্ত বলেন 

Khmao করবেন] কুষ্ঠ এমনকি Adjaloncm এর Tunpop মধ্যে পৃথিবী
হাদিস - ১৩১৯
হযরত কাব রহঃ থেকে বর্ণিত, তিনি বলেন আল্লাহ তাআলা শামবাসিদেরকে সাহায্য সহযোগিতা করবেন, যখন রোম বাহিনীর সাথে তাদের মারাতœকক যুদ্ধ হবে। উক্ত যুদ্ধে রোম বাহিনীর আক্রমনে আহলে ইয়ামনের মুসলমানগন দুই দফায় আক্রান্ত হবে এবং প্রথম দফায় সত্তর হাজার এবং দ্বিতীয় দফায় প্রায় আশি হাজার ইয়ামানী মারা যাবে। তাদের তলোয়ার বহনকারী আলÑমাসাদ বলবে, আমরা হলাম সিঃসন্দেহে আল্লাহর বান্দা এবং আল্লাহর দুশমনদের সাথে আমরা যুদ্ধ করব। আল্লাহ তাআলা তাদের উপর থেকে মহামারী, দূর্ভিক্ষ এবং বালাÑমসিবত উঠিয়ে নিবেন। ফলে ঐ সময় শাম নগরী থেকে নিরাপদও ভালো আবাহওয়া বিশিষ্ট কোনো এলাকা থাকবেনা। অথচ কিছুুদিন আগেও শাম দেশ ছিল মহামারী, দুর্ভিক্ষও নানান ধরনের বালাÑমসিবতে জর্জরিত শহর
হাদীস বর্ননাকারী হযরত কাব রহঃ বলেন, নিঃসন্দেহে পশ্চিমাদের মধ্যে একজন বাদশাহ হবেন, যে বাদশাহ শামবাসিদেরকে এক হাজার বার উৎখাতের ওয়াদাবদ্ধ হবে। তার গননা শেষ হলে আল্লাহ তাআলা তার প্রতি তীব্র বাতাস প্রবাহিত করবেন, এক পর্যায়ে তারা উক্ত এলাকা ত্যাগ করে চলে যেতে থাকবে এবং তাদেরকে আল্লাহ তাআলা আক্কা এবং নাহরের মধ্যবর্তী এলাকায় আছড়ে ফেলবেন, অতঃপর সকল সৈন্য একে অপরকে সাহায্য করতে ব্যস্ত হয়ে যাবে। বর্ননাকারী বলেন, আমি জিজ্ঞাসা করলাম, সে নাহারটি কোনটি। জবাবে তিনি বললেন, মেহরাকুল আরনাত, অর্থাৎ হিমস নগরীর একটি ছোট্র নদী। আর উক্ত নদী আকরা এবং মসীসা স্থানের মধ্যবর্তী এলাকা দিয়ে প্রবাহিত হয়ে থাকে।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৩১৯ ]
___________________________________
নাঈম বিন হাম্মাদ - 1319
আমাদের বলুন বাকি আমাদের আবদুল বলেন 
পবিত্র সাফওয়ান আমের পুত্র এর আবদুল্লাহ আবু ইয়ামান Alhozna 
থেকে গোড়ালি বলেন 
যে 
ঈশ্বর প্রসারিত মানুষ এর সিরিয়া 
যদি রোমানদের মধ্যে যুদ্ধ Bkotaiotain সত্তর হাজার ব্যাচ মহাকাব্য 
ব্যাচ আশি হাজার 
এর মানুষ এর ইমেন 
গোত্র তলোয়ার Masad ডাউনলোড 
বলতে আমরা হয় ক্রীতদাসদের এর ঈশ্বর কি প্রকৃতই 
সত্যিই শত্রুদের যুদ্ধ ঈশ্বর 
তুলে ঈশ্বরের আশীর্বাদ তাদের প্লেগ 
এবং aches এবং Aloossab এমনকি 
না একটি দেশ 
থেকে সুস্থ লেভান্ট 
এবং কি হতে এটা ছিল ঐ aches এবং প্লেগ এর লেভান্ট অন্যান্য 
গোড়ালি বলেন , 
এবং 
যে মধ্যে মরক্কো ভেড়া রাজা বহন 
রাজাদের 
জন্য মানুষ এর শাম হাজার উত্পাটন 
এবং আরো প্রস্তুত দ্বারা 
ঈশ্বর প্রেরিত 
তাদের কাছ থেকে Qasfa বাতাস 
পর্যন্ত অনুমোদিত ঈশ্বর এক এবং নদী এবং নদী মধ্যে যেতে হবে, এবং তারা লজ্জিত হবে সব
Jindan তালিকাভুক্ত প্রসারিত 
তাই আমি তাকে জিজ্ঞেস করলাম কি নদী 
Mhrac Alornt হোমস নদী ও Mhrach মধ্যে বলেন 
আকরা Mopsuestia করতে
হাদিস - ১৩২০
হযরত বশির ইবনে আব্দুল্লাহ ইবনে ইয়াছার রহঃ থেকে বর্নিত, তিনি বলেন, বিশিষ্ট সাহাবী হযরত আব্দুলাহ ইবনে বুসর রাযিঃ আমার কান ধরে বলেন, হে ভাতিজা! হয়তো তুমি কুস্তুনতিনিয়া নগরীর বিজয়ের যুগ পেয়ে থাকবে। যদি তুমি সে এলাকার বিজয় পেয়ে যাও তাহলে সেখানের কোনো গনীমত গ্রহন করা থেকে বিরত থাকবে। কেননা কুস্তুনতিনিয়ার বিজয় এবং দাজ্জালের আবির্ভাবের মাঝখানে মাত্র সাত বৎসরের পার্থক্য থাকবে।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৩২০ ]
___________________________________
নাঈম বিন হাম্মাদ - 13২0
আমাদের বলুন বাকি এর marauding বশির বিন আব্দুল্লাহ বিন আবু 
বাম তিনি 
আব্দুল্লাহ বিন গোপন Muzani মালিক নেন এর রসূল এর আল্লাহ , শান্তি তাঁর কানের উপর হতে 
বলেন , হে পুত্র এর আমার ভাই , বুঝতে পারে উদ্বোধনী এর কনস্টান্টিনোপল 
হুঁশিয়ার যে আমি Gnimetk ছেড়ে খোলা উপলব্ধি 
তাদের 
মধ্যে খোলা এবং প্রস্থান খ্রীষ্টশত্রু 
সাত বছর
হাদিস - ১৩২১
হযরত ইয়াহ ইয়া ইবনে আবু আমর রহঃ থেকে বর্নিত, তিনি এরশাদ করেন, রোম বাহিনী চল্লিশদিন পর্যন্ত বায়তুল মোকাদ্দাসে নাকুস স্থাপন করবে। এক পর্যায়ে মুসলমান এবং রোম বাহিনী ত’র পাহাড়ের পার্শে অবস্থিত এক পাহাড়ের পাদদেশে যুদ্ধে জড়িয়ে পড়বে। এযুদ্ধে রোম বাহিনীর কাছে মুসলমানগন পরাজিত হবে। তাদেরকে ধাওয়া করে আরীহা নামক এলাকা পর্যন্ত নিয়ে যাবে এরপর তাদেরকে দাউদ গেইট দিয়ে বের করে দিবে। এভাবে তারা মুসলমানদেরকে হত্যা করতে করতে সমুদ্রের পার্শে নিয়ে যাবে। যার কারনে বায়তুল মোকাদ্দাসের নিকটে একটি এলাকার নাম কিয়ামত পর্যন্ত আওদিয়াতুল জীফ হিসেবে উল্লেখ থাকবে।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৩২১ ]
___________________________________
নাঈম বিন হাম্মাদ - 13২1
Damra ইয়াহিয়া ইবনে আবী আমর 
Alsabana বলেন 
Tdharbn রোমান ঘন্টাধ্বনি বাড়িতে এর পবিত্র চল্লিশ দিন 
পর্যন্ত তিনি প্রচারিত পূরণ 
মুসলমান ও প্রচারিত রোমান মাউন্ট উন্নত ZETA 
তারপর রোমান Vijrgeonhm উপর মুসলমানদের জন্য raws হতে 
থেকে দরজা এর Orah এবং 
তারপর তাদের তাড়িয়ে দরজা এর ডেভিড এখনও তাদের হত্যা করা হয় 
যতক্ষণ না তারা তাদের সমুদ্র পৌঁছানোর হয় 
তাদের মধ্যে বলা যিরূশালেম কিয়ামতের দিন পর্যন্ত উপত্যকার উপত্যকা
হাদিস - ১৩২২
হযরত আবু কাবীল রহঃ একাধিক সাহাবায়ে কেরাম রাযিঃ থেকে বর্নিত, তারা বলেন, মুসলমান এবং রোম বাহিনীর মাঝখানে মারাতœক এক যুদ্ধ সংগঠিত হবে, এক পর্যায়ে মুসলমানগন তাদের প্রতি বিশাল এক বাহিনী কুস্তুসতুনিয়া নামক এলাকায় প্রেরন করবে। যারা মুসলমানদের সাহায্যের জন্য এগিয়ে আসবে। তখন হঠাৎ করে পিছন থেকে রোম বাসিরা মুসলমানদের উপর আক্রমন করে বসবে। অতঃপর মুসলমান এবং রোম বাহিনী সাজ সাজ রব নিয়ে একে অপরের উপর হামলা করবে। আল্লাহ তাআলা মুসলমানদেরকে রোম বাহিনীর বিরুদ্ধে সাহায্য করবেন এবং রোম বাহিনী নির্মম ভাবে পরাজিত হবে। এহেন পরিস্থিতিতে রোম বাহিনী থেকে একজন লোক দাড়িয়ে বলবে ক্রুশের জয় হয়েছে। তার কথা শুনে জনৈক মুসলমান চিৎকার করে বলে উঠবে, ক্রুশ নয় বরং আল্লাহ তাআলারই জয় হয়েছে। উভয়দল একে অপরের প্রতি তেড়ে আসবে এক পর্যায়ে মুসলমান লোকটি রোমী সৈন্যের দিকে এগিয়ে তার ঘাড়ে আঘাত করবে। একাজটি দেখার সাথে সাথে রোম বাহিনী ক্ষিপ্ত হয়ে উঠবে। এবং কুস্তুনতিনিয়া এলাকার দিকে ফিরে যাবে এবং ঈমান গ্রহন করবে। মুমিন হওয়া সত্ত্বেও যখন তাদেরকে হত্যা করা হবে। তাদের হত্যা করা দেখে তারা অনুধাবন করবে যে, নিশ্চয় মুসলমানগন তাদের প্রত্যেককে হত্যা করে ফেলবে তখন রোম বাহিনী আশিজন লোকের নেতৃত্বে বিশাল এক কাফেলা প্রেরন করবে এবং প্রত্যেকের অধীনে বারো হাজার সৈন্য থাকবে। হাদীস বর্ননাকারী আবু কাবীল রহঃ বলেন, রোম বাহিনী প্রকাশ করলে তাদের সাথে মোকাবেলা করার কারো শক্তি থাকবেনা। সেদিন তাদের সাথে তুর্কী, বারজান এবং সাকালিবা সহ অনেক সৈন্য থাকবে।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৩২২ ]
___________________________________
নঈম বিন হাম্মাদ
Hdtnna Rushdin ইবনে Hiệp এবং লাইস ইবনে সাদ আবু এগিয়ে 
জন্য আরো এর একাধিক মালিকদের এর 
রসূল এর আল্লাহ , সা , তিনি বলেন করার মধ্যে হতে মুসলমান ও রোমান সাময়িক যুদ্ধবিরতি যে 
পাঠায় 
মুসলমানদের কাছে তাদের একটি সেনা থেকে কনস্টান্টিনোপল গোথা তাদের হতে 
তাদের পেছনে Viotehm শত্রু , তাদের যুদ্ধ 
আসা আউট এর তাদের মুসলমান ও তাদের সাথে রোমানদের Vinzarethm ঈশ্বর জন্য তাদের এবং Ahsmonhm এবং তাদের হত্যা , 
বলছেন কেউ রোমানদের জিত ক্রস 
এবং বলেছেন যে ব্যক্তি মুসলমান বলেন , কিন্তু আল্লাহ prevailed 
লোক যে তাদের মধ্যে দূরে সরে একটি মুসলিম যারা হইবে টার্কি গলায় Vtntekt রাম এমনকি আঘাত 
যদি তারা কনস্টান্টিনোপল ফিরে আসেন , এবং বিশ্বাস তাদের হত্যা এবং তারা হয় নিরাপদ যদি তারা জানত নিহত যে Almslemen 
Satlponhm রক্ত Vijr অধীনে রোমান আশি Gaaah প্রতিটি Gaaah বার হাজার 
আবু যেমন যদি রোমানরা ছিল না শক্তি এর মানুষ তাদের পর 
এবং তাদের সঙ্গে যে দিন তুর্কী
ব্র্যান এবং স্কালোপ
হাদিস - ১৩২৩
বিশিষ্ট সাহাবী হযরত আব্দুল্লাহ ইবনে আমর রাযিঃ থেকে বর্নিত, রাসূলুল্লাহ সাঃ এরশাদ করেন, যখন দুই আতীক অর্থাৎ, আতীকুল আরব, আতীকুর রোম পৃথিবীর উপর নিজেদের আধিপত্য বিস্তার করতে থাকবে তখন উভয়ের মাঝে মারাতœক যুদ্ধ সংগঠিত হতে থাকবে।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৩২৩ ]
___________________________________
নাঈম বিন হাম্মাদ
আমাদের আবু থেকে যেমন ইবনে Rushdin Lahee'ah সম্পর্কে আমাদের বলুন 
আব্দুল্লাহ 
ইবনে আমর , আল্লাহ সন্তুষ্ট হতে পারে সঙ্গে তার রসূল এর আল্লাহ , সা যদি রাজা Aotaiqan 
পুরাতন আরব ও প্রাচীন রোমান মহাকাব্য ছিল হাত
হাদিস - ১৩২৪
হযরত মুহাজির ইবনে হাবীব রাযিঃ থেকে বর্নিত, তিনি বলেন, রাসূলুল্লাহ সাঃ এরশাদ করেছেন, হিরাক্লিয়ার্সের পঞ্চম বংশের এক নেতৃত্বে মারাতœক যুদ্ধ সংগঠিত হবে। প্রথমে হিরাকল নের্তত্ব দিবে, এরপর তার ছেলে কিস্তাহ ইবনে হিরাকল, এরপর তার ছেলে কুস্তুনতিন ইবনে কিস্তাহ, এরপর তার ছেলে ইস্তেপার ইবনে কুস্তুনতিন। অতঃপর হেরাকলের বংশধর থেকে রোমের এক বাদশাহ আতœপ্রকাশ করবে, যে লাবুন এলাকার শাসক হবে। এরপর তার ছেলে শাসক হবে, অতঃপর ঐ ছেলের হাতে ক্ষমতা আসবে সে বাদশাহর যুগে কঠিন যুদ্ধ হবে।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৩২৪ ]
___________________________________
নাঈম বিন হাম্মাদ - 13২4
আমাদের কাছ থেকে আবু marauding বলুন 
Oirtah ইবনুল - মুহাজির বিন হাবিব থেকে মুনযির 
যে রসূল এর আল্লাহ , সা , বলেন 
প্রতিটি হারকিউলিস পঞ্চম যিনি তাঁর হাতে রয়েছে 
হারকিউলিস মহাকাব্য মালিক এবং তারপর তাঁর ছেলে 
পরে তাকে ধরা আপ তাঁর ছেলে হারকিউলিস ও তাঁর পুত্র কনস্টান্টটাইন এর পুত্র ধরা আপ তার পরে তার Astefar ছেলে ছেলে এর কনস্টান্টটাইন এবং তারপর বাইরে গিয়ে রাজা এর 
বন প্রতিটি হারকিউলিস এবং তার পরে তার ছেলে থেকে রোমানরা , এবং রাজা থেকে ফিরে আসবে প্রতিটি হারকিউলিস পঞ্চম , যারা 
তার হাত মহাকাব্য হয়
হাদিস - ১৩২৫
বিশিষ্ট সাহাবী হযরত আব্দুল্লাহ ইবনে আমর ইবনুল আস রাযিঃ থেকে বর্ণিত, তিনি বলেন, রাসূলুল্লাহ সাঃ এরশাদ করেছেন, আল্লাহ তা’আলা এ পৃথিবী সৃষ্টি করার পরে আসমানের নিচে সর্বপ্রথম এবং সকলের চেয়ে উত্তম যাকে হত্যা করা হয়েছে, সে হচ্ছে হাবিল ইব্নে আদম, যাকে তার ভাই কাবিল জুলুমের মাধ্যমে হত্যা করেছে। এরপর হচ্ছেন ঐসকল আম্বিয়ায়ে কেরাম যাদেরকে সেসব উম্মতের প্রতি প্রেরণ করা হয়েছিল তারা হত্যা করেছে। যখন তারা তাদের উম্মতকে একথা বলেছেন, আমাদের সকলের প্রভূ হচ্ছেন, আল্লাহ তা’আলা তোমরা সকলে তার ডাকে সাড়া দাও।
এরপর হচ্ছেন, ফেরআউনের পরিবারের মু’মিন লোকজন, এরপর হচ্ছেন, সুরায়ে ইয়াসিনে উল্লেখকৃত হওয়ারী। অতঃপর হযরত হামযা রাযিঃ এরপর বদর যুদ্ধে শহীদ হওয়া সাহাবায়ে কেরাম। অতঃপর ঔহুদ যুদ্ধে শহিদ হওয়া সাহাবায়ে কেরাম। তারপর হুদায়বিয়ার শহীদগণ, অতঃপর আহযাব যুদ্ধের সাহাবাগণ এরপর হুনাইন যুদ্ধে অংশগ্রহণকারী সাহাবায়ে কেরাম। এরপর রসূলুল্লাহ সাঃ এর ইন্তিকালের পর যাদেরকে খারেজীগণ হত্যা করবে। যে খারেজীগন মারাত্মক অপরাধের কাজে জড়িত ছিল। এরপর আল্লাহ্র রাস্তায় যুদ্ধরত মুজাহিদগণের যে কেউ হতে পারে। অতঃপর রোম বাহিনীর সাথে যুদ্ধ সংগঠিত হবে। উক্ত যুদ্ধে শহীদ হওয়া লোকজন বদর যুদ্ধে শহীদ হওয়া সাহাবায়ে কেরামের সমতুল্য হবে। এরপর তুর্কীদের সাথে যুদ্ধ হবে, তাদের শহীদগণ ওহুদ যুদ্ধের শহীদগণের সমতূল্য হবে। অতঃপর দাজ্জালের সাথে ব্যাপক যুদ্ধ হবে। সেই যুদ্ধের শহীদগণ হবে হুদাইবিয়ার শহীদগণের সমতুল্য।  এরপর হবে ইয়াজুজ-মাজুজের সাথে যুদ্ধ, উক্ত যুদ্ধে যারা শহীদ হবেন তারা আহযাবের শহীদের সমতুল্য হবে। এরপর হবে ব্যাপক যুদ্ধ যার শহীদগণ হবেন হুনাইনের শহীদের সমপরিমান হবে। এসব যুদ্ধের পর মুসলমানদের মধ্যে কিয়ামত পর্যন্ত কোনো যুদ্ধ আর হবেনা।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৩২৫ ]
___________________________________
নাঈম বিন হাম্মাদ - 13২5
আমাদের বলুন একটি মুসলিম বেন আলীর এর আব্দুল্লাহ ইবনে থেকে দামেস্ক 
আবু Mudlij থেকে Saa'ib 
হযরত আবদুল্লাহ ইবনে আমর , আল্লাহ সন্তুষ্ট হতে পারে সঙ্গে তার , তিনি বলেন রাসূল এর আল্লাহ শান্তি বর্ষিত হোক 
আল্লাহর উপর হতে হবে এবং মই 
সেরা মৃত নিহত 
অধীনে ছায়া এর বরাবর আকাশ সৃষ্টি এর সর্বশক্তিমান ঈশ্বরের নির্মিত প্রথম এর যাদের আবেল 
যারা ছিল নিহত দ্বারা কেইন অবিচার dreaded এবং তারপর নিহত নবী যারা তাদের জাতির দূত নিহত করার তাদের 
যখন তারা আমাদের প্রভু ঈশ্বর বলেছেন নামক করার তাঁকে এবং তারপর একটি ফেরাউনের বিশ্বাসী , তারপর 
মালিক এর ইয়াসিন 
এবং হামজা ইবনে আবদুল 
মুত্তালিব তারপর বদর নিহত এবং তারপর এক নিহত এবং তারপর Hudaybiyah নিহত এবং তারপর মৃত দলগুলোর এবং তারপর স্বদেশে ফেরার আকুলতা নিহত এবং তারপর 
মারা আমাকে Kharijites দুর্বৃত্ত বেশ্যা তোমার হাত তারপর ফিরে যেতে বধ পর কি ঈশ্বরের ইচ্ছা 
মধ্যে মুজাহিদিন প্রক্রিয়া যাতে 
মহাকাব্য রোমান মৃত যেমন যেমন হত্যা বদর 
তারপর হতে একটি 
মহাকাব্য তুর্কী 
মৃত Kguetly প্রতিদিন এক এবং 
তারপর
Hudaybiyah উপর মহাকাব্য খ্রীষ্টশত্রু মৃত Kguetly এবং 
তারপর 
মহাকাব্য ইয়াজুজ 
ও মাজুজ তাদের মৃত Kguetly দলগুলোর 
এবং 
মহাকাব্য মহাকাব্য এর 
স্বদেশে ফেরার আকুলতা তাদের মৃত Kguetly এবং তারপর না 
ইমেজ উড়িয়ে দেওয়ার দিন তার দেশের মানুষের ইসলামের যে মহাকাব্য পরে হতে
হাদিস - ১৩২৬
হযরত আবু কুবাইল রহঃ কর্তৃক বর্ণিত, তিনি বলেন, যখন তোমরা রোমীদের সাথে যুদ্ধের মাধ্যমে বিজয়ী হবে, তখন তোমরা তার মাশরিকে অবস্থিত বড় এলাকায় প্রবেশ করবে। এরপর তোমরা সাত স্তর পাড়ি দিয়ে অষ্টম স্তরে অবশ্যই পৌঁছবে। যেহেতু তার নিচে হচ্ছে, হযরত মুসা আঃ এর লাঠি, হযরত ঈসা আঃ এর ইঞ্জিল এবং বায়তুল মোকাদ্দাসের অলংকারসমূহ।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৩২৬ ]
___________________________________
নাঈম বিন হাম্মাদ -
আমাদের বলুন 
ওয়ালিদ এবং Rushdin ইবনে আবু Hiệp বলেন , যেমন 
যদি রোমানদের Avctanm Vedjloa গির্জা 
পূর্ব গ্রেট দরজা 
পূর্ব 
Vaatdoa সাত স্ল্যাব এবং তারপর উপড়ে ফেলা অষ্টম 
তলায় অমান্য মূসা এবং গসপেল 
স্নেহপূর্ণ এবং কস্টিউম জেরুজালেম
হাদিস - ১৩২৭
হযরত আব্দুল্লাহ ইবনে আমর ইবনুল আস রাযিঃ থেকে বর্নিত, তিনি বলেন, কুস্তুতিনিয়া নামক এলাকাটির বিজয় এমন একজন লোকের হাতে হবে, যার নাম হবে আমার নামের মত।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৩২৭ ]
___________________________________
নাঈম বিন হাম্মাদ -
সম্পর্কে ইবনে Rushdin Lahee'ah আবু থেকে যেমন আমাদের বলুন 
আব্দুল্লাহ ইবনে ' আমর রা 
প্রর্দশিত কনস্টান্টিনোপল , একটি মানুষ যার নাম
হাদিস - ১৩২৮
হযরত আব্দুল্লাহ ইব্নে আমর ইবনুল আ’স রাযিঃ থেকে বর্ণিত, তিনি বলেন, তোমরা কুস্তুনতুনিয়া এলাকায় তিন ধরনের যুদ্ধ সংগঠিত হবে। এক প্রকারের যুদ্ধ হচ্ছে, যার মধ্যে তোমরা বিভিন্ন ধরনের বালা-মসিবতের সম্মুখিন হবে। দ্বিতীয় যুদ্ধ তোমাদের মধ্যে এবং তাদের সাথে চুক্তি হবে। এক পযার্য়ে মুসলমানরা সেখানে মসজিদ স্থাপন করবে এবং কুস্তুনতুনিয়ার পিছনে থেকে তাদের সাথে যুদ্ধ করবে এরপর তারা সেদিকে ফিরে যেতে থাকবে। তৃতীয় যুদ্ধ হচ্ছে, যা আল্লাহ তাআলা তোমাদেরকে তাকবীরের মাধ্যমে বিজয়ী করবে । যেটা মোট তিনবার হবে। এক তৃতাংশ বিরান হয়ে যাবে, আরেক তৃতাংশ ডুবে মারা যাবে। বাকি এক তৃতাংশ বিভিন্ন ধরনের ধাতব্য বস্তু বন্টন করবে।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৩২৮ ]
___________________________________
নাঈম বিন হাম্মাদ -
আমাদের বলুন Rushdin ইবনে Hiệp আবু যেমন 
আবু Firas 
আব্দুল্লাহ ইবনে আমর ইবনুল - আস বলেন 
Ngzon কনস্টান্টিনোপল তিন আক্রমণ 
হিসাবে জন্য 
আক্রমণ এর এক 
Vtlqon চাবুক এবং তীব্রতা এবং 
দ্বিতীয় বিজয় হবে 
তোমাদের ও তাদের শান্তি মধ্যে হতে এমনকি Eptna 
যেখানে মুসলমানদের মসজিদ এবং তাদের কনস্টান্টিনোপল আড়াল থেকে আক্রমণ , এবং তারপর ফিরে যাও এটা , 
এবং আক্রমণ 
তৃতীয় 
ঈশ্বর আপনার childproof তাকবীরে তিন তৃতীয়াংশ বার্ন হতে হবে এবং ধ্বংস করবে একটি তৃতীয় একটি এর তৃতীয় 
এবং ভাগ অবশিষ্ট তৃতীয় এজেন্ট
হাদিস - ১৩২৯
হযরত আবু কুবাইল ও ইয়াসীর ইবনে আমর রাযিঃ থেকে বর্ণিত, তারা বলেন ইস্কান্দারিয়া এবং আ’মাকের যুদ্ধ সংগঠিত হবে তাবারিস ইব্নে আসতিবইয়ান ইব্নে আখরাম ইবনে কুস্তুনতীন ইবনে হিরাকল এর হাতে। বর্ণনাকারী বলেন,আমি শুনতে পেয়েছি যে, নিঃসন্দেহে সে লোক হবে রোমবাসিদের অন্তর্ভুক্ত।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৩২৯ ]
___________________________________
নাঈম বিন হাম্মাদ - 13২9
শুধু হাঁটা সামনে আবু থেকে ইবনে Rushdin Lahee'ah সম্পর্কে আমাদের বলুন 
ইবনে ' আমর 
বলেন আলেকজান্দ্রিয়া ও মহাকাব্য এর গভীরতা এর আমার হাতে Tabars বিন Ostabaan বিন acromion পুত্র এর 
কনস্টান্টটাইন , ছেলে এর হারকিউলিস বলেছেন , এবং আমি শুনেছি ব্রোমিন
হাদিস - ১৩৩০
হযরত হ্ওায়াল ইব্নে শুরাহীল রহঃ থেকে বর্ণিত, তিনি বলেন, আমি হযরত আব্দুল্লাহ ইব্নে আমর ইবনুল আ’স রাযিঃকে বলতে শুনেছি, নিঃসন্দেহে আন্দালুসবাসি সমুদ্রের দিকে এগিয়ে আসবে। সমুদ্রে তাদের জাহাজের ধৈর্য থাকবে পঞ্চাশ মাইল এবং প্রস্ত থাকবে তের মাইল। এক পর্যায়ে তারা আ’শক নামক এলাকায় ছাউনি ফেলবে। বর্ণনাকারী ইবনে ওয়াহাব রহঃ বলেন সেটা জলে-স্থলে উভয় স্থানে হবে।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৩৩০ ]
___________________________________
নাঈম বিন হাম্মাদ - 1330
আমাদের বলুন আবু ওয়াহাব ও Rushdin সব সম্পর্কে 
আবু থেকে ইবনে Lahee'ah Ahioil বিন Hraahil এগিয়ে বলেন 
আমি শুনেছি আব্দুল্লাহ ইবনে ' আমর ইবনুল - আস 
বলছেন যে 
মানুষ এর আন্দালুসিয়া 
আসা সমুদ্র এবং যে দৈর্ঘ্য এর সমুদ্র পঞ্চাশ মাইল তাদের জাহাজ ও উপস্থাপন 
তেরো মাইল 
এমনকি অবতরণ অতল এর 
তাঁর পুত্র স্থলে ও সাগরে দিলেন
হাদিস - ১৩৩১
হযরত আব্দুল্লাহ ইব্নে আমর ইবনুল আ’স রাযিঃ থেকে বর্ণিত, আন্দালুসে মুসলমানদের দুশমনদের একজন লোক থাকে যুলর্উ্ফ বলা হবে। মুশরিক গোত্রের লোকজন ব্যাপকভাবে জমায়েত হবে। আন্দালুসের মুসলমানদের মাঝে একথা প্রসিদ্ধ থাকবে যে, মুসলমানদের তাদের সাথে মোকাবেলা করার শক্তি নেই। যার কারণে অনেক মুসলমান পলায়ন করবে, ফলে শক্তিশালী মুসলমানগণ জাহাজের মাধ্যমে তানজাহ নামক এলকার দিকে চলে যেতে থাকবে এবং মুসলমানদের মধ্যে দুর্বলরাই একমাত্র থাকবে তাদের জামাআতের মাঝে যাদের কোনো জাহাজ থাকবে না তারা সে এলাকা অতিক্রম করে যাবে। বর্ণনাকারী বলেন, অতঃপর আল্লাহ তাআলা তাদের জন্য বন্য প্রাণী প্রেরন করবেন, যার কারণে আল্লাহ তা’আলা সমুদ্রের মধ্যে তাদের জন্য একটা সহজ পথ বের করে দিবেন। যার মাধ্যমে তারা সমুদ্র অতিক্রম করতে পারবে। যা লোকজন খুব ভালোভাবে বুঝতে পারবে। তারা বন্য প্রাণী এর অনুসরণ করবে এবং তার অনুসরণ করে চলতে থাকবে, অতঃপর সমুদ্রের মাধ্যমে তারা আবারো ফিরে আসবে। এবং দুশমন তাদেরকে বাহনের উপর সওয়ার হয়ে হন্য হয়ে খুঁজতে থাকবে। একথা আফ্রিকাবাসি জানার পর তারা বের হয়ে আসবে এবং তাদের সাথে আন্দালুসের মুসলমানগণও বের হয়ে আসবে। এক পর্যায়ে তারা মিশরে পৌঁছে যাবে এবং দুশমনরা তাদের পিছু নিবে। যার কারণে তারা আহরাম থেকে পাঁচ মাইলের দুরত্বে থাকা মারবূত নামক এলাকায় ছাউনি ফেলবে। তারা সেখানে অবস্থান করার সাথে সাথে মুসলমানদের পতাকা হাতে একদল লোক এগিয়ে আসবে। আল্লাহ তাআলাও তাদেরকে কাফেরদের বিরুদ্ধে মুসলমানদেরকে সাহায্য করবেন এবং কাফেররা মারাত্মকভাবে পরাজিত হবে। মুসলমানগন ওবিয়্যাহ এলাকা পর্যন্ত প্রায় বিস্তৃত দশ মাইল এলাকা অবধি তাদেরকে ধাওয়া করে হত্যা করবে। মিশরবাসিরা দীর্ঘ সাত বৎসর পর্যন্ত তাদের সরঞ্জাম ও রসদপত্র বহন করতে থাকবে। এক পর্যায়ে যূল আরাফ নামক লোকটি পলায়ন করবে। তার সাথে একটি লিপিবদ্ধকৃত চিঠি থাকবে, যা না দেখেই সে মিশরে ফিরে আসবে। তখন চিঠিটা খুলে দেখবে, তবে তখন সে হবে একজন পরাজিত শাসক। তখন উল্লিখিত চিঠিতে ইসলাম ধর্মের আলোচনা দেখতে পাবে এবং ইসলাম ধর্ম গ্রহণের জন্য তাকে নির্দেশ দেয়া হয়েছে একথা লিখিত পাওয়ার পর সে মুসলমানদের কাছে নিরাপত্ত্বা প্রার্থণা করবে, সাথে সাথে যারা তার আবেদনে সাড়া দিয়ে ইসলাম গ্রহণ করবে তাদের জন্যও নিরপত্তা চাইবে। ফলে সে ইসলাম কবুল করতঃ মুসলমানদের অন্তর্ভুক্ত হয়ে যাবে।
এর পরের বৎসর হাব্্শা এলাকা থেকে একজন লোকের আত্মপ্রকাশ হবে। যাকে বলা হবে আসইয়াস, কিংবা আসবাস। সে বিশাল একদল সৈন্যের সমাগম করবে। যা অবলোকন করতঃ মুসলমানগণ আসওয়ান এলাকা থেকে পলায়ন করে চলে যাবে। যার কারণে সেখানে এবং তার আশ্বেপার্শ্বে কোনো মুসলমানকে পাওয়া যাবেনা। যারা ছিপে সকলে বিভিন্ন তাবু এবং হাবশা এলাকায় চলে যাবে। অনেকে আবার মান্ফ নগরীতে গিয়ে পৌঁছবে। কিছুদিন পর মুসলমানগণ সুসংগঠিত হয়ে পতাকা সহকারে এগিয়ে যাবে এবং আল্লাহ তাআলা কাফেরদের বিরুদ্ধে মুসলমানদেরকে সাহায্য-সহযোগিতা করবেন। ফলে তাদের সাথে কঠিন এক যুদ্ধের মাধ্যমে মুসলমানরা জয়লাভ করবে। সেদিন একেকজন হাবশিকে একটি জামার বিনিময়ে বিক্রি করা হবে।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৩৩১ ]
___________________________________
নাঈম বিন হাম্মাদ - 1331
আমাদের আব্দুল্লাহ ইবনে আমর ইবনুল এগিয়ে আবু থেকে Rushdin ইবনে Hiệp বলুন একটি থেকে মানুষ 
শত্রুদের এর মুসলমানদের মধ্যে 
আন্দালুসিয়া হয় 
বলেন করার আছে 
একটি কাস্টম যে 
সম্মিলন উপজাতিদের শিরক একটি মহান বৃন্দ জানে 
আন্দালুসিয়া মুসলমানদের তাদের নিজস্ব সামর্থ্য না করতে পারেন এবং মুসলিম Visser থেকে অব্যাহতি , মানুষ এর ক্ষমতা 
মুসলমানদের Tangier প্রয়োজন এবং থাকা Dafaahm এবং তাদের গ্রুপ জাহাজ কোন জাহাজ ভঙ্গি নিষেধাজ্ঞার যা আছে 
এছাড়াও আল্লাহ্ বললেন কারণ থেকে তাদের এবং Viasr মহান আল্লাহ জন্য তাদের সমুদ্র একটি উপায় Vigisoh স্মরণ যে তার 
মানুষ এবং অনুসরণ বন্য ছাগবিশেষ এবং এ ব্যাপারে এটা উপর জায়েয প্রভাব এবং তারপর সমুদ্র ফিরে কি এটা আগে ছিল এবং অনুমতি 
শত্রু জাহাজ তাদের অনুরোধ , যদি সচেতন এর তাদের আফ্রিকান লোকেরা বেরিয়ে এসেছিলেন এবং 
ইসলামের আন্দালুসিয়া ছিলেন মেইন এমনকি মিশর, অনুসৃত প্রদান দ্বারা শত্রু এমনকি আল করার Mariout মধ্যে বন্ধ বাদ - আহরাম মার্চ
পাঁচ কুলেস্ট আসা আউট করার তাদের ব্যানার এর মুসলিম ঈশ্বর Vinzarethm তাদের Versmonhm এবং তাদের খুনের দায় 
দশমীর Loubet: নিহত মার্চ conveys মানুষ এর মিশর Omtathm Bjlhm এবং তাদের টুল জন্য সাত বছর এবং তিনি হবে পালিয়ে 
সঙ্গে একটি তাঁর সঙ্গে কাস্টম একটি 
বই 
লেখা জন্য তাকে 
দেখা এটা এমনকি প্রস্তাব মিশর হয় দেখা মধ্যে তাকে এবং সে হয় পরাজিত এবং উল্লেখ খুঁজে বের করে এর ইসলাম এবং যা লগইন আদেশ 
Visol নিজের এবং তার companions থেকে ইসলাম প্রত্যুত্তর দিয়েছে থেকে নিরাপত্তা greets এবং হয়ে 
মুসলমানদের 
যদি এটা ছিল দ্বিতীয় বর্ষের আমি গ্রহণ থেকে ইথিওপিয়ান লোকটি বলল করতে তাকে মধ্যে Assis বা Ocepc 
একত্রিত করেছেন একটি মহান ভিড় মুসলমানদের এর আসওয়ান থেকে তাদের পালিয়ে তাই যেমন না করতে তাদের রাখা যেমন ছাড়া 
এক মুসলমান শুধুমাত্র Fustat দিলেন হাবশিয়াই চলে যায় 
যতক্ষণ না তারা এম একই বাইরে য়েতে হবে থেকে তাদের 
মুসলমানদের ঈশ্বর Vinzarethm তাদের মান Viqatlonhm এবং কালো Aosrunhm হয় বিক্রি করে দিন 
আলখাল্লা
হাদিস - ১৩৩২
হযরত আবু মুহাম্মদ আল-জিন্নী রহঃ থেকে বর্ণিত, তিনি তুবরত আব্দুল্লাহ ইবনে আমর রাযিঃ কে বলতে শুনেছেন, আরব মুসলমানদের বিশাল একদল পুরোপুরিভাবে রোম বাহিনীর সাথে সম্পৃক্ত হয়ে যাবে। আমি পুরোপুরিভাবে কথাটির ব্যাখ্যা জানতে চাইলে তিনি বলেন, তাদের দানা-পানি, জায়গা-জমিন সবকিছুসহ।
তার কথা শুনে সুলাইম ইব্নে আতর রহঃ তাকে বললেন, হে আবু মুহাম্মদ! ইনশাআল্লাহ একথা শুনার সাথে সাথে তিনি রাগান্বিত হয়ে দাড়িয়ে গিয়ে বলবেন, হয়তোবা আল্লাহ তাআলা ইচ্ছা করেছেন এবং লিপিবদ্ধও করেছেন।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৩৩২ ]
___________________________________
নাঈম বিন হাম্মাদ - 1332
আমাদের ওয়ালিদ এবং পুত্র বলুন এর উপর হারেস ইবন থেকে দান এবং Rushdin ইবনে Hiệp 
আবু মুহম্মদ প্লিউরাল 
শুনে আব্দুল্লাহ ইবনে আমর আরব গ্রীক উপজাতিদের পুনরায় যুক্ত বলছেন এর 
পুরো 
আমি বললাম এবং কি তাদের পরিবারের 
বলেন Buraadtha এবং কুকুর 
সালেম ইবনে SOSC বলেন কাছে তাকে , ইচ্ছুক 
ঈশ্বর , হে আবু মুহাম্মদ , তাই তিনি উন্মাদ 
তিনি বলেন , রাজী ছিল ঈশ্বর এবং তাঁর বই
হাদিস - ১৩৩৩
বিশিষ্ট সাহাবী হযরত আব্দুল্লাহ ইব্নে আমর ইবনুল আস্্ রাযিঃ থেকে বর্ণিত, তিনি এরশাদ করেন, যখন মানুষ যুুল খালাছা নামক ভুতের উপাসনা করতে থাকবে তখনই শামবাসির ওপর রোমবাহিনী জয়লাভ করবে।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৩৩৩ ]
___________________________________
নাঈম বিন হাম্মাদ - 1333
আমাদের ওয়ালিদ বলুন 
আব্দুর রহমান বিন সালমান থেকে হারেস ইবন Obeida থেকে 
হযরত আবদুল্লাহ ইবনে আমর তিনি বলেন 
যদি ঋত 
যুল Khalasa ধ্বংস 
ছিল একটি শাম উপর রোমান চেহারা
হাদিস - ১৩৩৪
বিশিষ্ট সাহাবী হযরত আবুহুরায়রা রাযিঃ থেকে বর্ণিত, তিনি বলেন, রাসূলুল্লাহ সাঃ এরশাদ করেছেন, যখন তীব্র যুদ্ধ সংগঠিত হবে দিমাশ্্ক নগরী থেকে বিরাট একদল মাওয়ালীর আত্মপ্রকাশ হবে। তখন তারাই হবে আরবের সবচেয়ে উত্তম আশ্বরোহি এবং আধুনিক অস্ত্রে সজ্জিত বাহিনী। তাদের মাধ্যমে আল্লাহ তাআলা মূলতঃ দ্বীন ইসলামের শক্তি বৃদ্ধি করবেন।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৩৩৪ ]
___________________________________
নাঈম বিন হাম্মাদ - 1334
আমাদের ওয়ালিদ উসমান ইবনে আবু সম্পর্কে আমাদের বলুন 
Alatkh সুলেইমান বিন হাবিব 
আবু Hurayrah আল্লাহ পারে হতে সন্তুষ্ট সঙ্গে তাকে রসূল এর আল্লাহ বলবেন শান্তি বর্ষিত হোক 
আল্লাহর মই ওয়া সাল্লাম 
যদি স্বাক্ষরিত মহাকাব্য 
দামেস্ক থেকে পাঠানো বেরিয়ে আসেন , প্রো 
আকরাম আরব হয় 
ঘোড়া এবং একটি অস্ত্র Ojodh ঈশ্বর তাদের ধর্ম সমর্থন
হাদিস - ১৩৩৫
হযরত কা’ব রহঃ থেকে বর্ণিত, তিনি বলেন, রোমীবাসিরা পথভ্রষ্ট না হলে সূর্য্যরে কান্নার আওয়াজ অবশ্যই তারা শুনে থাকতো।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৩৩৫ ]
___________________________________
নাঈম বিন হাম্মাদ - 1335
আমাদের বলুন থেকে ওয়ালিদ বিন মুসলিম 
মারওয়ান বিন গরূৎ ইবনে Hbus 
থেকে গোড়ালি লুলা বলেন রোমানরা খাবার সূর্য শোনা কলকল 
যদি বাধ্যতামূলক
হাদিস - ১৩৩৬
হযরত কা’ব রহঃ থেকে বর্ণিত, তিনি বলেন, খ্রীস্টানরা সর্বপ্রথম রোম শহরের উপর নিজেদের আধিপত্য বিস্তার করবে। উক্ত এলাকার লোকজন কাফের না হলে নিঃসন্দেহে সূর্য্য অস্তমিত হওয়ার পর আল্লাহ্র দরবারে সিজদারত হয়ে কান্নাকাটি করার আওয়াজও শুনতে পারত।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৩৩৬ ]
___________________________________
নাঈম বিন হাম্মাদ - 1336
আমাদের ইবনে সম্পর্কে আমাদের বলুন আল ওয়ালিদ Lahee'ah আবু এগিয়ে জন্য বিক্রি 
সম্পর্কে গোড়ালি বলেন 
প্রথম খ্রিষ্ট ধর্মের শহর ও রোমানদের কিংবা কাফর তার পরিবার তার পরিবার শোনা ঠং আত্তয়াজ যখন সূর্য দুভাগে বিভক্ত
হাদিস - ১৩৩৭
বিশিষ্ট সাহাবী হযরত আব্দুল্লাহ ইব্্নে আমর ইবনুল আস রাযিঃ থেকে বর্ণিত, তিনি বলেন, প্রথমে যে কুস্তুনতিনিয়া নামক এলাকা জয়লাভ করা হবে, অতঃপর রোম বাহিনীর সাথে ভয়াবহ একযুদ্ধ হবে, এবং সে যুদ্ধে রোমবাহিনী মুসলমান বিপক্ষে জয়লাভ করবে।
হাদীস বর্ণনাকারী আবুকাবীল বলেন, মুহাম্মদ ইবনে সাঈদ নামক একলোক আফ্রিকিয়্যারে শাসক নিযুক্ত হবে, যিনি মূলতঃ আসবে। এরপর আরেকজন বনি হাশেম থেকে আত্মপ্রকাশ করবে, যার নাম হবে ইস্বা ইবনে ইয়াযিদ, সে হবে রোম বাহিনীর নেতৃত্ব দান করে এবং তার হাত রোমের বিজয় নিশ্চিত হবে।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৩৩৭ ]
___________________________________
নাঈম বিন হাম্মাদ - 1337
আমাদের বলুন ওয়ালিদ ইবনে Hiệp আবু যেমন আমির ইবনে মালেক যেমন 
আব্দুল্লাহ থেকে 
ইবনে ' আমর রা বিজয়ের এর কনস্টান্টিনোপল এবং তারপর Ngzon রোমানদের ঈশ্বর Vivthaa আপনি , 
আবু বলেন , যেমন 
আফ্রিকান এবং অনুসরণ একটি লোক মানুষ এর ইমেন, মুহাম্মদ বিন সাঈদ থেকে পরে হতে একটি 
বনী হাশেম থেকে মানুষ 
বলেন 
তার 
আঙুল বিন ইয়াযীদ 
তিনি রোমের মালিক এবং 
তিনি এটি খুলছেন
হাদিস - ১৩৩৮
হযরত বকর ইবনে সুয়াদা রহঃ হিময়রের জনৈক শেখ থেকে বর্ণনা করেন, তিনি বলেন, অতিসত্ত্বর এই আফ্রিকী রামলায় তোমাদের সাথে তোমাদের দুশমনের য্দ্ধু হবে। সেদিন রোম বাহিনী আটশত জাহাজে করে তোমাদের দিকে ধেয়ে আসবে এবং এ রামলা এলাকায় তোমাদের সাথে তাদের তীব্র যুদ্ধ হবে এবং আল্লাহ তাআলা তাদেরকে পরাজিত করবেন। অতঃপর তাদের জাহাজগুলো তোমরা নিজেদের আয়ত্বে নিয়ে নিবে এবং তার উপর আরোহন পূর্বক তোমরা রোমিয়ার দিকে যেতে থাকবে। সেখানে এসে তোমরা তিনবার “আল্লাহু আকবর” বলবে। তোমাদের তাকবীরের আওয়াজে তাদের কেল্লা কেপে উঠবে। যার কারনে তৃতীয় তাকবীরে প্রায় একমাইল পরিমান ঝর্ণা প্রবাহিত হবে। যেটা দিয়ে তোমরা প্রবেশ করবে। এক পর্যায়ে আল্লাহ তাআলা তোমাদের উপর একটি মেঘমালা দ্বারা ছায়া দান করবেন। যদ্বারা তোমাদের আর কোনো কষ্ট ক্লেশ থাকবে না। এ অবস্থা তোমরা তোমাদের বিছানায় যাওয়া পর্যন্ত বাকি থাকবে।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৩৩৮ ]
___________________________________
নাঈম বিন হাম্মাদ - 1338
আমাদের ওয়ালিদ ইবনে বলুন 
বকর বিন Swadh থেকে Hiệp 
গাধার শেখ আছে হবে হতে তোমাদের মধ্যে তোমার শত্রু বলেন মধ্যে এই Ramla 
Ramlet আফ্রিকান ডে 
গ্রহণ আট শত জাহাজ রোমানস্ 
এই Ramla Viqatloncm এবং 
তাদের [ঈশ্বর] তারপর পরাজিত 
তাদের Fterkpoa Vtokhdhun তাদের জাহাজ রোমানরা । 
Oteetmoha তাহলে 
তিন magnifications বড় এবং trembled তৃতীয় Tkbergm এর দুর্গ ভেঙে যেমন একটি প্রবণতা Videchlunha 
তাদের পাঠায় ঈশ্বর অন্ধ Tgshahm 
Tnhenhecm না যতক্ষণ না তারা প্রবেশ ঐ Ghubrah প্রকাশ না যতক্ষণ না 
আপনি তাদের শয্যা হবে
হাদিস - ১৩৩৯
হযরত আব্দুল্লাহ ইব্্নে আমর ইবনুল আ’স রাযিঃ থেকে বর্ণিত, তিনি বলেন, সর্বমোট পাঁচ প্রকারের যুদ্ধ প্রকাশ হবে। তার থেকে দুইটি অহিবাহিত হলেও তিনটি এখনো বাকি আছে। তার প্রথম হচ্ছে, জাজিরার মালিকানা নিয়ে তুর্কিদের সাথে যুদ্ধ। দ্বিতীয়টি হল, আ’মাক এলাকার যুদ্ধ, তৃতীয় এবং সর্বশেষ যুদ্ধ হচ্ছে, দাজ্জালের সাথে সংগঠিত হওয়া যুদ্ধ। যার পরে আর কোনো যুদ্ধ হবেনা।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৩৩৯ ]
___________________________________
নাঈম বিন হাম্মাদ - 1339
আমাদের বলুন ওয়ালিদ ইবনে Hiệp বলেন করার আমাদের আবু Obeid marauding 
আব্দুল্লাহ বিন marauding 
আব্দুল্লাহ বিন আমর রা পাঁচটি এর তাদের গিয়েছিলাম উপর মহাকাব্য এবং দুই যে তিনটি রয়ে 
Voohin মহাকাব্য তুর্কী দ্বীপ এবং গভীরতা এর মহাকাব্য এবং মহাকাব্য পর খ্রীষ্টশত্রু হয় না একটি মহাকাব্য
হাদিস - ১৩৪০
হযরত আব্দুল্লাহ ইবনে আমর ইবনুল আ’স রাযিঃ থেকে বর্ণিত, তিনি বলেন, হঠাৎ করে রোমীদের মাঝে একজন লোকের আত্মপ্রকাশ হবে। যে পূর্ণ যৌবনে পদার্পন করেছে। যে যুবক রোমবাহিনীর মালিকানাধীন এলাকায় অবস্থানপূর্বক বলবে, অতিসত্ত্বর আমরা এদের উপর বিজরী হয়ে আমাদের ভুখন্ডকে তাদের কাছ থেকে ছিনিয়ে নিব এবং অবশ্যই অবশ্যই তাদেরকে হত্যা করব, আর যেসব এলাকা তারা আমাদের কাছ থেকে দখল করে নিয়েছে সেগুলো আমরা বিজরী হওয়ার মাধ্যমে তাদের হাত থেকে ছিনিয়ে নিব। না হয় তারা এমন ভাবে আঘাত করবে যদ্বারা আমার পায়ের নিচের মাটিও দখল করে ি নবে। এক পর্যায়ে সে সাত হাজার জাহাজের মাধ্যমে বিশাল এক বাহিনী তৈরি করে এগিয়ে যাবে। এভাবে চলতে চলতে আরীশ এবং আক্কা নামক স্থানের মাঝামাঝি এলাকায় পৌঁছলে তার সকল জাহাজে আগুন লাগিয়ে দেয়া হবে। তখনই মিশর থেকে মিশরবাসিরা এবং শামদেশ থেকে শামবাসিরা বের হয়ে আসবে। সকলে এসে জাজিরাতুল আরবে জমায়েত হবে। এদিন হচ্ছে, সেদিন যেদিন সম্বন্ধে হযরত আবু হুরায়রা রাযিঃ বলতেন, যে নিকৃষ্টতম দিনে আরবদের ধ্বংস অনিবার্য। যেদিন সকলে যাবতীয় রসদপত্র নিয়ে নিকটবর্তী হবে। এভাবে জমায়েত হওয়া নিজের পরিবার এবং সম্পদ থেকে পছন্দনীয় হবে। আরবরা সবধরনের সাহায্য-সহযোগিতা কামনা করবে। এক পর্যায়ে তারা চলতে চলতে এন্তাকিয়ার আ’মাক এলাকায় গিয়ে পৌঁছবে। সেদিনই ভয়াবহ যুদ্ধ সংগঠিত হবে। যার কারণে ঘোড়ার অর্ধেক অংশ পর্যন্ত রক্তে ডুবে যাবে। প্রত্যেক দল থেকে আল্লাহ্ তাআলা সাহায্য বন্ধ করে দিবেন। অবস্থা এমন হবে যে, ফেরেশতারা বলবে, হে আল্লাহ! আপনার মুমিন বান্দাদেরকে সাহায্য কি করবেন না।
তাদেরকে জবাব দেয়া হবে যে, তাদের শহীদ আরো অধিক হারে হোক। উক্ত যুদ্ধে এক তৃতাংশ শহীদ হয়ে যাবে, এক তৃতাংশ ফিরে যাবে এবং অন্য এক তৃতাংশ ধৈর্য্যধারন করে থাকবে। আল্লাহ তাআলা ফিরে যাওয়্ াএক তৃতাংশকে ধসে দিবেন।
এহেন পরিস্থিতিতে রোমবাহিনীরা বলবে, তোমাদের প্রত্যেক অংশ এই এলাকা ত্যাগ করার পূর্ব পর্যন্ত আমরা তোমাদেরকে হত্যা করতে থাকবে। তাদের কথা শুনে অনারবের লোকজন বলতে থাকবে আমরা ইসলাম গ্রহনের পর কুফরী কবুল করা থেকে আল্লাহ তাআলার দরবারে ক্ষমা প্রার্থনা করছি। তখনই আল্লাহ তাআলা খুবই রাগান্বিত হয়ে উঠবেন এবং কাফেরদেরকে তলোয়ার দ্বারা হত্যা করা হবে এবং তীরের সাহায্যে মেরে ফেলা হবে। যার কারনে তাদের সংবাদ পৌঁছানোর জন্যও কেউ জীবিত থাকবেনা। এরপর মুসলমানগন সামনের দিকে এগিয়ে যেতে থাকবে। প্রত্যেক শহরকে তারা আল্লাহু আকবর তাকবীর দ্বারা জয় করতে থাকবে। এভাবে বিজরী বেশে চলতে চলতে এক সময় রোমীদের এলাকায় এসে দেখবে তাদের শহরের গোটা এলাকা জনমানবশুন্য। ফলে আল্লাহ তাআলার সাহায্যে সেটাও জয় করবে। সেদিন অসংখ্য কুমারী নারী ধর্ষিতা হবে এবং টেনে টেনে গনীমতের মাল বন্টন করা হবে। তখনই তাদের কাছে সংবাদ পৌঁছবে, মসীহে দাজ্জালের আবির্ভাব হয়েছে। এ সংবাদ পাওয়ার সাথে সাথে তারা সকলে সেদিকে দৌড় দিবে এবং বায়তুল আলিয়া নামক স্থানে তারা দাজ্জালকে দেখতে পাবে। আর সেখানে আট হাজার নারী এবং বার হাজার লোককে শহীদ হওয়া অবস্থায় পাবে। তারা হচ্ছে, পৃথিবীর বুকে সর্বোত্তম লোক। তারা হবেন, অতিবাহিত হওয়া নেককার লোকদের ন্যায়। তারা এভাবে মেঘের ছায়া তলে অবস্থান করতে থাকবে, হঠাৎ সেই মেঘ সকালের দিকে কিছুটা ঘোমটা ছেড়ে বের হবে। তখন সকলে হযরত ঈসা আঃ কে তাদের সামনে উপস্থিত দেখতে পাবে।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৩৪০ ]
___________________________________
নাঈম বিন হাম্মাদ - 1340
আমাদের বলুন পুত্র এর ইবনে Hiệp এবং লাইস ইবনে সাদ খালিদ বিন ইয়াযীদ বিন থেকে দান আবু সাঈদ 
আবু সালামা থেকে হিলাল 
আব্দুল্লাহ ইবনে আমর ইবনুল থেকে - আস বলেন 
উৎপত্তি রোমান গোলাম Jasper 
দশ বছরে বছর অল্প বয়স্ক ছেলে 
এবং হতে জমি এর রোমান মালিকানাধীন দ্বারা নিজেদের মধ্যে রোমানরা , তিনি বলেছেন , এমনকি 
কতক্ষণ এমনকি সবচেয়ে Okrzin Vloqatlnhm আমাদের জমির এই Gbanna জায়গা এর তাদেরকে বলে দেবেন যা Gbawa উপর 
বা Aglboni কি হয়েছিল অধীনে আমার পা আসা আউট বাম সাত হাজার জাহাজ যাতে একর এবং এল মধ্যে - আরিশ এবং 
তার জাহাজ আগুন সেট করে 
বেরিয়ে আসতে এর মানুষ এর মিশর থেকে মিশর ও মানুষ এর সিরিয়ার সিরিয়া এমনকি পরিণত 
দ্বীপ আরবরা ছিল যে 
দিন আবু হুরায়রা বলেছিলেন, "আরবদের দুর্ভোগ, আমি দড়ি এবং 
বইয়ের কাছে এসেছি ।" মানুষ তার পরিবার 
এবং তার অর্থ থেকে, আরবরা এটি প্রকাশ করতে চায়
Marching যতক্ষণ না তারা পৌঁছানোর অতল এর আন্তিয়খিয়ায় হইবে সর্বশ্রেষ্ঠ মহাকাব্য , Tnnha এমনকি লক ঘোড়া 
ঈশ্বর এর বিজয় এবং সমস্ত উত্তোলন 
পর্যন্ত ফেরেশতারা বলে , হে পালনকর্তা , না করার ক্রীতদাসদের প্রচার এর বিশ্বাসীদের এবং 
তাই বলছেন ঘন ঘন শহীদদের হবে 
বধ একটি তৃতীয় কারণ এক - তৃতীয় এর রোগীর একটি সঙ্গে তৃতীয় Vijsv ঈশ্বর , এক - তৃতীয় , 
যা হয় কারণে 
, বলছেন রোমানদের 
এখনও লড়াই আপনি এমনকি স্নাতক করার আমাদের প্রতি কয়েক এর আপনার কাছ থেকে আপনি এবং অন্যরা 
পারস্যদেশনিবাসীগণ আসা আউট , নাউযুবিল্লাহ , বলছেন যে আমরা বাইরে যেতে ইসলাম পরে এটি কুফরী হয় যখন রাগ এর ঈশ্বর 
সর্বশক্তিমান তার তলোয়ার আঘাত হান এবং ছুরিকাঘাত বর্শা হবে সেগুলি কেবল নিহত সংবাদদাতা এবং তারপর তাদের মুখভঙ্গি উপর ব্যয় না 
পাস শহর শুধুমাত্র জিত তাকবীরে 
যতক্ষণ না তারা পৌঁছে শহর এর রোমান 
বেশী তার উপসাগর বাথা এটি 
Vivthaa ঈশ্বর সর্বশক্তিমান এটা কোন ব্যাপার vivtd যে প্রতিদিন অমুক অমুক একটি কুমারী এবং ভাগ জঞ্জাল Mkaalh 
Balgrair এবং 
তারপর তাদের দেয় খ্রীষ্ট বের হয়ে এসেছেন
এমনকি তারা গ্রহণ নিক্ষেপ একটি 
ঘর Ailia 
Vigdonh উপস্থিত ছিলেন 
সেখানে হয় আট হাজার নারী এবং বারো হাজার যোদ্ধা ভাল আগের চেয়ে Fbenahm ভাল ওয়ান থাকুন করছে 
অধীনে Gmaim এর Illabh যেমন উদ্ঘাটিত সম্পর্কে ওয়াক্সিং সঙ্গে তাদের ঝাপসা তাহলে যীশু পুত্র এর মেরি , 
তাদের মধ্যে শান্তি
হাদিস - ১৩৪১
হযরত ইব্্নে আবু যর রহঃ থেকে বর্ণিত তিনি বলেন, আমি হযরত আবু যরগিফারী রাযিঃ কে বলতে শুনেছি, তিনি বলেন আমি স্বয়ং রাসূলুল্লাহ সাঃ কে এরশাদ করতে শুনেছি বনু উমাইয়ার নিকৃষ্টতম এক লোক মিশরের শাসকের উপর জয়লাভ করতঃ মিশরের শাসন ক্ষমতা দখল করবে। পরবর্তীতে তার হাত থেকে ক্ষমতা ছিনিয়ে নেয়া হবে এবং পূর্বের শাসক পলায়ন করে রোমের দিকে চলে যাবে। অতঃপর রোমবাহিনীকে মুসলমানদের বিরুদ্ধে যুদ্ধ করার জন্য প্ররোচিত করবে। সেটিই হবে প্রথম যুদ্ধ।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৩৪১ ]
___________________________________
নাঈম বিন হাম্মাদ - 1341
আমাদের বলুন ছেলে এর থেকে ইবনে Hiệp থেকে দান গোড়ালি বিন Alqamah বলেন 
আমি শুনেছি Obatim বা আবু তামিম বলেছেন 
আমি শুনেছি ছেলে এর আবূ যার বললেন : আমি শুনেছি আবু যার রা আল্লাহ পারে হতে সন্তুষ্ট সঙ্গে তাকে 
বললেন : আমি শুনেছি রাসূলুল্লাহ এর আল্লাহ , সাঃ বলেছেন হতে হবে 
মধ্যে নিরক্ষর মানুষ Okhans মধ্যে মিসর 
অনুসরণ 
কর্তৃপক্ষ তাঁর কর্তৃত্ব ওপর প্রাধান্য বা তাকে ছিনিয়ে 
Pfeffer করার রোমানদের 
কাছে গ্রীক আসে মানুষ এর 
ইসলাম , এটা হল প্রথম মহাকাব্য
হাদিস - ১৩৪২
বিশিষ্ট সাহাবী হযরত আব্দুল্লাহ ইবনে আমর ইবনুল আ’স রাযিঃ থেকে বর্ণিত, তাকে বলতে শুনা গিয়েছে, তিনি বলেন, যখন তুমি দেখবে বা শুনতে পাবে যে, অত্যাচারী শাসকদের একজন অন্য আরেকজনের হাত থেকে শাসন ক্ষমতা ছিনিয়ে নিয়েছে এবং রোমের দিকে পলায়ন করবে, তাহলে সেটা হবে রোম বাহিনী এবং মুসলমানদের মাঝে সংগঠিত হওয়া সর্বপ্রথম যুদ্ধ।
তাকে বলা হলো, মিশরবাসিরা আক্রান্ত হবে, অথচ তারা আমাদের দ্বীনিভাই। জবাবে তিনি বলেন, হ্যাঁ যখন তুমি মিশরবাসিদেরকে দেখতে পাবে যে, তাদের ইমামকে তাদেরই সামনে হত্যা করা হয়েছে, তাহলে তুমি সাধ্যমত সেখান থেকে বের হয়ে যাও এবং কক্ষনো শাহী ভবনের নিকটবর্তী হবে না। কেননা তাদের সহযোগিতার মাধ্যমে অনেক লোককে বন্দি করা হবে এবং গণহত্যা চালানো হবে।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৩৪২ ]
___________________________________
নঈম বিন হাম্মাদ
গোড়ালি বলেন , এবং আমাকে বলেছিলেন আব্দুল্লাহ ইবনে আমর মুক্ত গোলাম 
আব্দুল্লাহ ইবনে আমর তাঁকে বলতে শুনেছি যদি আমি দেখেছি বা 
শুনেছি একটি লোক ছেলেদের এর যোদ্ধারা মধ্যে মিসর 
কর্তৃপক্ষ তাঁর শক্তি প্রাধান্য রয়েছে এবং 
তারপর পালায় রোমানরা 
এটা করা হয় প্রথম মহাকাব্য থেকে গ্রীক আসে মানুষ এর 
ইসলাম , এবং 
জানতে পারলেন যে, মানুষ এর মিশর Cspon যেমন আমাদের বলেছেন তারা তাই যোগ্য এর আমাদের ভাইদের 
বললেন 
হ্যাঁ 
যদি আপনি দেখতে মানুষ এর মিশর হত্যা করেছে একটি ইমামের 
মধ্যে mushrikeen এবং আপনি কাছাকাছি না করতে পারেন নামা করতে প্রাসাদ , 
এটা তাদের solves SBA
হাদিস - ১৩৪৩
হযরত কা’ব রহঃ থেকে বর্ণিত, তিনি বলেন, রোম এলাকা বিজয়কালীন পশ্চিমাদের পক্ষ থেকে ঝড়ের গতিতে বিশাল একটি বাহিনী এগিয়ে আসবে, যাদের সাথে কেউ মোকাবেলা করে বিজয়ী হতে পারবেনা, কোনো বাধা তাদের পথ রোধ করতে পারবেনা এবং কোনো কেল্লায় আশ্রয় নিয়ে তাদের থেকে কেউ বাচতে পারবে না, কোনো আত্মীয়তা তাদেরকে আপন উদ্দেশ্য থেকে বিচ্যুতি করতে পারবে না। এক পর্যায়ে তারা রোম এলাকা পদানত করে, সেটা জয় করবে।
হাদীস বর্ণনাকারী হযরত কা’ব রহঃ বলেন, সেখানে একটি ঐতিহাসিক গাছ থাকবে, কিতাবুল্লাহর ভাষ্য মতে সেই গাছের ছায়ায় প্রায় তিন হাজার লোকের অবস্থান হবে। যে লোক উক্ত গাছের সাথে নিজের হাতিয়ার বা তলোয়ারকে লটকিয়ে রাখবে কিংবা উক্ত গাছের সাথে নিজেদের ঘোড়া বেঁধে রাখবে তারা হবে আল্লাহ তাআলার নিকট সর্বোত্তম শহীদ। অতঃপর হযরত কা’ব রহঃ বলেন, নিকিয়া নামক এলাকার আগে উমুরিয়ার বিজয় হবে, নিকিয়া নগরী জয়লাভ করা হবে ঐতিহাসিক কুস্তুনতিনিয়ার পূর্বে এবং কুস্তুনতিনিয়া জয় করা হবে রোমিয়া এলাকার পূর্বে।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৩৪৩ ]
___________________________________
নাঈম বিন হাম্মাদ - 1343
আমাদের বলুন পুত্র এর সিদ বিন সালেহ Hder বিন ক্রেপ থেকে দান 
বিন Shurayh জন্য জাবির ইবনে Nufayr থেকে 
থেকে গোড়ালি , বলেন 
খোলার রোমানদের 
আউট 
মরোক্কো থেকে সেনা 
পূবের বাতাস ভাঙে না তাদের দড়ি কেটে না Mqmav এবং Inhrq তাদের বাটালিবিশেষ তাদের হ্রাস না পুড়িয়ে 
Ersoa ব্রোমিন পর্যন্ত bladders Vivthunha 
গোড়ালি বললাম, গাছটা এমন হয় 
বই এর 
ঈশ্বর তিন হাজার বোর্ড এটা করা হয় স্থগিত 
যেখানে অস্ত্র বা যেখানে এটি লিঙ্ক করা থেকে তার ঘোড়া যখন থেকে ঈশ্বরের শ্রেষ্ঠ এর শহীদদের 
বলেন গোড়ালি খোলা 
Amuriyah 
আগে 
Nicea 
এবং নিসিয়া আগে 
কনস্টান্টিনোপল 
এবং কনস্টান্টিনোপল আগে 
রোমানরা
হাদিস - ১৩৪৪
বিশিষ্ট সাহাবী হযরত আব্দুল্লাহ ইবনে আমর ইবনুল আ’স রাযিঃ বলেন, একদা আমরা রাসূলুল্লাহ সাঃ এর কাছে বসা ছিলাম, কেউ একজন রাসূলুল্লাহ সাঃ কে জিজ্ঞাসা করলেন যে, সর্বপ্রথম কোন শহর জয়লাভ করা হবে, রোমিয়া নাকি কুস্তুনতিনিয়া?
জবাবে রাসূলুল্লাহ বললেন, ইবনুল হেরকলের শহর অর্থাৎ, কুস্তুনতিনিয়া সর্বপ্রথম জয় করা হবে। এরপর অন্য শহরের পালা আসবে।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৩৪৪ ]
___________________________________
নাঈম বিন হাম্মাদ - 1344
আমাদের বলুন পুত্র এর ইয়াহইয়া ইবনে আবু আইয়ুব থেকে দান সামনে 
তিনি হযরত আবদুল্লাহ ইবনে আমর শুনেছি , আল্লাহ হতে পারে 
হতে সন্তুষ্ট তাদের আমরা বলি যখন রসূল এর আল্লাহ , সা কোন দুটি শহর Vsil করতে খুলতে প্রথম রোমানদের 
অথবা কন্সটান্টিনোপলের 
নবী , সা শহর এর প্রথম পুত্র হারকিউলিস বলেছেন উপায়ে এর 
কনস্টান্টিনোপল
হাদিস - ১৩৪৫
কিবাছ ইবনে রাযিন রহঃ থেকে বর্ণিত, তিনি বলেন, একদা আলী ইবনে রিয়াহ রহঃ হযরত আব্দুল্লাহ ইব্নে আমর রাযিঃ থেকে হাদীস বর্ণনা করেন, তিনি এরশাদ করেছেন, কিয়ামতের সময় রোমানরা সংখ্যা অনেক বেশি থাকবে। একথা শুনে আমর ইবনুল আস রাযিঃ তাকে ধমক দিতে চাইলেন। এরপর হযরত আমর ইবনুল আ’স রাযিঃ বললেন, তুমি যা বলছ তা যদি সত্য হয়, তাহলে নিঃসন্দেহে তারা হবে পৃথিবীর বুকে সবচেয়ে অত্যাচারী জাতি। তারা পরাজিত হবে মারাত্মক ভাবে দুর্ভিক্ষের সম্মুখিন হবে। সেখানে কল্যানজনক কাজ খুবই কম থাকবে।
যে কাজ থেকে বিরত থাকতে হবে, সেটা হচ্ছে, বাদশাহর অত্যাচার না করা।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৩৪৫ ]
___________________________________
নাঈম বিন হাম্মাদ - 1345
আমাদের বলুন পুত্র এর Kabbat বিন থেকে দান আত্মসংযমী Allkhmi যে আলী বিন বাতাস তাকে বলেন 
আব্দুল্লাহ বিন থেকে আমর সময় বললেন রোমানদের আরও অনেক বেশি মানুষের এবং আমর ইবন আল ছিল - 
তাকে তিরস্কার করতে চেয়েছিলেন , এবং 
তারপর আমর রা , যখন আমি বলেন যে তারা ছিল বাধ্য মানুষ যখন দৈবদুর্বিপাক এবং Osrah 
প্রাক্কালে পর পরাজয়ের এর দুর্বল ও তাকে থামাতে শেখ বড় রাজাদের অবিচারের
হাদিস - ১৩৪৬
বিশিষ্ট সাহাবী হযরত ইব্নে মুহাইরিজ রাযিঃ বলেন, রাসূলুল্লাহ সাঃ এরশাদ করেছেন আহলে কারেস এর ধাপট মাত্র কিছুদিন চলবে এরপর রোমানদের মত তাদেরও আর কোনো অস্তিত্ব থাকবে না। এ ধাপট মাত্র কয়েক যুগ পর্যন্ত থাকবে। তাদের সে যুগ চলে যাওয়ার পর আরেক দল এসে তাদের স্থলাভিষিক্ত হবে। যারা জলÑস্থলের অধিকারী হবে এবং দীর্ঘদিন বিভিন্ন ধরনের অপরাধ-অবিচার তারা করতে থাকবে। যতদিন পর্যন্ত আল্লাহ তাআলা এ পৃথিবীতে কল্যান রাখতে ইচ্ছা, ততদিন পর্যন্ত এরা তোমাদের প্রতিবেশি ও সাথি হয়ে থাকবে। এরপর পৃথিবীতে নানান ধরনের অরাজকতা চলতে থাকবে।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৩৪৬ ]
___________________________________
নাঈম বিন হাম্মাদ - 1346
আমাদের বলুন পুত্র এর দান 
আসিম ইবনে হাকীম ইয়াহিয়া ইবনে আবী আমর Alsabana থেকে 
ইবনে Makeaz বলেন রসূল এর আল্লাহ , 
শান্তি হতে তাকে কিন্তু পারস্যের headbutt বা Ntahtan এবং পারস্য পর উপরে সেঞ্চুরিসহ রোমানদের যখনই 
তিনি গেলেন একটি পিছনে শতকের একটি শতাব্দী জায়গা এর মালিকদের এর শিলা এবং সমুদ্র কান্না করার চাঁদ কান্না করতে চিরতরে শেষ চাঁদ তারা আপনার মালিকদের কি 
ভাল জীবনযাপন ছিল
হাদিস - ১৩৪৭
হযরত আবু কুবাইল রহঃ থেকে বর্ণিত, তিনি বলেন, কোনো নবীর নামের সাথে মিল রয়েছে এমন একজনের হাতে কুস্তুনতিনিয়া নগরীর বিজয় হবে।
হাদীস বর্ণনাকারী ইব্্নে লেহইয়্যাহ রহঃ বলেন, তাদের কিতাবে লেখা রয়েছে যে, উক্ত নবীর নাম হবে সালেহ।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৩৪৭ ]
___________________________________
নাঈম বিন হাম্মাদ - 1347
আমাদের বলুন পুত্র এর ইবনে আবু Hiệp থেকে দান আগে বলেন 
খোলা 
কনস্টান্টিনোপল নামে নাম এর নবী 
ইবনে Hiệp এবং বলে তাদের বই রোমানস্ এর মানে হল যে তার নাম 
সালেহ
হাদিস - ১৩৪৮
হযরত হুসাইম আয্যিয়াদী রহঃ থেকে বর্ণনা করা হয়েছে, তিনি বলেন, ইয়াব-সানের রশি, লেবনানের লাঠি এবং মারীছের লোহার সাহায্যে গ্রীক এলাকা জয় করা হবে। তোমরা সেখানে একটা তালাবদ্ধ কফিন প্রাপ্ত হবে। সেটা হস্তগত করার জন্য মিশরবাসি এবং শাম দেশের বাসিন্দাগন হামলা করে বসবে। শেষ পর্যন্ত মিশরবাসিরা পেয়ে যাবে।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৩৪৮ ]
___________________________________
নাঈম বিন হাম্মাদ - 1348
আমাদের বলুন পুত্র এর ইবনে Hiệp কায়েস বিন তীর্থযাত্রীদের কাছ থেকে অনুদানের Khaitham Ziadi 
খোলার বলেন 
রোমানদের 
দড়াদড়ি নিসান কাঠ লেবানন screws এবং MRIs এবং আপনি নিতে একটি 
ছুরি কফিন 
দ্বারা Afiktra মানুষ এর শাম এবং মানুষ এর মিশরের Vttir মানুষ এর মিশর
হাদিস - ১৩৪৯
হযরত মুস্তাউরিদ আল-কুরাশী রাযিঃ থেকে বর্ণিত, তিনি বলেন, আমি রাসূলুল্লাহ সাঃ কে বলতে শুনেছি, কিয়ামতের সময় রোমান ধর্মের অনুসারীরা সংখ্যায় অনেক বেশি হবে। এ হাদীস বিশিষ্ট সাহাবী হযরত আমর ইবনুল আ’স রাযিঃ এর কাছে পৌছলে তিনি বলেন, তুমি এ কেমন হাদীস বর্ণনা করছ, এ কথাটি কি আসলে রাসূলুল্লাহ সাঃ বলেছেন। জবাবে হযরত মুসতাউরিদ রাযিঃ বলেন, আমি রাসূলুল্লাহ সাঃ থেকে যা শুনেছি হুবহু তা বর্ননা করছি। এ কথা শুনে হযরত আমর ইবনুল আস রাযিঃ বলেন, তুমি যা বর্ণনা করছো তা যদি সত্য হয় তাহলে নিঃসন্দেহে তারা হবে ফিতনাকালীন খুবই বিচক্ষণ মানুষের অন্তর্ভুক্ত, মসিবতের সময় অধিক অবগত লোক এবং তাদের দুর্বল-মিসকীনদের সাথে উত্তম আচরণকারী।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৩৪৯ ]
___________________________________
নাঈম বিন হাম্মাদ - 134২
আমাদের বলুন পুত্র এর আব্দুল কাছ থেকে অনুদানের 
রহমান ইবনে Shurayh আব্দুল করিম ইবনুল - হারেস বললেন 
তিনি আমদানিকৃত Qurashi আল্লাহ পারে হতে সন্তুষ্ট সঙ্গে তাকে 
আমি শুনেছি মেসেঞ্জার এর আল্লাহ , সাঃ সময় এবং বলে রোমানদের আরও অনেক বেশি মানুষের 
কাছে পৌঁছানোর 
আমর ইবনুল যে - আস বলেন , কি হয় এই কথোপকথন আপনি মনে করিয়ে দেয় যে আপনি বলতে সম্পর্কে নবী প্রার্থনা 
ঈশ্বর বলে উপরে তাকে 
বললেন কাছে তাকে , আমি বললাম আমদানিকারক , যারা থেকে শোনা রসূল এর আল্লাহ , শান্তি বর্ষিত হোক 
তাঁর , 
আমর রা , যখন তারা বলেন যে স্বপ্ন এর মানুষ যখন শত্রুতা এবং মানুষ বলতে যখন বিপদ 
এবং ভাল মানুষ Msakinhm এবং Dafaihm
হাদিস - ১৩৫০
হযরত কা’ব রহঃ থেকে বর্ণিত, তিনি এরশাদ করেন, হিরাক্্লের চতুর্থ ও পঞ্চম সন্তানদের থেকে একজনের হাতে হবে মারাত্মক যুদ্ধ, যার নাম হবে তাবারাহ্্ । হাদীস বর্ণনাকারী হযরত কা’ব রহঃ বলেন, যেদিন বনু হাশিমের একজন লোক আমীরের দায়িত্ব পালন করবেন। যেদিন ইয়ামানের দিক থেকে সত্তর হাজার জাহাজ বোঝায় করা যুদ্ধের রসদপাত্র এসে পৌছবে। তাদের তলোয়ার হবে মাসাদ গাছের সাথে লটকানো।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৩৫০ ]
___________________________________
নাঈম বিন হাম্মাদ - 1350
আমাদের বলুন পুত্র এর সিদ বিন সালেহ Hder থেকে দান 
বিন ক্রেপ 
থেকে গোড়ালি মহাকাব্য বলেন হাত একটি এর লোক মানুষ এর চতুর্থ এবং পঞ্চম হারকিউলিস হয় বলেন কাছে তাকে 
Tábara 
গোড়ালি , রাজকুমার মানুষ বলেন যে দিন , একটি বনী হাশেম থেকে মানুষ ইমেন আসা বাড়ানো থেকে তাকে সত্তর হাজার 
গোত্র তলোয়ার Masad ডাউনলোড
হাদিস - ১৩৫১
বিশিষ্ট সাহাবী হযরত আবু সা’লাবা খুশানী রাযিঃ থেকে বর্ণিত, তিনি বলেন, যখন তুমি শামদেশের বাসিন্দাকে আহ্লে বায়তের একজনকে খুব বেশি মেহমানদারী করতে দেখবে মূলতঃ তখনই কুস্তুনতিনিয়া জয় হবে।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৩৫১ ]
___________________________________
নঈম বিন হাম্মাদ
আমাদের বলুন পুত্র এর সিদ বিন সালেহ আব্দ আল কাছ থেকে অনুদানের - রহমান 
তার বাবার কাছ থেকে ইবনে জাবির ইবনে Nufayr 
আবু টাক Khushani মালিকের কাছ থেকে এর রসূল এর আল্লাহ , শান্তি বর্ষিত হোক 
তাকে এবং আল্লাহ পারে হতে সন্তুষ্ট সঙ্গে তাকে যদি আপনি শাম ভোজ বা দেখতে একটি টেবিল এবং একটি মানুষ ও তার পরিবারকে । যখন এটি খোলা 
কনস্টান্টিনোপল , 
এবং আমি মনে করি ইবনে ওয়াহাব টেবিল বলেন
হাদিস - ১৩৫২
হযরত কা’ব রহঃ কর্তৃক বর্ণিত, তিনি বলেন রাসূলুল্লাহ সাঃ একদা বিভিন্ন যুদ্ধ নিয়ে কথা বলতে গিয়ে যা বলেছেন আমি এখন সেগুলো তোমাদের সামনে তুলে ধরব। প্রায় বারজন শাসকের যুগে ফিতনা সংগঠিত হবে। তাদের মধ্যে রোমান বাদশাহ হবে সর্বকণিষ্ঠ এবং তার যুগে সবচেয়ে কম যুদ্ধ হবে। কিন্তু তারাই সবচেয়ে বেশি মানুষকে পথ ভ্রষ্টতার প্রতি ধাবিত করবে। এবং এরজন্য সাহায্য-সহযোগিতা করবে। হারামের দিকে নিয়ে যাবে। তখন ইসলামের কোনো সাহায্য করা হবে না। তবে যেদিন মুসলমানদের সাহায্যের লক্ষ্যে সানা এলাকার সৈন্যরা এগিয়ে আসবে, তখন খ্রীষ্টানদের সাহায্য করা হারাম হয়ে যাবে। ঐসময় জাজিরা এলাকায় ত্রিশ হাজারের বিশাল খ্রীষ্টান বাহিনীর সমাগম হবে । অন্যদিকে একলোক তাদের পক্ষ ত্যাগ করে বলবে,্ আমি খ্রীষ্টানদের সাহায্য করে যাব, যার কারণে প্রত্যেকে তাদের প্রতিপক্ষের বিরুদ্ধে অস্ত্র ধারন করবে। সেদিন কেউ তার কোন ক্ষতি করতে পারবেনা। তার সাথে একটি ধারালো তলোয়ার থাকবে। ফলে তাকে কেউ কোনো আঘাতও করতে পারবেনা। তার স্থলে একজন দালাল থাকবে যেদিন যার উপরই তলোয়ার দ্বারা আঘাত করা হয়েছিল তাকে মারা যেতে হয়েছে। এক পর্যায়ে প্রত্যেকে একে অন্যকে সাহায্য করা হারাম মনে করেছে এবং উভয় দল ধৈর্য্যরে পরিচয় দিয়েছে। এক সময় প্রত্যেক দল অস্ত্রের মহড়া আরম্ভ করে দেয়। যাতে করে প্রতি পক্ষকে দুর্বল করতে সক্ষম হয় । যেদিন মুসলমানদের এক তৃতাংশ মারা যাবে, অন্য এক তৃতাংশ পলায়ন করবে। যার কারনে তার জমিনের সর্বনি¤œ স্তরে উপনীত হবে, যেখান থেকে কখনো জান্নাত তো দেখবেনা এমনকি জান্নাতীদেরকেরও দেখতে পাবেনা। আরেক তৃতাংশ ধৈর্য্যধারন করবে, তাদের লাগাতার তিনদিন পর্যন্ত পাহারা দিয়ে রাখা হবে। তাদের কেউ পলায়নকারী সাথীদের মত পলায়ন করবেনা। তৃতীয় দিন হলে তাদের একজন হঠাৎ দাড়িয়ে উচ্চস্বরে বলবে, হে মুসলমানগন! তোমরা কিসের জন্য অপেক্ষা করছ,দাড়াও এবং তোমাদের সাথীদের ন্যায় জান্নাতে প্রবেশ করার জন্য প্রস্তুত হও। যখন তারা এভাবে এগিয়ে যাবে তখনই আল্লাহ তাআলারর পক্ষ থেকে নুসরাত বা সাহায্য আসবে। আল্লাহ তাআলা খ্রীষ্টানদের উপর ক্রোধ প্রকাশ করতে থাকবে। যার কারণে তাদেরকে তীর, তলোয়ার ও বল্লম দ্বারা হত্যা করা হবে। এরপর থেকে কিয়ামত পর্যন্ত কোনো খ্রীষ্টানদের পক্ষে অস্ত্রধারন করার আর কারো সাহস থাকবেনা। তাদেরকে মুসলমানরা যেখানে পাবে সেখানে হত্যা করতে থাকবে। যেদিন সব কেল্লা এবং শহর মুসলমানগন জয় করবে। এভাবে জয় করতে করতে একসময় কুস্তুন তিনিয়ানগরীতে এসে পৌছবে। অতঃপর সকলে আল্লাহ তাআলার বড়ত্ব, পবিত্রতা ও প্রশংসা করতে থাকবে। ফলে সেখানে বারটি বুরুজ ধ্বংস হয়ে যাবে এবং যেখানে নির্বিঘেœ প্রবেশ করবে। সেখানের যুবকদেরকে হত্যা করা হবে এবং নারীদের ইজ্জত লুন্টন করা হবে। আল্লাহ তাআলার নির্দেশক্রমে সেখানে থাকা ধনভান্ডার খুলে দেয়া হলে যার যা ইচ্ছা তা গ্রহণ করতঃ বাকিগুলো রেখে দেয়া হবে। উক্ত ভান্ডার থেকে সম্পদ গ্রহনকারী এবং বর্জনকারী উভয়দল লজ্জিত হবে।
একথা শুনার সাথে সাথে সকলে বলে উঠলো, উভয় গ্রুপের লজ্জা কীভাবে জমা হবে। জবাবে বলা হবে, সম্পদ গ্রহণকারীরা চিন্তিত ও লজ্জিত হবে, কেন আরো গ্রহণ করলোনা, অন্যদিকে বর্জনকারীগণও গ্রহন না করার কারণে খুবই পেরেশান হয়ে যাবে যে, কেন গ্রহণ করলোনা। একথ্ াশুনে সকলে বলল, নিঃসন্দেহে আপনি আখেরী যামানায় দুনিয়ার প্রতি আন্তরিক হয়ে যাবেন।
জবাবে তিনি বললেন, এটাও অবশ্যই শাদ্দাদ এবং দাজ্জালের আবির্ভাবের বৎসরগুলোতে সাহায্য করার উদ্দেেেশ্য হয়ে থাকবে। ঐসময় হঠাৎ প্রকাশ পাবে, তোমাদের শহরে দাজ্জালের আবির্ভাব হয়েছে। একথ্ াশুনে সকলে নিজের পরিবার-পরিজনের কাছে গিয়ে দেখতে পাবে যে, সংবাদটি ডাহা মিথ্যা বলেছে। তবে এরজন্য আর বেশিদিন অপেক্ষা করতে হবেনা, বরং দ্রুত দাজ্জালের আবির্ভাব হবে।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৩৫২ ]
___________________________________
নঈম বিন হাম্মাদ
আমাদের বলুন পুত্র এর অসীম বিন হাকিম থেকে দান 
আমর ইবনে আব্দুল্লাহ 
উপর গোড়ালি , বলেন পুরুষ সোল আল্লাহ তাকে এবং আশীর্বাদ মহাকাব্য Vsmi 
এর কাহিনী সংখ্যা এর আমি যাদের Ovsrha আপনি এটা করা হয় উপস্থিত ছিলেন দ্বারা বারো রাজা 
রাজা এর রোমানরা , কনিষ্ঠ 
এবং অন্তত জঙ্গী 
, কিন্তু তারা হয় প্রচারক এবং তাদের বলা উপর ঐ জাতি এবং উদ্ভূত তাদেরতাদের 
উপর হারাম 
এক সত্যিই পায় ইসলাম যে বিজয় দান করে না থেকে ইসলাম যে দিন ও প্রতিবেদন বর্ধিত মুসলমানদের যে প্রতিদিন 
সানা সৈন্য 
এবং নিষিদ্ধ এক সমঝোতা জন্য এটা সত্যিই খ্রীষ্ট Anasrha না যে দিন ও 
Tmantm করার যে 
প্রতিদিন দ্বীপ দুই তৃতীয়াংশ একটি খৃস্টান 
ছেড়ে মানুষ Vdanh বলছেন আমি সমর্থন যেতে আপনার খৃস্টান 
এবং sheds 
কিছু আংশিকভাবে লোহা এর কি এটা তার সাথে একটি তলোয়ার ছিল যে দিন একটি মানুষ ব্যাথা একজন মানুষ 
তার তলোয়ারকে ঢাল বা অন্য কোন স্থানে রাখতে পারে না, কিন্তু এটি কেটে ফেলুন
এবং সেনাবাহিনী বিজয় ছেড়ে নিষিদ্ধ 
এবং এই উপর ধৈর্য নিক্ষেপ খানিকটা বেশ কিছু গভীর চাবুক এই শেডে লোহা 
নিহত যে 
প্রতিদিন মুসলমানদের একটি তৃতীয় এর উইভার এক - এর Mhel টানা তৃতীয় জমি মানে হুই জান্নাতে দেখতে না 
এবং তাদের পরিবারের কখনই দেখতে এবং হতে রোগীর একটি তৃতীয় Faihrssounam তিন দিন পালিয়ে না তাদের বন্ধুদের পালিয়ে । তাহলে এটি ছিল 
তৃতীয় দিনে একটি 
মানুষ এর তাদের বললেন , হে মানুষ এর ইসলাম , কি করছে আপনি অপেক্ষা জন্য ওঠো Vedjloa জান্নাতে 
তাদের আয় ভাই দিন তাদের অজুহাত আল্লাহ নামা হবে বিজয় ও তার ধর্মের রাগ এবং তার তলোয়ার ছুরিকাঘাত হিট 
বর্শা এবং নিক্ষেপ একটি তীর হয় 
অনুমোদনযোগ্য নয় একটি খৃস্টান যে দিন পর বহন একটি পর্যন্ত সময় অস্ত্র 
এবং হিট মুসলমানদের Oagafahm দূরে Hisn শুধুমাত্র পাস না পরিণত খুলুন এবং ছাড়া অন্য কোন শহর তারা খোলা 
আপ করতে উত্তর 
বারো টাওয়ার মধ্যে কনস্টান্টিনোপল Vekpron ঈশ্বর Iqdssouna এবং Ihamdonh ঈশ্বর Vihedm
মুসলমানদের দিনের ভেতরে প্রবেশ তাদের অজুহাত তাদের এবং FD Adhiraha সংগ্রাম হত্যা তার ঈশ্বরের কোষাগার দেখায় বলে হবে 
সে গ্রহণ যারা করে না সংগ্রাহক তওবা করে নেয় এবং দু: খ প্রকাশ Leaver 
বলেন এবং কিভাবে করতে Ndamthma পূরণ 
বলেন খেদ 
সংগ্রাহক বৃদ্ধি না করা উচিত এবং দু: খ প্রকাশ leaver গ্রহণ করা উচিত নয় 
আপনি আমাদের চান বললেন বিশ্বের 
মধ্যে গত এক দশকে , 
তিনি কি আহত তাদের তাদের সাহায্য হয় শাদ্দাদ বছরের পর বছর 
খ্রীষ্টশত্রু 
তারা আসেন না করতে আসা যেখানে তিনি বলেছেন খ্রীষ্টশত্রু আপনার দেশে বেরিয়ে আসেন , 
বলেন Vinasrvon 
বিভ্রান্ত না পাই এটা শীঘ্রই , কিন্তু একটি সামান্য বিট আউট

আমাক এবং কুস্তুনতিনিয়া বিজয়ের বাকি আলোচনা

একটি আরবি শব্দ ডাবল ক্লিক করে তার অভিধান এন্ট্রি দেখায়
হাদিস - ১৩৫৩
হযরত আবু কুবাইল রহঃ থেকে বর্ণিত, তিনি বলেন, আবু ফাররাস, মুসানুসাইর এবং আযাজ ইব্্নে উকরা রহঃ এক স্থানে জমায়েত হয়ে কুস্তুনতিনিয়া এবং সেখানে স্থাপিত মসজিদ সম্বন্ধে আলোচনা করেছেন। হযরত মুসা ইব্নে নূসাইর বলেন, নিঃ সন্দেহে আমি সে স্থান সম্বন্ধে অবগত। হযরত আযাজ ইব্নে উকরা রহঃ বলেন, উভয় দলের প্রত্যেকে আমাকে কথাটির কথা বলেছে, অতঃপর তিনি বলেন তোমরা উভয়দলই সঠিক কাজ করবে। হাদীস বর্ণনাকারী আবু ফাররাস বলেন, আমি হযরত আব্দুল্লাহ ইবনে আমর ইবনুল আ’মকে বলতে শুনেছি, নিশ্চয় তোমরা কুস্তুনতুনিয়া এলাকাটিতে মোট তিনবার যুদ্ধ করবে। প্রথমবার হবে বিভিন্ন ধরনের বালা-মসিবতের মাধ্যমে, দ্বিতীয় দফা হবে চুক্তির মাধ্যমে। এমনকি সেখানে মুসলমানরা একটি মসজিদও প্রতিষ্ঠা করবে এবং অন্য এলাকায় যুদ্ধ করে নিরাপদে কুস্তুনতুনিয়া ফিরে আসবে। তৃতীয় দফা যুদ্ধের মাধ্যমে যেটা আল্লাহ তাআলা জয় করার ব্যবস্থা করবেন। মূলতঃ কুস্তুনতুনিয়া জয় হবে তাকবীরের মাধ্যমে। অতঃপর তার এক তৃতাংশ ধুলিস্যাৎ হয়ে যাবে, আরেক তৃতাংশ আল্লাহ তাআলাা জ্বালিয়ে-পুড়িয়ে দিবেন, অন্য এক তৃতাংশের সম্পদকে তোমরা নিজেদের মাঝে সমান ভাগে বন্টন করবে।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৩৫৩ ]
___________________________________
নঈম বিন হাম্মাদ
আমাদের বলুন পুত্র এর ইবনে থেকে দান 
Hiệp আবু আগে 
তিনি আবু Firas মাওলাকে আমর ইবন আল পূরণ - মুসা বিন নাসির এবং আয়াজ 
বিন বাধা উল্লেখ বিজয় এর কনস্টান্টিনোপল বললেন মসজিদ , যা করা হয় নির্মিত মধ্যে যা 
বললেন আবু Firas 
আমি জানতে জায়গা হয় নির্মিত মধ্যে যা 
মুসা বিন নাসির বলেছিল আমি যে জায়গা জানেন যে , 
আয়াজ বলেন বেন বাধা প্রতি এক রাখে এর তুমি আমার কানের মধ্যে ভাষী Vokhbrah 
Ospettma বলেন 
আপনি উভয় 
বলেন আবু Firas শুনে আব্দুল্লাহ ইবনে ' আমর ইবনুল - আস বলছেন আপনি 
Stgzon 
কনস্টান্টিনোপল তিন 
আক্রমণ 
পারেন প্রথম আক্রমণ হইবে চাবুক 
এবং দ্বিতীয় Salha হইবে এমনকি 
যেখানে মুসলমানদের গড়ে তুলতে একটি মসজিদ এবং কনস্টান্টিনোপল আড়াল থেকে আক্রমণ , এবং তারপর ফিরে আসতে কনস্টান্টিনোপল 
এবং তৃতীয় প্রর্দশিত ঈশ্বরের হতে তোমাদের তাকবীরে Vijrb এবং পুড়ে একটি তৃতীয় ঈশ্বর তৃতীয় , 
এবং অবশিষ্ট তৃতীয় Tksmon এজেন্ট
হাদিস - ১৩৫৪
হযরত উমাইর ইবনে মালেক রহঃ থেকে বর্ণিত তিনি বলেন, আমরা একদিন হযরত আব্দুল্লাহ ইব্নে আমর ইবুনুল আস রাযিঃ এর নিকট ইস্কান্দরিয়া এলাকায় উপস্থিত ছিলাম। সেখানে কুস্তুনতুনিয়া এবং রোমান এলাকার বিজয় নিয়ে আলোচনা করা হলে কেউ কেউ বললেন কুস্তুনতিনিয়া এলাকা গ্রীকের আগে জয় করা হবে, আবার কেউ বলেন, না গ্রীক আগে বিজয় করা হবে, এরপর হবে কুস্তুনতুনিয়া, এসব শুনে হযরত আব্দুল্লাহ ইব্নে আমর ইবনুল আ’স রাযিঃ একটি বাক্স আনতে বললেন, যার মধ্যে লিখিত কিছু কাগজপত্র ছিল। এসব দেখে তিনি বললেন গ্রীকের পূর্বে কুস্তুনতিনিয়া জয় করা হবে। এরপর মূলতঃ রোম বিজয় করা হবে। না হলে আমি আব্দুল্লাহ ইব্নে আমর ইবনুল আ’স মিথ্যাবাদিদের অন্তর্ভুক্ত হয়ে যাবে। একথা তিনি তিনবার বলেছেন।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৩৫৪ ]
___________________________________
নঈম বিন হাম্মাদ
আমাদের বলুন পুত্র এর যেমন হিসাবে ইবনে Hiệp আবু কাছ থেকে অনুদানের 
আমির ইবনে মালিক বলেন 
আমরা ছিলাম যখন আব্দুল্লাহ ইবনে আমর ইবনুল - আস মধ্যে আলেকজান্দ্রিয়া দিন তারা উদাহৃত 
বিজয় এর কনস্টান্টিনোপল ও রোমে , 
বলেন কিছু লোক খোলা কনস্টান্টিনোপল আগে রোমানরা 
বলেন 
কিছু এর আগে কনস্টান্টিনোপল নামক হযরত আবদুল্লাহ ইবনে আমর ফান্ড হয়েছে তাদের খোলা রোমানদের 
বই 
তিনি বলেন করার কনস্টান্টিনোপল খুলুন আগে 
রোমানরা এবং কনস্টান্টিনোপল Vfhunha পর তারপর Ngzon রোমানদের নইলে আব্দুল্লাহ am এর মিথ্যাবাদী 
বলে এটা তিনবার
হাদিস - ১৩৫৫
হযরত ইয়াযিদ ইবনে যিয়াদ আল-আসলামী থেকে বর্ণিত, তিনি সাহাবাদের অন্তর্ভুক্ত। তিনি বলেন,নিঃসন্দেহে ইবনুল মোরেক, অর্থাৎ, রোমান বাদশাহ তিনশত জাহাজের সাহায্যে বিশাল বাহিনী নিয়ে এগিয়ে আসতে আসতে সারসিনা এলাকা পর্যন্ত পৌঁছে যাবে।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৩৫৫ ]
___________________________________
নঈম বিন হাম্মাদ
আবু থেকে ইবনে Rushdin Lahee'ah সম্পর্কে আমাদের বলুন এগিয়ে এর 
ইয়াযীদ ইবনে 
যিয়াদ আসলামী সঙ্গী ছিল যে ছেলে leafed মানে রাজা এর রোমানদের তিনশত জাহাজ আসে 
Bsrsena এমনকি রাখা
হাদিস - ১৩৫৬
হযরত আব্দুল্লাহ ইব্্নে আমর ইবনুল আ’স রাযিঃ থেকে বর্ণিত, তিনি বলেন, ইস্কান্দারিয়ার যুদ্ধ সংগঠিত হবে তাবারিছ ইব্নে আসতীনান ইবনুল আখরামের হাতে। দিনের দুপুরে যে মিনারের প্রান্তে অবতরণ করবে, যেখানে থাকবে চারশত সৈন্য, অতঃপর আরো চারশত সৈন্য আসবে। সকলে এসে মিনারের প্রান্তে অবতরণ করবে, যেখানে থাকবে চারশত সৈন্য, অতঃপর আরো চারশত সৈন্য আসবে। সকলে এসে মিনারের প্রান্তে অবতরন করবে।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৩৫৬ ]
___________________________________
নঈম বিন হাম্মাদ
ইবনে Lahee'ah বশির আমাকে বলেছিল বলেন 
আব্দুল্লাহ বিন 
আমর রা 
কাহিনী ও আলেকজান্দ্রিয়া এ হাত এর বিন Tabars Ostinan বিন acromion যদি একটি যৌগ নেমে 
বাতিঘর ছিল যতক্ষণ না দিনবেলা আসে না করতে চারশো চারশ নৌকা এমনকি এ নেমে 
বাতিঘর
হাদিস - ১৩৫৭
হযরত আব্দুল্লাহ ইব্্নে আমর ইবনুল আ’স রাযিঃ থেকে বর্ণিত, তিনি রাসূলুল্লাহ সাঃ থেকে বর্ণনা করেন, রাসূলুল্লাহ সাঃ এরশাদ করেছেন, যখন দুই আতীক দেশের শাসন ক্ষমতা গ্রহণ করবে, অর্থাৎ, আতীকুল আরব এবং আতীকুর রোম, তখন তাদের হাতে মূলতঃ যুদ্ধ সংগঠিত হবে।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৩৫৭ ]
___________________________________
নঈম বিন হাম্মাদ
আবু থেকে যেমন ইবনে Rushdin Lahee'ah সম্পর্কে আমাদের বলুন 
হযরত আবদুল্লাহ ইবনে আমর 
আল্লাহ সন্তুষ্ট হতে পারে সঙ্গে নবী , শান্তি হতে তার উপর বললেন রাজা Aotaiqan পুরাতন আরব ও প্রাচীন 
রোমান মহাকাব্য ছিল হাত
হাদিস - ১৩৫৮
হযরত আবু যর গিফারী রাযিঃ থেকে বর্ণিত, তিনি বলেন, আমি রাসূলুল্লাহ সাঃ বলতে শুনেছি, বনু ওমাইয়ায় নাক চেপটা বিশিষ্ট একজন লোক থাকবে। যে মিশরে অবস্থান করবে। সে শাসনভার গ্রহণ করবে এবং অন্য একজন শাসককে পরাজিত করবে। একসময় তার থেকে ক্ষমতা ছিনিয়ে নেয়া হলে সে রোমান এলাকায় পলায়ন করবে এবং কিছুদিন পর তাদের প্ররোচিত করে মুসলমানদের বিরুদ্ধে অস্ত্রধারন করতে উৎসাহিত করবে। এটাই হবে সর্বপ্রথম যুদ্ধ।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৩৫৮ ]
___________________________________
নাঈম বিন হাম্মাদ - 1358
পুত্র Hiệp আমাকে গোড়ালি বিন Alqamah বলেন বলল 
আমি শুনেছি বাবা এর তারকা বলেছেন 
আমি শুনেছি আবু যার রা আল্লাহ পারে হতে সন্তুষ্ট সঙ্গে তাকে : আমি শুনেছি রাসূলুল্লাহ এর আল্লাহ শান্তি বর্ষিত হোক আল্লাহর 
হতে উপরে এবং মই Sekou বলছেন 
এর এন উমাইয়া মানুষ Okhans মধ্যে মিসর 
তাঁর কর্তৃত্ব কর্তৃত্ব Vaiglb অনুসরণ করা বা 
দূরে থেকে তাকে Pfeffer করার রোমীয়দের কাছে গ্রীক আসে মানুষ এর ইসলাম প্রথম ইফিপানি
হাদিস - ১৩৫৯
হযরত উরওয়া ইব্নে আবু কাইছ রহঃ থেকে বর্ণিত, তিনি বলেন, বনু ওমাইয়ার এক লোক, আমি ইচ্ছা করলে তার প্রশংসা করতে পারি। তার অবস্থা এমন হবে, বিভিন্ন ধরনের পুরস্কারের মাধ্যমে তাকে চিনা যাবে। মিশরের শাসনক্ষমতা তার হাতে থাকা অবস্থায় সেখানের এক গন আন্দোলনের মুখে সে শাসন ক্ষমতা ছেড়ে দিয়ে মিশর ত্যাগ করে রোমান এলাকায় আশ্রয় নিবে। কিছুদিন পর রোমানদের সহযোগিতায় তাদেরকে মিশরের শাসন ক্ষমতা দখলের জন্য উৎসাহিত করবে। এ যুদ্ধই হবে মূলতঃ প্রথম যুদ্ধ।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৩৫৯ ]
___________________________________
নাঈম বিন হাম্মাদ - 1359
ইবনে Hiệp এবং আমাকে বলেছিলেন সাঈদ ইবনে আব্দুল্লাহ Moradi বলেন 
আমি শুনেছি উরওয়া ইবনে আবী কায়েস বলেছেন 
যে একটি থেকে মানুষ উমাইয়া যদি তাকে আহ্বানের মত এমনকি যদি দৃষ্টি Benath করার উইভার জানত ক্রোধের রোমানদের 
তাঁর শক্তি প্রাধান্য রাগানোর মধ্যে মিসর বা ছিনিয়ে এটা আসে থেকে তাদের গ্রীক
হাদিস - ১৩৬০
খুমাইমা আল-যিয়াদী থেকে বর্ণিত, তিনি এরশাদ করেন, আমি একদিন তাবীকে রোমানদের সম্বন্ধে জিজ্ঞাসা করলে তিনি বলেন, যখন তুমি দেখবে জাজিরায় স্থাপনকৃত তাবুগুলোতে জাহাজ বানানো হচ্ছে, যার কাঠ হবে লেবনানের, বাঁধার রশি হবে মীসান এলাকার এবং তার লোহাগুলো হচ্ছে মারীদের প্রস্তুতকৃত। এরপর তার সৈন্যদলকে যুদ্ধের প্রস্তুতি গ্রহন করতে বলবেন। একথা শুনে তারা যুদ্ধ করতে থাকবে। তবে এ যুদ্ধে কোনো বাধা অতিক্রম করতে পারবেনা এবং কোনো খুটি ভাঙ্গতে সক্ষম হবেনা। যেহেতু তারা রোমান এলকা জয় করবে এবং তারা সাকানিয়্যাহর বাক্স নিয়ে শাম ও মিশরবাসিরা ঝগড়া করবে। যারা সেটাকে ইলিয়া নামক এলাকায় পৌছে দিবে অতঃপর লটারীর ব্যবস্থা করবে, এই কারণে মিশরবাসিদের উপর বিভিন্ন ধরনের বালা-মসিবতের আসতে থাকবে। অতঃপর তারাও সেটাকে ইলিয়াবাসিদেরকে ফেরৎ দিবে।
বর্ণনাকারী বলেন, এরপর আমি তাকে কুস্তুন-তিনিয়া সম্বন্ধে জিজ্ঞাসা করলে তিনি বলেন, যেখানে কিছু লোক যুদ্ধ করবে, যারা কান্নাকাটি করবে এবং আল্লাহ তাআলার প্রতি কাকুতি-মিনতি করতে থাকবে। তারা যে এলাকায় পৌঁছলে তিনদিন পর্যন্ত রোযা রাখবে, আল্লাহ তাআলার দরবারে দোয়া করতে থাকবে এবং আল্লাহ তাআলার প্রতি বিনয়ী হবে। ফলে উক্ত এলাকার পূর্বপার্শ্বের বিশাল এক অংশ ধসে পড়বে, সেখান দিয়ে মুসলমানগন প্রবেশ করতে থাকবে এবং সেখানে অনেকগুলো মসজিদ প্রতিষ্ঠা করা হবে।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৩৬০ ]
___________________________________
নাঈম বিন হাম্মাদ - 1360
তিনি বলেন, 
ইবনে Lahee'ah এবং আমাকে বলেছিলেন কায়েস বিন হাজ্জাজ বলেন , আমি শুনেছি Khtama Ziadi বলে 
আমি শুনেছি Tbie বলছেন , 
এবং তাকে জিজ্ঞেস করলাম সম্পর্কে রোমানদের 
বলেন 
যদি আমি দেখেছি দ্বীপ Foustat নির্মিত যেখানে জাহাজ 
বা উক্ত 
জাহাজ তাদের লেবানন থেকে কাঠ এবং মায়সান এবং MRIs এর Msamerha দড়ি এবং তারপর আদেশ একটি সেনা Vagzoa যা 
কেটে নেই তাদের দড়ি হয় ভাঙ্গা না তাদের একটি কলাম 
তারা উদ্বোধন রোমানস্ এবং নিতে আবাসিক সিন্দুকটি 
Vinazaa কফিন মানুষ এর শাম এবং মানুষ এর মিশর Ayham আনতে এটা Ailia আবার তারপর Isthmua এটা স্পর্শ 
মানুষ এর Ailia মিশরের Bsamanm Verdunha 
বলেন , এবং তাকে সম্পর্কে জিজ্ঞাসা 
কনস্টান্টিনোপল , 
তিনি বলেন 
Iggsunha পুরুষদের রোদন এবং কান্নাকাটি আউট 
ঈশ্বরের কাছে , যদি তাঁবু গাড়ল 
উপবাস তিন দিন 
এবং কল এর ঈশ্বর ও প্রার্থনা আর আল্লাহ তার পূর্বাংশের দিকে নিয়ে যাবেন এবং মুসলমানরা সেখানে প্রবেশ করবে এবং সেখানে 
মসজিদ নির্মাণ করবে
হাদিস - ১৩৬১
হযরত রবীয়া ইবনুল কায়েসী রহঃ কর্তৃক বর্ণিত, তিনি বলেন, তোমাদেরকে সাথে নিয়ে রোমানদের এলাকায় প্রবেশ করবে এবং সে এলাকা জয় করবে। এরপর বায়তুল মোকাদ্দাসের গচ্ছিত অলংকার থাকিবার বাক্স, লাঠি, দস্তর খানা এবং হযরত আদম আঃ এর জামাজোড়া আত্মসাৎ করে নিয়ে। অতঃপর একজন যুবককে নির্দেশ দিলে সেগুলোকে বায়তুল মোকাদ্দাসে ফেরৎ দিয়ে আসবে।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৩৬১ ]
___________________________________
নাঈম বিন হাম্মাদ - 1361
পুত্র Hiệp আমাকে বলেছিল বকর বিন Swadh জিয়াদ বিন নাঈম থেকে রাবিয়া বিন বলেন 
ফার্সি বলেন , 
আপনার সেনা হাঁটা 
রোমানদের 
Vivtaathunha এবং নিতে একটি 
অলঙ্কার এর পবিত্র হাউস এবং সিন্দুকটি এর 
শান্তি 
যে ও খাবার থালাবাসন, লাঠি ও মামলা আদম Viamr একটি অল্প বয়স্ক ছেলে 
Verdha জেরুশালেমে
হাদিস - ১৩৬২
বিশিষ্ট সাহাবী হযরত আব্দুল্লাহ ইব্্নে আমর ইবনুল আ’স রাযিঃ থেকে বর্ণিত, তিনি বলেন, ইলিয়া নামক এলাকার অলি-গলিতে রোমানদের হৃদয়ে মারাত্মকভাবে কম্পন সৃষ্টি হবে। বর্ণনাকারী বলেন, আমি হযরত আব্দুল্লাহ ইবনে আমর ইবনুল আ’স রাযিঃ কে বললাম, সেটা কি প্রথমে একবার ধ্বংস হয়ে যায়নি। তিনি জবাব দিলেন হ্যাঁ, ফলে তাদের কোনো যাতায়াতের রাস্তা থাকবেনা। তিনি বলেন, রোমানরা বলবে, এটা ঐসময় পর্যন্ত চলবে, যতক্ষণ না তোমাদের পর্বতের বিভিন্ন অংশ থেকে খেতে থাকবে। অতঃপর তোমাদের খতীব দাড়িয়ে যাবে। এরপর তোমাদের কতক লোক বলবে, তোমরা কিছুক্ষণ ধৈর্য্যধারন করতে হবে এবং কিছু সময়ের জন্য তোমরা একটু পিছু হটতে থাকবে, যতক্ষণ না তোমাদের পতাকা দেখতে পাবে। আবার তোমাদের কেউ কেউ বলবে, বরং দুশমনের বিরুদ্ধে যুদ্ধ করার জন্য এগিয়ে যাও। যতক্ষণ না আল্লাহ তা’আলা আমাদের এবং তাদের মাঝে সিদ্ধান্ত গ্রহণ না করবেন। তোমাদের একদল বের হয়ে যাবে এবং আরেকদল তাদের প্রতি এগিয়ে এসে পানি বিশিষ্ট একটি এলাকায় এসে যুদ্ধ করবে। তার কথা শুনে আমি বললাম, আমি এমন এক এলাকা সম্বন্ধে জানি যেখানে কোনো পানি নেই, তবে সেখানে একটি নদী রয়েছে। একথা শুনে তিনি বললেন, আল্লাহ তাআলা যদি তাকে প্রকাশ করতে চান তাহলে অবশ্যই প্রকাশ করবেন, তিনি বলেন, অতঃপর আল্লাহ তা’আলা তাদেরকে পরাজিত করবেন। এভাবে তারা চলতে থাকবে, কেউ কাউকে পরাজিত করতে পারবেনা এবং সেদিন খচ্চর সহ অনেক পশুর দাম বৃদ্ধি পেয়ে যাবে। অথচ ইতিপূর্বে এমন বৃদ্ধি কোনো সময় হয়নি। এক পর্যায়ে তারা একটি শহরে প্রবেশ করবে এবং দিনের মধ্যে একটি দল চলে গেলেও অন্য দল বাকি থাকবে। অতঃপর ঐ শহরও তারা জয় করবে এবং প্রত্যেক বাহিনী নিজেদের সামনের দিকে চলতে থাকবে।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৩৬২ ]
___________________________________
নাঈম বিন হাম্মাদ - 136২
আমাদের বকর বিন Swadh থেকে Rushdin ইবনে Hiệp বলুন Jndba হারেস ইবন সম্পর্কে তাকে বলেন যে 
বলেন Harmel 
আমি শুনেছি আব্দুল্লাহ ইবনে আমর বলেছেন 
মধ্যে Tkhvguen Djaab রাম করতে গলি Ailia 
আমি বললাম 
করার হযরত আবদুল্লাহ ইবনে আমর নেই আপনি একবার বিরতি 
বলেছিলাম হ্যাঁ তাই তাদের কাছ থেকে না থাকে গ্রামাঞ্চলের অবশ্যই এর 
রেলওয়ে 
বলেন রোমান বলেছেন , এমনকি যখন এই দলগুলোর খাওয়া থেকে Rifkm 
বলেন , যারা Khtabaakm হইবে 
তোমার শত্রুদের জন্য পরস্পর রোগী ও Astokhroa বলেছেন পর্যন্ত আপনি দেখতে আপনার মতামত এবং বলে করতে একে অন্যকে , কিন্তু আছে তাদের প্রয়োগ 
এমনকি আমাদের মধ্যে ঈশ্বরের সেবা এবং তাদের যায় জন্য আপনার পরিসীমা এবং তাদের গ্রহণ একটি সীমার Afiktthelon উপত্যকা যেখানে 
নদী পানি এবং 
আমি বললাম আমি জানতাম উপত্যকা হয় পানি কিন্তু দ্বারা নদী 
তিনি বলেন , যদি সে চায় 
ঈশ্বর প্রকাশ করতে এটি একটি Verzmanm দেখিয়েছেন বলেন তিনি 
বলেন Veceron এক এবং আক্রমণকারী 
খচ্চর ফোঁড়া যে 
প্রতিদিন ব্যয়বহুল
কখনও গ্রাস না, 
তারা শহর পৌঁছানোর পর্যন্ত কখনও devoured 
এবং দিন 
একটি সম্প্রদায়ের মধ্যে তাদের দ্বারা গিয়েছিলাম , এবং একটি দল বদ্ধ, এবং তারা এটি খোলা, এবং সমস্ত মানুষ তাদের পাশে গ্রহণ করে
হাদিস - ১৩৬৩
হযরত তাবী রহঃ থেকে বর্ণিত, তিনি বলেন, আ’মাকের দিন রোমানদেরকে মাওয়ালীদের খলীফা পরাজিত করবেন।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৩৬৩ ]
___________________________________
নাঈম বিন হাম্মাদ - 1363
Rushdin সম্পর্কে আমাদের বলুন 
আবু সালেহ উপর আইয়াশ ইবনে আব্বাস বিন Qodhir জন্য ইবনে Lahee'ah 
বিক্রি বলেন যে পরাজিত থেকে 
উপর রোমানদের অতল হয় 
উত্তরাধিকারী Mawal
হাদিস - ১৩৬৪
হযরত কা’ব রহঃ থেকে বর্ণিত, তিনি বলেন, অতঃপর রোমানরা তোমাদের কাছে সন্ধি করার প্রস্তাব নিয়ে পাঠাবে, ফলে তোমরা তাদের সাথে চুক্তিতে আবদ্ধ হবে। তখন মানুষ এতবেশি নিরাপত্তা অনুভব করবে, একজন মহিলা নিরাপদে একাকী শামের রাস্তা দিয়ে চলতে থাকবে এবং রোমানদের এলাকায় কায়সারিয়্যাহ নামক একটি শহর প্রতিষ্ঠা করা হবে।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৩৬৪ ]
___________________________________
নাঈম বিন হাম্মাদ - 1364
জন্য সিদ ওয়ালিদ বিন ইয়াহিয়া সম্পর্কে আমাদের বলুন 
হাকীম ইবন আমির থেকে Oirtah বিন মুনযির জন্য বিক্রি 
সম্পর্কে গোড়ালি এবং তারপর সেন্ড রোমানরা বলেন Asoloncm 
ম্যাজিস্ট্রেট Vtsalihunhm পথ নারীরা এই দিনটির কাটা তাদের সিরিয়া নিরাপদ অজুহাত হবে এবং 
নির্মিত শহর এর কৈসরিয়া , 
যা ভূমি এর রোমান
হাদিস - ১৩৬৫
হযরত তাবী রহঃ থেকে বর্ণিত, তিনি বলেন, রুজছ এর ধ্বংস হওয়া এবং হাশেমী এর আত্মপ্রকাশের মাঝখানে সত্তর বৎসরের ব্যবধান রয়েছে।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৩৬৫ ]
___________________________________
নাঈম বিন হাম্মাদ - 1365
থেকে ইয়াযীদ ইবনে Qodhir থেকে Rushdin ছেলে Hiệp মানুষ সম্পর্কে আমাদের বলুন 
আবু সালেহ 
মধ্যে বলেন বিক্রি থেকে 
ধ্বংসাবশেষ Rozs 
মধ্যে 
প্রস্থান হাশেমি 
সত্তর বছর
হাদিস - ১৩৬৬
হযরত আব্দুল্লাহ ইবনে আমর রাযিঃ থেকে বর্ণিত, তিনি রাসূলুল্লাহ সাঃ থেকে হাদীস বর্ণনা করেন, তিনি বলেন, দুই আতীক অর্থাৎ, আতীকুল আরব ও আতীকুররোম যদি রাষ্ট্রীয় ক্ষমতায় আধিষ্ঠিত হয় তাহলে তাদের উভয়ের হাতে বিভিন্ন সময়ে যুদ্ধ সংগঠিত হবে।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৩৬৬ ]
___________________________________
নাঈম বিন হাম্মাদ - 1366

আবদুল্লাহ আমর থেকে আবু আব্দুল্লাহর হায়দার পুত্র সম্পর্কে রুশদীনকে বলুন 
নবী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লামের কাছ থেকে আল্লাহ তাদের সাথে খুশি হবেন যদি আতিয়িক আত্-আ'রাব আর আতাক রোমানরা 
তাদের হাতে থাকতেন।
হাদিস - ১৩৬৭
হযরত ইকরিমা কিংবা সাঈদ ইবনে যুবায়ের রহঃ আল্লাহ তাআলার নি¤েœর আয়াত .................... (আরবী হবে) এর ব্যাখ্যা করতে গিয়ে বলেন, একটি শহর, যেটাকে রোমানরা জয় করবে।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৩৬৭ ]
___________________________________
নাঈম বিন হাম্মাদ - 1367
ইয়াহইয়া ইবনে আল-ইয়ামন আমাদের আকীফায় 

আকরামাহ বা সাঈদ ইবনে যুবাইর কর্তৃক আলী ইবনে আল আকমার কর্তৃক সুফিয়ান সম্পর্কে বলেছেন 
হাদিস - ১৩৬৮
হযরত কা’ব রহঃ আল্লাহ তাআলার বক্তব্য ....................(আরবী হবে) সম্বন্ধে বলেন, বণী ইসরাইলের এক অংশ ব্যাপক যুদ্ধের দিন তারা মারাত্মক গণহত্যা চালাবে। অতঃপর মুসলমান এবং আহ্লে ইসলামকে সাহায্য করা হবে। তখন হযরত কা’ব রহঃ নি¤েœর আয়াতটি তিলাওয়াত করেনঃ
.......................... (আরবী হবে)।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৩৬৮ ]
___________________________________
নাঈম বিন হাম্মাদ - 1368
আমাদের বলুন বাকি এর ইবন আল - সাফওয়ান ইবনে থেকে ওয়ালিদ ও আবু marauding ' আবু Muthanná থেকে আমর 
Alomluki 
থেকে এ গোড়ালি যদি এসে শ্লোক প্রতিশ্রুতি এর পরকালে , আমরা আপনাকে আনা ফিফা শ্লোক বলেন 
এর Sptan উপজাতিদের এর শিশু এর ইস্রায়েল হয় হত্যা মহান মহাকাব্য 
Vinasron ইসলাম ও তার পরিবার এবং তারপর 
পড়া গোড়ালি এবং আমরা বলেছিলাম পর শিশু এর ইস্রায়েল বাস মধ্যে জমি যদি পরকালের প্রতিশ্রুতি আসে, তাহলে আমরা আপনাকে 
আয়াতটি নিয়ে আসব
হাদিস - ১৩৬৯
হযরত কা’ব রহঃ বলেন, ফিলিস্তিন এলাকায় রোমানদের সাথে দুইটি ঘটনা সংগঠিত হবে। একটি হচ্ছে, কাত্্তাকের ঘটনা আর অপরটির নাম হচ্ছে, আল-হাসাদ।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৩৬৯ ]
___________________________________
নাঈম বিন হাম্মাদ - 1369
আবু marauding বশির বিন আব্দুল্লাহ বিন Oheachh জন্য বাকি সম্পর্কে আমাদের বলুন 
থেকে গোড়ালি তিনি বলেন 
ফিলিস্তিন ও Qatan মধ্যে 
রোমান এক নামক 
ফসল 
ও অন্যান্য 
ফসল
হাদিস - ১৩৭০
বিশিষ্ট সাহাবী হযরত আবু হুরায়রা রাযিঃ থেকে বর্ণিত, তিনি এরশাদ করেন, তারা রোমানদের এলাকা জয় করার পর মুহাজিরদের সন্তানগন নিজেদের তলোয়ার রোম এলাকায় লটকিয়ে রাখবেন। এদিকে কুস্তুনতিনিয়া থেকে আগত জনৈক লোক তাদেরকে তালাবদ্ধ করে রাখবে। কিছুক্ষণ পর তারা বুঝতে পারে যে, তাদেরকে তালাবদ্ধ করে রাখা হয়েছে।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৩৭০ ]
___________________________________
নাঈম বিন হাম্মাদ - 1370
আমাদের মুহাম্মদ ইবনে আব্দ আল থেকে আবদুল কুদ্দুস ইবনে আইয়াশ বলুন - রহমান আবু Ghaith 
আবু Hurayrah থেকে বলেন উদ্বোধন রোমানদের এমনকি সংযুক্ত করার শিশু এর অভিবাসীদের 
তলোয়ার রোমানদের 
Viagafl Alagafl কনস্টান্টিনোপল থেকে দেখে এটি লক পারে
হাদিস - ১৩৭১
হযরত আব্দুল মালিক ইবনে উমাইর রাযিঃ থেকে বর্ণিত, তিনি বলেন, আমি হাজ্জাজ ইবনে ইউসুপকে বলতে শুনেছি, তিনি বলেন আমাকে হযরত কাব রহঃ থেকে শুনেছেন এমন একজন বর্ণনা করেছেন। কা’ব রহঃ বলেন, যদি রোমানদের মাঝে ভালো চরিত্রের অধিকারী কেউ থাকে তাহলে নিঃসন্দেহে সে আসমানে চলমান সূর্যের আওয়াজ শুনতে পেত। যেমন কোথাও কোনো বস্তু কাটতে গিয়ে করাত চালানোর আওয়াজ শুনা যায়।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৩৭১ ]
___________________________________
নাঈম বিন হাম্মাদ - 1371
আইয়াশ এবং পুত্র আমাকে বলেছিলেন সাঈদ বিন Absi আবদুল মালেক ইবনে আমের তুলনায় আরো বলেন 
আমি শুনেছি হাজ্জাজ বিন ইউসুফ বলেছেন , 
আমাকে বলেছিলেন তিনি শুনেছেন থেকে হিল বলে , সৃষ্টির কিংবা ব্রোমিন শুনেছি 
এর উপর দালান সূর্য আকাশ Kjr দেখলাম
হাদিস - ১৩৭২
হযরত আবুয্্যাহিরিয়্যাহ এবং জমরা ইব্নে হাবীব রহঃ কর্তৃক বর্ণিত, তারা উভয়জন বলেন, রোমানরা রোম থেকে রোমানিয়া পর্যন্ত এলাকার লোকজনকে সমুদ্র পথে তোমাদের প্রতি এক প্রকার টেনে নিয়ে আসবে। যার কারণে তারা তোমাদের এলাকার দশ হাজার সৈন্যের সমাগমের মাধ্যমে দখল করে নিবে, তারা হিজর এবং ইয়াফা নগরীর মাঝখানে অবস্থান করতে থাকবে। তাদের সর্বশেষ দল এবং জামাআত আক্্কা নগরীতে ছাউনি ফেলবে। যার কারণে শামবাসিরা সর্বশেষ সীমানায় পলায়ন করবে। তাদের সংখ্যা ধীরে ধীরে হ্রাস পেতে থাকবে। এক পর্যায়ে সাহায্য চেয়ে ইয়ামানবাসিদের কাছে লোক পাঠানো হবে এবং তারাও চল্লিশ হাজার সৈন্য দিয়ে সাহায্য করবে। প্রত্যেকের তলোয়ার খেঁজুর গাছের আশেঁর সাথে লটকানো থাকবে। এরপর তারা আক্্কা নামক এলাকায় পৌঁছার পূর্ব পর্যন্ত চলতে থাকবে এবং সেখানেই হবে তাদের এবং তাদের দলের সর্বশেষ সীমানা। ফলে আল্লাহ্ তা’আলা তাদেরকে বিজয় দান করবেন এবং তাদেরকে হত্যা করা হবে। তাদের পিছু নিয়ে রোমান এলাকা পর্যন্ত ধাওয়া করা হয়। এছাড়া অন্যদেরকে হত্যা করা হয় তারা হচ্ছে, ঐসব লোক যারা আমাক এলাকার বড় যুদ্ধে শরীক হয়েছে। এক পর্যায়ে শাম দেশে অবস্থানরত প্রত্যেক খ্রীষ্টান এক স্থানে জমায়েত হয়। এমনভাবে একত্রিত হয়, শামের কোথাও আর কোনো খ্রীষ্টান থাকেনা, বরং গোটা আমাক এলাকা যেন খ্রীষ্টানদের দখলে চলে গিয়েছে। তাদের প্রতি মুসলমান এগিয়ে আসবে, তাদের প্রত্যেকে ইয়ামানবাসীদের যারা আক্কা নামক স্থানের দিকে চলে গিয়েছিল, তাদের সাথে দখলদার খ্রীষ্টানদের ভয়াবহ যুদ্ধ সংগঠিত হবে। সর্বক্ষেত্রে বিভিন্ন ধরনের হাতিয়ার স্থাপন করা হবে। যেদিন অস্ত্রধারী কেউ কোনো প্রকারের কাপুরূষতা দেখাবেনা। মুসলমানদের এক তৃতাংশ শহীদ হয়ে যাবে, বিরাট একটা অংশ দুশমনের সাথে সম্পৃক্ত হয়ে যাবে। এবং অন্য আরেক অংশ বের হয়ে যাবে। মুসলমানদের সৈন্যদল থেকে যারা বের হয়ে যাবে তারা মৃত্যু পর্যন্ত আফসোস্্ করতে থাকবে। সেদিন যেসব মুসলমান কাপুরুষতা প্রদর্শনপূর্বক বের হয়ে যাবে তারা যেন জমিনের উপর শুয়ে থাকবে। অতঃপর তার উপর ইফাফ রাখার নির্দেশ দেয়া হয় এবং যেন ইফাফের উপর থেকে তার মাথার উপর ফেলা হয়। এরপর লোকজনকে চুক্তি করার জন্য আহ্বান করা হলে তারা বলবে ইয়ামানবাসীরা তো ইয়ামান চলে গিয়েছে এবং কায়স গোত্রের লোকজন গ্রামে ফেরৎ গিয়েছে। এক পর্যায়ে মুহাব্বিরগন দাড়িয়ে বলতে থাকবে, আমরা কুফরী গ্রহণকারীদের অন্তর্ভুক্ত হয়ে যাবো। একথা শুনে তাদের সর্দার দাড়িয়ে যাবে এবং তার গোত্রের লোকজনকে উৎসাহিত করবে, যেন রোমানদের উপর হামলা করা হয়। তখনই তাদের দল নেতার মাথার উপরিভাগে তলোয়ার দ্বারা মারাত্মকভাবে আঘাত করা হবে এবং তার মাথা দুইভাগ হয়ে যাবে। এ অবস্থা দেখে সকলের মাঝে যুদ্ধাবস্থা বিরাজ করবে। আল্লাহ তাআলার পক্ষ থেকে মুসলমানদের উপর সাহায্য আসবে তারা বিজয়ী হবে এবং রোমানরা পরাজিত হবে। ঐ দিন পরাজিত সৈন্যদেরকে পাহাড়, পর্বত, অলি-গলির যেখানে পাওয়া যাবে সেখানেই হত্যা করা হবে। যার কারণে তাদের অনেকেই গাছ, পাথর ইত্যাদির পিছনে আত্মগোপন করে থাকবে। তখনই ঐ গাছ-পাথর বলবে, হে মুমিন। আমার পিছনে কাফের রয়েছে তাকে হত্যা করা হোক।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৩৭২ ]
___________________________________
নাঈম বিন হাম্মাদ -
আমাদের বলুন বাকি এর ইবন আল - ওয়ালিদ এবং হাকাম ইবনে 
Nafie ও আবু Zahrieh এবং Damra বেন হাবিব থেকে আবু বকর ইবনে আবী মারইয়াম আবু marauding বলেন কাছে 
আনতে রোমানদের কাছে আপনি থেকে সমুদ্র 
রোমানদের 
কাছে 
Rmanih 
Faihlon আপনি দশ Bssahelkm 
বাস হাজার বাটালিবিশেষ 
মধ্যে মুখ এর জাফা থেকে পাথর এবং একা অবতরণ এবং তাদের গ্রুপ একর 
মানুষ Vernfr 
থেকে Moackhearham Vigulwa Phipposon করার শাম মানুষ এর ইমেন Vistamdoonhm Viamdoonhm হাজার চল্লিশ 
গোত্র তলোয়ার Masad ডাউনলোড 
Veceron এমনকি একর প্রতিস্থাপন 
এবং ব্যাপ্তি মানুষ এবং তাদের গ্রুপ তাদের প্রর্দশিত ঈশ্বর 
Afikthelonhm এবং অনুসরণ তাদের এমনকি সংযুক্ত করার অধিকার এর তাদের গ্রীক ও অন্যদের হত্যা এবং যারা 
উপস্থিত 
গ্র্যান্ড মহাকাব্য গভীরতা 
দেখা হবে মানুষ এর খ্রীষ্টধর্ম সব লেভান্টের মানুষদের মধ্যে এমন একটি ব্যক্তি যেন এগুলি না থাকে
এক এর তাদের , কিন্তু ডি মানুষ এর গভীরতা এবং তাদের মুসলিম একা চলন্ত , এবং তাদের গ্রুপ , মানুষ এর ইমেন যারা 
তীব্র যুদ্ধ Afiktthelon একর আসেন এবং উপর লোহা sheds লোহা হয় caesation না যে দিন Hudaydah 
মুসলমানদের হত্যা , এক - তৃতীয় ও 
সৃষ্ট শত্রু এর তাদের ঘন এর তাদের পরিসীমা , 
এটা থেকে বেরিয়ে এলো লস্কর - ই - 
বিপথে মুসলমানদের এবং তিনি বিচরণ রাখা ডাইস , এটা পনির মুসলমান যে প্রতিদিন বসতে আসা 
উপর স্থল এবং তারপর Bakavh Vlaoda এটি শৃঙ্খলা ও Jawaliqh এটা করা ওভার Alakav 
তারপর 
লোকদের টুকরা টুকরা ম্যাজিস্ট্রেটের 
Okhhl ইমেন Pimenhm কারণ বলে কায়েস Bbteke appends 
যারা হইবে 
সম্পাদকদের 
বলতে আমরা হয় যারা Onlhak কাফের যারা আগাইয়া হইবে ধরতে এর সম্পাদকদের এবং তারপর 
তার লোকদের প্ররোচিত মধ্যে বহন রোমান smite সঙ্গে তলোয়ার এত গুরুত্বপূর্ণ তাদের সভাপতি Evlq তার মাথা এবং ignites যুদ্ধ 
এবং বিজয় এর ঈশ্বর নেমে আসতে উপর তাদের এবং প্রতিটি পর্বত সমভূমি Verzmanm ঈশ্বর হত্যা
এমনকি যদি তাদের কেউ 
গাছ এবং পাথর দ্বারা আচ্ছাদিত হয়, 
তিনি বলবেন, "কোন বিশ্বাসী এই অবিশ্বাসী, এবং আমি তাকে হত্যা করা হবে।"
হাদিস - ১৩৭৩
হযরত কা’ব রহঃ থেকে বর্ণিত, তিনি বলেন, হিমযার এবং হুমাইরবাসির জন্য বড় যুদ্ধের দিন খুবই সুসংবাদ। আল্লাহর কসম! নিঃসন্দেহে আল্লাহ তাআলা তাদেরকে দুনিয়া আখেরাত উভয়টা দান করবেন, যদিও লোকজন সেটাকে অপছন্দ করে।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৩৭৩ ]
___________________________________
নঈম বিন হাম্মাদ - 1373
আমাদের বলুন 
বাকি এর অভিবাসী Azdi জন্য সাফওয়ান বিচারার্থে বিক্রি 
গোড়ালি ধন্য তিনি বলেন সম্পর্কে মহাকাব্য 
গ্রেট গাধার এবং লাল ঈশ্বর Aattiynhm ঈশ্বর , পৃথিবী ও পরকালে , এবং যে মানুষের ঘৃণা
হাদিস - ১৩৭৪
হযরত ইউনুস ইব্্নে সাইফ আল-খাওলানী রহঃ থেকে বর্ণিত, তিনি বলেন, তোমরা রোমনদের সাথে নিরাপত্তা মূলক এক চুক্তিতে আবদ্ধ হবে। এক পর্যায়ে তোমরা এবং রোমানরা তুর্কী এবং ফিরমানদের বিরুদ্ধে যুদ্ধে লিপ্ত হবে।ফলে আল্লাহ তাআলা তোমাদেরকে বিজয়ী করবেন। একপর্যায়ে রোমানরা তাদের ক্রুশ জয় হওয়ার ঘোষণা দিবে। তাদের এ আচরণ দেখে মুসলমানরা ক্ষেপে যাবে এবং একদল অন্য দলের উপর হুমড়ি খেয়ে পড়বে। উভয় দলের মাঝে পর্বতের উচু স্থানে ভয়াবহ এক যুদ্ধ সংগঠিত হবে। আল্লাাহ তা’আলা মুসলমানদেরকে কাফেরদের বিরুদ্ধে বিজয়ী করবেন। এরপর ছোট্ট-বড় আরো অনেক যুদ্ধ হবে।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৩৭৪ ]
___________________________________
নাঈম বিন হাম্মাদ - 1374
আবদুল 
Qudus আবু Doss আল Husssebi সম্পর্কে আমাদের বলেন । তিনি বলেন: আমি খালিদ বিন Ma'dane শুনেছেন বলে: "আমি 
Levant, অবিশ্বাস এবং প্রস্থান থেকে আপনি ছেড়ে যাবে ।"
হাদিস - ১৩৭৫
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৩৭৫ ]
___________________________________
নঈম বিন হাম্মাদ
আমাদের বলুন আবু 
আকিল ইবনে থেকে marauding ইবনে আইয়াশ সচেতন 
ইউনিস বিন সাইফ Khawlaani বলেন 
Tsalihun 
রাম 
নিরাপদ Salha এমনকি 
আপনি আক্রমণ এবং হয় 
তুর্কী এবং কের্মান 
ঈশ্বর প্রর্দশিত করতে আপনি , 
বলছেন রোমানদের 
জিত ক্রস 
এ Vigill মুসলমানদের Vinhazon এবং পক্ষাবলম্বন Afiktthelon ভারী যুদ্ধ সঙ্গে তৃণভূমি একটি 
Tlul তবে আল্লাহ তোমাদের কে খোলে উপর তাদের এবং তারপর এই মহাকাব্যগুলি পরে হবে
হাদিস - ১৩৭৬
হযরত যি মিখবার ইব্নে আখী আন-নাজ্জালী রহঃ থেকে বর্ণিত, তিনি বলেন, আমি রাসূলুল্লাহ সাঃ কে বলতে শুনেছি, রোমানদের সাথে তোমরা দীর্ঘ দশ বৎসরের জন্য চুক্তি করবে, তবে তারা সে চুক্তি কেবল দুই বৎসর পর্যন্ত মেনে চলবে এবং তৃতীয় বৎসরই গাদ্দারী করবে, আবার চতুর্থ বৎসর চুক্তি মেনে চললেও পঞ্চম বৎসর আবারো গাদ্দারী করবে। তাদের অবস্থা দেখে তোমাদের একদল সৈন্য তাদের শহরে পৌছবে। তবে কিছুদিন পর তোমরা এবং রোমানরা মিলে অন্য আরেকজন দুশমনের সাথে যুদ্ধ করবে এবং আল্লাহ তাআলা তোমাদেরক বিজয়ী করবেন। অতঃপর তোমরা সওয়াব এবং গনীমত অর্জনের মাধ্যমে সাহায্য প্রাপ্ত হবে। এরপর তোমরা টীলা বিশিষ্ট এক এলাকায় ছাউনি ফেলবে।
ঐসময় তোমাদের একজন বলবে, আল্লাহ জয়লাভ হয়েছে, একথা শুনে তাদের থেকে একজন বলে উঠবে ক্রুশই বিজয়ী হয়েছে। এটা নিয়ে উভয়ের মাঝে কিছুক্ষণ তর্কাতর্কি চলতে থাকবে। এদিকে মুসলমানরা রাগেÑক্ষোভে ফেঁেস উঠবে, ঐ ক্রশটি কিন্তু মুসলমানদের পার্শেই রাখা ছিল। যা দেখে একজন মুসলমান রাগ সামলাতে না পেরে উক্ত ক্রশটি ভেঙ্গে চুরমার করে ফেলবে। এর সাথে সাথে যে মুসলমান উক্ত ক্রুশ ভেঙ্গেছে সকলে তার উপর আক্রমন করে শহীদ করে ফেলবে। অন্যদিকে মুসলমানদের উক্ত দলটিও অস্ত্র হাতে উঠিয়ে নিবে এবং রোমানরাও হাতে অস্ত্র নিয়ে যুদ্ধের জন্য প্রস্তুত হবে। উভয় দল যুদ্ধ করতে থাকবে। আল্লাহ তাআলা মুসলমানদের এজামাআতকে শাহাদাত নসীব করার দ্বারা সম্মানিত করবেন। পরবর্তীতে তারা তাদের বাদশাহ্র কাছে এসে বলবে, আমরা আপনার দেশের সীমানা এবং রনশক্তি প্রদর্শনের জন্য যথেষ্ট ভূমিকা রেখেছি। এ ব্যাপারে আপনার মতামত কি?  জবাবে বাদশাহ প্রত্যেককে এক লোকের বোঝায় সামানা দিয়েছেন। এরপর তারা আশিটি দল নিয়ে তোমাদের বিরুদ্ধে এগিয়ে আসবে, প্রত্যেক দলে বার হাজার করে সৈন্য থাকবে।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৩৭৬ ]
___________________________________
নাঈম বিন হাম্মাদ - 1376
আমাদের Damra বিন বলুন 
রাবিয়া ইয়াহিয়া ইবনে আবী আমর Alsabana 
একটি গোয়েন্দা জন্য এর ভাতিজা , নাজ্জাশী বলেন , আমি শুনেছি মেসেঞ্জার এর 
আল্লাহ , সা বলেছেন 
Tsalihun রোমানরা দশ বছর 
Salha নিরাপদ Ufone আপনি দুই বছর 
এবং Agdron তৃতীয় অথবা Levon - চার Agdron পঞ্চম এবং ড্রপ সেনা এর মাধ্যমে আপনি শহর 
Vtnfron আপনি তারা হয় তাদের পেছনে শত্রু 
ঈশ্বর আপনার Vtnasron ন্যায়ত সহ পুরস্কৃত প্রর্দশিত 
এবং লুঠ Vinzlon একটি Tlul সঙ্গে তৃণভূমি 
বলেছেন Qailkm ঈশ্বর পরাজিত 
তিনি বলেছেন Qailhm ক্রস 
আধিপত্য Vidolnha ঘন্টা 
Vigill মুসলমান ও তাদের ক্রস এর তাদের অদুরে Vithor মুসলিম 
ঊর্মিভঙ্গ তাদের ক্রস Vidgah Vithoron তাদের ক্রস বল্লম যে গ্যাং Vtthor ঘাড় মুসলিমদের 
কাছে রোমান অস্ত্র ও তাদের অস্ত্র ঈশ্বরের Afiktthelon বিক্রম করার erupts মুসলমানদের যে গ্যাং 
Vesichdon
তাদের রাজা আসবে এবং 
তারা বলে , Cfhinak আরবদের এবং শেয়ার সীমিত হতে পারে এর কি হয় অপেক্ষা মধ্যে জড়ো 
আপনি বহন একটি নারী এবং তারপর আসে করার প্রতিটি খুব বারো হাজার অধীনে খুব আশি আপনি
হাদিস - ১৩৭৭
হযরত কা’ব রহঃ থেকে বর্ণিত, তিনি বলেন, যদি তিনটি বিষয় না হতো তাহলে আমি জীবিত থাকা পছন্দই করতামনা। তার মধ্যে একটি হচ্ছে, বড় যুদ্ধ, যেহেতু সেদিন আল্লাহ আল্লাহতাআলা প্রত্যেক অস্ত্রধারী লোকের উপর কাপুরুষতা অবলম্বন করাকে হারাম করে দিয়েছেন। তখন কেউ যদি তার তলোয়ারের উপরের অংশ ধারা শত্রুর আঘাত করে তাহালেও সে শত্রু দ্বিখন্ডিত হয়ে যাবে।
দ্বিতীয় হচ্ছে, কাফেরদের একটি শহরকে জয় করা। কেননা এশহর জয় করা ছাড়া অন্যগুলো একেবারে নগন্য মনে হবে, যেগুলো যতবড় যুদ্ধই হোক না কেন।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৩৭৭ ]
___________________________________
নাঈম বিন হাম্মাদ - 1377
আমাদের বলুন আনন্দদায়ক বিন মোহাম্মদ Shurayh ছেলে Obeid জন্য Oirtah সম্পর্কে আবু আইয়ুব 
থেকে গোড়ালি , লুলা বলেন 
তিনটি এক পুনর্জাগরিত না পছন্দ এর তাদের মহান মহাকাব্য, সর্বশক্তিমান ঈশ্বরের যে প্রতিদিন , তাদের সবাইকে বঞ্চিত 
Hudaydah যে caesation এমনকি Bsfod হিটম্যান কাটা বন্ধ 
খোলা শহর সাক্ষ্য না অন্যান্য এর বিশ্বাসঘাতকতা 
এবং যে ছোট খোলার ছাড়া একটি বড় বড়
হাদিস - ১৩৭৮
হযরত আলী ইবনে রবাহ রহঃ থেকে বর্ণিত, তিনি বলেন, আজলান নামক স্থানে হযরত আব্দুল্লাহ ইব্্নে আমর ইবনুল আ’স রাযিঃ তার ক্ষেতে কাজ করাকালীন ফিলিস্তিনের কায়সারিয়া এলাকার পার্শ্বে থাকা অবস্থায় তার কাছে ঘোড়ার উপর আরোহন করতঃ একেবারে ধুসরিত অবস্থায় একজন লোক আসে, তার নিজের তলোয়ারে চুমো খেয়ে বলে উঠলো, লোকজন আতংকগ্রস্থ হয়ে পড়েছে, সে কায়সারিয়া যুদ্ধে শরীক হতে আশাবাদি। তিনি বললেন, সেটা তো আমার বা তোমার যুগে হবে না। যতক্ষণ না জালেম এক শাসককে মিশরের রাষ্ট্র ক্ষমতায় অধিষ্ঠিত না দেখবে। অতঃপর গণ আন্দোলনের মুখে যে রোমের দিকে পলায়ন করবে। অতঃপর কিছুদিন যেতে না যেতেই সে রোমানদের সহায়তায় মিশরের উপর আক্রমন করে বসবে। এটিই হবে সর্বপ্রথম যুদ্ধ।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৩৭৮ ]
___________________________________
নাঈম বিন হাম্মাদ - 1378
আমাদের বলুন ওয়ালিদ ইবনে Hiệp ইয়াযীদ 
ইবনে আবী হাবীব আলী বিন রাবাহ বলেন 
যখন হযরত আবদুল্লাহ ইবনে আমর তার খামার Baljlan উপর 
দিকে এর কৈসরিয়া প্যালেস্টাইন হিসেবে তার ঘোড়া উপর ধূলিমলিন মানুষ দ্বারা গৃহীত তার অস্ত্র পেয়েছেন তাকে বলতে যে মানুষ আছে 
সাক্ষী আশা ত্রস্ত মহাকাব্য Caesaria 
বলেন, এটি যে এটা আমার সময় বা আপনার সময় না হয় যতক্ষণ না আপনি 
মিশরীয়দের একজন শক্তিশালী পুত্রদের একজনকে তার ক্ষমতা অতিক্রম করে দেখতে পারেন এবং রোমে পালিয়ে যান এবং রোমে আসেন প্রথম 
মহাকাব্য
হাদিস - ১৩৭৯
হযরত আব্দুর রহমান ইবনে হাসানা রাযিঃ থেকে বর্ণিত, তিনি বলেন, আমি রাসুলুল্লাহ সাঃ কে বলতে শুনেছি, কসম যে স্বত্তার যার হাতে আমার প্রাণ! নিঃসন্দেহে ঈমান মসজিদের ভিতরে প্রবেশ করে যাবে, যেমন সাপ তার গর্তে প্রবেশ করে। আর ঈমান যেন মদিনার মধ্যেই আবদ্ধ হয়ে যাবে, যেমন বিভিন্ন ময়না। অবর্জনা নদীর ¯্রােতের মধ্যে আবদ্ধ হয়ে যায়। এহেন পরিস্থিতিতে আরবগণ স্বসস্ত্র সাহায্য প্রার্থনা করবে, যার কারণে প্রত্যেকে যার কাছে যাকিছু আছে তা নিয়ে বেরিয়ে যাবে। নেককার, বদকার সকলের একটি কথা থাকবে তাদেরকে এবং রোমানদেরকে হত্যা কর। এক পর্যায়ে বিবাহের মোড় ঘুরে যাবে এবং এন্তাকিয়া নগরীর আ’মাক স্থানের দিকে ধাবিত হবে, সেখানে দীর্ঘ তিন দিন পর্যন্ত যুদ্ধ চলতে থাকবে। আল্লাহ তাআলা উভয় দল থেকে সাহায্য উঠিয়ে নিবেন। যার কারণে এত বেশি রক্তপাত হবে, এমনকি ঘোড়ার শরীরের অর্ধেক অংশ পর্যন্ত রক্তে রঞ্জিত হয়ে যাবে। এমন অবস্থা দেখে ফেরেশতাগণ বলবেন, হে আল্লাহ! আপনার বান্দাদেরকে কি সাহায্য করবেননা ? জবাবে আল্লাহতাআলা বলবেন, না এখন সাহায্য করা যাবেনা, যতক্ষণ না তাদের শহীদদের মিছিল দীর্ঘ হয়। এই যুদ্ধে এক তৃতাংশ শহীদ হয়ে যাবে, আরেক তৃতীয়াংশ ধৈর্য্যধারন করবে এবং অন্য অংশ সন্দেহ প্রবন হয়ে ফিরে যাবে। শাস্তি হিসেবে আল্লাহ তাআলা তাদেরকে ধসে দিবেন।
বর্ণনাকারী বলেন, অতঃপর রোমানরা বলবে, যতক্ষণ পর্যন্ত আমাদের বংশের লোকদের আমাদের হাতে সোপর্দ করবেনা ততক্ষণ আমরা তোমাদেরকে ছাড়বোনা। আরবরা, অনারবদেরকে বলবে, তোমরা ধর্ম গ্রহন কর, একথা শুনে অনারবরা বলবে, ঈমান গ্রহণ করার পরও কি আমরা আবার কুফরী ধর্মে ফিরে যাব। তখনই সকলের রাগ চরমে পৌছবে এবং রোমানদের উপর এক যোগে হামলা করবে। উভয় দলের মাঝে ভয়াবহ যুদ্ধ শুরু হয়ে যাবে। এ অবস্থার পর আল্লাহ তাআলা খুবই রাগান্বিত হবে, যার কারনে রোমানদেরকে আল্লাহর তলোয়ার ও তীর দ্বারা আক্রমণ করবে। হযরত আব্দুল্লাহ ইবনে আমরকে আল্লাহর তলোয়ার ও তীর সম্বন্ধে জিজ্ঞাসা করা হলে তিনি বলেন, আল্লাহ্্র তীর-তলোয়ার দ্বারা উদ্দেশ্য হচ্ছে, মুমিনের তীর এবং তলোয়ার এভাবে কিছুক্ষণ যুদ্ধ চলার পর রোমানরা পুরোপুরি ধ্বংস হয়ে যাবে, এবং খবর পৌঁছানোর জন্যও কেউ থাকবেনো। তাদেরকে পরাজিত করার পর মুসলমানরা রোম শহরের দিকে এগিয়ে গিয়ে আল্লাহ আকবর তাকবীর দ্বারা রোমের কেল্লা এবং শহর জয় করবে। এক পর্যায়ে তারা হেরাকলের শহরে পৌছে, সেটাকে পুরোপুরি খালি ও জনমানবশুন্য দেখতে পাবে। অতঃপর উক্ত শহরকেও তাকবীর দ্বারা জয় করে নিবে। সেখানে গিয়ে আল্লাহ আকবর বলার সাথে সাথে যে শহরের একটি দেয়াল ধসে পড়বে। আরেকবার তাকবীর বলার সাথে সাথে আরেক পার্শ্বের দেয়াল ধসে পড়ে যাবে। সমুদ্রের দিকের দেয়ালটি বাকি থাকবে। যা ধসে পড়বেনা। অতঃপর রোমিয়ার দিকে এগিয়ে গেলে, সেটাও তাকবীর দ্বারা জয় করবে। তখন যুদ্ধ থেকে পাওয়া গণীমতের মাল সমানভাবে বন্টন করতে থাকবে।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৩৭৯ ]
___________________________________
নাঈম বিন হাম্মাদ - 1379
আমাদের বলুন ওয়ালিদ ও আবু marauding ইবনে আইয়াশ ইসহাক ইবনে আবী মাথার খুলি 
সুপ্রসন্ন ইউসুফ বিন সুলাইমান নানী এর 
জন্য আব্দুর রহমান বিন বছর বলেন : আমি শুনেছি রাসূলুল্লাহ এর আল্লাহ শান্তি বর্ষিত হোক 
আল্লাহর মই ওয়া সাল্লাম দুটি মসজিদ মধ্যে সাথে আরও ঈমান বেড়ে Aorzn আমার হাত Torz যেমন বলছেন 
তার ভাঁজ এবং Ihazin বিশ্বাস বাস মধ্যে শহর টরেন্ট ওয়াল্ডম্যান এছাড়াও Fbenahm এটা আছে 
Astagatt আরবদের Boarabha 
তারা Mjelbh মধ্যে তাদের ভালো বাইরে গিয়ে অতীত ও থাকুন Vaguettheloa চেয়ে ভাল 
রোমান Vtaatqlb তাদের যুদ্ধের 
এমনকি সাড়া গভীরতা এর আন্তিয়খিয়ায় 
তিন রাত্রি Afiktthelon এর ঈশ্বর উত্তোলন করেন 
উভয় দল তাই ঘোড়া লক জয় Tnnha রক্ত 
বলছেন ফেরেশতাগণ কোন প্রভু 
না করতে ক্রীতদাসদের প্রচার , 
জ বলেছেন জেড ঘন ঘন Vesichd এক - তৃতীয় এর তাদের শহীদ ও একটি তৃতীয় রোগী কারণ একটি তৃতীয় এর Shaka 
Vijsv তাদের 
বললেন , বলছেন রোমানদের হবে না Ndekm [শুধুমাত্র] যে
স্নাতক করার আমাদের সকলের 
উৎপত্তি এর আমাদের 
বলেছেন আরবরা 
এর পারস্যদেশনিবাসীগণ 
নির্যাতন গ্রীক , 
বিশ্বাস পর পারস্যদেশনিবাসীগণ Oenkvr বলেছেন 
Vigillon যখন এটি যে রোমান Afiktthelon ঈশ্বর Vigill Faihmlon আঘাত তার তলোয়ার ছুরিকাঘাত 
বর্শা 
হে হযরত আবদুল্লাহ ইবনে আমর বলা হয়েছিল কি সাইফ আল্লাহ ও তার বর্শা 
তলোয়ার বিশ্বাসী তার বর্শা এমনকি 
সব ধ্বংস এর রোমানদের কি শুধুমাত্র সংবাদদাতা পালাতে এবং 
তারপর জাম্পিং জমি এর রোমান Vivtaathon বুরুজ 
এবং Mdainha তাকবীরে 
যতক্ষণ না তারা পৌঁছে শহর এর হারকিউলিস বেশী খুঁজে তার উপসাগর বাথা এবং তারপর Evtaathunha তাকবীরে 
Tkberp Visagt এক Jderha বড় হয়ে এবং তারপর আবার হত্তয়া অন্য প্রাচীর পড়া প্রাচীর সমুদ্র অবশেষ 
পড়ে না 
তাহলে Astagiron রোমানদের 
Vivtaathunha তাকবীর এবং Atkelon ইয়ু তাদের গানের মিনার, তাই 
নির্বোধ হতে না হিসাবে 
নবজাতক তার নাতি উল্লেখ না করে যে ছাড়াও
হাদিস - ১৩৮০
হযরত সাঈদ ইব্নে জাবের রহঃ থেকে বর্ণিত, তিনি বলেন, মোয়াবিয়া রাযিঃ এর বংশধর থেকে জনৈক লোক বলেন, তুমি কি তোমার ভাইয়ের কিতাবটি পড়েছ?
জবাবে তিনি বলেন, তার প্রতি একটি কিতাব নিক্ষেপ করবে, যেখানে লেখা থাকবে ............(আরবি হবে)। তার অনেকগুলো নাম থাকবে। যেমন ......... ইত্যাদি, ইত্যাদি।
এর পর আহলে ইয়ামানে একটি সন্তান জন্মলাভ করবে, যারা জিকিরকে এমনভাবে গ্রহণ করবে যেমনভাবে ক্ষুধার্ত পাখি গোশতের প্রতি আগ্রহী হয় এবং ক্ষুধার্ত বকরি পানির প্রতি উৎসাহী হয়ে উঠে। তাদের পরিবার থেকে দূর্বলতা দূর করে দিব, তাদের অন্তরে দৃঢ়তা দান করব। যুদ্ধের সময় তাদের আওয়াজকে সিংহের হুংকারের মত করে দিব। তারা বনজঙ্গল থেকে বের তাদের রাখালদেরকে যখন আওয়াজ দিলে সেই আওয়াজ থেকে বিরত্ব ও বাহাদুরী প্রকাশ পাবে। তাদের ঘোড়ার ক্ষুরকে আমি সমতল স্থানে চলন্ত লোহার মত করে দিব। যাতে করে যুদ্ধকালীন শক্তি সঞ্চয় করতে পারে। তাদের কামানের রশিগুলোকে খুবই শক্ত করে দিব। এবং তোমাকে সূর্যের নিচে হাড্ডিসার করে রেখে দিব, আর তোমাকে জনমানব শূন্য এলাকায় থাকতে দিব, যেখানে কেবলমাত্র পশুপাখিই তোমার সাথি হবে।  তোমার ঘরকে দেয়াশালায়ে পরিণত করব, তোমার জ্বলন্ত ঘরের ধোঁয়া আসমানের পাখিকে পর্যন্ত স্পর্শ করবে। তোমার আর্তনাদের আওয়াজ আমি জাজিরার বাসিন্দাদেরকেও শুনাব, এভাবে আরো ধমকসূলভ আলোচনা করা হয়েছে, যেগুলো সব আমি সংরক্ষণ করতে পারিনি।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৩৮০ ]
___________________________________
নাঈম বিন হাম্মাদ - 1380
আমাদের আবদুল কুদ্দুস এবং বলুন পুত্র এর অনেক বিন 
দিনার ইবনে আইয়াশ ইয়াহিয়া ইবনে আবী আমর Alsabana সাঈদ বিন জাবের 
লোকটি বলল করতে তাকে , 
আল সিদ পড়েন নি সংবাদপত্র ভাই গোড়ালি থেকে সংবাদপত্রের 
তিনি মাটিতে ছুড়ে ফেলে যা হয় লিখিত সংবাদপত্র বলুন 
ইমেজ এর রোমান শহর 
যা হয় 
অনেক নামে ডাকা , সহ ইমেজ বলতে পরোয়ানা ও Tjbert জন্য Ataat 
Bjbrock পার Bjbrock Jbroca এবং Tmthleen Falakk Barchi Obosn আপনার বান্দাদের হয় অশিক্ষিত 
শেবা জন্মগ্রহণ মানুষ এর ইমেন যারা অন্তর্ভুক্ত পাখি ক্ষুধার্ত মাংস উল্লিখিত সাড়া, অন্তর্ভুক্ত হিসাবে 
ভেড়া তৃষ্ণা জন্য পানি এবং Onzaan অন্তরে এর আপনার পরিবার এবং Ohdn Qlbohem এবং Odjaln ভয়েস এর এক এর তাদের যখন খাদ 
ভয়েস এর সিংহের আসে আউট মেষপালকদের বন Faisih তাদের কণ্ঠস্বর সাহস এবং তীব্রতা ছাড়া বৃদ্ধি না মেড তাদের 
খুর এর যেমন তাদের ঘোড়া যেমন লোহা সাফা খাদ এবং Ohdn স্ট্রিং উপর উপলব্ধি করা এবং Otrkink Gelh bows
সূর্য ও Otrkink বাস করতে পারবে না আপনি শুধুমাত্র পাখি এবং জন্তু এবং Odjaln Hjartk গন্ধক এবং আপনার ধোঁয়া Odjaln 
পাখি আটকায় এর বায়ু ও শুনতে দ্বীপপুঞ্জ এর সমুদ্র আপনার ভয়েস 
পরব মধ্যে এর অনেক মুখস্থ করা হয়নি পুরো
হাদিস - ১৩৮১
বিশিষ্ট সাহাবী হযরত আব্দুল্লাহ্্ ইবনে আমর ইবনুল আ’স রাযিঃ থেকে বর্ণনা করা হয়েছে, তিনি বলেন, আল্লা তাআলার দরবারে সর্বত্তোম শহীদ হচ্ছে, সমুদ্রের শহীদ, এন্তাকিয়ার আ’যাফের শহীদ, এবং দাজ্জালের সাথে মোকাবেলা করে যারা শহীদ হবে।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৩৮১ ]
___________________________________
নাঈম বিন হাম্মাদ - 1381
ইবনে আইয়াশ বলেন , ও আবু সালামা হাদরামী থেকে আমাকে ইসহাক ইবনে আবী মাথার খুলি বলা 
আব্দ 
আল্লাহ ইবনে ' বললেন আমর সেরা যখন শহীদদের এর ঈশ্বর ও শহীদদের এর শহীদদের এর সমুদ্র 
অতল এর আন্তিয়খিয়ায় 
এবং শহীদদের এর খ্রীষ্টশত্রু
হাদিস - ১৩৮২
হযরত কা’ব রহঃ থেকে বর্ণিত, তিনি বলেন, বড় যুদ্ধের শহীদদের কবর তার পূর্বে শহীদ হওয়া লোকজনের কবর থেকে বেশি আলোকিত হবে।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৩৮২ ]
___________________________________
নাঈম বিন হাম্মাদ - 138২
আমাদের আবদুল ইবনে সাদ থেকে মুহাম্মদ ইবনে আল-ওয়ালেদ আল জুবাইদীর বাকি অংশটি বলুন 
যে মহান শহীদদের শহীদদের কবর তাদের শহীদদের কবরের মধ্যে আলো দিচ্ছে
হাদিস - ১৩৮৩
হযরত কা’ব রহঃ থেকে বর্ণিত, তিনি বলেন, যদি আমি সবচেয়ে বড় যুদ্ধে শরীক হতে পারতাম, তাহলে এরপূর্বে যেসব কিছুতে শরীক হতে পারিনি তার জন্য কোনো আফ্্সোস থাকতোনা এবং এরপর আর জীবিত থাকতে না পারলেও কোনো পরোয়া ছিলনা, বড় যুদ্ধের দিন দাজ্জালের যুদ্ধের দিনে থেকে আরো বেশি ভয়াবহ হবে। কেননা দাজ্জালের সাথে থাকবে মাত্র একটি তলোয়ার, কিন্তু বড় যুদ্ধের সময় উভয় পক্ষের কাছে অনেক ধরনের আধুনিক অস্ত্র থাকবে।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৩৮৩ ]
___________________________________
নাঈম বিন হাম্মাদ -
আমাদের বলুন Shurayh ইবনে ওবায়েদ থেকে সাফওয়ান থেকে আবদুল কুদ্দুস বাকি 
থেকে গোড়ালি তিনি বলেন 
যে, আমি দেখেছি প্রধান কাহিনী আমি কি মিস তাকে পরে না রাখা মনে টেক্কা করা হয়নি 
এবং এর যুদ্ধ মহান কাহিনী এর যুদ্ধ সর্বশ্রেষ্ঠ খ্রীষ্টশত্রু 
কারণ এটি সাথে আছেন খ্রীষ্টশত্রু এক তরবারি এবং 
সঙ্গে মালিকদের এর মহাকাব্য তলোয়ার তলোয়ার এবং জাতিসমূহ
হাদিস - ১৩৮৪
হযরত কা’ব রহঃ থেকে বর্ণিত, তিনি বলেন, আল্লাহ তাআলা রোমানদের মধ্যে তিন প্রকারের হত্যা রাখবেন, এক প্রকার হচ্ছে, ইয়ারযুকের হত্যা, দ্বিতীয়, কাইয়ান কাছের হত্যা অর্থাৎ, হিম্্স নগরীর যুদ্ধ আর তৃতীয় হচ্ছে, আযাফ এলাকার হত্যা বা যুদ্ধ।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৩৮৪ ]
___________________________________
নাঈম বিন হাম্মাদ - 1384
সম্পর্কে ইবনে আবু ayash থেকে marauding আমাদের বলুন 
আব্দুল্লাহ ইবনে দিনার 
থেকে গোড়ালি এর গড অলমাইটি বলেন যে তিনটি রোমান উত্সর্গমূলক 
Oohin ইয়ারমুক 
এবং 
দ্বিতীয় 
Vinks মানে Altmrh যা 
হোমস 
এবং 
তৃতীয় 
অতল
হাদিস - ১৩৮৫
হযরত কা’ব রহঃ থেকে বর্ণিত, তিনি বলেন, কুস্তুনতুনিয়ার উভয় পার্শ্ব অর্থাৎ, কিলাইত জয় করা ছাড়া কুস্তুনতুনিয়া জয় করা সম্ভব হবে না, তাকে জিজ্ঞাসা করা হলো কিলাইত আবার কোন এলাকা, জবাবে তিনি বলেন কিলাইত হচ্ছে, উমুরিয়া নামক এলাকা।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৩৮৫ ]
___________________________________
নাঈম বিন হাম্মাদ - 1385
আমাদের আবু marauding বলুন 
আবু Hzan থেকে তার বাবার কাছ থেকে বেন Damra থ্রেশহোল্ড 
থেকে গোড়ালি এর কনস্টান্টিনোপল তিনি বলেন খুলবেন না যতক্ষণ না আপনি খোলা 
holistically 
বলা হয়েছিল এবং কি holistically 
বলেন Amuriyah
হাদিস - ১৩৮৬
হযরত কা’ব রহঃ বর্ণনা করেন, কুস্তুনতিনিয়ার নাম জয় করা ছাড়া কুস্তুনতিনিয়া জয় করা যাবে না, না’র কি জিনিষ জিজ্ঞাসা করা হলে তিনি জবাবা দেন, না’র হল উমূরিয়া। কেউ কেউ না’ব বলতে কুস্তুনতুনিয়ার পার্শ্ববর্তী এলাকা বুঝানো হয়েছে।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৩৮৬ ]
___________________________________
নাঈম বিন হাম্মাদ - 1386
আবু বশির আমাকে marauding বলেন 
বিন আব্দুল্লাহ বিন Oheachh জন্য বাকি 
থেকে গোড়ালি বলেন পর্যন্ত কনস্টান্টিনোপল প্রর্দশিত নাভা খুলবেন না 
বলা হয়েছিল এবং কি নাভা 
Amuriyah বলেন 
বলেন আবু বকর আমাকে বলেছিলে তার মতো গোড়ালি , কিন্তু তিনি বলেন 
তার কুকুর
হাদিস - ১৩৮৭
হযরত কা’ব রহঃ থেকে বর্ণিত, তিনি বলেন, উমূরিয়া এলাকা কুস্তুনতিনিয়া এলাকার মূল। কেননা, কুস্তুনতিনিয়া এলাকার যাবতীয় সবকিছু সেখানেই জমা রাখা হয়।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৩৮৭ ]
___________________________________
নাঈম বিন হাম্মাদ -
ক্বিব আম্মুরীকে 
বিক্রি 
করার বিষয়ে তার পিতার কাছ থেকে ওমর ইবনে আমর আল আহমুসী সম্পর্কে ইবনে আল-ওয়ালেদ ও আবু আল মুঘিরাকে 
বলুন, কনস্টান্টিনোপলের কুকুরটি বিনা দ্বিধায় 
পড়তে বলুন
হাদিস - ১৩৮৮
হযরত কা’ব রহঃ থেকে বর্ণিত, তিনি বলেন, হিরাকলের শহর জয় করার পর আমার আর জীবিত থাকার ইচ্ছা নেই। কেননা তখন এ পৃথিবীতে বিভিন্ন প্রকারের খারাবি ও গুনাহের দরজা উম্মোচন হয়ে যাবে। এবং অনেক অপমান ও লাঞ্চনা সহ্য করতে হবে।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৩৮৮ ]
___________________________________
নাঈম বিন হাম্মাদ -
আমাদের বলুন বাকি এর ইবন আল - সাফওয়ান ইবনে আমর ইবনে ওবায়েদ Shurayh থেকে ওয়ালিদ 
সম্পর্কে তিনি বলেন গোড়ালি 
কি আমি পরে খোলা থাকার ভালবাসেন শহর এর হারকিউলিস যে দরজা এর মন্দ , তারপর প্রভুর কাছে হুয়ান এবং তরুণ প্রর্দশিত 
খোলা
হাদিস - ১৩৮৯
হযরত যুবায়ের রহঃ থেকে বর্ণিত, তিনি বলেন আমাদেরকে বিশিষ্ট সাহাবী হযরত আবু দারদা রাযিঃ বলেছেন, হিরাকলের শহর জয় করতে তাড়াহুড়ো করোনা। কেননা, এ শহর জয়ের সাথে অনেক লাঞ্ছনা ও অপদস্থতার সম্পর্ক রয়েছে।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৩৮৯ ]
___________________________________
নাঈম বিন হাম্মাদ - 1389
তিনি 
আমাকে বললেন: 'আবু দারদা' আমাদের বলে, ' 
হারকিউলিসের শহর খুলতে দৌড়াও না।'
হাদিস - ১৩৯০
হযরত কা’ব রহঃ থেকে বর্ণিত, তিনি বলেন, যখন কুস্তুনতুনিয়া থেকে কুরাইশের কোনো লোক পলায়ন করবে, তখন এমন একজন আমীর এবং তার সৈন্যদল উপস্থিত হবে, যারা কুস্তুনতিনিয়া জয় করবে, তাদের মধ্যে কোনো চোর, যিনাকারী ডাকাত থাকবেনা। তীব্র যুদ্ধ হবে মূলতঃ হেরাকলের বংশের এক লোকের নেতৃত্বে।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৩৯০ ]
___________________________________
নাঈম বিন হাম্মাদ - 1390
আমাদের বলুন বাকি এর আবু 
উপর খামির বিন জন্য সাবা বিন তামিম থ্রেশহোল্ড ওয়ালিদ বিন আমের Alezne 
থেকে গোড়ালি বললেন আপনি রাখা একটি 
থেকে মানুষ কুরাইশ কনস্টান্টিনোপল তার আমীর সেনা উপস্থিত ছিলেন , যা কনস্টান্টিনোপল না খোলে 
Bassarq না ব্যভিচারী বা ব্যয়বহুল মহাকাব্য উপর হাত একটি এর থেকে মানুষ আল হারকিউলিস
হাদিস - ১৩৯১
হযরত কা’ব রহঃ থেকে বর্ণিত, তিনি বলেন, বনু হাশেম, সাবা, কাদের এর সন্তানদের হাতের মাধ্যমে জয় হবে, অন্য বর্ণনায় পাওয়া যায়, হিরাকলের সন্তানদের থেকে কোনো একজনের হাতে ভয়াবহ যুদ্ধ সংগঠিত হবে, ঐ লোকের নাম হচ্ছে, তাবার কিংবা তাবরাহ।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৩৯১ ]
___________________________________
নাঈম বিন হাম্মাদ - 131 1
আমাদের বলুন বাকি এর আবু 
আবু বকর আবু Zahrieh থেকে marauding 
থেকে গোড়ালি বলেন করার হাত খুলতে একটি এর বনী হাশেম থেকে মানুষ 
বলেছেন সব আমাদের সাফওয়ান Shurayh আবু Muthanná Alomluki সম্পর্কে বলেছেন গোড়ালি বলেন করার খুলুন আমার হাত ছিল 
জন্মগ্রহণ শিবা ও ছিল সক্ষম জন্মগ্রহণ এর উল্লেখ না বাকি এর পিতা এর Muthanná বলেন সাফওয়ান ইবনে আমর বাকি আবু 
থেকে Muthanná একটি গোড়ালি উপর যে হাতে মানুষ এর মহাকাব্য মানুষ হারকিউলিস হয় বলেন কাছে তাকে Tabar মানে Tábara
হাদিস - ১৩৯২
হযরত মোহাজির ইব্নে হাবীব রহঃ থেকে বর্ণিত, তিনি বলেন, হিরাক্্লের পঞ্চম পুরুষ যার নাম হবে তাবার, তার হাতেই হবে, মুলতঃ ভয়াবহ যুদ্ধ।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৩৯২ ]
___________________________________
নাঈম বিন হাম্মাদ - 13 9২
আমাদের বলুন আব্দুল্লাহ বিন মারওয়ান বিন মুনযির Oirtah থেকে 
অভিবাসী বেন হাবিব 
বলেন রসূল এর আল্লাহ , সা প্রতিটি হারকিউলিস যা পঞ্চম হয় বলেন করার হাত তাকে Tabar করতে 
মহাকাব্য হতে

আমাক এবং কুস্তুনতিনিয়া বিজয়ের বাকি আলোচনা

একটি আরবি শব্দ ডাবল ক্লিক করে তার অভিধান এন্ট্রি দেখায়
হাদিস - ১৩৯৩
হযরত যুবায়ের ইব্্নে নুফাইর রহঃ থেকে বর্ণিত, তিনি এরশাদ করেন, মুসলমানগন, আল্লাহু আকবর তাকবীর দ্বারা কাফেরদের একটি শহর দখল করবে, উক্ত শহরের তিনটি দেয়াল আল্লাহ তাআলা তিন দিনে ধ্বংস করে দিবেন। এভাবে যুদ্ধ চলাকালীন তাদের কাছে দাজ্জালের অবির্ভাব হওয়ার খবর এসে পৌঁছবে। উক্ত খবর যেন তোমাদের মাঝে কোনো অতংক বিরাজ না করে, কেননা সংবাদটি মিথ্যা হবে। সুতরাং উল্লিখিত খবর শুনে দৌড় না দিয়ে গনীমতের মাল সংগ্রহ করতে থাকবে।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৩৯৩ ]
___________________________________
নাঈম বিন হাম্মাদ - 1393
আমাদের বলুন আবু marauding আবু বকর আবু Zahrieh 
থেকে জাবির 
ইবনে Nufayr বলেন শহরে খোলা অবিশ্বাস তাকবীরে আল্লাহ তাদেরকে যে প্রতিদিন এক রাখে - তৃতীয় Haitha 
তিনদিন 
Fbenahm তাদের দেয় সংবাদ এর খ্রীষ্টশত্রু হয় তাই Evzaankm না তিনি Vaanmiloa lied 
Gnimetha
হাদিস - ১৩৯৪
হযরত বশির রহঃ কর্তৃক বর্ণিত, তিনি বলেন আমি হযরত আব্দুল্লাহ ইব্্নে বুছর আল-মাজনীকে বলতে শুনেছি, যদি তোমাদের কাছে দাজ্জালের আবির্ভাবের খবর আসে এবং তোমরা যুদ্ধকালীন অবস্থায় থাক, তাহলে তোমরা তোমাদের গনীমতের মাল সংগ্রহ করা থেকে বিরত থেকোনা। কেননা, দাজ্জাল তখনো বের হবে না।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৩৯৪ ]
___________________________________
নাঈম বিন হাম্মাদ - 1394
তিনি আমাদের বলেছেন বশির ইবনে আব্দুল্লাহ ইবনে ইয়াসার বলেন 
আমি শুনেছি আব্দুল্লাহ 
বিন গোপন Mezni বলেছেন যদি খবর এর খ্রীষ্টশত্রু Otakm এবং আপনি তাদের Gnaimkm খ্রীষ্টশত্রু দেবেন না 
আউট আসেনি
হাদিস - ১৩৯৫
হযরত আবু সা’লাবা আল-খুশানী রাযিঃ থেকে বর্ণিত, তিনি বলেন, যদি আরীশ এবং র্দ্বা এলাকার মাঝখানে বিশাল দস্তরখানের ব্যবস্থা হবে, তখন কুস্তুনতিনিয়া এলাকার জয় খুবই নিকটবর্তী হবে।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৩৯৫ ]
___________________________________
নাঈম বিন হাম্মাদ - 1395
তারা আমাদের বলেছেন যে জাবির ইবনে Nufayr আবু সাফওয়ান Zahrieh 
থেকে 
আবূ সা'লাবাহ্ Khushani বললেন এল মধ্যে পাথ - আরিশ এবং মানুষ এর ভোজ , এবং এক ঘর জন্মগ্রহণ করেন করার খুলুন 
কনস্টান্টিনোপল
হাদিস - ১৩৯৬
হযরত আউফ ইব্নে মালেক আল-আশজাঈ রাযিঃ থেকে বর্ণিত, তিনি বলেন রাসূলুল্লাহ সাঃ এরশাদ করেন, ৬ষ্ঠ ফিতনা হবে মূলতঃ যুদ্ধবিরতী চুক্তির মাধ্যমে। যা তোমাদের এবং রোমানদের মাঝে সংগঠিত হবে। অতঃপর তারা আশি দলে বিভক্ত হয়ে তোমাদের দিকে আগিয়ে আসবে। সাহাবায়ে কেরাম বলবেন, ইয়া রাসূলুল্লাহ সাঃ গায়াহ কি জিনিস, জবাবে রাসূলুল্লাহ সাঃ বলবেন গায়াহ হচ্ছে, ঝান্ডার নাম। প্রত্যেক ঝান্ডার অধীনে বার হাজার করে সৈন্য থাকবে।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৩৯৬ ]
___________________________________
নঈম বিন হাম্মাদ - 1396
আমাদের বলুন নবজাত এবং বাকি এর ইবন আল - ওয়ালিদ ও আবু marauding হাকাম ইবনে Nafie , 
সাফওয়ান ইবনে আমর আব্দ আল থেকে - তার বাবার কাছ থেকে রহমান ইবনে জাবের ইবনে Bugle 
আওফ ইবনে মালেক থেকে 
Ashja'i বলেন রসূল এর আল্লাহ , সা 
রাষ্ট্রদ্রোহ ষষ্ঠ 
সাময়িক যুদ্ধবিরতি 
আপনি এবং মধ্যে হতে ছেলেদের এর হলুদ Veceron 
আপনি আশি খুব 
বলেন এবং উদ্দেশ্য কি? 
ব্যানার বলেন, প্রতিটি ব্যানার অধীনে, বারো 
হাজার
হাদিস - ১৩৯৭
হযরত কা’ব রহঃ থেকে বর্ণিত, তিনি বলেন, তাব্্রা কিংবা তাবারাহ নামক হিরাকলের এক সন্তানের নেতৃত্বে ভয়াবহ যুদ্ধ হবে।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৩৯৭ ]
___________________________________
নাঈম বিন হাম্মাদ - 1397
আমাদের আবু Muthanná আবু আইয়ুব Oirtah সম্পর্কে আমাদের বলুন 
উপর গোড়ালি , যিনি বলেছেন করার 
প্রতিটি হারকিউলিস থেকে তার হাত মহাকাব্য হতে হয় বলেন কাছে তাকে Tabar মানে Tábara
হাদিস - ১৩৯৮
হযরত আবু দারদা রাযিঃ বললেন, আল্লাহ তাআলা কি বলেননি যে, আমরা যাবুর নামক কিতাবে লিপিবদ্ধ করেছি যে, নিঃসন্দেহে এ ভূখন্ডের মালিক হবে নেককার ব্যক্তিবর্গ। আবুদারদা রাযিঃ বলেন আমরাই হলাম, সেই নেককার ব্যক্তি।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৩৯৮ ]
___________________________________
নাঈম বিন হাম্মাদ - 1398
আমাদের বলুন আবু 
তাঁকে প্রণাম জানাতে লাগল Shurayh বিন ইয়াযীদ হাদরামী সাঈদ বিন আব্দুল আজিজ ইসমাইল বিন Obeid - আল্লাহ 
আমাকে বলেছিল নরম 
আবু দারদা তাকে এই আধুনিক স্নাতক বলেছিলেন যে , সহ অবিশ্বাস অবিশ্বাস , 
বলেন 
আবু দারদা , বা গড অলমাইটি বলেন নি এবং আমরা লিখে দিয়েছি যে সাম , উল্লেখ যে পরে পৃথিবী 
অধিকারী হবে সৎকর্মপরায়ণ বান্দাগণ অবশেষে ধার্মিক আমাদের কেবলমাত্র
হাদিস - ১৩৯৯
হযরত আব্দুল্লাহ ইব্্নে আমর রাযিঃ থেকে বর্ণিত, ভয়াবহ যুদ্ধের দিন মুসলমানদের এক তৃতীয়াংশ পরাজিত হবে। তার হচ্ছে, আল্লাহ তাআলার নিকট নিকৃষ্টতম জাতি।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৩৯৯ ]
___________________________________
নাঈম বিন হাম্মাদ - 1399
আল-ওয়ালেদ 
আবু আল আসস থেকে আল হরিত ইবনে উবাদাহ থেকে বর্ণিত 
'আব্দুল্লা ইবনে আমর' থেকে আবদুল রহমান ইবনে সালমান , যে মুসলমানদের
এক 
তৃতীয়াংশ দ্বারা বিশ্রামবারের দিনে পরাজিত হয়েছিল ,
হাদিস - ১৪০০
হযরত আব্দুল্লাহ ইবনে আমর ইবনুল আ’স রাযিঃ থেকে বর্ণিত, তিনি বলেন, জাহেলী যুগে দাউস গোত্রের লোকজন যুলখালাসা নামক প্রতীমার উপসনা শুরু করে তাহলে সেটাই হবে শাম দেশের উপর রোমানদের আধিপত্য বিস্তার লাভের মাধ্যম।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৪০০ ]
___________________________________
নঈম বিন হাম্মাদ
ওয়ালিদ সম্পর্কে আমাদের বলুন 
আল - আব্দুর রহমান বিন সালমান থেকে হারেস ইবন Obeida মানুষ 
হযরত আবদুল্লাহ ইবনে আমর যদি বলেন 
ঋত ফেটিশ ছিল অজ্ঞতা DOS এর জন্য যুল Khalasa ধ্বংস ছিল একটি শাম উপর রোমান চেহারা
হাদিস - ১৪০১
হযরত কা’ব রাযিঃ থেকে বর্ণিত, তিনি বলেন, হে কাইস জাতি, তোমরা ইয়ামানবাসীদেরকে ভালোবাসো। হে ইয়ামানীগণ তোমরা কাইযগোত্রকে ভালোবাসো। হতে পারে এমন একসময় আসবে যখন তোমরা দুই গোত্র ব্যতীত অন্য কোনো গোত্র যুদ্ধ পরিচালনা করবেনা। আওযায়ী রহঃ বলেন, রাসুলুল্লাহ সাঃ এর বক্তব্য আমি শুনেছি, কাইস গোত্র হচ্ছে, ভয়াবহ যুদ্ধের দিন বিরত্ব প্রদর্শনকারী, আর ইয়ামানবাসীরা হচ্ছেন ইসলামের চালিকাশক্তি।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৪০১ ]
___________________________________
নঈম বিন হাম্মাদ
আমাদের বলুন ওয়ালিদ সম্পর্কে Awzaa'i ইয়াহিয়া ইবনে আবী অনেক 
কা'ব বলেন , হে কায়েস Ohabay 
সুপ্রসন্ন হে হে ইমেন Ohabay আল-Qisa Vyushk যে এই ধর্ম হত্যা করা হবে না Garkme 
বলেন 
Awzaa'i যে রসূল এর আল্লাহ , সা উপর বিক্রয়! কায়েস বলেন নাইট এর মহাকাব্য মানুষের 
ও ইয়েমেন Reha ইসলাম
হাদিস - ১৪০২
বিশিষ্ট সাহাবী হযরত আবু হুরায়রা রাযিঃ রাসুলুল্লাহ সাঃ থেকে বর্ণনা করেন, যখন ভয়াবহ যুদ্ধ সংগঠিত হবে, তখন দিমাশ্্ক থেকে বিশাল এক বাহিনীর আত্ম প্রকাশ হবে। তারাই হবে আরবের সবচেয়ে সম্মানিত আশ্বরোহী এবং অত্যাধুনিক অস্ত্রের অধিকারী। তাদের মাধ্যমে আল্লাহ তাআলা দ্বীনের শক্তি বৃদ্ধি করবেন।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৪০২ ]
___________________________________
নঈম বিন হাম্মাদ
ওয়ালিদ উসমান ইবনে আবু Alatkh সুলেইমান সম্পর্কে আমাদের বলুন 
ইবনে হাবিব 
আল্লাহর পক্ষ থেকে তার প্রতি সন্তুষ্ট হতে পারে আবু Hurayrah নবী , শান্তি হতে তার উপর স্বাক্ষর যদি 
মহাকাব্য 
আউট দামেস্ক থেকে পাঠানো এসে , প্রো 
আকরাম আরব ও পারস্য Ojodh অস্ত্র আল্লাহ তাদের সাহায্য করতে পারে 
ধর্ম
হাদিস - ১৪০৩
হযরত আব্দুল ওয়াহেদ ইব্্নে কাইস আদ্্ দিমাশকী রহঃ থেকে বর্ণিত, তিনি বলেন, রোমানবাহিনী ভয়াবহ যুদ্ধের দিনগুলিতে নদীর পার্শ্বে কোনো পানি রাখবেনা বরং সব পানিকে তার দখল করে নিবে।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৪০৩ ]
___________________________________
নঈম বিন হাম্মাদ
আমাদের Damra রাবিয়া বিন উসমান বিন কোমল বলুন 
আব্দুল ওয়াহিদ বিন কায়েস জন্য 
দামেস্ক তিনি বলেন 
যাক উপর রোমানদের উপকূল 
মহাকাব্য দিন 
পানি যদি না তা শিবির স্থাপন করেছিল |
হাদিস - ১৪০৪
হযরত আতিয়া ইব্নে কাইস রহঃ থেকে বর্ণিত, তিনি বলেন, রাসূলুল্লাহ্ সাঃ এরশাদ করেছেন, ভয়াবহ যুদ্ধ সংগঠিত হলে দিমাশ্্ক থেকে বিশাল এক বাহিনী প্রকাশ পাবেন, তারাই হবেন দুনিয়া এবং আখেরাতের সর্বোত্তম বান্দা।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৪০৪ ]
___________________________________
নঈম বিন হাম্মাদ
আবু বকর ইবনে আবী মরিয়াম 
আতাতিয় ইবনে কায়স (রাঃ) থেকে বর্ণিত। তিনি বলেন, রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বলেছেন, 
যদি মহামাময় দম্মেশকের বাইরে এসে পৌঁছায় তবে তারা প্রথম 
ও অন্য উপাস্যদের বেছে নেবে।
হাদিস - ১৪০৫
হযরত রাশেদ ইবনে সাদ রাযিঃ থেকে বর্ণিত, তিনি বলেন, রাসূলুল্লাহ সাঃ এরশাদ করেছেন, নিঃসন্দেহে আল্লাহ তাআলা আমার সাথে ওয়াদা করেছেন, পারস্যবাসি অতঃপর রোমানরা মুসলমানদের অধীনে চলে আসবে, তাদের সন্তান এবং নারীরা মুসলমানদের হস্তগত হবে আর তাদের যাবতীয় সম্পদ মুসলমানদের হাতে চলে আসবে। এভাবে মুসলমানদের রাষ্ট্রের বিস্তৃতি হিময়ার পর্যন্ত পৌছে যাবে।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৪০৫ ]
___________________________________
নঈম বিন হাম্মাদ

রাশেদ ইবনে সাদ সম্পর্কে আবু মুগীরা সাফওয়ান সম্পর্কে 
বলুনঃ আল্লাহর রসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম-এর উপর আল্লাহ আমাকে ওয়াদা করেছেন এবং তারপর রোমানরা এবং তারপর তাদের স্ত্রী ও সন্তান-সন্ততি ও তাদের 
মাতা এবং তাদের ধন-সম্পদ ও আমাকে গর্দভ ও ওহনা দিয়েছেন।
হাদিস - ১৪০৬
হযরত আবু দারদা রাযিঃ থেকে বর্ণিত, তিনি এরশাদ করেন, রোমানরা তোমাদেরকে কুফরী গ্রহনের দাওয়াত দিতে গিয়ে তোমাদেরকে শাম দেশ থেকে বের করে দিবে। এক পর্যায়ে তোমাদেরকে বাল্্কা নগরীতে কোনঠাসা করে ছাড়বে। মনে রাখতে হবে ইহকাল চিরস্থায় নয়, যেটা একদিন ধ্বংস হয়ে যাবে, পক্ষান্তরে আখেরাত চিরস্থায়ী এবং কখনো ধ্বংস হবেনা।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৪০৬ ]
___________________________________
নঈম বিন হাম্মাদ
সম্পর্কে আমাদের বলুন বাকি এর Shurayh বিন থেকে সাফওয়ান 
Obeid 
আবু দারদা বললেন শাম অবিশ্বাস অবিশ্বাস থেকে Takrcengm রাম পর্যন্ত Jordokm 
Balqā তাই বিশ্বের করবে বিনষ্ট এবং নশ্বর এবং থাকা পরকালে
হাদিস - ১৪০৭
হযরত কা’ব রহঃ থেকে বর্ণিত, তিনি বলেন, ভয়াবহ যুদ্ধ, কুস্তুনতিনিয়া নগরী ধ্বংস হওয়া এবং দাজ্জালের আবির্ভাব প্রায় ছয়Ñসাত মাসের মধ্যেই হবে, অথবা আল্লাহ তাআলা যে কয়দিনের ভিতরে ইচ্ছা করেছেন।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৪০৭ ]
___________________________________
নঈম বিন হাম্মাদ
আবু আল মুঘরা আমাদের 
আবু আল-ইয়ামন থেকে সাফওয়ান সম্পর্কে 
মহান কাহিনী এবং কনস্টান্টিনোপল এর ধ্বংসাবশেষ এবং দাজ্জালের 
সাত মাসের মধ্যে বা খোদার ইচ্ছার পরিণাম সম্পর্কে আমাদের বলেছিলেন
হাদিস - ১৪০৮
আবু ওয়াহাব রহঃ থেকে বর্ণিত, তিনি মাকহুলকে বলতে শুনেছেন, ভয়াবহ যুদ্ধ দশটি হবে, তার মধ্যে একটি হচ্ছে, ফিলিস্তিনের কায়সারিয়া নগরীর যুদ্ধ । আর সর্বশেষ হচ্ছে, এন্তাকিয়ার আ’মাক এলাকার যুদ্ধ।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৪০৮ ]
___________________________________
নঈম বিন হাম্মাদ
আলওয়ালিদ আমাদের সম্পর্কে আবু বকর আল-কালাই 
সম্পর্কে আবু Wahab Obeidullah বিন Obaid 
শুনে শুনেছি Mkhala প্রথম 
দশ মহাকাব্য 
মহাকাব্য কৈসরের 
ফিলিস্তিন এবং 
শেষ 
মহাকাব্য গভীর আন্তোনিচ
হাদিস - ১৪০৯
হযরত আব্দুর রহমান ইবনে আবুবক্্রা রহঃ থেকে বর্ণিত, আমি হযরত আব্দুল্লাহ ইব্নে আযর রাযিঃ কে বলতে শুনেছি, হয়তো হামলুদ্দান তিনবার প্রকাশ পাবে। আমি তাকে হামলুদ্দান সম্বন্ধে জিজ্ঞাসা করলে তিনি বলেন, জনৈক লোক যার পিতামাতার একজন শয়তান, যে রোমানদের স¤্রাট হবে। সে জলের-স্থলের বিশাল সৈন্যবাহিনী নিয়ে আমাক নামক এলাকায় ছাউনি ফেলবে। যে তার সাথীদেরকে দ্রুত জাহাজ খালি করতে বলবে এবং সকলে জাহাজ থেকে নিচেনেমে আসলে সেজাহাজগুলো জ্বালিয়ে দিতে বলবে। অতঃপর বলবে, কুস্তুনতিনিয়া তোমাদের জন্যও নয়, আবার রোমানদের জন্যও নয়। যাদের ইচ্ছা দাড়াতে পার। এদিকে মুসলমানগণ একে অপরকে সাহায্য-সহযোগিতা করবে, অতঃপর বিভিন্ন ধরনের অপরাধে জর্জরিত কুস্তুনতিনিয়াকে তোমরা জয় করবে। আমি কিতাবুল্লাহতে যানিয়াহ নামেই পেয়েছি। এরপর তাদের আমীর বলবে, আজকে কোনো ধরনের দূর্নীতি থাকবেনা।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৪০৯ ]
___________________________________
নঈম বিন হাম্মাদ
আমাদের বলুন আব্দুল সামাদ ইবনে আবদুল Waris, 
হাম্মাদ ইবনে সালামা আলী বিন যায়েদ আব্দ আল - রহমান ইবনে আবী রীল বলেন 
আমি শুনেছি আব্দুল্লাহ বিন 
আমর বলেন হয় সম্পর্কে ভেড়া চালায় তিন Marar 
বলেন কি গর্ভাবস্থা ভেড়া 
বলেন একটি 
মানুষ এক এর 
তার বাবা দৈত্য মালিক রোমান 
আসে একটি হাজার হাজার এবং পাঁচ এক লক্ষ হবে AA মূল ভূখন্ড এবং পাঁচশত 
হাজার সমুদ্র 
এমনকি অবতরণ করার স্থল হয় বলেন করার গভীরতা আছে এবং 
বলছেন তার সঙ্গীরা বলল করার Svenkm ছাত্র আমার যদি 
অবতরণ করেছে তাদের পুড়িয়ে নির্দেশ এবং কনস্টান্টিনোপল তারপর বলে না আপনি বা রোমানরা এটা হল ইচ্ছুক , যাক 
মুসলমানদের একে অপরের আহরণ , কথা বলা স্মরণ 
এমনকি Tsfhawwa কনস্টান্টিনোপল বেশ্যা আমি আছে 
তার খুঁজে পেতে 
বই এর 
গড অলমাইটি বেশ্যা 
বলে তাদের নেতা হয় আজ না ম্যালিগন্যান্ট
হাদিস - ১৪১০
হযরত কা’ব রহঃ থেকে বর্ণিত, তিনি এরশাদ করেন, ভয়াবহ যুদ্ধকালীন শামদেশের বিশাল এক ধ্বংস হয়ে যাবে। উক্ত এলাকা শহর-গ্রামের কান্নার ন্যায় কান্নাকাটি করবে।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৪১০ ]
___________________________________
নাঈম বিন হাম্মাদ - 1410
আল হাকিম বিন নাফি 'কে আমাদের 
সম্পর্কে কেয়াব সম্পর্কে বলেন 
যে মহান কাহিনীতে বলেছেন যে 
Levant এর উপকূল ধ্বংস করা হয়, 
যাতে 
শহর তাদের গ্রাম এবং গ্রামের কাঁদতে যেমন ধ্বংস থেকে কাঁদতে হয়।
হাদিস - ১৪১১
হযরত হাস্্সান ইব্্নে আতিয়া রহঃ থেকে বর্ণিত, তিনি বলেন, বায়তুলমোকাদ্দাস এবং জর্দানের উপকুলের ছোট্ট একযুদ্ধে রোমানরা জয়লাভ করবে।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৪১১ ]
___________________________________
নঈম বিন হাম্মাদ
হাসান বিন আত্তিয়া এর ouzai সম্পর্কে আমাদের বলুন জর্দান স্প্যান এবং জেরুজালেমের হাউস ছোট কাহিনী 
রোমান বীট বলেন

হাদিস - ১৪১২
হাকাম ইব্নে আবু সুলায়মান রহঃ বলেন, আমি উক্বা ইবনে আবু যয়নবকে বলতে শুনেছি, যখন কাবরাস নগরী শত্রুকর্তৃক আক্রান্ত হয়ে বিরান ভূমিতে পরিণত হবে তখন তোমার বাকি জীবন আন্তরিকভাবে কান্নাকাটি করা উচিৎ।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৪১২ ]
___________________________________
নাঈম বিন হাম্মাদ - 141২

আল হাকিম ইবনে আবী সুলাইমান রাদিয়াল্লাহু 'আনহু হতে বর্ণিত, তিনি বলেন, আমি 
ইবনে আবি যায়নাবকে বাধা দেয়ার জন্য বললাম: " 
যদি 
ক্বারীস তোমাকে ধ্বংস করে ফেলে, তাহলে তোমার জীবনই তোমার জীবন।"
হাদিস - ১৪১৩
হযরত মুহাজির ইবনে হাবীব রাযিঃ বলেন, রাসূলুল্লাহ সাঃ এরশাদ করেছেন, হিরাকলের বংশের পঞ্চম পুরুষের হাতে মারাত্মক ও ভয়াবহ যুদ্ধ সংগঠিত হবে। হাদীস বর্ণনাকারী হযরত আয়তাত রহঃ বলেন, হিরাকলের বংশধরদের চতুর্থজন রাষ্ট্রীয় ক্ষমতা গ্রহণ করবে। বর্ণনাকারী সাহাবী বলেন, এরপর পুরুষ বাকি থাকবে, আরতাত বলেন, পঞ্চমজন এখনো ক্ষমতা গ্রহণ করেনি।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৪১৩ ]
___________________________________
নাঈম বিন হাম্মাদ -
আমাদের বলুন এর Oirtah বলেন বাকি , 
আমাকে মুহাজির বিন বলেন 
হাবিব যে রসূল এর আল্লাহ , সা , বলেন তার হাত একে হারকিউলিস পঞ্চম থেকে মহাকাব্য হতে 
Oirtah ফলি চার বলেন হারকিউলিস বলেছেন নবী , শান্তি হতে পরে তার রয়ে 
পঞ্চম 
বলেন Oirtah পঞ্চম এখন আসে না
হাদিস - ১৪১৪
হযরত কা’ব রহঃ থেকে বর্ণিত, তিনি এরশাদ করেন, জনৈকা মহিলা রোমানদের সুলতান হওয়ার পর কর্মচারিদেরকে পৃথিবীর বুকে বিদ্যমান কাঠের থেকে উত্তম গাছ দ্বারা এক হাজার জাহাজ তৈরি করতে নির্দেশ দিবেন। এরপর বলবে, তোমরা ঐসব লোকদের বিরুদ্ধে যুদ্ধ করতে বের হবে যারা আমাদের পুরুষদেরকে হত্যা করেছে এবং নারী ও শিশুকে বন্দি করে রেখেছে। জাহাজ তৈরি করার কাজ শেষ হলে তিনি বলেন, ইনশাআল্লাহ আমরা অবশ্যই উক্ত জাহাজে আরোহন করব, আর আল্লাহ্র ইচ্ছা না হলেও বের হব। অতঃপর আল্লাহ পাক তাদের প্রতি এক প্রকারের বাতাস প্রেরণ করবে, ফলে সে তার কথা “আল্লাহ যদি ইচ্ছা না করেন” নিয়ে চিন্তা করতে লাগলেন। এরপর পূর্বের ন্যায় আরো একহাজার জাহাজ বানাতে নির্দেশ দিলেন, আবারে আগের মত বলতে লাগলেন, এরপর আল্লাহ তাআলা তার প্রতি একধরনের বাতাস প্রবাহিত করবে এবং আবারো তার সিদ্ধান্ত আটকে থাকবে। অতঃপর আরো এক হাজার জাহাজ বানানোর নির্দেশ দিবেন। এরপর বলবে ইনশাআল্লাহ্্ তোমরা জাহাজে আরোহন করবে, এক পর্যায়ে তারা বের হয়ে আসবে এবং চলতে চলতে আক্্কা নামক একটি পাহাড়ের টীলার প্রান্তে পৌছবে। যেখানে উপস্থিত হয়ে তারা দাবি করবে যে, এটা আমাদের এবং আমাদের বাপদাদার শহর। এরপর তাদের বাহনের সব জাহাজ জ্বালিয়ে দিবে। যেদিন মুসলমানরা বায়তুল মোকদ্দাসে থাকবে। উক্ত এলাকার সুলতান ইরাক, মিশর এবং ইয়ামানের শাসক ও জনগণের কাছে সাহায্য চেয়ে পাঠাইলে তারা জবাব দিবে, আমরাও তোমাদের ন্যায় আমাদের এলাকা আক্রান্ত হওয়ার ব্যাপারে সন্দিহান। এভাবে সাহায্য চেয়ে হিম্স নগরীতে উপস্থিত হয়ে দেখলো, সেখানের মুসলমানরা সবদিক থেকে অবরুদ্ধ। যেখানে এক নারীকে হত্যা করা হয়েছে। এই লোক বাহির থেকে সবকিছু অবলোকন করে ফিরে আসে। এদিকে সাহায্য প্রার্থনাকারী সুলতান সকলের কাছে হিমসের বিষয়টি চেপে যায়। এবং সমবেত জনতার উদ্দেশ্যে বলতে থাকবে, তোমরা শত্রুদের বিরুদ্ধে যুদ্ধে ঝাপিয়ে পড়ো, নিজে মরে যাও কিংবা কাফেরদেরকে হত্যাকরো এভাবে উভয় দলে মারাত্মক যুদ্ধ সংগঠিত হবে। যার কারণে মুসলমানদের এক তৃতীয়াংশ শহীদ হয়ে যাবে এবং অন্য এক তৃতীয়াংশ পরাজিত হবে জাহান্নামের নি¤œস্তরে নিক্ষিপ্ত হবে। আরেক তৃতীয়াংশ বায়তুল মোকাদ্দাসের দিকে চলে যাবে। সেখান থেকে বের হয়ে মাউজাব অর্থাৎ, বালকা নগরীতে চলে যাবে। মাউজাব হচ্ছে, এমন এক এলাকা যার মধ্যে বিভিন্ন ঝর্ণাধারা রয়েছে। যেখানে বিভিন্ন উন্নতমানের ঘাস উৎপাদন হয়ে থাকে। মুসলমানরা সেখানে গিয়ে পৌছলে শত্রুরা অগ্রসর হতে হতে বায়তুল মোকাদ্দাস পর্যন্ত পৌঁছে যাবে। সেখানে গিয়ে তারা মুসলমানদের অবশিষ্টাংশকেও হত্যা করতে নির্দেশ দিবে। অন্যদিকে মুসলমানদের সুলতান তার সাথে থাকা মুসলমানদেরকে শত্রুর মোকাবেলা করার নির্দেশ দিবেন। সাথে সাথে আল্লাহ তাআলার দরবারে কায়মনোবাক্যে দোয়া-মোনাজাত করতে থাকলে, সেদিন আল্লাহ তাআলার রাগ চুড়ান্ত পর্যায়ে এসে পৌঁছে এবং তীর, তলোয়ার-বল্লাম দ্বারা শত্রুর উপর আক্রমন করে এবং আল্লাহ তাআলা শত্রুদের প্রতি আধুনিক অস্ত্র স্থাপন করবেন। এমনকি কেউ কোনো প্রকার চক্রান্ত ভয় করলো উভয়ের মাঝে তীব্র লড়াই চলতে থাকবে। সেদিন এতবেশি সংখ্যক শত্রু মারা যাবে, তাদের মাত্র কিছু সংখ্যক জীবিত থাকবে। যারা লেবনানের এক পাহাড়ে গিয়ে আশ্রয় গ্রহণ করবে। মুসলমানরাও তাদের পিছনে পিছনে গিয়ে ধাওয়া করতে করতে কুস্তুনতিনিয়া নামক এলাকায় পৌছে যাবে। মুসলমানদের জিম্মাদার হচ্ছেন,বাদামী রংয়ের এক লোক যার সাথে সর্বদা তীর বল্লম বিদ্যমান থাকে। এভাবে চলতে চলতে কুস্তুনতিনিয়ার নিকটে থাকা নদীরকাছে পৌঁছলে যেখানে নামায আদায় করার লক্ষে ওযু করতে গেলে পানি হঠাৎ তার থেকে দূরে সরে যায়। আবারো পানি খোঁজে বের করা হলে তা হারিয়ে যায়। এভাবে দেখতে থাকলে তিনি তার বাহনে আরোহন করে বলে উঠেন, হে লোক সকল এটা মূলতঃ আল্লাহ পাকের ইচ্ছায় হচ্ছে। চলো, আমরা সামনের দিকে এগিয়ে যাই। এভাবে চলতে চলতে এক সময় কুস্তুনতিনিয়্যার দেয়াল দেখে আল্লাহ আকবর বলে উচ্চস্বরে তাকবীর বলে উঠবে।
===
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৪১৪ ]
___________________________________
নাঈম বিন হাম্মাদ - 1414
আমাদের বলুন Rdih বেন আত্তিয়া 
ইয়াহিয়া ইবনে আবী আমর Alsabana 
কা'ব বলেন 
নিম্নলিখিত রোমান নারী নিজেদের বলছেন করতে আমাকে একটি হাজার 
জাহাজ 
সেরা প্যানেল আমি কাজ মুখ এর পৃথিবী , তারপর যারা নিহত কাছে টানা 
আমাদের পুরুষদের এবং আমাদের স্ত্রীদের ও আমাদের শিশুদের অপমান । যদি তারা খালি তাদের 
বললেন Arkpoa, ঈশ্বর ইচ্ছুক , কিন্তু করা হয়নি 
চান 
ঈশ্বরের সৃষ্টি তারা Afikmsa তলিয়ে 
বলার অপেক্ষা রাখে না কিন্তু চাইনি করতে 
তারপর অন্য হাজার সঙ্গে কাজ 
তার মত এবং তারপর সে বলল , এই ধরনের কথা , এবং 
বায়ু Afikmsa ঈশ্বর পাঠায় 
তারপর সাথে কাজ করে একটি হাজার অন্যান্য 
বলছেন Arkpoa ঈশ্বর ইচ্ছুক 
Vijrgeon বলেন 
Veceron এমনকি টেলিফোন একর থেকে Atnhua 
বলতে আমাদের দেশে এবং যে দেশ এর আমাদের পিতারা এবং 
তারপর আগুন পাঠিয়ে 
তাদের জাহাজ জেরুসালেম হাউস মধ্যে সেই সময়ে তাদের 
এবং 
মুসলমানদের পুড়িয়ে ফেলা

তিনি লিখেছেন গভর্নর মানুষ এর ইরাক আর মানুষ এর মিশর ও মানুষ এর ইমেন আসে এবং রাসূলগণের 
অবতরণ ভয় পেয়ে বলে কাছে কি নেমে মত করতে আপনি 
ও রসূলগণ পাস উপর হোমস তার দেশের মানুষের বন্ধ করে দিয়েছে 
যেখানে মুসলমান থেকে এবং একজন মহিলার হত্যা করে এবং তাদের অনুসরণ প্রাচীর নিক্ষেপ বাহিরে 
বলেন 
Victm রাজ্যপাল হোমস আদেশ এবং তারপর বলতে মুসলিম আসা আউট তোমার শত্রু Vemotwa এবং Ometwa Afiktthelon 
ভারী যুদ্ধ মুসলমানদের হত্যা , এক - তৃতীয় এবং পরাজিত একটি তৃতীয় Mhel জমি টানা এবং গ্রহণ একটি তৃতীয় 
যতক্ষণ না তারা জেরুজালেমে শেষ এবং 
আউট করে এর তাদের ইতিবাচক 
জমি এর Balqā এবং ইতিবাচক 
জমি যেখানে 
চোখ ও আউট এর থেকে গাঁজার বসন্ত পৃথিবী মুসলমানদের নেমে উপর এটা 
এবং ঈশ্বরের গ্রহণ এর শত্রুদের যতক্ষণ না তারা শেষ 
করতে পবিত্র গৃহের 
ও সমন্বয় শুধু জন্য যেতে বাকি এর আমার বান্দাদের Faqatheloa যারা রয়ে , এবং বলল 
মুসলমানদের কাছে তাঁর সঙ্গীদের চালিত শত্রু
তিনি রোদন এবং কান্নাকাটি আউট ঈশ্বরের কাছে 
দিন তাদের অজুহাত হবে 
ঈশ্বরের ধর্ম রাগ 
Vitan বর্শা এবং তাঁর তরবারি হিট 
এবং কিছু উপর আংশিকভাবে ঈশ্বরের লোহা sheds 
এমনকি কিছু মনে না করেন মানুষ Smassamh তাকে সঙ্গে ছিল অন্য স্ত্রীলোকটি বলল , আর মারতে যর্দন উপত্যকায Afiktthelon যুদ্ধ 
তীব্র 
নিহত শত্রু যে সেখানে দিন রয়ে এর এগুলিকে কেবল একটি থাবা সহজ মাউন্ট লেবানন wreaking 
এবং তাদের পেছনে মুসলমানদের এমনকি কনস্টান্টিনোপল সমাপ্ত বহিষ্কার 
এবং 
মুসলিম ব্যক্তি আদম আটক 
বর্শা এমনকি যদি ধরে নদী , যা কনস্টান্টিনোপল এ 
নেমে রাজ্যপাল ওযু সম্পাদন এবং প্রার্থনা করতে 
Viokhr 
পানি দিয়ে তাকে এবং তারপর Viokhr জিজ্ঞেস করে তিনি এটা তার মাউন্ট rode দেখেছি এবং 
তাহলে এই যে উহু বলে 
ঈশ্বর আসছেন Vogizoa Vigizon চান 
না হওয়া পর্যন্ত জ করা সমাপ্ত তিনি কন্সট্যান্টিনোপলকে জন্ম দিলেন এবং তারপর তারা 
বড় হয়ে ওঠে, এক ব্যক্তি তাকবীর
Visagt এর যা বারো টাওয়ার হত্যা তাদের পুরুষ এবং দিন তাদের অজুহাত বন্দী হবে তাদের নারী এবং গ্রহণ 
তাদের টাকা Fbenahm এটিতে 
হিসেবে দেওয়া তাদের আসছে , 
তিনি বলেছেন যে খ্রীষ্টশত্রু বের হয়ে এসেছেন Baham 
আসা আউট এর মানুষ 
এটি তোলা হয়েছে সেই না করতে বছরের পর বছর ধরে Astzad অনুশোচিত করা থেকে হতে মধ্যে সামনের এর খ্রীষ্টশত্রু Vigdonh আসা আউট করা হয়নি , বলতে কি 
শীঘ্রই পর্যন্ত আসা আউট
হাদিস - ১৪১৫
হযরত খালিদ ইবনে মাদান হতে বর্ণিত তিনি বলেন, আমি আব্দুল্লাহ ইবনে বাছারকে বললাম কুসতুনতুনিয়া (বর্তমান কনোস্টান্টিনোপল) বিজিত হয়েছে। তিনি বললেন ততক্ষণ পর্যন্ত বিজিত হতে পারেনা যতক্ষণ পর্যন্ত মুসলমান ও তাদের মাঝে সন্ধি হয়। অতপর তারা সকলে যুদ্ধ করবে। অতপর তারা যুদ্ধলব্ধ মাল পেয়ে ফিরে যাবে। এমনকি তাদের মাঝে বিশৃংখলা সৃষ্টি হবে। অতপর তাদের মধ্য থেকে এক ব্যক্তি ক্রুশ উচু করে বলবে ক্রুশের জয় হয়েছে। অতপর মুসলমানদের কিছু লোক তাদের আক্রমণ করবে। এবং তাদের ক্রুশ আঘাত করবে এবং তা টুকরো টুকরো করে ফেলবে। আর মুসলমানগণ যুদ্ধ করা অবস্থায় ছড়িয়ে পড়বে। অতপর আলআলাহ তা তা আলা তাদের বিজয় দান করবেন। আর তখনই প্রকৃত বিজয়।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৪১৫ ]
___________________________________
নঈম বিন হাম্মাদ
আমাদের বলুন বাকি এর ইবন আল - Bahir থেকে বিন সাদ খালিদ বিন Ma'dan থেকে ওয়ালিদ বলেন , 
আমি বললাম 
আব্দুল্লাহ বিন গোপন বিজয় থেকে এর কনস্টান্টিনোপল 
এমনকি মধ্যে হবে না বলেন , খোলা মুসলমানদের সহ একটি 
পুনর্মিলন Viggson সব Vinasrvon লুট করেছে এমনকি বন্ধ বাদ Marjha উত্তোলন করেন একটি সেই ব্যক্তি যাকে ক্রস বলেছেন , 
আধিপত্য ক্রস যারা তাদের হইবে একটি মুসলিম ব্যক্তি আঘাত তাদের ক্রস হয় Vdqh এবং মুসলিম বিদ্রোহ এবং তারা 
যুদ্ধ এবং ঈশ্বর উন্মুক্ত যখন এটি তাদের খোলে
হাদিস - ১৪১৬
হযরত খালিদ ইবনে মাদান আব্দুল্লাহ ইবনে সাদ হতে বর্ণনা করে বলেন রাসুল সল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বলেছেন, নিশ্চই আল্লাহ তাআলা আমাকে পারস্য, তাদের মহিলাবর্গ, তাদের সন্তানাদী এবং তাদের সরঞ্জাম আমাকে দিয়েছেন। (এমনিভাবে) রোম, তাদের মহিলাবর্গ, তাদের সন্তাদাদী এবং তাদের সরঞ্জাম আমাকে দিয়েছেন। এবং আমাকে হুমাইরা দ্বারা সাহায্য করেছে।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৪১৬ ]
___________________________________
নাঈম বিন হাম্মাদ - 1416
খালেদ বিন Ma'dan বলেন 
আব্দুল্লাহ বিন সাদ বলেন 
রসূল এর আল্লাহ , সা, ঈশ্বর আমাকে দিয়েছে একটি নাইট 
এবং তাদের স্ত্রীরা এবং তাদের সন্তানদের এবং তাদের অর্থ এবং তাদের অস্ত্র ও আমাকে দিয়েছে রোমানদের এবং তাদের wives এবং তাদের সন্তানদের অস্ত্র 
এবং তাদের অর্থ ও Omdna Bhmir
হাদিস - ১৪১৭
- হযরত খালিদ ইবনে মাদান বলেন, আন্ত্রাসুসে অবশ্যই অবশ্যই ফজরের সময় রোমের শত্রুরা আক্রমণ করবে। অতপর তারা তিনশ লোককে দানিয়া বৃক্ষের নিচে হত্যা করবে। তাদের নূর আরশে পৌছে যাবে।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৪১৭ ]
___________________________________
নঈম বিন হাম্মাদ
খালেদ বিন Ma'dan ঢুকতে বলল নামাজের Ontrsus শত্রু 
রোমান Leghdat 
তিনশত পুরুষদের Dalitha অধীনে Vliqtln মুসলমানদের 
এর সিংহাসন নর্ম
হাদিস - ১৪১৮
- হযরত ফজর ইবনে ইয়াহমাদ হতে বর্ণিত তিনি তার কওমের কতিপয় শাইখ হতে বর্ণনা করে বলেন, আমরা সুফিয়ান ইবনে আউফ আল গামেদীর সাথে ছিলাম। এমনকি আমরা কুসতুনতুনিয়ার দরজায় আসলাম। যেটা ছিল নদীর কিনারায় তিন হাজার পারস্য লোকের স্বর্ণের দরজা। অতপর আমরা নদী বা উপসাগর পার হলাম। তিনি বলেন, অতপর তারা ভয় পেল ও তাদের ধনুকে প্রহার করলো। অতপর তারা ালল, হে আরবের সম্প্রদায় তোমাদের কি হলো? তখন আমরা বললাম আমরা এমন একটি এলাকার দিকে যাইতেছি যার অধিবাসীগণ অত্যাচারী। যাতে আল্লাহ তাআলা আমাদের হাতে তা ধ্বংশ করে দেন। অতপর তারা বলল, আল্লাহর কসম আমরা জানিনা কিতাব কি মিথ্যা বলছে না আমরা হিসাবে ভুল করছি। নাকি তোমরা শক্তি প্রয়োগে তাড়াতাড়ি করছো। আল্লাহর কসম আমরা জানি উহা অচিরেই বিজিত হবে। তবে আমরা জানিনা এটাই সেই সময় কিনা।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৪১৮ ]
___________________________________
নঈম বিন হাম্মাদ
আমাদের বলুন কিছু Oceach জন্য সাফওয়ান ইবনে আমর ফারাজ ইবনে প্রশংসা বাকি তার লোকদের বললেন 
আমরা সুফিয়ান বিন আওফ আল ছিল - যতক্ষণ না আমরা এসে ঘামদি থেকে দরজা এর তিনটি কনস্টান্টিনোপল স্বর্ণ দরজা 
থেকে হাজার অশ্বারোহী এমনকি Dzna নদী সমুদ্র পাশ বা উপসাগরীয় বলেন তারা ভীত কালশিটে এবং Noaqayshm বীট 
তখন তাঁরা বললেন , একা কি হে আরবরা 
আমরা কাছে এসে বললেন মানুষ এর গ্রামের এবং অন্যায্য 
মানুষ এর ঈশ্বর আমাদের হাতে বিধ্বস্ত এবং 
তারা আল্লাহকে বললেন , কি আমি জানি থাকা বই 
অথবা আমরা যেতে ভুল অ্যাকাউন্ট অথবা Astjltm 
নিয়তি এবং ঈশ্বরের 
আমি জানি এটা খুলবে এক দিন, কিন্তু আমরা দেখতে পাচ্ছি না যে এই তার হয় সময়
হাদিস - ১৪১৯
- হযরত আবুল ইয়ামান হাওযানী থেকে বর্ণিত তিনি হযরত কা’ব রাযিয়াল্লাহু আনহু হতে বর্ণনা করে বলেন, যখন আমি পশ্চিমের হামাদান কে দেখলাম এমতবস্থায় যে, আমি রুসতান ও হিমসের মাঝামঝি স্থানে অবতরণ করেছি। আর সেখানে যুদ্ধ বিদ্যমান এবং দাজ্জালের অবির্ভাবের স্থান। আমি বললাম, রুসতানে তাদের অবতরণের কারণ কি? তিনে বললেন তাদের পূূর্ব থেকে শত্রুতা।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৪১৯ ]
___________________________________
নঈম বিন হাম্মাদ
আমাদের বলুন 
সাফওয়ান আবে ইয়ামন Alhozna সম্পর্কে ওয়ালিদ 
থেকে গোড়ালি বলেন 
যদি আমি দেখেছি উজ্জ্বল Hamedan ছিল 
হোমস ও Rastan মধ্যে প্রকাশ হয় উপস্থিতি এর মহাকাব্য এবং প্রস্থান এর খ্রীষ্টশত্রু 
আমি বললাম এবং কি Anzlhm Rastan 
শত্রু আড়াল থেকে বললেন
হাদিস - ১৪২০
– হযরত আবু কুবাইল থেকে বর্ণিত তিনি আব্দুল্লাহ ইবনে আমর রাযিয়াল্লাহু আনহু হতে বর্ণনা করে বলেন যে, তিনি বলেন ইরকের অন্তর্গত মাযহাজ ও হামাদান এর (লোকদের) এমনভাকে হত্যা করা হবে যে, সেখানে প্রচন্ড বার্ধক্যতা নেমে আসবে।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৪২০ ]
___________________________________
নাঈম বিন হাম্মাদ - 14২0
আল ওয়ালীদ 
আব্দুল আল্লামা ইবনে আবু কুলবা থেকে ইবনে লাহিয়া বর্ণনা করেছেন যে তিনি 
ইরাক থেকে মধ্য ও হামদান থেকে চলে যাবেন না যতক্ষণ না তারা কানসিনে আসেন
হাদিস - ১৪২১
হযরত খাইমা হযরত আব্দুল্øাহ ইবনে আমর রাযিয়াল্লাহু আনহু হতে বর্ণনা করেন যে, হযরত আব্দুল্লাহ ইবনে আমর রাযিয়াল্লাহু আনহু বলেন, রোম সৈন্য প্রেরণ করবে। তখন সামের অধিবাসীরা সাহায্য কামনা করবে ও ফরিয়াদ করবে। তখন তাদের থেকে একজন মুমিনও থাকবে না। তিনে বলেন তখন রোম এমনভাকে পরাজিত করবে যে, তার স্তম্ভ পর্যন্ত তাদের শেষ করে দিবে। আর উক্ত স্থানটা আমি চিনি। তখন তারা সেখানে অবস্থান করতে থাকবে এমতবস্থায় তারা হাঠাত একটা শব্দ শুনতে পাবে (আর তা হলো) দাজ্জাল তোমাদের পরিবার বর্গের ভিতর পিছু নিয়েছে। থখন তার া তাদের হাতে যা থকবে তা পরিত্যাগ করবে এবং অনুরূপ কিছু গ্রহণ করবে ।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৪২১ ]
___________________________________
নঈম বিন হাম্মাদ
আমাদের বলুন Khaithamh জন্য আবু সিদ Aloamc 
হযরত আবদুল্লাহ ইবনে আমর বলেন 
Simmered 
রোমান Vestmd মানুষ এর সিরিয়া আর চিৎকার করে কাঁদতে তাদের পিছিয়ে না একটি বিশ্বাসী Versmon রোমান বলেন , যতক্ষণ না 
তারা তাদের শেষ টিন পরিচিত ছিল তাদের জায়গা Fbenahm তারপর যেমন এটা আসে থেকে তাদের চিত্কার করে খ্রীষ্টশত্রু পারে হতে 
পিছনে আপনি Aaalkm মধ্যে প্রত্যাখ্যান নীতি এর কি হল তাদের হাতে এবং গ্রহণ তার দিকে
হাদিস - ১৪২২
– যুবাইর বিন নাকীর হতে বর্ণিত তিনি আবু সা’লাবা আল খাসানী থেকে বর্ণনা করে বলেন যে, তিনি বলেন, আমি যখন আরিশ হতে ফুরাত পর্যন্ত এলাকার একটি ঘরের ভোজের অবস্থা দেখলাম (তখনই বুঝলাম) সেটাই যুদ্ধের আলামত।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৪২২ ]
___________________________________
নঈম বিন হাম্মাদ
আমাদের ওয়ালিদ বিন বলুন 
আবু সাঈদ আল থেকে মুসলিম - মাহদি ইবনে সিনান 
জাবির ইবনে Nufayr আবু Zahrieh থেকে 
থেকে 
আবূ সা'লাবাহ্ Khushani বলেন 
তাহলে আপনি এল মধ্যে দেখতে - আরিশ করার ইউফ্রেটিস ভোজ মানুষ এর এক ঘর , এটা হয় 
মহাকাব্য চিহ্নিত
হাদিস - ১৪২৩
- হযরত ইয়াজিদ ইবনে আবুল আতা হযরত কা’ব রাযিয়াল্লাহু আনহু হতে বর্ণনা করে বলেন যে, তিনি বলেন আমার উপর ইয়ামানীর হাত রয়েছে। যে কুরাইশের এক ব্যক্তিকে হত্যা করবে।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৪২৩ ]
___________________________________
নঈম বিন হাম্মাদ
চেয়ে বেশি ওভার ওয়ালিদ বিন সাঈদ ইবনে আবু সম্পর্কে আমাদের বলুন একটি কোমল 
জন্য 
গোড়ালি , বলেন 
হাত এর ইয়ামানী , যারা Krisha নিহত
হাদিস - ১৪২৪
- হযরত মালেক ইবনে আমর কা’ব রাযিয়াল্লাহু আনহু হতে বর্ণনা করে বলেন যে, তিনি বলেছেন ঐ ইয়ামানীর হাত আমার উপর রয়েছে, যা ছোট একরে যুদ্ধ হবে । আর সেট হবে যখন হিরাকেলের পঞ্চ পুরুষ রাজা হবে।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৪২৪ ]
___________________________________
নঈম বিন হাম্মাদ
সিদ ওয়ালিদ বিন সম্পর্কে আমাদের বলুন 
Oirtah হাকীম ইবন আমির জন্য ইয়াহিয়া 
থেকে গোড়ালি , বলেন 
হাত এর যে ইয়ামানী 
হয় একটি 
মহাকাব্য একর 
মাইনর 
তাই যদি রাজা এর প্রতিটি হারকিউলিস পঞ্চম
হাদিস - ১৪২৫
– হযরত আব্দুল্লাহ ইবনে আমর রাযিয়াল্লাহু আনহু হতে বর্ণিত তিনি রাসুল সল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম হতে বর্ণনা করে বলেন যে, রাসুল সল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বলেছেন যখন দুই প্রাচীন রাজত্ব করবে অর্থাৎ প্রাচীন আরব ও প্রাচীন রোম তখন দাদের হাদে যুদ্ধ সৃষ্টি হবে।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৪২৫ ]
___________________________________
নঈম বিন হাম্মাদ
আমাদের বলুন ওয়ালিদ আবু Lahee'ah 
যেমন আবু থেকে 
আবু হযরত আবদুল্লাহ ইবনে আমর , আল্লাহ সন্তুষ্ট হতে পারে সঙ্গে 
নবী , শান্তি হতে উপরে 
তাকে যদি রাজা Aotaiqan প্রাচীন আরব আর প্রাচীন রোমান তাদের হাতের মহাকাব্য ছিল , 
বলেন আবু যেমন এ মহাকাব্য হয় হাত এর Tabars বিন Otitunaian বিন acromion পুত্র এর কনস্টান্টটাইন বেন 
হারকিউলিস
হাদিস - ১৪২৬
- হযরত হুযাইফাতুল ইয়ামান রাযিয়াল্লাহু আনহু হতে বর্ণিত তিনি বলেন রাসুল সল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বলেছেন তোমাদের মাঝে ও রোমের আসফার গোত্রের লোকদের সাথে একটি অস্ত্র বিরতী চুক্তি হবে। অতপর তারা তোমাদেরকে একজন মহিলার মাল পত্রের মাধ্যমে ধোকা দিবে। এবং তারা জলে ও স্থলে বারটি পতাকা নিয়ে তোমাদের দিকে আসবে। এবং প্রত্যেক পতাকার অধীনে বার হাজর সৈন্য থাকবে। এমনকি তারা ইযাফা ও আকা এর মধ্যবর্তী স্থানে অবতরণ করবে। অতপর তাদের রাজা তাদের জাহাজ ছিদ্র করে দিবে। তখন সে তার সাথীদের বলবে, তোমরা দেশ সম্পর্কে যুদ্ধ করো। ফলে তারা যুদ্ধে জড়িয়ে পড়বে। এবং তারা একে অপরে সৈন্য সম্প্রসারণ করবে। এপর্যন্ত যে, তারা তোমাদের মধ্যে যরার ইয়ামেনের হাযরামাউতে থাকবে তাদের সম্প্রসারিত করে দিবে। আর তখনই দয়াময় তাদের মাঝে তার বর্শা দ্বারা আক্রমন করবেন। তাদের মাঝে তার তরবারী দ্বারা আঘাত করবেন। তাদের মাঝে তার তীর নিক্ষেপ করবেন। তার পক্ষ থেকে তাদের জন্য হবে বড় হত্যাযজ্ঞ।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৪২৬ ]
___________________________________
নঈম বিন হাম্মাদ
আমাদের বলুন হাকাম ইবনে Nafie বিন সাঈদ সিনান আবু Zahrieh 
হুযাইফা 
ইবনুল - ইয়ামন আল্লাহ পারে হতে সন্তুষ্ট সঙ্গে তাকে রসূল এর আল্লাহ , সা করার আপনি এবং মধ্যে হতে ছেলেদের এর 
হলুদ রোমান 
সাময়িক যুদ্ধবিরতি 
Vigdron আপনাকে বহন একটি নারী আশি খুব স্থলে ও সাগরে আসা 
সব খুব বারো অধীনে আলফা 
এমনকি জাফা এবং একর মধ্যে বন্ধ বাদ , 
তার রাজত্ব পোড়া তার জাহাজ 
তিনি বলেছেন তার সঙ্গী আপনার দেশের জন্য যুদ্ধ Vilthm যুদ্ধ এবং সেনাদলের একে অপরের এমনকি প্রসারিত 
ইয়েমেন থেকে হাদরামাওতের Amdkm তাদের চ্যালেঞ্জ রহমান দিন তাদের অজুহাত বর্শা হবে এবং তাদের হিট সঙ্গে তার তলোয়ার এবং নিক্ষেপ 
তাদের Bembla এবং তাকে এ তাদের সবচেয়ে বড় বধ
হাদিস - ১৪২৭
– হযরত কা’ব রাযিয়াল্লাহু আনহু হতে বর্ণিত যে, একদল মানুষ ঈদ বা যবাহ এর জন্য বাবের নিকট আসলো। অতপর মদীনার দিকে আসলো। অতপর কাদলো অতপর চলে গেলো। এমনকি বাবুল মুয়াল্লাকায় গেলো, তার সম্মুখীন হলো অতপর প্রচন্ড কাদলো। অতপর কাকে রুসতানে না এস বাবে মুয়াল্লকে আসলো। অতপর তার সম্মুখীন হয়ে প্রচন্ড কাদলো অতপর কাকে মারকীতে আসলো অতপর জানবিয়্যা ও বাবের মধ্যবর্তী স্থানে অবস্থান করলো ও প্রচন্ড হাসলো এবং প্রচন্ড খূশি হলো। অতপর বললো, হে আল্লাহ তোমর জন্য সকল প্রশংসা। এবং সে তাকবীর দিল, তার প্রশংসা করলো, তার তাসবীহ করলো, তার তাকবীর দিলো। অতপর আমি তাকে বললাম, হে আবু ইসহাক মাওকেফে তোমার পিতার কি হলো? সেখানে তুমি কেদেছো ও হেসেছো আর এখানে খুশি হয়েছ্।ো অতপর সে বললো এই শহরের বাসিন্দারা হলো মুসলমান তার তাদের (তীর) ভূমির দিকে পালাতে চাইবে। শত্রুদের দিকে যারা তাদের দিকে আসতে থাকবে সেদিক থেকে। ফলে এমন একজন ব্যক্তিও এই শহরে অবশিষ্ট থাকবে না, যে অস্ত্র ধারণ করতে পারে। তবে তীরের দিকে আকেটি দল ব্যতীত । আর তার অধিবাসী হবে কাফের। তারা একত্রিত হবে। অতপর বলবে, আমরা তোমাদের সাহায্যের জন্য এসিেছ। আর তোমরা তোমাদের শহরে যারা আছে তাদের পরাভূত করেছ। সুতরাং ইহা মুসলমানদের সন্তানাদী ও পরবিার সহ আটকিয়ে দাও। অতপর আল্লাহ তা’আলা মুসলমানদের জন্য খুলে দিবেন। এবংয় তাদেরকে ঐ সমস্ত শত্রুদের বিরূদ্ধে সাহায্য করবেন যারা তাদের নিকট এসেছিল। ফলে তাদের খবর দেয়া হবে যে, তাদের স্ত্রী ও সন্তানাদী সহ আটকিয়ে দেয়া হয়েছে। অতপর তারা অগ্রসর হবে। এমনকি তারা আমার প্রথম স্থানে অবস্থান করবে। তারা তাদের নিকট আল্লাহ ত’আলার আবেদন করবে, আঙ্গীকার ও যিম্মার ব্যাপারে। ফলে তারা কিছুতেই ফিরে ডাবে ন্ াএবং তাদের জন্য খোলাও হবে না। অতপর তারা আমার দ্বিতীয় অবস্থানের স্থানে আসবে। অতপর তারা তাদের নিকট আল্লাহ ত’আলার আবেদন করবে, যিম্মাহ ও অঙ্গীকারের ব্যাপারে। তারা কিঝুতেই তাদের দিকে ফিরে যাবে না। এবং তারা আবাসা গোত্রের এক মহিলার ব্যাপারে তাদের অপবাদ দিবে। অতপর তারা আমার তৃতীয় অবস্থান স্থলে আসবে। অতপর তারা তাদের নিকট আল্লাহ তা’লার আবেদন করবে, তারা কিছুতেই তাদের দিকে ফিরে যাবে না। এবং তাদের জন্য খোলাও হবে না। অতপর তারা আমার অবস্থানের চতূর্থ স্থানে আসবে। অতপর যখন মুসলমানগণ উহা দেখবে আল্লাহ তা’লার দিকে (দোয়া করবে) হাত উঠাবে, তার নিকট আবদন করবে ও সাহায্য কামনা করবে। অতপর আল্লাহর নামে কসম করবে যে, এই বাবে একজন শত্রু, একটা লোহা ও একটা পেরেকও থাকবে না। সব একেবারে ভেঙ্গে ফেলবে। অতপর মুসলমানগণ তাদের উপর ঝাপিয়ে পড়বে। এবং উহর ভিতর এমন একজন কাফেরকেও ছাড়বে না যে, সন্তনা দান করবে। বরং দাদের গর্দানে মারবে। সেদিন তাদের রক্ত তাদের গোড়ার খুড়ের নিচ দিয়ে সমস্ত বাজারের নিচে পৌছাবে।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৪২৭ ]
___________________________________
নঈম বিন হাম্মাদ
আমাদের হাকাম ইবনে Nafie বিন সাঈদ বলুন 
ওয়ালিদ বিন আমের ইয়াযীদ বিন খামির Maitami থেকে সিনান 
সম্পর্কে গোড়ালি যে মানুষ এর যৌগ আসে যখন 
ইহুদিরা দরজা ছত্রাক ও আল - আধা Laa শহর রোদন এবং তারপর গিয়েছিলাম দরজা এর এসেছিলেন সাসপেন্স হয়েছে প্রাপ্তি 
চিৎকার করে বললেন যেমন সবচেয়ে বড় ক্রন্দিত এবং তারপর বন্ধ দরজা ছাড়া এসে দরজা এর Rastan হয়েছে চিৎকার করে বললেন পেয়েছি শক্তিশালী পদ কান্নাকাটি এবং 
তারপর 
এল পূর্ব দরজা মাঝখানে দাঁড়িয়েছিলাম প্লিউরাল এবং দরজা এবং অপহসিত হিসাবে সবচেয়ে বড় 
হাসি এবং আনন্দ মধ্যে শক্তিশালী পদ এর আনন্দ 
বললেন , হে ভগবান , আপনার প্রশংসা এবং করতে আল্লাহ ও প্রশংসা এর ঈশ্বর ও পবিত্রতা বর্ণনা করুন এবং তাঁর বিবর্ধিত 
আমি বললাম করতে তাকে , হে আবু ইসহাক কি 
Obkak মধ্যে অবস্থানের আমি cried যেখানে Odgk হয় এখানে Ofrg 
বলেন যে মানুষ এর থেকে এই শহরে মানুষ এর 
Ssahelhm ইসলামের Istnvron শত্রু যে তার আগে আসে, তিনি এই থাকতে হবে না এটি একটি শহর 
অস্ত্র বহন কেবল turnoff উপকূল থেকে তার দেশের মানুষের কাফের পূরণ 
তারা বলে এসেছে
Mddkm এবং এর আপনার শহর Voglqoha প্রজাতির থেকে Gahrtm এর মুসলমান ও তাদের পরিবারের এবং খোলা 
ঈশ্বর Mslemen এবং তাদের শত্রু কে এসেছিলো বিরুদ্ধে সাহায্য করতে Vijbron তাদের যে তাদের নারী বন্ধ হয়ে গেছে 
এবং তাদের সন্তান 
এমনকি তারা দাঁড়ানো স্বীকার অবস্থানের এর প্রথম ঈশ্বর Vinashidounam চুক্তির এবং প্রকাশ না 
আসতে করতে তাদের সঙ্গে কিছু তাদের খোলা যাচ্ছে না এবং 
তারপর এই অবস্থানে আসা দ্বিতীয় Vinashidounam ঈশ্বর 
এবং ঘোষণা ও চুক্তির আসতে না করতে তাদের সঙ্গে কিছু এবং তাদের সঙ্গে ছুড়ে ফেলে একটি এর নারী নবী নাটের গুরু এবং 
পরে এসে থেকে 
এই অবস্থান তৃতীয় Vinashidounam ঈশ্বর ও প্রকাশ ফেরত না করতে তাদের সঙ্গে কিছু তাদের খোলা যাচ্ছে না এবং 
তারপর 
আসা এই অবস্থান চতুর্থ যেমন পাশাপাশি যদি মুসলমানদের দেখে , তারা তাদের হাত গড অলমাইটি উত্থাপিত 
এসপিএ Gathua তাকে এবং Astnasroh Voksm ঈশ্বর এই বিভাগে প্রতিশ্রুতি কিংবা লোহা ও পেরেক থাকে না 
শুধুমাত্র বিবর্ণতা ও ক্ষতি তাদের মুসলমানদের প্রবেশ কাফের যারা তাকে অনুষ্ঠিত নিঃশ্বাস Ivron না
মাউসী ঘোড়া বাজারে তাদের ঘাড়ে এবং তারপর তাদের ঘোড়া গুলিকে মারধর করে
হাদিস - ১৪২৮
হযরত যাররাহ তিনি আরতাত থেকে বর্ণনা করেন যে, তিনি বলেন, মাহদী আ. ও রোমের অত্যাচারীদের মাছে এবটি চুক্তি হবে। সুফয়ানী হত্যার ও বিকারগ্রস্থের লুণ্ঠের পর। এমনকি তোমাদের ব্যবসা তাদের দিকে পরিবর্তিত হবে। এবং তাদের ব্যবসা তোমাদের দিকে। তারা তাদের জাহাজ তৈরীতে তিন বছর নিবে। অতপর মাহদী আ. ধ্বংশ করে দিবে। অতপর তার পরিবার থেকে এমন একটি ব্যক্তি তার মালিক হবে যে কম ন্যায় বিচার করবে। অতপর উহা চালাবে। অতপর তাকে হত্যা করা হবে। এবং তার আলোচনা শেষ হবে না। এমতবস্থায় রোম (সৈন্য) সুওর ও থেকে আসা পর্যস্ত স্থানে অবস্থান নিবে। আর সেটাই মালাহেম বা যুদ্ধ।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৪২৮ ]
___________________________________
নঈম বিন হাম্মাদ
আমাদের হাকাম ইবনে Nafie বলুন , জন্য ক্ষত 
Oirtah থেকে বললেন করার 
মধ্যে হতে 
মাহদি 
এবং অত্যাচারী এর রোমান 
শান্তি 
পর হত্যা 
Sufiani এবং লুটপাট কুকুর এমনকি তাদেরকে এবং তাদের বণিকদের Tjarkm হয় বিভিন্ন থেকে আপনি এবং নিতে 
মধ্যে গঠনপ্রণালী এর তাদের জাহাজ জন্য তিন বছর এবং 
তারপর ধ্বংস মাহদি 
Vimlk একটি থেকে তার পারিবারিক মানুষ 
সামান্য পরিবর্তন এবং Ugur 
নিহত নিহত ও Antvi বলেন 
যতক্ষণ না রোমানরা টায়ার ও আকিরের মধ্যে প্রতিষ্ঠিত হয়েছিল, ততদিন 
তারা মহাকাব্যিক ছিল

Desktop Site